গর্ভাবস্থার দ্বিতীয় ত্রৈমাসিক: লক্ষণ, শারীরিক পরিবর্তন এবং ডায়েট

গর্ভাবস্থার দ্বিতীয় ত্রৈমাসিক

গর্ভাবস্থার প্রথম ত্রৈমাসিক কোন ছোটখাট অভিজ্ঞতা নয়; সকালের অসুস্থতা এবং বমি বমি ভাব যে কোন কাউকেই অবনমিত করতে পারে। তবে আপনি যখন আপনার দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে পৌঁছেছেন, এই অবস্থা কিছুটা উন্নত হবে। দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকটি সাধারণত সহজতম, এবং প্রচুর মহিলা এটির সুযোগ নেন ও তাদের ছোট্টটির আগমনের জন্য প্রস্তুতি শুরু করেন।

aniview

দ্বিতীয় ত্রৈমাসিক কী?

গর্ভধারণের মোট নয় মাসের হয়, তিনটি ত্রৈমাসিকের প্রতিটিতে তিনটি মাস অন্তর্ভুক্ত। দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকটি গর্ভাবস্থার চতুর্থ থেকে ষষ্ঠ মাস পর্যন্ত হয়, বা অন্য ভাবে বলতে, দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে ১৩তম থেকে ২৮তম সপ্তাহ অন্তর্ভুক্ত থাকে। এটি সেই সময় যখন বেশিরভাগ মহিলাকে আসলে গর্ভবতী বলে দেখাতে শুরু হয়, কারণ তাদের পেট বড় হতে শুরু করে এবং যারা এখনও পর্যন্ত তাদের গর্ভাবস্থাকে সবার সামনে আনেননি, তারা তাদের বন্ধু এবং পরিবারের কাছে এর কথা এই সময় বলতে পারেন।

দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে গর্ভাবস্থার লক্ষণ

বেশিরভাগ মহিলা গর্ভাবস্থার দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে সকালে অসুস্থতাকে বিদায় জানান, তবে প্রথম ত্রৈমাসিকের অন্যান্য লক্ষণগুলি দ্বিতীয়টিতে চলতে থাকার প্রত্যাশা থাকে। কেবল তাই নয়, এর সাথে আরও কিছু নতুন লক্ষণ থাকতে পারে। এখানে সেগুলির কয়েকটি দেওয়া হল:

. শ্বাসকষ্ট

রান্নাঘরে হাঁটার মতো সামান্য ক্রিয়াকলাপগুলিও আপনাকে বেশ দম বন্ধ হওয়ার মতো বোধ করাতে পারে। এর সাধারণ কারণ হল জরায়ু বাড়ার সাথে সাথে এটি ডায়াফ্রামের দিকে ধাক্কা দেয়, যার ফলস্বরূপ আপনার ফুসফুসের বিরুদ্ধে ধাক্কা দেয় এবং বায়ুকে ভিতরে ও বাইরে যেতে বাধা দেয়। যদি আপনার শ্বাসকষ্ট গুরুতর বলে মনে হয়, বা কোন ক্রিয়াকলাপের পরে আপনি যদি অজ্ঞান হয়ে যান, তবে আপনার ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করা উচিত।

. পেটে ব্যথা

আপনার জরায়ু তার চারপাশের লিগামেন্টগুলিকে বাড়াছে এবং প্রসারিত করছে। এই কারণেই আপনি দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে পেটের অংশে কিছুটা অস্বস্তি বোধ করতে পারেন।

. দ্রুততর গতি

প্রায় ২০তম সপ্তাহের কাছাকাছি, আপনি আপনার পেটে কিছু চলাফেরা করার মতো অনুভূতি অনুভব করতে সক্ষম হবেন। এটি কুইকেনিং বা দ্রুততর গতি করা হিসাবে পরিচিত এবং এটি আপনার শিশুর প্রথম সূক্ষ্ম নড়াচড়া। কিছু মহিলা কেবল তাদের ষষ্ঠ মাস থেকে এটি অনুভব করেন। আপনি যদি আপনার দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকের শেষের দিকে এই ব্লিপসঅনুভব করতে শুরু করেন, তবে চিন্তা করবেন না। আপনার শিশু সবেমাত্র তার প্রথম হেঁচকি পাচ্ছে।

. সংবেদনশীল পরিবর্তন

আপনার হরমোনগুলি এখনও উচ্চ উচ্ছাসে রয়েছে, তবে আপনি ইতিমধ্যে তিন মাস ধরে সেগুলির সাথে অভ্যস্থ হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। আপনি দেখতে পাবেন যে এখন আপনার আবেগের উপর আপনার আগের থেকে কিছুটা নিয়ন্ত্রণ রয়েছে।

. পিঠে ব্যথা

আপনার পিঠটি আপনার দ্বারা বহন করা সমস্ত ওজন থেকে চাপ অনুভব করতে চলেছে। এমন চেয়ারগুলি ব্যবহার করা উপকারী হতে পারে যার মধ্যে পিঠকে সমর্থন করার ভাল ব্যবস্থা আছে। আরামদায়ক জুতো পরুন এবং ভারী কিছু বহন করার চেষ্টা করবেন না। আপনি যখন ঘুমোবেন, তখন আপনার কোন এক পাশে ফিরে শুয়ে আপনার পায়ের মাঝে একটি বালিশ রাখুন।

পিঠে ব্যথা

. লিউকোরিয়া

গর্ভাবস্থায় দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে দুধের মতো সাদা স্রাব লিউকোরিয়া নামে পরিচিত এবং এটি গর্ভাবস্থায় বেশিরভাগ মহিলারাই অনুভব করেন। আপনার গোপনাঙ্গ পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করার জন্য একটি প্যাড বা প্যান্টি লাইনার ব্যবহার করুন, তবে একটি ট্যাম্পুন ব্যবহার করবেন না। কারণ, এটি যোনিতে জীবাণু বহন করতে পারে।

. ঘন ঘন মূত্রত্যাগ

আপনার প্রথম ত্রৈমাসিকে আপনাকে সম্ভবত ঘন ঘন লুতে ছুটতে হয়েছে, তবে যেহেতু আপনার জরায়ু দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে আপনার শ্রোণী গহ্বর থেকে দূরে উপরে উঠবে, তাই আপনি জানতে পেরে স্বস্তি পাবেন যে দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে ঘন ঘন প্রস্রাব করার তাড়না আর ততটা শক্তিশালী থাকবে না। এই সুবিধাটি উপভোগ করুন, যদিও আপনার তৃতীয় ত্রৈমাসিকটি আপনাকে আবার সেই অবস্থায় ফিরিয়ে নিয়ে যাবে।

. মাড়ি থেকে রক্তপাত

হরমোনের পরিবর্তনের ফলে কমপক্ষে ৫০% গর্ভবতী মহিলারা মাড়িতে ঘা এবং সংবেদনশীলতার অভিজ্ঞতা পান, কারণ এই অঞ্চলে আরও রক্ত ​​প্রবাহিত হয়। আপনার বাচ্চা হওয়ার পরে এটি বন্ধ হবে। এর মধ্যে, নরম ব্রিজলসহ দাঁত ব্রাশ ব্যবহার করুন এবং দাঁত পরিষ্কার করার সময় মৃদুভাবে করুন। গর্ভবতী মহিলাদের যাদের মাড়ির রোগ রয়েছে তারা অকাল প্রসবের ক্ষেত্রে বেশি ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারেন এবং এমনকি কম জন্মের ওজনযুক্ত একটি শিশুর জন্ম দিতে পারেন।

. নাক বন্ধ এবং নাক থেকে রক্তপাত

আপনার নাকের রেখাযুক্ত শ্লেষ্মা ঝিল্লি ফুলে যেতে শুরু করবে এবং নাক বন্ধের সমস্যা ডেকে আনতে পারে। এর ফলে আপনি নাক ডাকতে পারেন বা আপনার নাক থেকে রক্তক্ষরণ হতে পারে। ডিকনজেস্ট্যান্ট ব্যবহার না করে বাষ্প এবং অন্যান্য প্রাকৃতিক পদ্ধতি ব্যবহার করে দেখুন। যদি আপনি নাক থেকে রক্ত ঝরা অনুভব করেন, আপনার মাথা সোজা রাখুন এবং রক্তপাত বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত নাকের ফুটোর দিকে চাপ দিয়ে রাখুন।

১০. মাথা ব্যথা

প্রায় প্রতিটি গর্ভবতী মহিলাই মাথা ব্যথা অনুভব করেন। এটি সবচেয়ে সাধারণ অভিযোগগুলির মধ্যে একটি। আপনার মাথাব্যথার জন্য অ্যাসপিরিনের মতো সাধারণ ওষুধগুলি গ্রহণ করা উচিত নয়। তবে তার পরিবর্তে, আপনার গর্ভাবস্থায় গ্রহণের জন্য যে ওষুধ নিরাপদ সেগুলি সম্পর্কে আপনার ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন।

১১. কোষ্ঠকাঠিন্য এবং অম্বল

গর্ভাবস্থায়, আপনার শরীর প্রোজেস্টেরননামক একটি হরমোন তৈরি করে যা কিছু পেশীর উপর প্রভাব ফেলে। যে পেশী আপনার অন্ত্রের মধ্য দিয়ে হজম হওয়া খাবারকে সরিয়ে নিয়ে যায় এবং আপনার রিং আকারের পেশীকে শিথিল করে যা খাবার ও অ্যাসিডকে আপনার পাকস্থলিতে নামায়। প্রতিদিন অল্প অল্প করে বারে বারে খাবার খাওয়ার চেষ্টা করুন এবং আপনার ডায়েটে আরও ফাইবার খাবার অন্তর্ভুক্ত করুন।

১২. অর্শ

মলদ্বারের চারপাশে ফোলা নীল এবং বেগুনি শিরাগুলিকে ভ্যারিকোজ শিরা বলে। আপনার গর্ভাবস্থায় এগুলি বাড়তে পারে, কারণ আপনার ক্রমবর্ধমান জরায়ুর কারণে সেগুলির উপর চাপ বাড়ছে। এ থেকে মুক্তি পেতে, একটি উষ্ণ স্নানে বসুন বা আপনার ডাক্তারকে কিছু ওষুধ লিখে দিতে বলুন।

ভ্রূণের বিকাশ

আপনার বাচ্চা এই ত্রৈমাসিকের নিজের বৃদ্ধিতে খুব ব্যস্ত থাকে। দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকটি শেষ হয়ে গেলে আপনার পেটে আপনার শিশুর ওজন ১ কেজি হবে। আপনার শিশু এমনকি আপনাকে লাথিও মারতে শুরু করতে পারে। আপনার গর্ভাবস্থার দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে আপনার শিশু কীভাবে বৃদ্ধি পায় তা এখানে:

. চুল, ত্বক এবং নখ

আপনার শিশুর প্রথম চুল প্রায় ১৫তম সপ্তাহে বৃদ্ধি পেতে শুরু করবে এবং ২২ সপ্তাহে তার চোখের পাতা এবং ভ্রু তৈরি হবে। আপনার শিশুর ত্বক এমন কিছুতে আবৃত হবে যা লানুগো নামে একটি পশমের কোটের অনুরূপ হয়। ১৯ত্ম সপ্তাহের মধ্যে আপনার শিশু তেল এবং ভার্নিক্স কেসোসা নামে মরা ত্বকের কোষগুলিতে আচ্ছাদিত হবে। এটি আপনার পেটের অ্যামনিয়োটিক অ্যাসিডগুলি থেকে আপনার শিশুকে রক্ষা করবে। এটি আপনার শিশুর জন্মের আগেই সরে যাবে।

. ইন্দ্রিয়অনুভূতি

২২ সপ্তাহে আপনার শিশু গন্ধ পেতে শুরু করবে। তার চোখ ও কানও সঠিক জায়গায় চলে যাবে এবং খোলার অর্থ, সে দেখতে ও শুনতে শুরু করবে।

ইন্দ্রিয়-অনুভূতি

. মস্তিষ্ক

আপনার শিশুর মস্তিষ্ক দ্রুত বিকাশ পাচ্ছে, এটি তাকে বিকাশ পাওয়া সমস্ত ইন্দ্রিয়গুলি ব্যবহার করতে সক্ষম করে। ২৩তম সপ্তাহের মধ্যে তার ছোট মস্তিষ্ক তাকে চোখের পাতা ফেলতে সহায়তা করবে।

. হার্ট

১৭তম সপ্তাহটি একটি সাধারণ, অনিয়ন্ত্রিত স্পন্দনের পরিবর্তে আরও নিয়ন্ত্রিত হার্টবিট নিয়ে আসে। ২০তম সপ্তাহে, আপনি স্টেথোস্কোপ দিয়ে এটি শুনতে সক্ষম হতে পারেন। ২৫তম সপ্তাহে সারা শরীর জুড়ে সমস্ত অক্সিজেনযুক্ত রক্ত ​​বহন করার জন্য গঠন শুরু হয়।

. হজম ব্যবস্থা

আপনার দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকের শুরুতে আপনার শিশুর হজম ব্যবস্থার ইতিমধ্যে বিকাশ হবে। দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে, সে চুষতে এবং গিলতে শিখবে। আপনি যে খাবার খান, আপনার শিশু তা অ্যামনিয়োটিক তরলের মাধ্যমে স্বাদ নিতে সক্ষম হবে। এটি পরবর্তী জীবনে তার পছন্দগুলি নির্ধারণ করবে তাই প্রচুর ফল এবং শাকসব্জী খেতে ভুলবেন না। যদিও আপনার শিশুর সমস্ত পুষ্টি আপনার প্লাসেন্টার মাধ্যমে তার শরীরে যায়, তবে আপনার শিশুর শরীর থেকে বর্জ্য ত্যাগ করার ব্যবস্থা এখন খুব ভাল কাজ করবে এবং আপনার শিশু প্রতি ৪০ মিনিটে প্রস্রাব করবে।

দেহে পরিবর্তন

দ্বিতীয় ত্রৈমাসিক তুলনামূলকভাবে প্রথম এবং তৃতীয়ের তুলনায় বেশি স্বাচ্ছন্দ্যপূর্ণ, আপনার দেহে এমন কিছু পরিবর্তন হবে যার সম্পর্কে আপনার সচেতন হওয়া উচিত।

. হরমোনের পরিবর্তন

ইস্ট্রোজেন ও প্রোজেস্টেরনের হঠাৎ পরিবর্তন এবং অন্যান্য অনেক হরমোনের পরিমাণ ও কার্যকারিতা আপনার শরীরে বিভিন্ন পরিবর্তন আনবে যা কেবল আপনার মেজাজকেই প্রভাবিত করবে না, পাশাপাশি আপনার ভ্রূণের বিকাশে সহায়তা করবে এবং আপনি যে পরিমাণ শারীরিক অনুশীলন পরিচালনা করতে পারেন তাতেও প্রভাব ফেলবে।

. সংবেদনশীল পরিবর্তন

গর্ভাবস্থায় আপনার দৃষ্টি, স্বাদ এবং গন্ধ সব পরিবর্তিত হবে। কিছু মহিলার দুর্বল দূরদৃষ্টি, অস্পষ্ট দৃষ্টিশক্তি অথবা কনট্যাক্ট লেন্স পরার সময় জ্বালা হতে পারে। এই সময় মহিলারা আরও সুস্বাদু বা মিষ্টি খাবার পছন্দ করতে শুরু করার সাথে সাথে তাদের স্বাদকোরকেও পরিবর্তন আসে এবং বিভিন্ন খাবারের জন্যও উচ্চ সহনশীলতা থাকে। কিছু মহিলা গর্ভাবস্থায় বিভিন্ন সুবাসে আরও সংবেদনশীল হন বলে দাবি করেন।

. স্তনের পরিবর্তন

স্তনের ব্যথা কমে যেতে পারে, আপনার স্তনগুলি আপনার দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে আরও বড় হতে চলেছে, কারণ তারা আপনার শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ানোর জন্য প্রস্তুত হয়। ভাল সাপোর্টিভ ব্রা ব্যবহার করা বুদ্ধিমানের কাজ। দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে, বেশিরভাগ মহিলারা একটি ঘন হলুদ বর্ণের উপাদান, যা কোলোস্ট্রাম নামে পরিচিত, তা তাদের স্তন থেকে বের হওয়ার অভিজ্ঞতা পেতে শুরু করবেন এবং এটি হল মায়েরা দ্বারা উৎপাদিত প্রথম দুধ।

. জরায়ুর পরিবর্তন

গর্ভাবস্থা এবং প্রসবের সময়, সারভিক্সে (জরায়ুর প্রবেশপথ) কিছু পরিবর্তন হয়। জরায়ুর টিস্যু ঘন ও দৃঢ় হয়। আপনার প্রসবের কয়েক সপ্তাহ আগে, জরায়ুর দেয়ালগুলি নরম হয়ে যায় এবং কিছুটা বিস্তৃত হতে পারে।

. ত্বকের পরিবর্তন

হরমোনের পরিবর্তনের ফলে বেশিরভাগ মহিলারা গর্ভবতীর জেল্লাউপভোগ করেন। কারণ হরমোনের মাত্রার পরিবর্তন আপনার চেহারাটিকে উজ্জ্বল দেখায়। কিছু মহিলার মুখের ত্বক আগের থেকে কালচে হয়ে যেতে পারে, যা গর্ভাবস্থার মুখোশহিসাবে পরিচিত। পেটের মাঝবরাবর একটি গাঢ় রেখা তৈরি হয় এবং প্রসারিত ত্বক বা স্ট্রেচ মার্কসের কারণ হয়। আপনার শিশুর জন্মের পরে এগুলি সবই স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসা উচিত।

. চুল এবং নখের পরিবর্তন

আপনার চুল এবং নখও বদলে যায়। কিছু মহিলা গর্ভাবস্থায় চুল পড়ার অভিজ্ঞতা পান। অন্যদের সম্পূর্ণ বিপরীত অভিজ্ঞতা হয় এবং পরিবর্তে অনেক ঘন চুল থাকে যা কখনও কখনও অযাচিত জায়গায়ও বেড়ে যায়।

নখের সাথেও একই গল্প, অনেকে নখের বৃদ্ধির দ্রুততার অভিজ্ঞতা লাভ করেন, অন্যরা দেখতে পান যে তাদের নখ আরও ভঙ্গুর হয়ে যায়।

. স্পাইডার এবং ভেরিকোজ শিরা

আপনার শরীর আপনার বাচ্চাকে অতিরিক্ত রক্ত ​​প্রেরণ করার সাথে সামঞ্জস্য লাভ করার সাথে সাথে আপনার রক্ত ​​সঞ্চালন বাড়তে পারে। সমস্ত অতিরিক্ত রক্ত ​​প্রবাহ আপনার ত্বকে ছোট ছোট লাল শিরা, বা মাকড়সার জালের মতো শিরাগুলির ফুটে ওঠার কারণ হয়।

আপনার ক্রমবর্ধমান শিশুর চাপের ফলে আপনার পায়ে শিরা ফুলে উঠতে পারে এবং এগুলি বেগুনি বা নীল রঙের দেখাবে। এগুলিকে ভ্যারিকোজ শিরা বলা হয়। এগুলি থামানোর কোনও সঠিক উপায় নেই, তবে বেশি চলাফেরা করা এবং দীর্ঘ সময় ধরে বসে থাকা এড়ানো আপনাকে আরও আরামদায়ক করে তুলতে পারে ও এগুলি আরও খারাপ হওয়া থেকে রোধ করতে পারে। আপনার প্রসবের পরে এগুলি বিবর্ণ হয়ে যাওয়া উচিত।

ওজন বৃদ্ধি

আপনার সকালের অসুস্থতা কেটে যাওয়ার সাথে সাথে আপনার ক্ষুধা বাড়বে এবং আপনার যে সমস্ত অভ্যাস রয়েছে তাতে প্ররোচিত হওয়ার পাশাপাশি ভারসাম্যযুক্ত খাবার খাওয়ায় আটকে থাকার চেষ্টা করুন, কারণ আপনার খুব বেশি ওজন বাড়া উচিত নয়। দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে কাঙ্ক্ষিত ওজন বৃদ্ধি হল প্রতি সপ্তাহে ১ পাউন্ড বা ১/২ কেজি।

পরীক্ষা এবং স্ক্যান

গর্ভাবস্থার সবচেয়ে সাধারণ তিনটি সমস্যা হল প্রিক্ল্যাম্পসিয়া, গর্ভকালীন ডায়াবেটিস এবং উচ্চ রক্তচাপ। প্রিক্ল্যাম্পসিয়ার সম্ভাবনা যাচাই করার জন্য, প্রস্রাবে থাকা প্রোটিনের উপাদানগুলি পরীক্ষা করা হয়। গর্ভকালীন ডায়াবেটিসের জন্য, সাধারণত দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকের শেষে গ্লুকোজ স্ক্রিনিং করা হয়। ১৫ এবং ২০তম সপ্তাহের মধ্যে আপনাকে আরও একটি রক্ত ​​পরীক্ষা করতে হবে। আপনার শিশুর জন্মের তারিখটি নির্ধারণের জন্য এই সময় আল্ট্রাসাউন্ডের পরামর্শ দেওয়া হবে।

চেষ্টা করার জন্য ব্যায়াম অনুশীলন

গর্ভাবস্থা অত্যন্ত কষ্টসাধ্য হতে পারে, তবে কিছু ব্যায়াম অনুশীলন আপনাকে অনেক সহায়তা করবে। গর্ভাবস্থায় যে সমস্ত মহিলারা ব্যায়াম অনুশীলন করেন তারা কম পিঠব্যথা, আরও ভাল শারীরিক গঠন এবং আরও বেশি শক্তি অনুভব করেন। চেষ্টা করার জন্য এখানে কয়েকটি ব্যায়াম দেওয়া হল:

. পাইল বা স্তূপ

আপনাকে চেয়ারের পেছনের সমান্তরালভাবে দাঁড়াতে হবে। চেয়ারের পিছনে একটি হাতকে রাখুন এবং আপনার পাগুলিকে আপনার পাছার মতো দূরত্বে ছড়িয়ে দিন। আপনার পেটটি টানুন এবং আপনার হাঁটুকে বাঁকান, আপনার শরীরের উপরের অংশ না বাঁকিয়ে আপনার শরীরকে নীচে নামিয়ে দিন। আপনার পা সোজা করুন এবং পুনরাবৃত্তি করুন।

. প্ল্যাঙ্ক বা পাটা

প্রথমে আপনার হাঁটু ভাঁজ করে দাঁড়ান, আপনার কব্জি সরাসরি আপনার কাঁধের সমান্তরাল রাখুন এবং তারপরে আপনার পা সোজা করুন। আপনার পেট ঝুলতে বা আপনার পিঠকে পিছন দিকে বাঁকতে দেবেন না।

. কার্ল অ্যান্ড লিফট

একটি চেয়ারে বসুন এবং আপনার পিঠ সোজা রাখুন। আপনার সাথে দুটি ওজন থাকা উচিত, প্রতিটি প্রায় ৫ থেকে ৭ পাউন্ড। আপনার হাতদুটি বাঁকানো রাখুন এবং আপনার উরুর সাথে সমান্তরাল রাখুন। ওজন কাঁধের উচ্চতায় না আসা পর্যন্ত ধীরে ধীরে আপনার হাতের কনুইদুটিকে বাঁকিয়ে রাখুন। সোজা করে আরম্ভের অবস্থানে ফিরে যান।

দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকের ডায়েট

আপনার শিশু বড় হওয়ার সাথে সাথে আশা করা যায় যে আপনি আরও ক্ষুধার্ত বোধ করবেন। সুষম ডায়েট বজায় রাখা জরুরী যাতে আপনার শিশুকে তার বিকাশের জন্য প্রয়োজনীয় সমস্ত সঠিক পুষ্টি দেওয়া যায়।

যে খাবারগুলি খেতে হবে

  • প্রতিদিনের জন্য বিভিন্ন শাকসব্জী বেছে নিন। নিশ্চিত করুন যে আপনার প্লেট সবসময় নানা রঙের খাবারে পূর্ণ থাকে। দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে, আপনার ডায়েটে ফল হল একান্ত প্রয়োজনীয়।
  • রুটি, চাল, আলু, পাস্তা এবং সিরিয়ালগুলির মতো স্টার্চী সমগ্র শস্যের শর্করা যুক্ত করুন।
  • আপনি পর্যাপ্ত পরিমাণে ক্যালসিয়াম পাচ্ছেন তা নিশ্চিত করার জন্য লোফ্যাটযুক্ত দুগ্ধ অন্তর্ভুক্ত করুন।
  • মাংস, মাছ, ডাল এবং ডিম জাতীয় প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার খান।
  • ওমেগা৩ পাওয়ার জন্য সপ্তাহে একবারে কিছু তৈলাক্ত মাছ খান যা আপনার শিশুর মস্তিষ্কের বিকাশে সহায়তা করবে।
  • চিপস এবং কুকিজের মতো স্ন্যাকসের পরিবর্তে স্বাস্থ্যকর স্ন্যাকস যেমন টোস্ট, ফল, স্যান্ডউইচ ইত্যাদি খাওয়ার চেষ্টা করুন।

দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকের ডায়েট

যে খাবারগুলি এড়াতে হবে

  • লিভার এবং লিভার থেকে তৈরি পণ্যগুলিতে ভিটামিন এএর ​​বিষাক্ত মাত্রা রয়েছে।
  • কিছু মাছ যেমন সোয়ারডফিশ, হাঙ্গর এবং মার্লিন।
  • কাঁচা বা আধসিদ্ধ মাংস, ডিম বা মাছ।
  • আনপেস্টুরাইজড চীজ বা পনির।
  • কফি, আপনি যদি সত্যিই কফি পান করতে চান তবে আপনি সর্বদা ডিক্যাফে স্যুইচ করতে পারেন।
  • অ্যালকোহল।

দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকের করণীয় তালিকা

দুটি কাজ করার তালিকা তৈরি করা সর্বদা সেরা; একটি মেডিকেল ও স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সমস্যার জন্য এবং অন্যটি অন্যান্য বিষয়ের জন্য। গর্ভাবস্থার দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে আপনাকে নিজের যত্ন নিতে সহায়তা করার জন্য আমাদের এখানে কয়েকটি পরামর্শ রয়েছে:

মেডিকেল এবং স্বাস্থ্য সংক্রান্ত তালিকা

  • আপনার ডাক্তারের অ্যাপয়েন্টমেন্টগুলির সময়সূচী লিপিবদ্ধ করুন এবং সেগুলি নিশ্চিত করে নিন।
  • কোন অযাচিত সমস্যা এড়াতে আপনার দাঁতের জন্য সমস্ত কাজ করছেন তা নিশ্চিত করে নিন।
  • গর্ভাবস্থা ব্যায়াম অনুশীলনের প্রোগ্রামে যোগদান করুন বা ঘরে বসে করার জন্য কিছু অনুশীলন সন্ধান করুন।
  • স্বাস্থ্যকর ডায়েটে লেগে থাকুন।
  • প্রসব শ্রমের সময় আপনি একটি দোউলার সাহায্য চান কিনা তা সিদ্ধান্ত নিন।
  • গর্ভাবস্থার পরবর্তী পর্যায়ে প্রস্তুত হতে সহায়তা করার জন্য প্যারেন্টক্রাফ্ট বা প্রসবপূর্ব ক্লাসগুলির সন্ধান করুন।
  • আপনার ওজনের উপর নজর রাখুন। দুজনের জন্য খাওয়া“-র ভুল ধারনায় থাকবেন না এবং মনে রাখবেন যে আপনার প্রতিদিন কেবল ৩০০ অতিরিক্ত ক্যালোরি গ্রহণ করা উচিত।
  • আপনার বাম দিকে পাশ ফিরে ঘুমান, কারণ এটি প্লাসেন্টায় রক্তের প্রবাহকে বাড়িয়ে তোলে।
  • ফ্লুর মরসুমে টিকা নিন।

অন্যান্য বিষয়ের করণীয় তালিকা

  • প্রসূতির জন্য পোশাক কেনাকাটা করতে যান। আপনার গর্ভাবস্থার বাকি অংশতে আপনার স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করা উচিত, কারণ আপনি প্রচুর পরিমাণে বৃদ্ধি পাচ্ছেন।
  • আপনার সঙ্গীর সাথে বসে শিশুর নাম নিয়ে আলোচনা করুন।
  • আপনার শিশু আসার আগে এবং পরে আপনার এখন প্রচুর অর্থ ব্যয় করার প্রয়োজন। তাই বাজেট তৈরি করুন। এই জিনিসগুলির জন্য পরিকল্পনা করা ভাল, যাতে পরে আপনি কোনও সমস্যায় না পড়েন।
  • আপনার বাড়িকে শিশুর উপযুক্ত করুন এবং এমন কোন কিছু সরিয়ে দিন যা শিশুবান্ধব নাও হতে পারে। আপনি আপনার সন্তানের ঘর সাজানোর আনন্দও নিতে পারেন।

দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে জন্য সাবধানতা

আপনার গর্ভাবস্থার দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে আপনার কিছু সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত:

  • কেবলমাত্র আপনার চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী পরিপূরক গ্রহণ করুন।
  • আপনার পেটে ভর দিয়ে কখনই ঘুমোবেন না তা নিশ্চিত করুন, কারণ এতে আপনার শিশুর শ্বাসরোধ হতে পারে।
  • যেকোন মূল্যে নিজে নির্ধারণ করে ওষুধ খাওয়া এড়িয়ে চলুন এবং অসুস্থ বোধ করলে সর্বদা আপনার ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন।
  • ভারী জিনিস তুলবেন না বা খুব কঠোর কিছু করবেন না।

নজর রাখার মতো সতর্কতা লক্ষণগুলি

কিছু সতর্কতা চিহ্ন যা আপনাকে নজর রাখতে হবে তা হল:

  • রক্তপাত, যার অর্থ অ্যাক্টোপিক গর্ভাবস্থা বা গর্ভপাত হতে পারে।
  • চরম মাথা ঘোরা।
  • পেটে মারাত্মক খিঁচুনি বা পেটে ব্যথা।
  • দ্রুত ওজন বৃদ্ধি বা দ্রুত ওজন হ্রাস।
  • দুর্গন্ধযুক্ত স্রাব বা এটি অন্য কোন রঙের হতে পারে, যেমন সবুজ, হলুদ, স্বচ্ছ বা রক্তাক্ত।
  • ক্রমাগত এবং গুরুতর মাথাব্যথা, পেটে ব্যথা এবং ফোলাভাব সাধারণত যখন মা ২০ সপ্তাহের গর্ভবতী হন। এগুলি হল প্রিক্ল্যাম্পশিয়ার লক্ষণ।
  • আপনার শিশু যদি আগে খুব সক্রিয় ছিল, তবে আপনি ৬ মাসের গর্ভবতী হওয়ার পরে আপনার শিশুর কম ক্রিয়াকলাপ থাকে, এটি কোন সমস্যার লক্ষণ হতে পারে।

যদিও এই সমস্ত প্রস্তুতি আপনাকে কখনো কখনো সামনে কি আসতে চলেছে তা নিয়ে উদ্বিগ্ন ও চিন্তিত করে তুলতে পারে, যতক্ষণ না আপনি আপনার চেকলিস্টের সমস্ত কিছু সঠিক ভাবে বজায় রাখেন, বিশেষত সুষম ডায়েট, প্রচুর পরিমাণে জল পান করা এবং প্রচুর পরিমাণে বিশ্রাম করা। তবে দৈনিক ব্যায়াম অনুশীলন করার জন্য কিছুটা সময় দেওয়ায় যেন আপনি ঠিক থাকবেন। আপনার ডাক্তার আপনাকে এই ব্যাপারে গাইড করতে এবং আপনার যে কোনও প্রশ্নের উত্তর দিতে সক্ষম হবেন। শেষ অবধি, আপনি আপনার শিশুকে নিজের হাতে আলিঙ্গন করবেন এবং তাই এই মাসগুলিতে সমস্ত অস্বস্তি তার এত খারাপ লাগবে না।