শীতে কীভাবে শিশুকে উষ্ণ রাখবেন- টিপস এবং কৌশলগুলি

শীতে কীভাবে শিশুকে উষ্ণ রাখবেন- টিপস এবং কৌশলগুলি

ইতিমধ্যেই শীত অগোচরে এসে পড়েছে, আর কেউই চায় না সারা শীতকাল ধরে ঘরের ভিতরে বন্দি হয়ে থাকতে।প্রত্যেকেরই, এমনকি নবজাত এবং সদ্য হাঁটতে শেখা ছোট শিশুদেরও প্রয়োজন বিশুদ্ধ বায়ু।তবে শিশুকে শীতকালে উষ্ণ রাখা অথচ যাতে সে গরম বোধ করতে শুরু না করে তার জন্য খুব বেশি স্তরের মোটা আচ্ছাদন দ্বারা আবৃত করে না রাখার মাঝে একটা সামঞ্জস্য বজায় রেখে চলা বেশ কৌশলের একটা কাজ।সুতরাং চলুন খোঁজ করা যাক এমন কিছু চমৎকার উপায়, যার দ্বারা নিশ্চিত করা যায় যে আপনার নবজাত শিশুটি শীতের সময় কোনওরকম অস্বস্তিবোধ না করেই উষ্ণ এবং সুস্থ থাকতে পারে।

aniview

শীতের রাতে শিশুকে উষ্ণ রাখা

প্রাপ্তবয়স্কদের মতো করে বাচ্চারা (বিশেষত 2 বছরের কম বয়সী) তাদের দেহের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম নয়।শীতের শুরুতে, আপনি হয়ত খেয়াল করবেন যে কীভাবে শিশুর হাতপাগুলি ঠান্ডা হয়ে যায় এবং তা গরম রাখার জন্য অবিলম্বে আপনি কিছু করতে চাইবেন।তাদের জন্য উপযুক্ত শারীরিক তাপমাত্রা বজায় রাখার জন্য রাত্রি বেলা ঘুমানোর সময় তাদের আরামদায়কভাবে চাপা দিয়ে দেওয়াটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।তবে, কিছু গবেষণায় দেখা গেছে যে পোশাকের অতিরিক্ত স্তর হঠাৎ শিশু মৃত্যু সিনড্রোমের (এসআইডিএস) ঝুঁকি বাড়িয়ে তোলে।

যদিও শীতকালে ঘুমের সময় বাচ্চাকে উষ্ণ রাখাটা জরুরী, তবে সেক্ষেত্রে এমন কয়েকটি মূখ্য বিষয়ও রয়েছে যেগুলি এসআইডিএসএর ঝুঁকি হ্রাস করার জন্য মনে রাখতে হবে।তাহলে আসুন এবার দেখে নেওয়া যাক যে আপনার বাচ্চাকে শীতের সময় গরম রাখার জন্য আপনি কী কী করতে পারেন।

রাত্রে আপনার বাচ্চাকে উষ্ণ রাখার জন্য আপনি কী কী করতে পারেন

আগেই যেরকম বলা হয়েছে যে, শিশুরা তাদের দেহের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না।শীতের গরম জামাকাপড় পরিয়ে এবং ঘরের তাপমাত্রায় সামঞ্জস্য এনে মাবাবারই সেটি রক্ষা করা দরকার।এখানে বলা হল রাত্রে কীভাবে আপনি আপনার ছোট্টটিকে উষ্ণ রাখবেন যাতে সে আরাম করে ঘুমাতে পারে।

  • আপনার শিশুর ঘরের তাপমাত্রার জন্য আদর্শ পরিসরটি 20-22.2 ডিগ্রী সেলসিয়াসের মধ্যে হওয়া উচিত।
  • শীতের রাতে ঘুমানোর সময় আপনার শিশুকে গরম রাখার সবচেয়ে সেরা উপায় হল তাকে পায়ের তলা পর্যন্ত একটি স্লিপস্যুট পরানো, যাতে সেটি তার পা এবং পায়ের আঙ্গুলগুলিকেও উষ্ণ রাখে।যদি আপনার শিশুর ঘরটি তাপমাত্রার স্কেলের শীতল প্রান্তে থাকে তবে তার স্লিপসুটের তলায় একটি পাতলা গেঞ্জি বা জামা পরিয়ে রাখুন।
  • শীতল আবহাওয়া এবং অতিরিক্ত জামাকাপড়ের কারণে হয়ে থাকা চুলকানি এবং ত্বকের শুষ্কতা এড়াতে বাটার এবং মিল্ক ক্রিম সমৃদ্ধ একটা ভাল ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন।
  • বাইরে যদি ভীষণ ঠাণ্ডা থাকে আপনার ঘরের জানলাগুলি বন্ধ রাখুন, তবে আপনার শিশুর কক্ষটিকে বায়ুচলাচল যোগ্য রাখাটাও নিশ্চিত করবেন।তার ঘরে আপনি একটি রুম হিটার বা হিউমিডিফায়ার রাখতে পারেন যা প্রয়োজন অনুযায়ী ব্যবহার করতে পারবেন এবং আপনার সোনাকে রাত্রে উষ্ণ এবং আরামদায়কভাবে রাখতে পারবেন।
  • যদি আপনার মনে হয় যে শীতের রাতে আপনার শিশুর জন্য কেবল এক সেট সুটই যথেষ্ট নয়, তবে তার আরাম এবং শান্তিপূর্ণ ঘুমের জন্য একটা নরম কম্বল দিয়ে তাকে ভালোভাবে জড়িয়ে দিন।যদি সে পা ছুঁড়ে কম্বলটা বারবার খুলে ফেলে, তবে তাকে একটা স্লিপিং ব্যাগে রেখে দিতে পারেন।
  • এছাড়াও, শীতের ঠাণ্ডায় আপনার শিশুকে অতিরিক্ত স্বাচ্ছন্দ্য দিতে আপনার দেহের উষ্ণতা কাজে লাগানোর একটা দুর্দান্ত উপায় হল বেবি ক্যারিয়ারগুলির ব্যবহার।
  • একটা উপযুক্ত সুতির চাদর এবং একটা নরম, তুলতুলে কম্বল শিশুকে তার বিছানার মধ্যে গরম রাখতে পারে।তাছাড়াও, পাতলা কম্বলের কিছু অতিরিক্ত স্তর তার গায়ে চাপা দেওয়া অথবা তার গা থেকে সরিয়ে দেওয়া যেতে পারে, ঘরের তাপমাত্রার উপর নির্ভর করে।বিকল্পরূপে, একটি ছোট শিশুকে রাত্রে উষ্ণ এবং আরামদায়ক রাখার জন্য একটা বেবি স্লিপিং ব্যাগ বা স্লিপস্যাকের ব্যবহার সেরা বিকল্প হয়ে উপঠতে পারে।
  • বাচ্চাকে বিছানায় শোয়ানোর আগে কিছু সময়ের জন্য তার বিছানার মধ্যে একটা হট ওয়াটার ব্যাগ বা হিটিং প্যাড রেখে দিলে তা তার ঠাণ্ডা চাদরে একটি অতিরিক্ত উষ্ণতা যোগ করবে।এটি আবার বাচ্চার বিছানাটিকেও গরম রাখে আর তাকে আরাম করে ঘুমাতে দেয়।
  • আপনার বাচ্চা যদি কম্বল চাপা দেওয়ার খুব একটা বড় ভক্ত না হয়, তবে দস্তানা ও মোজার দ্বারা তার হাত এবং পাগুলিকে গরম রাখুন।

সুরক্ষা টিপ

  • বিছানায় বা বাড়ির কোথাও ঘুমানোর সময় শিশুর মাথা ঢেকে রাখবেন না।এটি তার দেহে অতিরিক্ত উত্তাপ সৃষ্টির কারণ হয়ে উঠতে পারে, যেহেতু অতিরিক্ত পরিমাণে তাপ শিশুর মাথার মাধ্যমে উৎপন্ন হয়।আপনার শিশু একবার ঘুমিয়ে পড়ার পরে, সে ঘামছে, গরমে রাঙা হয়ে উঠছে বা দ্রুত শ্বাস ফেলছেচ কিনা তা লক্ষ্য করুন। তার ঘরের তাপমাত্রা কমিয়ে দিন অথবা শুধুই তার চাপা বা মাথার টুপি খুলে সরিয়ে দিন।

সুরক্ষা টিপ

শীতের সময় বাইরে বেরোনোর জন্য শিশুকে সেরকম উপযুক্ত পোশাক পরান

আপনার ছোট্টটির সাথে শীতল ও কনকনে ঠাণ্ডা আবহাওয়ার শিরোনামটি উঠে আসার সময় স্বাভাবিকভাবে চলে আসা চলতি সেই নিয়মটিকেই কেবল গ্রহণ করুন, যা হল আপনার শিশুকে আপনি যা পরে থাকেন তার তুলনায় আরও একটি স্তর অতিরিক্ত পোশাক পরানো প্রয়োজন।এক্ষেত্রে তার গরম আরামদায়ক পোশাক এবং কোটগুলি থেকে শুরু করে হিটার এবং হিউমিডিফায়ার পর্যন্ত এমন অনেক জিনিস রয়েছে যেগুলির কথা আপনার বাচ্চাকে নিয়ে বাড়ি থেকে বেরোনোর আগে বিবেচনা করা দরকার।বাড়ির বাইরে আপনার শিশুকে উষ্ণ রাখার ক্ষেত্রে আপনার জানার প্রয়োজন হতে পারে এমন কিছু টিপস এবং কৌশলগুলি এখানে আলোচনা করা হল।

বাড়ির বাইরে আপনার বাচ্চাকে গরম রাখার জন্য আপনি কী কী করতে পারেন

  • আপনার শিশুকে সবসময় তার পোশাকের তলায় একটা পাতলা আস্তরণ বা স্তর আছে এজাতীয় পোশাক করান যাতে তার মাঝে তাপ আটকে থাকে।শুরুতেই একটা পাতলা ও নরম সুতির টেপজামা বা গেঞ্জি পরান এবার তার ওপর ফুলহাতা টিশার্ট ও লেগিন্স পরান।আর বাইরে যদি মারাত্মক ঠাণ্ডা হয়, তবে আপনি তার উপর আবার একটা শীতের জ্যাকেট পরিয়ে দিতে পারেন।
  • আপনার বাচ্চাকে নরম ও বায়ু চলাচলযোগ্য কাপড়ের পোশাকের স্তরগুলি পরান।
  • শীতের সময় আপনার বাচ্চার জন্য আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ জিনিস হল টুপি যা শীতের কনকনে ঠাণ্ডা বাতাস থেকে তার কানকে রক্ষা করতে সাহায্য করে।
  • একটি শিশুর হাত তার শরীরের তাপমাত্রা বোঝার একটি ভাল ইঙ্গিত।সুতরাং, গ্লাভস বা দস্তানা পরিয়ে রেখে (নবজাতকের জন্য) অথবা কম্বলের ভিতরে তাদের হাতগুলিকে ঢুকিয়ে দিয়ে বাচ্চাদের হাত গরম রাখুন (হাঁটতে শেখা ছোট বাচ্চাদের জন্য)
  • বাইরে ভ্রমণের সময় নবজাতক, বিশেষত প্রিম্যাচিওর বেবিদের ক্যাঙ্গারু কেয়ার দেওয়া যেতে পারে।এটি এমন একটি থেরাপি যেখানে শিশুকে সরাসরি তার মাবাবার ত্বকের ওপর রাখা হয়, যা তাকে উষ্ণ এবং আরামদায়ক রাখার জন্য যথেষ্ট।

সুরক্ষা টিপস

  • সর্বদা নিশ্চিত হয়ে নিন যে আপনার শিশুটি ভিতর থেকেই শুকনো রয়েছে কারণ স্যাঁতসেঁতে পোশাকের জন্য সামান্য আর্দ্রতাও হাইপোথার্মিয়ার কারণ হতে পারে, এমনকি সেক্ষেত্রে যদি বাইরের তাপমাত্রা 40 ডিগ্রি ফারেনহাইডের থেকেও বেশি হয়।
  • শীতের সময় আপনার বাচ্চাকে উষ্ণ রাখার জন্য, গাড়ির আসনটি উদ্বেগের একটা বড় বিষয় হয়ে ওঠে কারণ কোটের মতো বিশাল কাপড়গুলি ঠাণ্ডা থেকে সুরক্ষিত রাখতে স্ট্র্যাপগুলিতে আরামদায়কভাবে ফিট করার ক্ষেত্রে বাধা সৃষ্টি করে।

সুরক্ষা টিপস

ঠাণ্ডায় অনেকক্ষণ ধরে বাইরে থাকার সময় শিশুদের গরম রাখা

শীতকালে আপনার শিশুর সাথে দীর্ঘ সময় ধরে বাইরে থাকার ব্যাপারটা নতুন মায়ের জন্য কিছুটা ভীতিজনক হয়ে থাকতে পারে, তবে কয়েকটি সুরক্ষা সতর্কতা এর দুর্বল প্রভাবগুলিকে সীমিত করতে পারে।সুতরাং, আপনার বাচ্চাকে নিয়ে বাইরে কনকনে ঠাণ্ডার শীতল আবহাওয়ায় থাকার সময় তাকে সুরক্ষিত এবং আরামদায়ক রাখতে এই সাধারণ টিপসগুলি অনুসরণ করুন।

দীর্ঘ সময় ধরে আপনার শিশুকে উষ্ণ রাখতে আপনি কী কী করতে পারেন

  • আপনার ছোট্টটিকে এমনভাবে পোশাক পরিয়ে সাজগোজ করান যাতে আপনি তার প্রয়োজন অনুযায়ী কাপড়ের স্তরগুলি সামঞ্জস্য করতে পারেন। নীচের স্তরগুলি সুতির টিশার্ট এবং প্যান্টের মতো আরামদায়ক ও নরম হওয়া উচিত, আর তার ওপর পরান জ্যাকেট, টুপি এবং দস্তানাগুলি।অতিরিক্ত উষ্ণতার জন্য, আপনি কম্বল বা মসলিনের কাপড়গুলি সঙ্গে করে বহন করতে পারেন।
  • শীতল আবহাওয়ায় কিছু বাড়তি আরাম যুক্ত করতে আপনার শিশুকে ক্যারিয়ারে রাখুন।
  • একটি স্ট্রলারের মধ্যে আপনার শিশুকে বহন করার সময় আপনাকে ভীষণ সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে কারণ কম্বল দিয়ে ভীষণভাবে ঢেকে রাখার ফলে তা স্ট্রলারের মধ্যে আপনার শিশুর কাছে বায়ু চলাচলের ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করতে পারে।অন্যথায়, আপনার শিশুকে উষ্ণ রাখার জন্য আপনি তাকে একটা জ্যাকেট, টুপি, দস্তানা এবং গরম মোজা পরিয়ে দিতে পারেন এবং চেষ্টা করুন এমনভাবে হাওয়ার দিক ধরে চলতে যাতে ঠাণ্ডা কনকনে শীতল হাওয়াটি সরাসরি বাচ্চার উপর এসে না পড়ে।

সুরক্ষা টিপ

  • যখন একটা বেবি ক্যারিয়ার ব্যবহার করা হয় তখন আর কোনও অতিরিক্ত সোয়েটার তার ওপর চাপানোর আর প্রয়োজন হয় না।

সুরক্ষা টিপ

খুব শুষ্ক হওয়া থেকে শিশুর ত্বক সুরক্ষিত রাখা

ঠান্ডা আবহাওয়া, আর্দ্রতার অভাব এবং পুনঃ পুনঃ প্রবাহিত শীতল বাতাসএই সমস্তকিছুই ত্বককে শুষ্ক এবং চুলকানিযুক্ত করে তুলতে পারে।কয়েকটি সতর্কতা আপনাকে আপনার শিশুর ত্বক পরিষ্কার এবং ময়শ্চারাইজড রাখতে সহায়তা করতে পারে।

শীতের সময় আপনার শিশুর ত্বক খুব বেশি শুষ্ক হওয়া থেকে রক্ষার জন্য আপনি কী কী করতে পারেন

  • আপনি কি জানেন যে জলও আপনার শিশুর ত্বককে শুষ্ক করে দিতে পারে? হ্যাঁ, তাদের প্রতিদিন জল দিয়ে ধুয়ে পরিষ্কার করার দরকার নেই, বিশেষত শীতকালে।হালকা গরম জল ব্যবহার করুন (খুব গরম নয়) এবং খুব বেশী সময় তাকে বাথ টাবের মধ্যে বসিয়ে রাখবেন না।
  • গবেষণায় দেখা গেছে যে কিছু শিশুর জন্য সাবানগুলি অ্যালার্জেনিক হতে পারে। সুতরাং, হালকা, হাইপোঅ্যালার্জেনিক ক্লিনজারগুলি ব্যবহার করার চেষ্টা করুন যেগুলি রঞ্জক এবং সুগন্ধি মুক্ত।
  • স্নান করানোর পর প্রতিবার হালকা হাইপোঅ্যালার্জেনিক বেবি লোশন দিয়ে আপনার শিশুকে ময়েশ্চারাইজ করুন।
  • বাড়ির বাইরে পা দেওয়ার আগে শীতের শুষ্ক ও রুক্ষ বাতাস থেকে আপনার শিশুকে রক্ষা করতে তার মুখ এবং ঠোঁটে গন্ধহীন কিছু ইমলিয়েন্ট বা প্রলেপ লাগান।

সুরক্ষা টিপ

  • স্নান করানোর পর একটা নরম সুতির তোয়ালে দিয়ে সবসময় তাকে আলতো করে মুছিয়ে শুকনো করে নিন।তোয়ালে দিয়ে খুব বেশি ঘষলে আপনার শিশুর সূক্ষ্ম ত্বক ছড়ে যেতে পারে।

সুরক্ষা টিপ

ঠাণ্ডা ওয়েদারে বা শীতল আবহাওয়ায় শিশুদের উষ্ণ রাখার সময় বাবামায়েদের কী কী করা এড়িয়ে চলা উচিত

বাচ্চারা, বিশেষত নবজাতকরা ঠান্ডায় বেশি আক্রান্ত হয় এবং তারা যখন শীত বা গরম অনুভব করে তখন তা আপনাকে বলতেও পারে না।শিশুর উষ্ণ এবং আরামদায়ক থাকা নিশ্চিত করার কাজটি আসলে আপনার।শীতকালে আপনার শিশুদের উষ্ণ রাখার সময় আপনার মনে রাখা উচিত এমন কিছু সাবধানতার বিষয়গুলি নিম্নে আলোচনা করা হলঃ

  • ঘরের তাপমাত্রা খুব বেশি রেখে বা শিশুর গায়ে অনেকগুলি স্তরে ঢাকা দিয়ে তার চারপাশে বাড়তি চাপ বা বোঝা করে ফেলবেন না, কারণ অতিরিক্ত গরম হয়ে গেলে তা আবার এসআইডিস হওয়ার ঝুঁকি বাড়ায়।
  • আপনার বাচ্চাকে অতিরিক্ত জড়িয়ে রাখার ফলে তা তার শ্বাসকার্যে বাধা সৃষ্টি করতে পারে।শিশুর গলা বা মুখের চারপাশে লম্বা স্কার্ভগুলি জড়ানো এড়িয়ে চলুন; পরিবর্তে, একটা স্ট্রলার বা গাড়ির সিটের ছাউনির সাহায্যে তাকে শীতের ঠাণ্ডা হাওয়া থেকে রক্ষা করুন।
  • ভারী ও মোটা কম্বল বেশ কয়েক প্যাচে আপনার বাচ্চার গায়ে চাপা দেওয়া এড়িয়ে চলুন কারণ সে নিজে থেকে কম্বলটি সরাতে সক্ষম হবে না ফলে তার দম বন্ধ হয়ে যেতে পারে।
  • শিশুর মুখে ঢাকা দেবেন না বা সরাসরি সূর্যের আলো থেকে রক্ষার জন্য মুখের ওপর কোনওকিছু চাপা দেবেন না, বিশেষ করে সে যদি এক বছরের কম বয়সী হয়ে থাকে কারণ এটা তার নিঃশ্বাসপ্রশ্বাসে বাধা দিতে পারে।
  • প্রয়োজন না হলে আপনার শিশুটিকে খুব বেশিক্ষণ ধরে কয়েক স্তরের আচ্ছাদন দ্বারা ঢেকে রাখা এড়িয়ে চলুন।যদি তাপমাত্রা হিমাঙ্কের নীচে নেমে যায় এবং আপনি কোনও আরামদায়ক জায়গার ভিতরে ঢুকে যান তবে প্রয়োজন মাফিক তার গায়ের থেকে অতিরিক্ত স্তরগুলি সরিয়ে ফেলতে শুরু করার বিষয়টি মনে রাখা নিশ্চিত করুন।
  • গাড়ির সিটে থাকাকালীন আপনার বাচ্চাকে মোটা শীতের জ্যাকেট পরতে দেবেন না, কারণ এটি কোনও দুর্ঘটনার ক্ষেত্রে সহজে নড়াচড়ার জন্য শিশু এবং তার সাজ পোশাকগুলির মাঝে অনেকটা বেশি ফাঁক রাখতে পারে এবং জায়গাটিকে সঙ্কুচিতও করতে পারে।
  • যদি কোনওক্ষেত্রে ফ্রস্টবাইটের লক্ষণগুলি বেড়ে যেতে থাকে, তবে হিমায়িত অঞ্চলগুলিতে ঘষবেন না, পরিবর্তে বরং তার নাক, ঠোঁট এবং কানের ওপর উষ্ণ ওয়াশক্লথ লাগান।কয়েক মিনিট পরে ভিজে কাপড়গুলি সরিয়ে দিন এবং আপনার শিশুকে একটা গরম কম্বল দিয়ে ঢাকা দিয়ে দিন।
  • আপনার শিশুর ঘরটিতে সুরক্ষার সমস্ত মান বজায় রাখা নিশ্চিত করুন। স্পেস হিটারগুলি ব্যবহার করার সময় খুব সতর্কতা অবলম্বন করুন কারণ সেগুলিতে আগুন জ্বলে যেতে পারে এবং কার্বন মনোক্সাইডের বিষক্রিয়া সৃষ্টি করতে পারে।
  • নরম এবং হালকা ওজনের উপকরণ দিয়ে তৈরি গদি ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন, কারণ এটি আপনার শিশুকে কেবল শ্বাসরোধের মতো কিছু বিপদের ঝুঁকির মধ্যে ফেলে দেয় না, গদিতে আটকে থাকা ঠান্ডা বাতাসের কারণে তার অসুস্থ হওয়ার সম্ভাবনাও বাড়িয়ে তুলতে পারে।
  • 2 বছরের কম বয়সীদের ক্ষেত্রে গরম জলের বোতল বা ইলেকট্রিক কম্বল ব্যবহার একেবারেই করবেন না, কারণ প্রাপ্তবয়স্কদের মতো তারা তাদের দেহের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না।

যদিও শীতের প্রবল ঠাণ্ডায় একটি শিশুকে গরম রাখাটা ভীষণ চ্যালেঞ্জের একটা কাজ, তবে সামান্য জ্ঞান আপনাকে এবং আপনার শিশুকে শীতের সময়, বিশেষকরে রাত্রিবেলায় শরীরের সামঞ্জস্যপূর্ণ তাপমাত্রা বজায় রাখতে সাহায্য করতে পারে।শীতের ঠাণ্ডা নিয়ে নিজেকে খুব বেশী স্ট্রেস দেবেন না, শুধু নিশ্চিত করুন যে গরম রাখার জন্য আপনি আপনার বাচ্চাকে পর্যাপ্ত পোশাক পরিয়েছেন এবং একবারে আধ মিনিটের বেশী তাকে ঠাণ্ডায় উন্মুক্ত করা হয় নি।তবে আপনার নিজের সাহসের উপর বিশ্বাস রাখুন আর এই ঋতুতে আপনার শিশুকে উষ্ণ রাখার জন্য শীতের কঠোর রুক্ষতা ও শুষ্কতার মোকাবিলা করতে উপরে বর্ণিত টিপস ও কৌশলগুলি অনুসরণ করুন।