গর্ভাবস্থায় সম্মুখবর্তী অমরা বা অ্যান্টিরিওর প্লাসেন্টা

গর্ভাবস্থায় সম্মুখবর্তী অমরা বা অ্যান্টিরিওর প্লাসেন্টা

গর্ভাবস্থার প্রথম সপ্তাহে প্ল্যাসেন্টা বা অমরার বিকাশ ঘটে।এই প্যান কেকের ন্যায় সমতল অঙ্গাণুটি জরায়ুর প্রাচীরে সংলগ্ন হয়ে থাকে এবং গর্ভস্থ উন্নয়ণশীল শিশুর সহিত প্রয়োজনে অক্সিজেন ও পুষ্টির সরবরাহ করে,এছাড়াও বর্জ্য পদার্থ-গুলিকে অপসারণ করে আম্বেলিকাল কর্ড বা নাড়ির মাধ্যমে।ডিম্বাণুটি কোন জায়গায় নিষিক্ত হয়েছে তার উপর নির্ভর করে এই অঙ্গাণুটির অমরা জরায়ুর বিভিন্ন জায়গায় যেমন সামনের দিকে,পিছনের দিকে অথবা পাশে অবস্থান করতে পারে।একটি সম্মুখবর্তী অমরার গর্ভাবস্থাটি ঘটে যখন অমরাটি জরায়ুর সম্মুখ বরাবর অবস্থান করে।

aniview

সম্মুখবর্তী অমরা কি?

নিষিক্ত ডিম্বাণু যেটি বৃদ্ধিপ্রাপ্ত হয়ে আপনার সন্তানে পরিণত হয়,ফ্যালোপিয়ান টিউব বরাবর পরিভ্রমণ করতে থাকে এবং জরায়ুর প্রাচীরে নিজেকে প্রতিস্থাপিত করে। ডিম্বাণুটি যেখানে প্রতিস্থাপিত হয় সেখানে অমরা বা প্ল্যাসেন্টা জরায়ুর প্রাচীর বরাবর উপরের দিকে,পাশে অথবা সামনের দিকে এবং পিছনের দিকে তৈরী হয়।যখন ডিম্বাণুটি নিজেকে জরায়ুর প্রাচীর বরাবর সামনের দিকে প্রতিস্থাপিত করে,এটি অ্যান্টেরিওর প্ল্যাসেন্টা বা সম্মুখবর্তী অমরার গঠন করে।আপনার গর্ভাবস্থায় সম্মুখবর্তী অমরার অবস্থান রয়েছে কিনা তা জানতে পারবেন আপনার গর্ভাবস্থার 20 তম সপ্তাহে আল্ট্রাসাউন্ড স্ক্যান করানোর মাধ্যমে।

সম্মুখবর্তী অমরার অবস্থানে শিশু অন্য সকল শিশুর মতই নিরাপদ থাকে যেহেতু এদের বিকাশে ক্ষেত্রে কোনও ভাবেই খারাপ প্রভাব পড়ে না।একটিসম্মুখবর্তীপ্লাসেন্টাগর্ভাবস্থাআপনারভ্রূণেরপুষ্টিরকাজটিকরে।

গর্ভাবস্থায় সম্মুখবর্তী অমরার ক্ষেত্রে কি কোন সমস্যা আছে?

জরায়ুর প্রাচীর বরাবর সব রকম অবস্থানে অমরার বিকাশ ঘটা একদম স্বাভাবিক ঘটনা।প্ল্যাসেন্টা বা অমরার স্বাস্থ্য এবং শিশুর বিকাশ এটির অবস্থানের উপর নির্ভর করে না।সুতরাং গর্ভাবস্থায় সম্মুখবর্তী অমরা থাকায় কোনো সমস্যা হয় না।

  • সম্মুখবর্তী অমরার সহিত গর্ভাবস্থা আপনার সন্তান এবং আপনার পেটের পৃষ্ঠের মাঝে একটা উপাধান বা কুশান প্রদান করতে পারে।এটা আপনার সন্তানের প্রথম আন্দোলন সঞ্চালনকে একটু কঠিন করে তোলে।
  • যখন কোনো ক্ষেত্রে ভ্রূণের আন্দোলন অনুভূত হয় না,এমনকি 23 তম সপ্তাহেও,তখন মায়েদেরকে পুনরায় আশ্বস্ত করার জন্য ভ্রূণের স্বাস্থ্য মূল্যায়ণ করা হয়।
  • সম্মুখবর্তী অমরা থাকার অর্থ হতে পারে এই যে, সেক্ষেত্রে দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে কিছু কম সংখ্যক শক্তিশালী আন্দোলন অনুভূত হতে পারে গর্ভাবস্থায় অমরার অন্যত্র অবস্থানের তুলনায়।
  • আপনার পেটের পৃষ্ঠ তল বরাবর এটি অবস্থান করা সত্ত্বেও,একটি সম্মুখবর্তী অমরা ভ্রূণের স্বাস্থ্যের জন্য কনো অতিরিক্ত বিপদ সৃষ্টি করে না।এর কারণ হল সেক্ষেত্রে অনেক-গুলি স্তর থাকে-পুরু জরায়ুর প্রাচীর,পেটের পেশী এবং চর্বি যা এটিকে বাইরের বিশ্ব থেকে পৃথক করে রাখে।
  • সম্মুখবর্তী অমরার কারণে জন্ম জটিলতা খুব সামান্যই হয়ে থাকে ।এটা ঘটে শুধুমাত্র তখনই যখন c সেকসনের প্রয়োজন পড়ে অথবা যখন জরায়ুর প্রাচীরে অমরা কম প্রতিস্থাপিত হয় ,যা জন্মের সময় জটিলতা সৃষ্টি করতে পারে।
  • সমগ্র গর্ভাবস্থা জুড়ে অমরা বা প্ল্যাসেন্টা ঘুরে বেড়াতে থাকে এবং নিম্নে অবস্থানকারী অমরা জরায়ুর উপরের অংশে সঞ্চালিত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে যা প্রসবের সময় কোনও রকম সমস্যা সৃষ্টির কারণ হয়ে ওঠে না।

যাইহোক,যদি সম্মুখবর্তী অমরা প্রসবের সময়ে জরায়ুর খুব নিচে অবস্থান করে,এটা সম্ভবত আংশিক কিম্বা সম্পূর্ণরূপেই সার্ভিক্সকে ব্লক করে দিতে পারে।যার ফলে সিজারিয়ান সেকসনের প্রয়োজন হয়ে উঠতে পারে।এই অবস্থাটিকে বলা হয় প্ল্যাসেন্টা প্রিভিয়া,যেটি একটি বিরল সমস্যা।

একটি সম্মুখবর্তী অমরার লক্ষণ-গুলি কি?

একটি সম্মুখবর্তী অমরার লক্ষণ-গুলি কি?

সম্মুখবর্তী অমরার নির্দিষ্ট কোনও লক্ষণ বা উপসর্গ নেই,এটি কেবলমাত্র সনাক্ত করা হয় একটি নির্দিষ্ট উপসর্গের অনুপস্থিতিতে-ভ্রূণের আন্দোলন বা সঞ্চালন।

  • ভ্রূণের সঞ্চালনটা অনুভব করা খুবই কঠিন এবং এর পাশাপাশি শক্তিশালী এবং নিম্ন মানের কারণ সম্মুখবর্তী অমরাটি জরায়ু এবং পেটের মাঝে অবস্থান করে উপাধানের ন্যায় কাজ করে।
  • একটি হ্যান্ডহেল্ড ডপলার ভ্রূণের হৃদস্পন্দনটি খুঁজে পেতে একটু বেশী সময় নেবে।
  • সম্মুখবর্তী অমরা থাকার আরেকটি অর্থ হতে পারে দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকের মধ্যে গর্ভাবস্থার তুলনায় কম আন্দোলন অনুভূত হয় যেখানে অমরার অবস্থান হয় যেকোনো স্থানে।

যদি 23 তম সপ্তাহের মধ্যে মা কোনও রকম আন্দোলন অনুভব না করেন, যাইহোক, তবে সেক্ষেত্রে ভ্রূণের মূল্যায়ণ এবং একটা আলট্রাসাউন্ড করানো ভালো একটা ধারণা হবে।

একটি সম্মুখবর্তী অমরার কারণে গর্ভাবস্থায় সমস্যা-গুলি

গর্ভাবস্থা কালে একটি সম্মুখবর্তী অমরায় সাধারণত কোনো জটিলতা উপস্থিত হয় না।যাইহোক,এটির অবস্থানের জন্য এটিকে জটিলতা প্রবণ এবং সুরক্ষিত নয় বলে মনে হতে পারে।যা নিয়মের থেকে ব্যতিক্রম।অমরাটি হল রক্তবাহ যুক্ত এবং রক্ত সমৃদ্ধ অঙ্গ এর ফলে যেকোনোরকম মোচড় দিলে,ছিঁড়ে গেলে,কেটে গেলে,এবং সূচ ফোটালে প্রচুর রক্তপাত হয়। কিছু সম্মুখবর্তী অমরা থেকে জন্মের জটিলতা গুলো হলঃ

  • যদি প্রসবের সময় সিজার করার প্রয়োজন হয় তবে সম্মুখবর্তী অমরা সে ক্ষেত্রে কিছু জটিলতার তৈরী করতে পারে।সম্মুখবর্তী অবস্থানের জন্য ছেদনের জায়গায় আরও বেশী জটিলতার সৃষ্টি করতে পারে অথবা যার ফল হতে পারে প্রসবের সময় অতিরিক্ত রক্ত ক্ষরণ।
  • অ্যাম্নিওসেন্টেসিসের সময় সূচ বিদ্ধকরণে জটিলতার সম্মুখীন হতে হয়।এবং এর সাথে সংযোজিত হয় রক্তক্ষরণ,সিডিং এবং ঝিল্লী ছিঁড়ে যাওয়ার ঝুঁকি গুলি।
  • সম্মুখবর্তী অমরা জটিলতার সম্ভাবনার সৃষ্টি করে পরবর্তী ক্ষেত্রে এবং পিঠের মেরুদণ্ডের নিচের দিকে প্রসবের সময় তীব্র যন্ত্রণা এবং প্রসবকালীন সময়ে যন্ত্রণাদায়ক সংকোচনের কারণ হয়ে থাকে।
  • নিম্নস্থিত সম্মুখবর্তী অমরা প্ল্যাসেন্টা প্রিভিয়া নামক জটিলতা সৃষ্টি করতে পারে।এর ফলে আংশিক বা সম্পূর্ণভাবে সারভিক্স বন্ধ হয়ে যায় ফলে সিজার করার প্রয়োজনীয়তা দেখা দেয়।
  • প্ল্যাসেন্টা অ্যাক্রিটার মত জটিলতা দেখা যায় যখন সম্মুখবর্তী অমরা পূর্ববর্তী সিজারের ক্ষত স্থানের ওপর বৃদ্ধি পায় এবং আপনার জরায়ুর ভিতর এবং মধ্য দিয়ে অমরা বৃদ্ধিলাভ করতে থাকে।

নিরাপদ সিজারিয়ানের জন্মের পরিকল্পনাগুলি নিশ্চিত করার জন্য আল্ট্রাসাউন্ড এবং MRI  স্ক্যানগুলি এই সমস্ত শর্তগুলি প্রসবের আগেই নির্ণয় করতে ব্যবহার করা যেতে পারে।

C সেকসন কি একমাত্র জন্ম বিকল্প?

যদি কারুর একটি সম্মুখবর্তী অমরা থাকে সেক্ষেত্রে জন্মদানের সময় সিজার করাই একমাত্র বিকল্প হয় না।যদি যোনিমুখ আচ্ছাদিত না হয় তবে যাদের সম্মুখবর্তী অমরা রয়েছে তাদের ক্ষেত্রে স্বাভাবিক ভাবে জন্ম দেওয়ার একটা ভাল সুযোগ রয়েছে।

সম্মুখবর্তী অমরা এবং শিশুর আন্দোলন

আপনার ত্বক এবং ভ্রূণের মাঝে সম্মুখবর্তী অমরাটি একটি কুশান বা উপাধানের মত কাজ করে,গর্ভাবস্থার পরবর্তী পর্যায়ে ভ্রূণের সঞ্চালণ সনাক্ত করা যাবে এবং নাভির পরিবর্তে পেটের পাশে এবং নীচের দিকে আরও বেশী সুস্পষ্ট হতে থাকবে।একটি সম্মুখবর্তী গর্ভাবস্থায় ভ্রূণের সঞ্চালণ এবং হৃদস্পন্দন সনাক্ত করা যাবে প্রথম এবং দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে একটি হ্যান্ডহেল্ড ডপ্লার বা ফিটোমিটারের দ্বারা।23 সপ্তাহ পরে ভ্রূণের ভাল স্বাস্থ্য নিশ্চিত করার জন্য আল্ট্রাসাউন্ড করানোর প্রয়োজন হতে পারে।গর্ভাবস্থার পরবর্তী স্তরেও আপনার সন্তানের আন্দোলন অনুভব করা কঠিন হয়ে উঠতে পারে।যেকোনো পর্যায়েই ভ্রূণের কোনোরকম পরিবর্তন বা আকস্মিক অবসানের ক্ষেত্রে তদন্ত করা উচিত।

অমরার শ্রেণি বিন্যাস

প্ল্যাসেন্টা বা অমরাটি ক্যালসিফিকেশন এবং বর্ধিতকরণ প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যায় এবং গর্ভাবস্থার পর্বটির সমাপ্তি ঘটায়।এটি ক্যালসিয়ামের পরিমাণের বিকাশ ঘটায় এবং কিছু অংশ ধ্বংস হয়ে প্রতিস্থাপিত করে তন্তুময় কলার দ্বারা।অমরার সাথে এই ক্যালসিফিকেসনটি শ্রেণীবিন্যাসের ভিত্তিতে হয়।

গ্রেড 0

এটি প্রারম্ভিক গর্ভাবস্থার গোড়া থেকে শুরু হয়

গ্রেড I

অমরার শ্রেণি বিন্যাস গ্রেড I

এটি গর্ভাবস্থার প্রায় 31-32 সপ্তাহে

গ্রেড II

অমরার শ্রেণি বিন্যাস গ্রেড II

এটি গর্ভাবস্থার প্রায় 36-37 সপ্তাহে

গ্রেড III

অমরার শ্রেণি বিন্যাস গ্রেড III

এটি গর্ভাবস্থার প্রায় 38 সপ্তাহে,তবে 37 সপ্তাহের আগে নয়

গ্রেড III তে,অমরা গুরুতরভাবে ক্যালসিফায়েড হয়।এই ক্যালসিফিকেশন গর্ভাবস্থার একটা সাধারণ বিষয় হিসাবে বিবেচিত এবং এতে উদ্বেগের কোনো কারণ থাকে না।

  • অপরিণত ক্যালসিফিকেশনের সাথে পূর্ব বিদ্যমান অবস্থা-গুলির ক্ষেত্রে যেমন প্ল্যাসেন্টা প্রিভিয়া,ডায়বেটিস,উচ্চ রক্তচাপ অথবা তীব্র অ্যানিমিয়ার ক্ষেত্রে যত্ন নেওয়া প্রয়োজন।কারণ গবেষণা নির্দেশ করে যে,যদি গর্ভাবস্থায় 32 সপ্তাহের আগে অমরার ক্যালসিফিকেশন ঘটে থাকে,তবে কম ওজন সম্পন্ন শিশুর জন্ম হতে পারে।
  • অমরার ক্যালসিফিকেশনের কারণে সৃষ্ট জটিলতা কোনো সাধারণ ব্যাপার নয়,এবং বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই ক্যালসিফিকেশন ভ্রূণের বিকাশে প্রভাব ফেলে না।

যে বিষয়গুলি অমরার জটিলতার কারণ

একটা সম্মুখবর্তী অমরা নিজেই জটিলতার কোনো কারণ নয়।জটিলতা ঘটতে পারে কেবল তখনই যখন এটি সংযুক্ত হয় সম্মুখবর্তী নিম্নোস্থিত অমরা,প্ল্যাসেন্টা প্রিভিয়া অথবা প্ল্যাসেন্টার ছেদনের মত অন্যান্য শর্তগুলির সাথে।এই সকল ক্ষেত্রেই জটিলতার সৃষ্টি হয় যদি  C –সেকসন বা সিজারিয়ান সেকসনের নির্দেশ করা হয় অথবা যদি অমরাটি গর্ভের প্রাচীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে।

সম্মুখবর্তী অমরা থাকার সময় যে সতর্কতা-গুলি অবলম্বন করতে হবে

অনেক গর্ভাবস্থা জনিত স্ব-সহায়ক সাইট এবং বই গুলি প্রত্যাশিত মায়েদের জন্য শেখায় কিছু কৌশল,তাদের গর্ভাবস্থাকালীন সময়ে কিছু বিষয়কে সহজতর করে তুলতে,যা প্ল্যাসেন্টাল এবং মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য পয়েন্টের আকারে সংক্ষিপ্তকরণ করা যেতে পারে।এর সাথেই সংযোজিত করা হল সম্মুখবর্তী নিম্নস্থল যুক্ত অমরার কিছু সতর্কীকরণ।

  1. ভালোভাবে খান-ভাল পুষ্টিকর খাদ্য খেলে অমরাটিও স্বাস্থ্যকর হয়।
  1. প্রচুর তরল পান করুন-আপনার গর্ভস্থ বৃদ্ধিপ্রাপ্ত ভ্রুণের সমস্থ বর্জ্য পদার্থগুলি প্রস্তুতিকরণের জন্য আপনার অমরার তরলের প্রয়োজন।
  1. আপনার গর্ভাবস্থায় ব্যায়ামের বিপরীত এবং প্রসারিত একটা পরিকল্পনার আদর্শ উপায় খুঁজুন এবং তার সাথে সংলগ্ন থাকার চেষ্টা করুন।
  1. উদ্বেগ বন্ধ করুন- সবচেয়ে খারাপ দৃশ্যকল্পটি সম্ভবত ঘটে না।সবচেয়ে খারাপ গুলো আপনি অনুমান করার আগে,আপনার উপসর্গ-গুলি লিখুন যেগুলি এই দৃশ্যকল্পকে নির্দেশ করে এবং চেষ্টা করুন খুঁজে বের করতে আপনার ভয়ের সাথে আপনার উপসর্গগুলির কোনো মিল আছে কিনা।
  1. মানসিক চাপ,অতিরিক্ত কাজ,মাদক সেবন,ড্রাগের ব্যবহার এবং অতিরিক্ত কিম্বা প্রয়োজনের থেকেও কম পরিমাণে খাদ্য গ্রহণের মত কাজ-গুলি করার মাধ্যমে আপনি আপনার দেহের অপব্যবহার করবেন না।

উপসংহার-অমরার অবস্থান বা অন্য কোনো চিকিৎসা হস্তক্ষেপের চেয়ে বেশি সুখী এবং সুস্থ শিশুর জন্য সবার উপরে হল সুখী থাকা এবং সুখী মনের একটা ফ্রেম গঠন।