গর্ভাবস্থায় ডালিম খাওয়া-এটি কি নিরাপদ?

গর্ভাবস্থায় ডালিম খাওয়া

যখন কোনও মহিলা গর্ভবতী হন,তিনি এমন ধরণের খাবারগুলির দিকে ঝোঁকেন যেগুলি তার প্রয়োজনীয় পুষ্টি পূরণ করতে সহায়তা করে এবং তার সাথে তার স্বাদকোরকগুলিকেও পরিতৃপ্ত করে তলে।যদি আপনি সন্তানসম্ভবা হয়ে থাকেন,তবে স্বাস্থ্যকর খাবারগুলি খাওয়া আপনার জন্য গুরুত্বপূর্ণ।ডালিম ফলটি খাওয়া একটা স্বাস্থ্যকর পছন্দ,কারণ এতে রয়েছে বিভিন্ন পুষ্টিকর উপাদান যা গর্ভাবস্থায় আপনার দেহে সরবরাহ হয়ে থাকে।ডালিম আপনার ডায়েটে অন্তর্ভূক্ত করা যেতে পারে আপনার গর্ভাবস্থার ঠিক প্রথম ত্রৈমাসিক থেকে।ডালিমের দানাগুলি স্বাদে অতুলনীয় এবং সেগুলি যে বিভিন্ন পুষ্টিকর উপাদানগুলি সরবরাহ করে থাকে সেগুলি ভ্রূণের বিকাশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ।

aniview

গর্ভাবস্থায় ডালিম খাওয়া কি নিরাপদ?

বহু ডাক্তার এবং পুষ্টিবিদরা বলে থাকেন যে,গর্ভাবস্থায় ডালিমের দানা খাওয়া বা এর রস পান করার সাথে ভুল কিছু নেই।যদিও এই বিষয়টির জন্য কোনও চিকিৎসাগত প্রমান নেই তবে এ ব্যাপারে এমন কোনও ঘটনা বা নজির নেই যা গর্ভাবস্থায় ডালিম খাওয়ায় ক্ষতিকর কিছু হতে পারে এমন কিছু দেখাতে পারে।কারুরই এর নির্যাসটি খাওয়া উচিত নয়,তবে এর রসটি খাওয়া নিরাপদ।ডালিমের রসে প্রচুর পুষ্টিকর উপাদান আছে।এর অতুলনীয় স্বাদটি আপনার মিষ্টি খাওয়ার আকাঙ্খাকে চরিতার্থ করতে পারে এবং তার সাথে আবার আপনাকে হাইড্রেটও রাখতে পারে।

গর্ভাবস্থায় ডালিম খাওয়ার স্বাস্থ্যকর উপকারিতাগুলি

ডালিমের মধ্যে বিভিন্ন পুষ্টিকর উপাদান রয়েছে,যার মধ্যে অন্তর্ভূক্ত রয়েছে ভিটামিন এবং খনিজগুলি,যা গর্ভবতী মহিলাদের জন্য বেশ প্রয়োজনীয়।একই সাথে,ফলটির শারীরিক গঠণটিও আবার গর্ভবতী মহিলাদের জন্য বিভিন্ন ভাবে উপকারি।

1. লৌহ-ঘাটতি জনিত রোগ অ্যানিমিয়া প্রতিরোধ করে

ডালিম হল ভিটামিন C এর একটা ভাল উৎস।একজন গর্ভবতী মহিলার দেহে এই ভিটামিনটি একটা প্রয়োজনীয় পরিমাণে থাকা অপরিহার্য,কারণ এই ভিটামিনটি গ্রহণ করার ফলে তা খাদ্য উপাদান থেকে আয়রণ সংশ্লেষে সহায়তা করতে পারে।গর্ভাবস্থায় আপনি যদি আয়রণ সমৃদ্ধ খাবারগুলি খান কিম্বা আয়রণের পরিপূরকগুলি গ্রহণ করেন,সেক্ষেত্রে আপনার রক্তে পর্যাপ্ত পরিমাণে আয়রণ জমা হবে।এমনকি ভিটামিন C আপনার দেহকে আয়রণ শোষণে সহায়তা করবে।পর্যাপ্ত আয়রণ এবং ভিটামিন C আপনার দেহে আয়রণ ঘাটতি জনিত অ্যানিমিয়া বা রক্তাল্পতার ঝুঁকি,যা প্রায়ই অপরিণত প্রসবকে প্ররোচিত করে থাকে তা হ্রাস করবে।

2. পাচন তন্ত্রকে স্বাস্থ্যকর রাখে

ডালিম হল ফাইবার বা তন্তুর একটি ভাল উৎস।কোষ্ঠকাঠিণ্য এবং অন্যান্য হজম জনিত সমস্যাগুলিকে দূরে রাখার জন্য ফাইবার সমৃদ্ধ শাক-সবজি এবং ফল-মূলগুলিকে খাওয়ার সুপারিশ করা হয়।অন্ত্র আন্দলনকে উদ্দীপ্ত করার দ্বারা প্রচুর অস্বস্তি থেকে স্বস্তি আনার ক্ষেত্রে এবং সম্পূর্ণ প্রক্রিয়াটিকে সহজতর করতে ফাইবার বা তন্তুগুলি একটি মূখ্য ভূমিকা পালন করে।

3. মুক্ত মূলকগুলির যুদ্ধে সহায়তা করে

বিভিন্ন শারীরিক প্রক্রিয়াগুলির ফল হিসেবে দেহের মধ্যে যে মুক্ত মূলক গঠিত হয় সেগুলি হল মূলত বর্জ্য পদার্থ যা বিষাক্ত পদার্থগুলির মতো নির্গত হওয়া উচিত।কিন্তু সেগুলির মধ্যে কিছু শরীরের মধ্যেই থেকে যেতে পারে এবং স্বাস্থ্যকর কোষগুলির সাথে অথবা এমনকি DNA অণুগুলির সাথে পারস্পরিক ক্রিয়া করতে পারে,যা আভ্যন্তরীণভাবে শরীরের ক্ষতি করতে পারে এবং সেই সাথে অমরাতেও প্রভাব ফেলতে পারে। অ্যান্টিঅক্সিডেন্টগুলির সাথে সেগুলি প্রতিহত করা হল সবচেয়ে ভাল উপায় আর ডালিম হল অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে সমৃদ্ধ।ডালিমে উপস্থিত অ্যান্টিঅক্সিডেন্টগুলি কোষের যেকোনও ক্ষতি মেরামত করতে এবং যেকোনও ক্ষয় ক্ষতি হওয়া থেকে শিশুর মস্তিষ্ককে রক্ষা করতে সহায়তা করতে পারে।

গর্ভাবস্থায় ডালিম খাওয়ার স্বাস্থ্যকর উপকারিতাগুলি

4. ক্রাম্প বা টান লাগা থেকে স্বস্তি নিয়ে আসে

পটাসিয়াম হল অপর আরেকটি খনিজ যা একজন গর্ভবতী মহিলার জন্য জরুরী।নিয়মিত ভিত্তিতে একটা স্বাস্থ্যকর পরিমাণে ডালিমের রস পান করলে তা আপনার দেহে পটাসিয়ামের একটা ভাল সরবরাহ নিশ্চিত করতে পারে।ডালিমের রস পান করলে অথবা আপনার খাদ্যে পটাসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার যুক্ত করলে তা গর্ভাবস্থা সম্পর্কিত ক্র্যাম্প লাগা বা টান লাগা থেকে আপনাকে তৎক্ষণাৎ স্বস্তি এনে দিতে পারে।শরীর এবং পেশীগুলির মধ্যে তরলের মাত্রার ভারসাম্য বজায়ের দ্বারা এটি প্রাথমিকভবে করা হয়।

5. শিশুর মস্তিষ্কের বিকাশে সাহায্য করে

ভ্রূণের যথাযথ মানসিক বিকাশের জন্য একটি অপরিহার্য উপাদান হল ফোলেট।এক গ্লাস ডালিমের রস আপনার প্রতিদিনের ফোলেটের প্রয়োজনীয়তার কমপক্ষে 10% চাহিদা পূরণ করতে পারে,সুতরাং এটি অবশ্যই আপনার গর্ভাবস্থার ডায়েটে অন্তর্ভূক্ত করুন।ফোলেট শিশুর নিউরাল টিউব এবং শিশুর স্নায়ুতন্ত্রের বিকাশের ক্ষেত্রে সহায়তা করে তার মস্তিষ্কের বিকাশকে সঠিক পথে রেখে।

গর্ভবতী মহিলারা কি ডালিমের রস পান করতে পারে?

হ্যাঁ,গর্ভবতী মহিলারা ডালিমের রস পান করতে পারে।ভীষণ মাত্রায় স্বাস্থ্যকর এবং পুষ্টিকর হওয়ার কারণে ডালিমের রস গর্ভবতী মহিলাদের জন্য উচ্চ মাত্রায় সুপারিশ করা হয়ে থাকে এবং এটি গর্ভবতী মহিলাদের নিত্য খাবারের তালিকায় একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে উঠতে পারে।গর্ভাবস্থায় আপনি আপনার প্রত্যহ প্রাতঃরাশের সাথে ডালিমের রস গ্রহণ করতে পারেন।

ডালিমের রস পান করার উপকারিতাগুলি

ডালিমের রসটি পান করার ক্ষেত্রে তার নিজের সাথেই বেশ কিছু উপকারিতা নিয়ে আসে,যেমনঃ

  1. এক গ্লাস ডালিমের রস মোটামুটি প্রায় 150 ক্যালোরি বা তার থেকেও বেশি সরবরাহ করতে পারে।
  2. ডালিমের রস দিয়ে আপনার জলের প্রয়োজনীয়তাগুলি পরিবর্তন করা হলে তা আপনার হাইড্রেশন বা জল যোজনের মাত্রায় ভারসাম্য বজায় রাখতে পারে।
  3. আপনার দেহে ভিটামিন K এর প্রতিদিনের প্রয়োজনীয়তার প্রায় এক চতুর্থাংশ সরবরাহ করতে পারে প্রতি একবার পান করা ডালিমের রস।
  4. এটি আবার গর্ভাবস্থার বহু জটিলতা থেকে আপনাকে স্বস্তি এনে দিতে পারে।

ডালিমের রস পান করার উপকারিতাগুলি

একজন গর্ভবতী মহিলা কটি ডালিম খেতে পারেন?

যেকোনও শাক-সবজি বা ফল যতটা উপকারি হতে পারে,তার থেকেও বেশি উপকারিতা শরীরের জন্য কখনই সহায়ক নয়।খুব বেশি মাত্রায় ডালিমের দানা খেলে তা দাঁত আবরণকারী এনামেলের ক্ষতি করতে পারে।এটি প্রতিরোধ করতে,আপনি ডালিম খাওয়ার আগে চীজ(অবশ্যই অল্প পরিমাণে)খেতে পারেন।ডালিম খাওয়ার পর আপনার অবশ্যই ভাল ভাবে মুখ ধুয়ে নেওয়া উচিত।আপনার ডায়েটেও ডালিম সংযুক্ত করার আগে একবার আপনার ডাক্তারবাবুর পরামর্শ নিয়ে নেওয়ারই পরামর্শ আপনাকে দেওয়া হল।

কীভাবে আপনার ডায়েটে ডালিম অন্তর্ভূক্ত করবেন?

আপনার প্রতিদিনের প্রাতঃরাশের একটা অংশ হয়ে উঠতে পারে ডালিমের রস।এছাড়াও আবার আপনি যখনই ক্ষুধার্তবোধ করবেন,ডালিমের দানাগুলি খেতে পারেন।কিন্তু আপনার ডায়েটে ডালিম যুক্ত করার জন্য আপনি হয়ত আরও কিছু উপায়ের খোঁজ করে থাকেন,সেক্ষেত্রে এখানে এমন কিছু দেওয়া হল যেগুলি আপনি প্রয়োগের চেষ্টা করতেই পারেনঃ

  1. আপনি যদি মাংস খেয়ে থাকেন,সেক্ষেত্রে আপনার মাংসের রেসিপির স্বাদটিকে আরও পরিপূর্ণ করে তুলতে পারেন সেটির সাথে কয়েকটি পুদিনা পাতা এবং ডালিমের দানা দিয়ে সাজিয়ে তোলার মাধ্যমে।
  1. যখন সব রকম ফলের দ্বারা একটি মিক্সড ফ্রুট স্মুদি অথবা মিল্কশেক প্রস্তুত করবেন,তার স্বাদ বাড়িয়ে তোলার জন্য সেগুলির সাথে কয়েকটি ডালিমের দানা যোগ করে নিন অথবা পরিবেশনের আগে সেগুলির উপর টপিং হিসেবে ডালিম দানার ব্যবহার করতে পারেন।
  1. আপনি যদি পছন্দ করেন,তবে আবার এগুলিকে স্যালাড অথবা ডেজার্ট জাতীয় মিষ্টান্ন খাবারগুলির সাথেও যোগ করতে পারেন।পালং শাক,পনীর এবং ডালিমের দানার দ্বারা প্রস্তুত স্যালাড স্বাদে জিভে জল আনার মত।আপনি এগুলি দিয়ে মিক্সড ফ্রুট স্যালাড ডেজার্ট বানাতে পারেন অথবা রসমালাইয়ের সাথেও যোগ করতে পারেন।

গর্ভাবস্থায় ডালিম খাওয়ার সাথে সংযুক্ত ঝুঁকিগুলি

গর্ভাবস্থায় ডালিম খেলে তা গর্ভাবস্থার সাথে সম্পর্কিত বিভিন্ন সংক্রমণগুলি প্রতিরোধে সহায়তা করতে পারে।তবে কোনও ভাবেই অত্যধিক পরিমাণে ডালিমের দানাগুলি খাওয়া উচিত নয়।নিম্নে উল্লিখিত ঝুঁকিগুলি গর্ভাবস্থায় ডালিম খাওয়ার সাথে সংযুক্ত।

  1. গণনার দিক থেকে ডালিমের ক্যালোরি উচ্চ মাত্রার দিকে থাকে।এই বৈশিষ্ট্যটি সেই সকল মহিলাদের জন্য বেশ উপকারি,যারা তাদের ক্যালোরির দৈনন্দিন প্রয়োজনীয়তা পূরণের সাথে সংগ্রাম করে থাকেন তাদের অন্যান্য খাদ্যজনিত প্রতিবন্ধকতা থাকার কারণে।তবে যে কেউই তাদের প্রয়োজনীয় ক্যালোরির স্বাস্থ্য সীমা অতিক্রম করতে পারেন এই ফলটি অত্যধিক পরিমাণে খাওয়ার মাধ্যমে।
  1. যদি কোনও মহিলা বেদানার নির্যাস খেয়ে থাকেন,সেটি তার অকাল সংকোচনের সম্ভাবনাকে বাড়িয়ে তুলতে পারে।গর্ভবতী মহিলাদের যেকোনও মূল্যেই বেদানার নির্যাস অবশ্যই এড়িয়ে চলতে হবে।এর মূল কারণ হল এই যে,এই নির্যাসটি প্রস্তুত করা হয় ডালিমের বাকি অংশ থেকে তার ছাল বা বহিরাবরণটিকে পৃথক না করেই।ডালিমের খোসার সহিত এর নির্যাসটির মধ্যে এমন কিছু বিশেষ উপাদান থাকে,যা একজন গর্ভবতী মহিলার দেহের সাথে পারস্পরিক ক্রিয়া করতে পারে এবং অকাল সংকচনকে বাড়িয়ে তুলতে পারে।

গর্ভাবস্থায় ডালিম খাওয়ার সাথে সংযুক্ত ঝুঁকিগুলি

ডালিম নামক ফলটি খাওয়ার ক্ষেত্রে কয়েকটি পরামর্শ

যদি আপনি সঠিক উপায়ে এবং পরিমিত পরিমাণে খান তবে গর্ভাবস্থায় ডালিম খাওয়া আপনার এবং আপনার সন্তান উভয়ের জন্যই বেশ উপকারি হতে পারে।এই সুস্বাদু ফলটি থেকে তার সবচেয়ে সেরাটি পেতে এই সহজ ও সাধারণ পরামর্শ কয়টি অনুসরণ করুনঃ

  1. সুপার মার্কেটগুলি থেকে ডালিমের রস কেনার পরিবর্তে বরং তাজা ফলগুলি কিনে আনুন এবং বাড়িতে এর রস তৈরী করুন।আপনি যদি এটিকে বাড়িতেই প্রস্তুত করেন সেক্ষত্রে আপনি নিশ্চিত হতে পারবেন যে,এটি খাঁটি এবং স্বাস্থ্যকর একটি রস।একটু অন্য রকম পরিবর্তন আনার জন্য আপনি আবার ডালিমের দানাগুলির সাথে মকটেল অথবা পপ সোডাও তৈরী করে নিতে পারেন।
  1. ডালিমগুলি কেনার সময়,নিশ্চিত করুন যে আপনি এমন একটি চয়ন করবেন যেটি ওজনে বেশ ভারী।মনে রাখবেন,ওজনে ভারী ডালিমগুলি হল রসালো।আর বাইরের দিক থেকে এর আবরণটি হওয়া উচিত পাতলা অথচ দৃঢ়।ঠাণ্ডা জলের মধ্যে এই ফলটিকে ডুবিয়ে রাখার পর আপনি এর দানাগুলিকে ছাড়িয়ে নিতে পারেন অথবা সেগুলিকে বের করে আনার জন্য আপনার আঙ্গুলগুলিকে ব্যবহার করতে পারেন এবং তারপর সেগুলিকে ফ্রীজের মধ্যে রেখে শীতল করতে পারেন।এবার সেগুলিকে নিয়ে আপনার প্রাতঃরাশের দানা শস্যগুলির মধ্যে অথবা অন্য কোনও খাদ্য পদের মধ্যে যোগ করুন।

গর্ভাবস্থায় আপনার পুষ্টির প্রয়োজনীয়তার চাহিদাগুলির সাথে নিয়মিত ভিত্তিতে সাক্ষাৎ পাওয়া নিশ্চিত করার সবচেয়ে সেরা একটি উপায় হল আপনার খাদ্যের সাথে ডালিমের সংযোজন করা।এই ফলের অজস্র উপকারিতা এবং জটিলতাগুলি বেড়ে যায় কেবল তখনই,যখন এটি অত্যধিক মাত্রায় অথবা এর নির্যাসটি খাওয়া হয়ে থাকে। ফলটি খান কেবল সেভাবেই,যেভাবে আপনি অন্যান্য স্বাস্থ্যকর পদগুলি খেয়ে থাকেন আর এভাবেই একটি নিরাপদ ও সুরক্ষিত গর্ভাবস্থা ধরে রাখুন।