মাতৃ দিবস উপলক্ষে কিছু অনন্য এবং সৃজনশীল উপহারের তালিকা

A daughter giving a gift to her mother

মায়েরা সর্বদাই জানেন যে তাঁরা তাদের সন্তানদের ক্ষেত্রে কি পেতে পারেন আর সেটি কেবলই সবচেয়ে সুন্দর হয়ে ওঠে যা ‘মাতৃ দিবসে’ পাওয়া বিশেষ যৌতুক রূপে তাঁরা নির্দিদ্বায় ভাগ করে নিতে পারেন সকলের সাথে। এ ধরনের এমন কিছু ছোটখাটো জিনিস বেছে নেওয়া যেতে পারে যেগুলি মায়েরা পছন্দ করেন, ভালোবাসেন ব্যবহার করতে কিম্বা গর্ভধারিণী মায়েদের এই বিশেষ দিনটিতে উপহার দেওয়ার জন্য নিজে থেকেই এমন কিছু জিনিসও তৈরী করে নেওয়া যেতে পারে যার সমগ্র উপহারের অভিজ্ঞতাটির মধ্যে যুক্ত হয় মা এবং সন্তানের নাড়ির টানের এক নিজস্বতার স্পর্শ।এ ব্যাপারে কোনও সন্দেহের অবকাশ নেই যে আপনি আপনার মায়ের জন্য যা কিছুই নিয়ে আনুন বা তাঁর জন্য তৈরী করুন না কেন সেটিই তিনি সবচেয়ে বেশি ভালোবাসবেন।আর আপনার দেখাদেখি আপনার আদরের ছোট্ট সোনাটিও অচম্বিতেই শিখে ফেলবে এই রীতির আদব-কায়দা।আর ছোট্ট হস্তযুগল থেকে পাওয়া ক্ষুদ্র উপহারটিই একজন মা হিসেবে আপনার জীবনে হয়ে উঠবে বৃহৎ এক অভাবনীয় পাওনা যা আপনার সন্তানও ক্রমশ বড় হয়ে ওঠার সাথে সাথে মাতৃ দিবসের এই বিশেষ দিনটিকে আপনার জন্য আরও বৈশিষ্ট্যমণ্ডিত করে তুলবে তার সাধ্যমত।তবে আপনি যদি এই মাদার’স ডে তে আপনার মা-কে কি উপহার দেবেন সে ব্যাপারে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নিয়ে না থাকেন তবে এখানে এমন কিছু আইডিয়া দেওয়া হল যেগুলি মাতৃ দিবসের উপহারের জন্য বেশ ভাল হিসেবে বিবেচিত হতে পারে।

aniview

মাতৃ দিবস উপলক্ষে সেরা উপহার সমগ্র

মাতৃ দিবস উপলক্ষে সেরা উপহার সমগ্র

মাদার’স ডে বা মাতৃ দিবসের উপহারের বেশ কিছু চমৎকার পছন্দের উল্লেখ এখানে করা হল যেগুলি নিশ্চিতভাবে সকল মায়ের মুখেই হাসি ফুটিয়ে তুলবে।আপনি আবার এক্ষেত্রে আপনার নিজস্ব স্পর্শের ছোঁয়াও সংযোজিত করতে পারেন কিম্বা এগুলির সাথে আপনার নিজস্বতার সমন্বয় ঘটিয়ে এমন এক অনন্য উপহার গড়ে তুলতে পারেন যা আপনার মায়ের জন্য কিছু বিশেষ অর্থ বহন করে, যার দেখাদেখি আপনার বাড়ির ছোট্ট সদস্যটিও আপনার জন্যও এই একই পথটি অনুসরণ করবে বলে আশা করাই যায়, কারণ বাচ্চারা তাদের মায়েদের দেখেই সবচেয়ে বেশি শেখে এবং তাদের অনুকরণ করার চেষ্টা করে তাদের আদর্শেই বড় হয়ে ওঠে, যেমনটি ঠিক আপনিও হয়েছেন আপনার মায়ের থেকেই দেখে-শিখে।তাই হতেই পারে এই মাদার’স ডে-টি আপনার জন্যও কিছু বিশেষ মুহূর্তের প্রতীক্ষায় রয়েছে।

1.বিশ্বের শ্রেষ্ঠতম মায়ের জন্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য

আপনার মা, যিনি আপনার জন্য তাঁর সাধ্যের অতিরিক্তই কিছু করেছেন, তিনি যে সবচেয়ে সেরা, তা তাঁকে প্রতি মুহুর্তে স্মরণ করিয়ে দেওয়ার একটি উপায় হতে পারে তাঁকে এমন একটি জিনিস উপহার দেওয়া যা তাঁকে প্রতি ক্ষেত্রেই তা মনে করিয়ে দিতে বাধ্য।নিত্য ব্যবহারের জন্য কফি-মগ,বালিশ, কিম্বা রান্না ঘরের এমন কোনও সামগ্রীর উপর “তুমি পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ মা” বা “You are the Best Mom in the World”-কথাটি মুদ্রিত করে সেটি মাতৃ দিবস উপলক্ষে আপনার মায়ের জন্য হয়ে উঠবে একদম যথার্থ উপহার।আপনি এর সাথে আবার আপনার মায়ের প্রয়োজন অনুযায়ী আরও নানা জিনিস যোগ করতে পারেন আপনার তালিকায়।এই সবগুলি হওয়া দরকার এমন কিছু জিনিস যেগুলিকে আপনার মা প্রতিদিন ব্যবহার করবেন আর প্রত্যেকবারই তাঁর আপনার উপহারের কথা মনে পড়বে।

2.সুদৃশ্য কাঠের ফটো-ফ্রেম

আপনার মায়ের একটা ছবি নিন অথবা আপনার এবং আপনার মায়ের একসাথে তোলা কোনও ছবি নিয়ে সটিকে একটি সুদৃশ্য কাঠের ফ্রেম-বন্দী করে আপনার মাকে উপহার দিতে পারেন।এছাড়াও আপনি আবার এর জন্য আপনার পরিবারের সকল সদস্য সহ একটি ফটোও বাছতে পারেন যার সাথে একটা বিশেষ বার্তা যোগ করে দিতে পারেন আপনার মায়ের জন্য।যদিও এটি একটি খুব সাধারণ উপহার কিন্তু সেটি অনেক কথাই বলে যা তিনি আসন্ন বছরগুলিতেও বছরের পর বছর ধরে মনে করে রাখবেন।

3.একটি সুন্দর নেকলেস বা কণ্ঠাভারণ

একটা ছোট্ট সুন্দর নেকলেস বা কন্ঠাভরণ যেটি তিনি সবসময় তাঁর কন্ঠে পরে থাকতে পারবেন সেটি হয়ে উঠতে পারে মাতৃদিবসে তাঁর জন্য প্রদেয় একটি সেরা উপহার তা সেটি তার পুত্র বা কন্যা যেই দিক না কেন।আপনি আবার একটি সুন্দর ব্রেসলেট বা বাজুবন্ধ, বালা অথবা কানের দুল যেটি আপনার মা পরতে পছন্দ করেন সেটিও তাঁকে উপহারে দিতে পারেন এবং আপনি সম্পূর্ণ নিশ্চিত হতে পারেন যে সেটি আপনার মা অবশ্যই ভালবাসবেন।

4.একটি প্ল্যানার বা ডায়েরি

আপনি যদি জ্ঞাত থাকেন যে আপনার মা তাঁর দৈনন্দিন কাজের পরিকল্পনা বা নির্দিষ্ট খাদ্য তালিকা বা ডায়েট বজায় রাখতে সমস্যার সম্মূখীন হন তাহলে আপনি তাকে একটা প্ল্যানার উপহার হিসাবে দিতে পারেন।এটি হল সেই উপহার যেটিকে তিনি প্রতিদিন ব্যবহার করবেন এবং শেষ পর্যন্ত তাতে তাঁর দৈনন্দিন কর্মপরিকল্পণাগুলি লিখে রাখবেন এবং পরবর্তীতে সেটিকে একটা জার্নালের মত ব্যবহার করতে পারবেন আর তার স্মৃতিতে আপনার সাথে কাটানো মুহুর্তগুলিকেও সযত্নে ধরে রাখবেন।এটি একটা সুন্দর অভ্যাসে পরিণত হতে পারে যার সাহায্যে  তিনি আজ থেকে অনেক বছর পরেও পিছনে ফিরে দেখতে পারবেন।

5.একটি আইস মোল্ড বা বরফের ছাঁচ

আপনার মা যদি বেভারেজ বা নানা স্বাদের পানীয় এবং শীতল মদিরা পান করতে ভালবাসেন তাহলে একটা আইস মোল্ডের থেকে আর কি ভাল উপহার তাঁর জন্য হতে পারে!এটিকে আপনি অসাধারণ করে তুলতে পারেন সেটিকে কিছুটা জল দিয়ে পূর্ণ করে আর কিছু সাইট্রাস ফলের কুঁচি বা ভেষজ দিয়ে সেটিকে সাজিয়ে তোলার মাধ্যমে।এটিই হয়ে উঠবে আপনার মায়ের কাছে একটা সম্পূর্ণ সুন্দর উপহার যখন তাঁর সঙ্গীসাথী-বান্ধবীরা আপনাদের বাড়িতে আসবেন একসাথে গল্পগুজব করার জন্য।

6.হ্যান্ডি ক্ল্যাচ বা ক্ষুদ্র ব্যাগ

যদি আপনার মা পয়সা বা কয়েনগুলিকে কিম্বা তাঁর লিপস্টিকটিকে তাঁর বড় ব্যাগটির এক কোণায় প্রায়শই হারিয়ে ফেলেন তাহলে আপনি তাঁকে একটা ছোট্ট ব্যাগ উপহার দিতে পারেন।যার ভিতর তিনি তাঁর প্রয়োজনীয় সমস্ত টুকিটাকি জিনিসগুলিকে গুছিয়ে রাখতে পারেন আর দরকার মত সেটিকে তাঁর বড় ব্যাগটি থেকে বের করে নিতে পারেন কোনো সমস্যা ছাড়াই।

7.তাঁকে একটা বই উপহার দিন

আপনি কি তাঁকে মাঝেমধ্যেই বলতে শুনেছেন যে তিনি কোনো একটি বিশেষ বই কিনতে চান বা পড়তে চান?কিম্বা সাধারণভাবেই তিনি কি একজন সুপাঠক?একজন সুরূচি সম্পন্ন পাঠকের কাছে তার প্রিয় বইটির থেকে কি বেশি আনন্দদায়ক উপহার হতে পারে, আবার তিনি যদি আপনার মা হন? মাদার’স ডে বা মাতৃ-দিবসে তাঁকে আরাম করে বসে তার সেই আকাঙ্খিত বইটি হাতে ধরে পড়ার সুযোগটি আপনি করে দিতে পারেন।যে বইটি তিনি পড়তে চান সেটি আপনি তাঁকে কিনে দিন অথবা যেই বিষয়ের তার আগ্রহ আছে সেই সংক্রান্ত বই আপনি তাঁকে দিতে পারেন।

8.তাঁর বাগানের সংগ্রহশালায় অতিরিক্ত সংযোজন

আপনার মা যদি তাঁর শখের সুন্দর একটি বাগান পরিচর্যায় নিজেকে নিয়োজিত রাখতে ভালবাসেন, সেক্ষেত্রে ছোট ছোট কিছু চারাগাছ তাঁকে উপহার দিয়ে খুশি করার থেকে বেশি আর কি হতে পারে? তাও আবার যদি সেগুলি তাঁর বহুদিনের কাঙ্খিত চারা হয়ে থাকে যেগুলিকে তিনি তার বাগানে অন্তর্ভূক্ত করতে চান তাহলে তো আর কোনও কথাই নেই!আবার বাগান পরিচর্যার কিছু উপকরণ সামগ্রীও আপনি তাঁকে উপহারে দেওয়ার কথা ভাবতে পারেন।যেমন গাছের ডাল-পালা ছাঁটার কাঁচি বা প্রুনার, বাগান পরিচর্যা করার সরঞ্জামগুলি রাখার একটি ব্যাগ ইত্যাদি তাঁকে দেওয়ার জন্য আদর্শ উপহার হয়ে উঠতে পারে।

9.তাকে আইসক্রিম দিয়ে মোহিত করুন

মায়েরাও আইসক্রিম খেতে ভালবাসেন।তাকে এক বাক্স আইসক্রিম উপহার দিন যাতে তিনি আরামে বসে আপনার সাথে কিম্বা পরিবারের সকলের সাথে সেটা উপভোগ করতে পারেন।মাতৃদিবসকে এই ভাবে পারিবারিক উৎসবে পরিণত করুন যেখানে পরিবারের প্রত্যেকেই অংশগ্রহণ করতে পারেন।আপনি তাঁকে নিয়ে আইসক্রিম পার্টি করতে বাইরেও নিয়ে যেতে পারেন।

10.ঝুলন্ত উদ্যান আরও সুসজ্জিত করে তোলার কিট

উদ্যানপ্রেমী মায়েদের জন্য অপর একটি অসাধারণ উপহার হল তাঁদের কয়েকটি ঝোলাবার উপযোগী গাছের টব সহ কিটটিকে উপহার হিসাবে দেওয়া যাতে তারা ঘরের অন্দরমহলে মনের মত করে একটি ঝুলন্ত উদ্যান তৈরী করতে পারেন। কিটটিতে থাকবে ঘরের ভিতরে একটা ঝুলন্ত বাগানকে সুসজ্জিত করে তোলার উপযোগী একটি ঝুলন্ত বিস্তৃত ক্ষেত্র, সাজানো পর্বত এবং আরও অনেক কিছু।

11.ফ্রেঞ্চ প্রেস

ভোরের এক কাপ ধোঁয়া ওঠা কফি যদি এমন এক জিনিস হয় যা আপনার মা কিছুতেই মিস করতে চান না, একটি সুন্দর ফ্রেঞ্চ প্রেস মেশিন তাঁর মেজাজকে চাঙ্গা করে তুলতে পারে।এটি বেশ ছোট্ট, খুব বেশি জায়গাও নেয় না এবং গড়ে এক কাপ মত কফি তৈরী করতে পারে।

12.ফুলদানি এবং সুগন্ধি মোম

আপনার মা কি সবসময়ই আপনাদের বাড়িটিকে সুন্দর করে সাজিয়ে গুছিয়ে রাখতে ভালোবাসেন এবং তাতেই তাঁর প্রায় সারাটা দিন ব্যয় করেন?অথবা তাঁর সংগ্রহে বিভিন্ন সুগন্ধি মোম এবং ফুলদানি জমাবার নেশা আছে?তবে সে ব্যাপারে এগুলি একদম যথার্থ হবে।আপনি এগুলির বিভিন্ন ধরণ থেকে বেছে নিতে পারেন এমন একটি বা কয়েকটিকে যেগুলিকে দেখামাত্রই আপনার মা আপ্লুত হয়ে উঠবেন।

13.একটি আরামদায়ক নরম বিছানার বালিশ

সারাদিনের কাজ-কর্ম সেরে আরাম করে বিছানায় শুয়ে একটি ভাল বই পড়ার জন্য উপযোগী হয়ে ওঠার জন্য একটি নরম আরামদায়ক বালিশের থেকে বেশি ভাল উপহার আর কি হতে পারে! বই প্রেমী পাঠকদের জন্য এই বালিশটি সেভাবেই ডিজাইন করা হয় এবং এর উচ্চতাটি এমন হয়ে থাকে যেখানে ম্যাট্রেস বা বিছানার গদি থেকে মাথা রাখার অবস্থানটি এমন হয় যা আপনার মাকে একটি আরামদায়ক অবস্থানে থেকে তাঁর প্রিয় বইটিকে পাঠ করার ক্ষেত্রে সহায়তা করে।

14কাস্টমাইজড কোস্টার

আপনার মা কি টেবিল এটিকেটসের ব্যাপারে ভীষণ কড়া?তাঁর পছন্দের টেবিল টপটিকে আগত অতিথিদের থেকে রক্ষা করার জন্য এক সেট কাস্টমাইজড কোস্টার তাঁকে এই মাদার’স ডে-তে উপহার দেওয়ার জন্য চমৎকার হতে পারে।আপনি আবার এর উপর আপনার মায়ের জন্য বিশেষ কিছু  বার্তা এনগ্রেভড করাতে পারেন অথবা এমন কিছু ছবিকে বেছে নিতে পারেন যা তিনি উপভোগ করবেন।

15.একটি বাঁধানো ফ্যামিলি ট্রী

মনে পড়ে আপনার ছেলেবেলার কথা, যখন আপনি আপনার অপটু হাতে দেওয়ালে আঁকিবুকি কেটে পরিবারের সকলের বড় থেকে ছোট অনুযায়ী একটি করে ছবি এঁকে তার তলায় তাদের নাম লিখে গড়ে তুলতেন নানা শাখা-প্রশাখা যুক্ত একটি ফ্যামিলি ট্রী?অনুরূপভাবেই আপনি এখন আরও একবার সেটিকে গড়ে তুলতে পারেন আরও সুসজ্জিতভাবে আপনার নিপুণ হস্ত দক্ষতার ছোঁয়ায়, যার মধ্যে পরিবারের সকলের ছবিকে সুন্দর ফ্রেমবন্দী করে প্রতিটি ছবির তলায় তাদের নাম এবং তাদের জন্য আপনার কিছু বিশেষ বার্তা বিশেষ করে আপনার পরিবারের মধ্যমণি আপনার মায়ের উদ্দেশ্যে আপনার পরিবারের প্রতি তাঁর বিশেষ অবদানের ব্যাপারে দু-চার লাইন বা তাঁর প্রতি বিশেষ কিছু উক্তি লিখে দিয়ে একটি সুসজ্জিত ফ্যামিলি ট্রী বানিয়ে আপনার মাকে দিলে তা সন্তানের কাছ থেকে পাওয়া মায়ের এক অভূতপূর্ব অনুভূতি ও আবেগ মণ্ডিত চোখে জল নিয়ে আসার মতই চমকপ্রদ উপহার হয়ে উঠতে পারে।

16.কাস্টমাইজড অ্যাপ্রন

বেক করা কিম্বা রান্না করা কি আপনার মায়ের পছন্দের কোনও বিষয়?সেক্ষেত্রে “তুমিই পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ মা” বা “You are the Best Mom in the World” লেখা আছে এমন কোনও অ্যাপ্রন আপনার মায়ের জন্য হয়ে উঠতে পারে তাঁর সবচেয়ে সেরা উপহার।আপনি আবার সুন্দর কিছু ডিজাইনের অ্যাপ্রনও বেছে নিতে পারেন আপনার মায়ের জন্য যদি তিনি সেগুলি বেশি পছন্দ করেন।

17.বনসাই গাছ

একটি বনসাই গাছ একদম উপযুক্ত উপহার হতে পারে সেই মায়ের জন্য, যিনি তাঁর বাড়ির অন্দরমহলে কিম্বা ব্যালকনিতে একটি সুন্দর ছোট্ট বাগান করতে ভালোবাসেন।এগুলিকে যত্নের জন্য খুব বেশি খাটুনির প্রয়োজন পড়ে না এবং ছোট্ট টবের মধ্যে দেখতেও ভারী সুন্দর লাগে।আপনার মায়ের মুখে হাসি ফোটাতে এই মাদার’স ডে-তে তাঁকে এর একটি আপনি দিতেই পারেন।

18.রান্নার বই

আপনার মা যেভাবে আপনার জন্য সর্বদা নতুন নতুন রেসিপি বানান তার জন্য তিনি বেশ গর্ববোধ করেন তাই না?তাঁকে একটি ভাল রান্নার বই উপহার দেওয়ার মাধ্যমে তাঁর রান্নার তালিকায় আরও নতুন নতুন রেসিপি যোগ করার একটা সুযোগ তাঁকে করে দিন।লক্ষ্য করতে পারবেন যে তিনি সেটিকে এতটাই পছন্দ করবেন যে মুহূর্তেই তার থেকে নতুন কিছু আপনার জন্য বানাবার চেষ্টায় মেতে উঠবেন।

19.ওয়াল গার্ডেন

সব মায়েরাই ভালবাসবেন তাদের বাড়ির বর্হিপ্রাঙ্গণের দেওয়ালে যদি ছোট্ট এক টুকরো প্রাকৃতিক সৌন্দর্য গড়ে ওঠে।তাই এই মাতৃ দিবসে আপনার মাকে উপহার দিন একটি সুন্দর ওয়াল গার্ডেন, যেখানে তিনি পরম আনন্দে বাইরে বসে এক কাপ কফিতে এক পরম শান্তির চুমুক দিতে পারেন।

20.বাথ বোম

খুব নূন্যতম কিছু করেই পর্যাপ্ত আরাম পাওয়া যেতে পারে এমন একটি দিনের থেকে আরও ভাল আর কি হতে পারে একজন মায়ের পক্ষে?এটি আপনি আপনার মায়ের জন্য করে তুলতেই পারেন এক সেট প্রাকৃতিক হাতে তৈরী বাথ বোমের দ্বারা।তাঁকে একটি নিখুঁত আরামের দিন উপভোগ করতে দিন।

21.ভালো গানের বেশ কয়েকটি সিডির সেট

আপনার মা যদি গান পাগল হয়ে থাকেন এবং সারাদিনের শেষে একান্তে বসে নিভৃতে তা উপভোগ করতে পছন্দ করেন, তবে তাঁর প্রিয় শিল্পীর গাওয়া বেশ কিছু গানের সিডির একটি সেট এই মাদার’স ডে-তে আপনার মায়ের জন্য হয়ে উঠতে পারে তাঁর সবচেয়ে সেরা উপহার।

22. দুর্দান্ত এক শাড়ির চমক

যদি আপনার মা শাড়ি পরতে ভালোবাসেন আর অনেকদিন ধরেই তাঁর বিশেষ কোনও একটি শাড়ি কেনার সুপ্ত ইচ্ছে মনের অভ্যন্তরে ঘোরাফেরা করে, সেক্ষেত্রে তাঁর সেই বিশেষ ইচ্ছে পূরণ করার কাজটি আপনি করতেই পারেন এই মাদার’স ডে-তে সেই শাড়িটি তাঁর সামনে এনে হাজির করে তাঁকে এক অপ্রত্যাশিত চমক দেওয়ার মাধ্যমে।

23.এক গছা ফুলের তোড়ার সাথে মায়ের পছন্দের কিছু মিষ্টি

আপনার মা যদি মিষ্টি খেতে ভালোবাসেন কিন্তু নানা কারণে তিনি সেটি খাওয়া থেকে নিজেকে বঞ্চিত করেন তবে এই মাদার’স ডে-এর বিকালে তার জন্য আনতেই পারেন তাঁর পছন্দের ফুলের একটি তোড়ার সাথে তার পছন্দের মিষ্টিগুলি দু-একটি করে একটি বাক্সে ভরে সেটিকে রঙীন মোড়কে মুড়ে, আর তুলে দিতে পারেন আপনার মাতৃ জননীর হাতে, হতেই পারে এটি তাঁর কাছে শ্রেষ্ঠ উপহার।

24.মনের অভ্যন্তরে স্বযত্নে লালিত অনেক কালের ইচ্ছে পূরণ

এমন ঘটনা ঘটতেই পারে যা হয়ত আপনার মা তাঁর মনের অভ্যন্তরে অনেককাল ধরেই স্বযত্নে লালন করে চলেছেন তাঁর কোনও গোপন অভিলাষ, কিন্তু সংসারের নানা কারণে আপনাদের পরিবারের কারুর কাছেই তা প্রকাশ করার কোনও সুযোগ কোনও দিন সেরকমভাবে পান নি, বা পরিবারের কেউই তার খোঁজও করার চেষ্টা করে নি।তাই একটু আগে থেকেই চেষ্টা করুন তার সন্ধান করার।এর জন্য আপনার মায়ের সাথে আরও অন্তরঙ্গ হয়ে ছলে বলে নানা কথাবার্তার মাধ্যমে জানার চেষ্টা করুন তার মনের সেই সুপ্ত বাসনাটি।তা হতে পারে আপনার মায়ের অনেক কাল ধরেই কিছু মিউজিক ইন্সট্রুমেন্টের শখ কিম্বা কোথাও ঘুরতে যাওয়ার ইচ্ছে অথবা হতে পারে কোনও বিশেষ রেঁস্তোরায় নির্দিষ্ট কিছু খাদ্য আইটেম খাওয়ার গোপন ইচ্ছে বা কোনও হাতের কাজ শেখা ইত্যাদির মত যেকোনও শখ।করুন না এই মাতৃ দিবসটিকে স্মরণীয় আপনার মাকে সারপ্রাইজের সাথে তাঁর সেই বিশেষ ইচ্ছেটিকে পূরণ করার সুযোগ এনে দেওয়ার দ্বারা!

25.বাক্স ভরা চকোলেট

সন্তানের ইচ্ছে-অনিচ্ছের কথা মায়েদের আলাদা করে বলে দিতে হয় না, তাঁরা সবকিছুই বুঝে যান আগে থেকে যে তাঁদের সন্তানরা কি ভালোবাসে আর কি বাসে না।যেমন ধরুন আপনার ছেলেবেলার কথা কিম্বা আপনার সন্তানের কথাই যদি আসে, আপনি নিশ্চিতভাবেই বলতে পারেন যে নানা ধরণের চকোলেটের সম্ভার আপনার সন্তানের সামনে নিয়ে ধরলে তার মুখে অনিবার্যভাবেই হাসির ঝলক ফুটে ওঠে।কিন্তু মায়েরাও চকোলেট ভালোবাসে, যদিও সব মা নয় তবে অনেক মায়েরাই সেই দলে পড়েন যাঁরা ভীষণভাবেই চকোলেট পছন্দ করেন, আর আপনার মাও যদি একজন চকোলেট প্রেমী হয়ে থাকেন তবে এইবার তাঁকেও এক বাক্স চকোলেট উপহারে দিয়ে তাঁর মুখের অনাবিল হাসিটি ফুটিয়ে তুলুন ঠিক যেভাবে আপনার ছেলেবেলাতেও তিনি আপনার মুখে হাসি ফুটিয়ে তুলতেন।

26. গতানুগতিক প্রথাগত থেকে একটু ভিন্ন ভঙ্গীমায় উপহার প্রদান

এতক্ষণ তো আমরা মাতৃদিবসে আমাদের পরম শ্রদ্ধেয় মাকে উপহার দেওয়ার নানা তালিকার উল্লেখ করলাম, কিন্তু এবার আসি একটু ভিন্ন ধারায় একটু অন্যরকমভাবে মাতৃ দিবসে মাকে চমক দেওয়ার মত উপহার তুলে দেওয়ার ব্যাপারে, যেটি হয়ত হাতে-হাতে পাওয়ার মত কোনও পার্থিব বস্তু নয় কিন্তু অনন্তকাল ধরে মায়ের হৃদয় জুড়ে থাকার এক অনবদ্য অভূতপূর্ব অভিজ্ঞতা হয়ে উঠতে পারে।এক্ষেত্রে আপনি যদি কোনও R J  হয়ে থাকেন তবে এই বিশেষ দিনটিতে আপনার মায়ের জন্য আপনার না বলতে পারা বিশেষ অনুভূতিটিকে ব্যাক্ত করতে পারেন দু-চার পংক্তির দ্বারা।আর তা যখন বেতার সম্প্রচারের দ্বারা সহস্রাধিক মানুষের সাথে আপনার মায়ের কানেও ভেসে আসবে, এই বিশেষ দিনে তাঁর প্রাপ্তিটি যে কতখানি হবে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।অনুরূপভাবেই আবার আপনি আপনার মাকে এই দিনটিকে শুভেচ্ছা বার্তা জানাতে পারেন কোনও নিউজ পেপার বা সংবাদ মাধ্যমের দ্বারা অথবা তাঁর ভালোবাসার রেসিপিটিকে বানিয়ে তার সামনে তুলে ধরে কিম্বা আয়োজন করতে পারেন তার উদ্দেশ্যে বিশেষ এক ছোট্ট অনুষ্ঠানের, যার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত একটিই বিষয়-তিনি আপনার “মা”-যা বাচ্চা থেকে বড় সকলেই তাদের মায়ের জন্য করতেই পারে।কীভাবে উপস্থাপন করবেন? সে দায়িত্বের ভারটুকু আপনার হাতেই না হয় ছেড়ে দিলাম, আর আমরা নিশ্চিত আপনার চেয়ে ভাল হয়ত আর কেউ এই দিনটিকে আপনার মায়ের জন্য বিশিষ্ট করে তুলতে পারবে না।আর সেই পাওনা আপনার মায়ের কাছে হয়ে উঠবে এক অপ্রত্যাশিত পাওনার থেকেও আরও অনেক বেশি পাওনা।

মাদার্স ডে’র জন্য ঘরে তৈরী(নিজের হাতে তৈরী করা)সেরা উপহার

দোকান থেকে কেনা যেকোনো উপহার মাদার’স ডে-এর বিশেষ দিনটি যে, যেকোনও মায়েরই  দারুণভাবে শুরু করতে সাহায্য করতে পারে তাতে কোনো সন্দেহ নেই।কিন্তু যদি তাতে আরও অতিরিক্ত বিশিষ্টতা আনতে চাওয়া হয় তাহলে তাতে সন্তানের নিজের হাতের ছোঁয়া লাগানো সবচেয়ে সথার্থ হয়ে ওঠে।এখানে কয়েকটি মাদার্স ডে’র উপহারের কথা আলোচনা করা হল যা সব বয়সের যেকোনও সন্তানই তার নিজের হাতে করে ঘরেই বানিয়ে নিতে পারে, আর তা দেখে বাড়ির কনিষ্ঠ সদস্যটিও উৎসাহিত হয়ে উঠবে নিজের হাতে আপনার জন্যও স্পেশাল কিছু উপহার বানাবার জন্য। 

1. রঙিন পুঁতির বাজুবন্ধ বা ব্রেসলেট

এক্ষেত্রে মায়ের জন্য নিজের মত করে একটি সুন্দর ব্রেসলেট বানানো যেতে পারে যেটি মায়েরা পরতে গর্ব অনুভব করবেন।মাকে উপহার দেওয়ার জন্য বানাবার ক্ষেত্রে এটি বাড়ির বাচ্চাদেরও একটি বেশ আকর্ষণীয় কাজ।এটি তৈরী করা খুবই সহজ এবং আপনি আপনার ভাইবোনদেরকে ডেকেও এই কাজে অন্তর্ভূক্ত করতে পারেন যা দেখে আপনার সন্তানও শিখবে কীভাবে ভাই-বোনেদের নিয়ে একসাথে কাজ করা যায়, তবে অবশ্যই যদি সেটি তারা করতে চায়।আর আপনি যদি একমাত্র সন্তান হন তাহলে আপনি একা একাই কাজটি করতে পারবেন যা আপনার সন্তানের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য।

যে জিনিসগুলো লাগবে

  • কাঠের পুঁতি
  • ফিতে
  • রঙ

কীভাবে বানাতে হবে

  • কয়েকটি কাঠের পুঁতি নিয়ে সেগুলিকে রঙ করে বা অন্য কোনো উপায়ে নিজের পছন্দ মত সাজিয়ে নিতে হবে।আর এর সাথে যোগ করা যেতে পারে নিজস্বতার ছোঁয়া।যদি ভাই বোনের সাথে কাজটি করা হয়ে থাকে তাহলে এক একটি পুঁতি এক একজনের প্রতিভূ হয়ে উঠতে পারে এবং তারা তাদের মত করে সেগুলিকে রাঙিয়ে তুলতে পারে।
  • রঙ করা সম্পন্ন হয়ে গেলে সেগুলিকে শুকিয়ে নিতে হবে।
  • এরপর পুঁতির ছিদ্রগুলির মধ্য দিয়ে ফিতেটিকে ঢুকিয়ে একটা ব্রেসলেট বানাতে হবে।যাতে করে পুঁতিগুলো হড়কে না যায়, প্রতিটি পুঁতির দুই প্রান্তে ফিতেটাকে গিঁট দিয়ে বাঁধতে ভুললে চলবে না।
  • এর সাথে মায়ের জন্য একটা ছোট্ট পক্তি লিখে মায়ের হাতে তুলে দেওয়া যায় নিজের হাতের তৈরী এই অভিনব সৃষ্টিটি।

2. ক্যানভাসের মধ্যে হৃদয়

একজন মায়ের কাছে তার সন্তানের শৈল্পিক সত্তার সাক্ষর বহনকারী কোন শিল্প নিদর্শন যা তার ভালবাসার প্রতীক, তার থেকে বড় উপহার আর কি হতে পারে?সন্তানের হাতে আঁকা ছবিটি তাঁর স্মৃতির মণিকোঠায় আগামী বছরগুলিতে চিরস্থায়ী হয়ে থাকবে।

যে জিনিসগুলো লাগবে

  • ক্যানভাস
  • রঙ

কীভাবে বানাতে হবে

  • একটি ছোট ক্যানভাস নিতে হবে, এবার নিজের হাতের আঙ্গুলগুলির উপর কিছু রঙের প্রলেপ লাগিয়ে দিতে হবে এবং সেই আঙ্গুলগুলিকে ক্যানভাসের উপর চাপ দিতে হবে
  • এবার রঙ করার কিছু তুলি ব্যবহার করে সাবধানতার সাথে সেই ছাপগুলিকে একটি সুন্দর হৃদয়ের আকারে রূপান্তরিত করতে হবে
  • এটি আবার সব ভাইবোনেরাদের হাতের আঙ্গুলের ছাপ নিয়ে একসাথে যৌথ সমন্বয়ের প্রচেষ্টায় গড়ে তুলে একটি সম্মিলিত উপহার হিসেবেও মাতৃ দিবসে মাকে দেওয়ার একটি আদর্শ উপহার হয়ে উঠতে পারে।
  • আর এটি তৈরী করা হয়ে গেলে মাকে উপহার দেওয়ার আগে বোর্ডের উপর মায়ের জন্য নিজস্ব কিছু বার্তাও লিখে দেওয়া যেতে পারে।
  • আবার এর উপর তারিখ ও সময়টিও উল্লেখ করে দেওয়া যেতে পারে যাতে বেশ কিছু বছর পরেও মা সেই দিনের সেই মুহূর্তের কথাটি স্মরণ করতে পারেন সেই উপহারের দিকে তাকিয়ে।

3.স্প্রিং রোল

মায়েরা যেমন বাড়ির কোনও জিনিসকেই পারতপক্ষে নষ্ট করতে চান না, সবকিছুকেই কিছু না কিছু ভাবে কাজে লাগিয়ে ফেলেন, ঠিক সেভাবেই সন্তানও মাকে দেখাতে পারে যে বাড়ির অব্যবহৃত ফেলে দেওয়ার যোগ্য কিছু জিনিস যেমন টয়লেট রোলের মত বর্জ্যটিকে ব্যবহার করে ফ্লাওয়ার আর্টের মত একটি সুনিপুণ হস্ত শিল্প  গড়ে তুলে  অভিনব কিছু বানিয়ে তাঁকে চমক দেওয়ার জন্য নতুনত্ব কিছু দেওয়া কীভাবে যায়, যা আবার মায়ের থেকেই চট করে শিখে ফেলে বাচ্চারাও।এটি সহজ এবং এটি এমন কিছু যা যেকোনও মা-ই তাঁর বিছানার পাশে টেবিলে সুন্দর করে সাজিয়ে রাখতে পারেন সন্তানের হাতের ছোঁয়াকে।

যে জিনিসগুলো লাগবে

  • কয়েকটি ফাঁকা টয়লেট পেপারের রোল
  • রঙ
  • স্টেপলার
  • আঠা

কীভাবে বানাতে হবে

  • প্রথমে ফাঁকা টয়লেট পেপারগুলিকে নানা ধরণের রঙ করে নিতে হবে, এবার একটি ফাঁকা টয়লেট পেপার রোল নিতে হবে এবং তারপর সেটির ঠিক মাঝখানটায় ভাঁজ করতে হবে।এই একই জিনিস আরও তিনটি রোল দিয়েও করতে হবে।
  • এরপর যা করণীয় তা হল প্রতিটি রোলের ভাঁজের শেষ প্রান্তের খোলা মুখটিকে একের সাথে অপরটিকে স্টেপল করে দিয়ে সেটিকে এমনভাবে তৈরী করতে হবে যাতে সেটিকে দেখতে লাগে একটি ফুলের মত।এই উপহারটি যেহেতু মূলত বাড়ির ছোট সদস্যরাই বেশিরভাগ ক্ষেত্রে তৈরী করতে ভালোবাসে তাদের মায়ের জন্য তাই, সেটি করার সময় বাড়ির বড়দের একটু খেয়াল রাখা প্রয়োজন এবং এই কাজগুলি করতে প্রয়োজনে তাদের সাহায্যও করতে হবে যাতে আনন্দ করতে গিয়ে হাতে পিন ফুটে যাওয়ার মত কোনও নিরানন্দজনক ঘটনা ঘটে না যায়।
  • এটি বানানো শেষ করতে এরপর যা করতে হবে তা হল একটি কাগজের বল বানিয়ে সেই ফুলটির একদম মাঝখানটায় সেটিকে আঠা দিয়ে বসিয়ে দিতে হবে।
  • এরপর অপর আরেকটি রোলকে সবুজ রঙ করে অর্ধেক ভাজ করে একটি সরু কাঠির মত করে বানিয়ে নিয়ে সেটিকে ফুলের কেন্দ্রস্থলের মধ্য দিয়ে ঢোকাতে হবে যাতে সেটিকে ফুলের ডালের মত দেখতে লাগে।
  • ফুলটি বানানো সম্পূর্ণ করতে ফুলের কেন্দ্রস্থলে সরু কাঠির মত প্রান্তটিকে আঠা দিয়ে লাগিয়ে দিতে হবে এবং এটিকে আরও সুন্দর যাতে দেখতে লাগে সেই ফুলের ডালের সাথে আবার কয়েকটি পাতার আকারে সবুজ রঙ করা কাগজ কেটে আঠা দিয়ে লাগিয়ে দিলেই ছোট্ট হাতের সুন্দর উপহার প্রস্তুত।

4.একটি ছোট্ট সুন্দর সাকুলেন্ট জাতীয় উদ্ভিদের বাগান

মায়ের অতি পছন্দের বাগানের একটি ছোট্ট সংস্করণ গড়ে তুলে তাঁর প্রিয় টেবিলটির উপর সাজিয়ে রেখে দিয়ে একটি সুন্দর উপহার হিসেবে তাঁকে চমক দেওয়া যেতেই পারে এই মাদারস ডে-তে।

যে জিনিসগুলো লাগবে

  • ছোট কয়েকটি পাত্র।এক্ষেত্রে পুনর্ব্যবহারযোগ্য পাত্রগুলি কিম্বা চায়ের কয়েকটি কাপ অথবা এমন যেকোনও কিছু নেওয়া যেতে পারে যার মধ্যে কয়েকটি ছোট ছোট নুড়ি এবং কিছুটা মাটি ধরবে।
  • ছোট ছোট রঙীন কয়েকটি নুড়ি বা পাথরের টুকরো
  • মাটি
  • সাকুলেন্ট জাতীয় বিভিন্ন উদ্ভিদের পর্ণকাণ্ড
  • ছোট ছোট পপসিকল স্টিক
  • ক্র্যাফট গ্লু
  • চার্ট পেপারের একটি ছোট টুকরো

কীভাবে বানাতে হবে

  • অ্যাগাভা, ক্যাকটাস, অ্যালোভেরা ইত্যাদির মত কিছু সাকুলেন্ট জাতীয় উদ্ভিদের পর্ণকাণ্ডের ছোট অংশ মায়ের গড়ে তোলা বাগান থেকে কিম্বা অন্য যেকোনও জায়গা থেকে নেওয়া যেতে পারে।
  • এই পর্ণকান্ডগুলি কাটার সময় সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে তারপর এগুলিকে সরাসরি সূর্যালোকে ফেলে রাখতে হবে যতক্ষণ না এগুলোতে ক্যালাস গঠিত হয়।এক্ষেত্রে অভিজ্ঞ মানুষের সাহায্য নিতে হতে পারে।
  • যে পাত্রটিতে গাছগুলি লাগানো হবে সেগুলির নিচে বাগান থেকে ছোটো ছোটো নুড়ি পাথর কুড়িয়ে এনে সাজিয়ে দেওয়া যেতে পারে।পাত্রটিতে রঙ করে বা অন্যান্য কিছু দিয়ে সাজিয়ে তুলেও আরও আকর্ষণীয় করে তলা যায়।
  • এটার পর নুড়ি পাথরগুলিকে খানিকটা মাটি দিয়ে ঢেকে দিতে হবে।
  • এবার একটা ছোট্ট গর্ত খুঁড়ে তাতে উদ্ভিদটি বসাতে হবে।
  • একটা পপসিকল স্টিক অর্ধেক করে কাটুন।
  • একটা চার্ট পেপার নিয়ে তাতে হৃদয়ের ছবি অঙ্কণ করে “মা আমি তোমায় ভালবাসি” কথাটি লেখা যেতে পারে।
  • সেটাকে পপসিকল স্টিকের সাথে আটকে দিতে হবে স্টিকটি মাটিতে পোঁতবার আগেই।

5.মাটির পাত্র

এই উপহারটি বানানোর জন্য হাত নোংরা করতে হবে।বাতাসে শুকিয়ে যায় এমন কিছু মাটি নিয়ে দারুণ একটি পাত্র বানানো যায় মায়ের জন্য এবং পছন্দ মত সেটিকে সাজিয়ে তোলা যায়।

যে জিনিসগুলো লাগবে

  • বাতসে শুকিয়ে যায় এমন মাটি
  • রঙ,পুঁতি,বোতাম,ইত্যাদি

কীভাবে বানাতে হবে

  • বাতাসে শুকিয়ে যায় এমন কিছুটা মাটি নিয়ে দুই হাত দিয়ে চটকাতে হবে যাতে সেটা কিছুটা নরম হয়ে যায়।
  • হাতটাকে কাঁকড়ার দাঁড়ার মত করে নিতে হবে এবং শুধুমাত্র বুড়ো আঙ্গুল দিয়েই মাটিটার মাঝখানটাতে ঠাসতে হবে।
  • এবার আঙ্গুলগুলিকে ব্যবহার করে মাটিটার ধার বরাবর টিপে টিপে পাত্রের আকার দিতে হবে।
  • মনের ইচ্ছামত বিভিন্ন আকারের নতুন ধরনের আকৃতি প্রদান করা যেতে পারে।
  • যে আকারটিতে মনবাঞ্ছা পূর্ণ হবে সেইটিকে এবার শুকোতে দিতে হবে।
  • রঙ করার আগে এটাকে একদিন শুকোতে দিতে হবে।
  • এরপর এটাতে রঙ করা যেতে পারে বা পুঁতিগুলো আটকে দিয়ে দূর্দান্ত আকর্ষনীয় করে তোলা যেতে পারে।

6. নিজের মনের মত মোমবাতি

নিজের মনের মত করে মোমবাতি বানিয়ে মাতৃদিবসে মাকে দেবার মত একটি অসাধারণ উপহার হতে পারে।এটা বানানো খুব সহজ আর খুব বেশি সময় লাগে না।

যে জিনিসগুলো লাগবে

  • মোটা লম্বা মোমবাতি
  • টুথপিক
  • কাগজের তোয়ালে বা পেপার টাওয়েল
  • রঙ

কীভাবে বানাতে হবে

  • মোমবাতিটিতে একটি সুন্দর নকশা বা কোনো বাণী লিখে ফেলতে হবে টুথপিকের সাহায্যে।এটা একা একা করা যেতে পারে অথবা অভিজ্ঞ কারোর সাহায্য নেওয়া যেতে পারে।
  • মোমবাতির গায়ে লেগে থাকা অতিরিক্ত মোমগুলো ব্রাশ দিয়ে পরিষ্কার করে ফেলতে হবে।
  • এবার রঙ করার তুলি দিয়ে নকশাটির উপর রঙ করতে হবে আর পেপার টাওয়েল বা কাগজের তোয়ালে দিয়ে অতিরিক্ত রঙ মুছে ফেলতে হবে।
  • একটা ভেজা কাপড়ের টুকরো অতিরিক্ত রঙ মোছার কাজে ব্যবহার করা যেতে পারে।

7.গ্লাস ফটোফ্রেম

এই মাতৃ দিবসে মায়ের মন কাড়ার মত একটি চমৎকার উপহার হয়ে উঠতে পারে নিজের হাতে করে তাঁকে একটি গ্লাস ফটোফ্রেম বানিয়ে দেওয়া।এটি বানানো বেশ সহজ শুধু প্রয়োজন একটু ধৈর্য্যশক্তির।

যে জিনিসগুলো লাগবে

  • চৌকো কাঁচের টুকরো
  • স্পিরিট বা নেল পালিশ রিমুভার
  • এক টুকরো তুলো
  • রঙ
  • গ্লাস লাইনার
  • টেপ
  • রঙীন কাগজ
  • প্লাইউডের ছোট টুকরো ত্রিকোণ করে কাটা
  • কিছু জরী বা রঙীন ফিতে

কীভাবে বানাতে হবে

  • প্রথমে তুলোর মধ্যে স্পিরিট বা নেল রিমুভার দিয়ে কাঁচের টুকরোটিকে পরিষ্কার করে মুছে নিতে হবে।
  • হাতের আঁকা ভাল হলে গ্লাস লাইনারের সাহায্যে সরাসরি কাঁচের উপর এঁকে রঙ করে নিতে হবে।
  • রঙটি শুকোনো অবধি অপেক্ষা করতে হবে
  • তারপর তার পিছনে রঙীন কাগজটি আঁটকে দিয়ে স্ট্যাণ্ডের মত করে ত্রিকোণাকার প্লাইউডের ছোট টুকরোটিকে আটকে দিতে হবে।
  • আর সামনে থেকে কাঁচের ফ্রেমের চারপাশটায় জরী ও রঙীন ফিতে দিয়ে সুসজ্জিত করে মায়ের পছন্দের উপহারটিকে তৈরী করে নিতে হবে।

8.পোড়া মাটির বা টেরাকোটার  লকেট

অনেক মায়েরাই সাজগোজ করতে বেশ ভালোবাসেন, আর সেই সাজের সরঞ্জাম যদি তাঁর নিজের সন্তানের হাতের তৈরী হয় তবে তার মূল্যই আলাদা।সেরকমই এক মন কাড়া আকর্ষণীয় উপহার তুলে দেওয়া যেতে পারে এই মাতৃ দিবসে মায়ের হাতে।

যে জিনিসগুলো লাগবে

  • কাদা মাটি
  • ছাঁচ
  • বার্ণিশ
  • মাটি পোড়ানোর জন্য নিকটস্থ ভাটিখানা
  • রঙীন লেস

কীভাবে বানাতে হবে

  • কাদামাটিটিকেভালোভাবে মেখে নিতে হবে যাতে তার মধ্যে কোনও দানা না থাকে।
  • এবার সেটিকে পছন্দানুযায়ী নির্দিষ্ট ছাঁচে ফেলে তার ছাঁচ গড়ে নিয়ে দু’ধারে লেস গলাবার উপযোগী দুটি ফুটো করে নিতে হবে।
  • এবার সেটিকে রোদে শুকানোর পর নিকটস্থ ইঁট বা কুমোরের ভাটিখানায় নিয়ে গিয়ে নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় পুড়িয়ে লাল করে আনতে হবে
  • পুরো ব্যাপারটি করতে 2-3 দিন মত সময় লাগবে সেটা মাথায় রাখতে হবে।
  • পোড়ানোর পর সেটিকে নরম ব্রাশ দিয়ে ভালো করে পরিষ্কার করতে হবে
  • অবশেষে অল্প বার্ণিশ তুলিতে করে লকেটটির উপর পালিশ করে দিতে হবে।এতে লকেটটি চকচকে হয়ে উঠবে।
  • এবার নির্দিষ্ট ফুটোর ভিতর দিয়ে রঙীন লেস ঢুকিয়ে মায়ের পছন্দের পোড়া মাটির লকেটটি উপহারের জন্য প্রস্তুত্ত।

9.এমব্রয়ডারি করা রুমাল

কোনও অনুষ্ঠানে ব্যবহারের জন্য মাকে উপহার দেওয়া যেতেই পারে তাঁর পছন্দের একটি সুন্দর এমব্রয়ডারি করা রুমাল যাতে ফুটে উঠবে সুন্দর লতা-পাতার সুতোর কাজের আলপনা কিম্বা তাঁর নামের আদ্যাক্ষরটি।

যে জিনিসগুলো লাগবে

  • রিমালের মাপ অনুযায়ী সাদা এন্ডি কাপড়
  • বিভিন্ন রঙের সুতো
  • সূঁচ
  • ফ্রেম
  • পেন্সিল
  • সাদা লেস

কীভাবে বানাতে হবে

  • সাদা কাপড়ের চারধারটিতে প্রথমে সাদা সুতো দিয়ে হেম সেলাই করে নিতে হবে
  • এরপর কাপড়ের টুকরোটিকে ফ্রেমের মধ্যে শক্ত করে আঁটকে নিয়ে তার উপর পেন্সিল দিয়ে পছন্দ মত ডিজাইন এঁকে নিতে হবে।
  • এবার রঙীন সুতো দিয়ে সেই নকশার উপর সেলাই করতে হবে, সেক্ষেত্রে আবার মায়ের নামের আদ্যাক্ষরটিও নির্বাচন করা যেতে পারে।
  • অবশেষে রুমালের চারপাশে সাদা সুন্দর একটি লেস লাগিয়ে নিতে হবে।

10.সুন্দর এক কাপ কফির সাথে চকো মাফিন

বিকেলে বারান্দায় বসে গরম চা কিম্বা কফি খাওয়ার নেশা যদি থাকে তবে অন্তত এই বিশেষ দিনটিতে মায়ের জন্য নিজের হাতে চট করে বানিয়ে পরিবেশন করা যেতে পারে এক কাপ গরম কফির সাথে একটি সুন্দর চকো মাফিন।

যে জিনিসগুলো লাগবে

  • কফির জন্য- দুধ, কফি পাউডার, প্রয়োজনানুযায়ী চিনি
  • চকো মাফিনের জন্য- ময়দা, কোকো পাউডার, ডিম, দুধ, বেকিং পাউডার,ব্রাউন সুগার,মাখন, ভ্যানিলা এসেন্স, চকো চিপস

কীভাবে বানাতে হবে

চকো মাফিনের ক্ষেত্রেঃ

  • প্রথমেই ময়দার সাথে ভালো করে বেকিং পাউডার ও কোকো পাউডার মিশিয়ে নিতে হবে
  • মাখন গলিয়ে তার সাথে চিনি ও ডিম ভালো করে ফেটিয়ে নিতে হবে।
  • এবার এর সাথে এক এক করে মিশাতে হবে ময়দার মিশ্রণ, দুধ, ভ্যানিলা এসেন্স।এভাবে একটি মিহি ব্যাটার তৈরী করতে হবে।
  • তারপর মাফিন বানাবার ফ্রেমের মধ্যে ঐ ব্যাটার ঢেলে তার উপর চকো চিপসগুলি সাজিয়ে ওভেনে ঢুকিয়ে বেক করে নিতে হবে

কফির জন্যঃ

  • দুধ গরম করতে হবে
  • একটি কাপে কফি পাউডার ও প্রয়োজন অনুযায়ী চিনি মিশিয়ে দুধ ঢেলে ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে।

এরপর গরম গরম কফি এবং চকো মাফিন একটি সুন্দর ট্রে-তে করে সাজিয়ে আপনার মায়ের কাছে পরিবেশন করুন,দেখবেন সেই মুহূর্তে তাঁর মুখের হাসিটিকে ফ্রেমবন্দী করা রাখার মতই হয়ে উঠবে।

11.হাতে ছাপের সাহায্যে কাধে ঝোলানোর কাপড়ের ব্যাগ

সচারচার কোথাও যাওয়ার ক্ষেত্রে মায়ের জন্য একটি কাপড়ের কাঁধে ঝোলানো ব্যাগের উপর হাতের আঙ্গুলের ছাপের সাহায্যে সুন্দর ডিজাইন করে মাতৃ দিবসে দেওয়ার জন্য এটি একটি বেশ ভাল অনন্য উপহার হয়ে উঠতে পারে।এই ব্যাগ যেমন দোকান থেকে কেনাও সহজ আবার ঠিক তেমনই সহজ হল এর উপর হাতের আঙ্গুলের ছাপের সাহায্যে সেটিকে আরও বৈশিষ্ট্যমণ্ডিত করে তোলা।

যে জিনিসগুলো লাগবে

  • একটা সাধারণ কাপড়ের ঝোলা ব্যাগরঙ

কীভাবে বানাতে হবে

  • কাপড়ের তৈরী সাধারণ একটি ঝোলা ব্যাগ নিতে হবে, সবচেয়ে ভাল হয় যদি এটি এক কালারের বা হালকা কোনও রঙের হয়ে থাকে, যেমন সাদা কিম্বা হালকা ঘিয়ে রঙের।
  • এবার ঐ ব্যাগের ভিতরে একটা কার্ডবোর্ড কিম্বা প্লাস্টিকের কভার যুক্ত কোনও বোর্ড বিশেষ ঢুকিয়ে দিতে হবে যাতে রঙ করার সময় সেগুলি ব্যাগের অন্য দিকটায় ছাপ লেগে না যায়।
  • এবার হাতের আঙ্গুলগুলির ডগায় বিভিন্ন রঙ লাগিয়ে সেই কাপড়ের ব্যাগটির উপর সুন্দর ডিজাইন গড়ে তুলতে হবে।
  • এক্ষেত্রে হাতের পাঁচটি আঙ্গুলের ছাপ একটা বৃত্তের ভিতরে দিয়ে সেটিকে একটি ফুলের পাপড়ির আকারে ডিজাইন করে তার সাথে তার ডাল ও পাতা এঁকে নিয়ে একটি সন্দর ফুলের ডিজাইনের ব্যাগ বানানো যেতে পারে।
  • আর এটি বানানো শেষ হয়ে গেলে সেটিকে ভালো মত শুকিয়ে নিতে হবে আর তারপর একটা রঙীন মোড়কে মুড়ে মায়ের হাতে এক চমৎকার উপহার হিসেবে তুলে দেওয়া যেতেই পারে।

12.এক বাক্স ভালোবাসা

সন্তানের কাছে মায়েরা ভালোবাসার মূল্যের থেকে বেশি হতে পারে এমন কোনও উপহার কখনই চান কি? নাকি কোনওকিছুর মূল্যই তাঁর কাছে তাঁর সন্তানের ভালোবাসার বেশি হতে পারে?হ্যাঁ, একটি ছোট্ট বাক্সকে সুন্দর করে সাজিয়ে তার ভিতরে মায়ের প্রতি নিজের অপার ভালোবাসাকে মুড়ে তাঁর হাতে তুলে দিলে তিনি সর্বদাই এই ক্ষুদ্র বাক্সে সন্তানের অপার ভালোবাসার কথা মনে রাখবেন।

যে জিনিসগুলো লাগবে

  • একটা কোনও পুরানো ছোট্ট বাক্স, সেটি যেকোনও চৌকো বাক্স কিম্বা পুরানো গয়নার বাক্স হলেও চলবে।
  • রঙীন চকচকে ফিতে
  • রঙ
  • নানা ধরণের রঙীন পুঁতি, স্টার ইত্যাদি

কীভাবে বানাতে হবে

  • বাক্সটিকে বেশ সুন্দর এবং উজ্জ্বল দেখতে লাগে এমনভাবে রঙ করতে হবে।
  • চাইলে আবার বাক্সটির উপর আরও নানা প্রকার জিনিসের সাহায্যে সেটিকে আরও সুশোভিত করে তোলা যেতে পারে এবং তারপর সেটিকে শুকিয়ে নিতে হবে।
  • এবার রঙীন চকচকে ফিতেটিকে এর উপর ভালভাবে জড়িয়ে নিয়ে উপরটিতে একটি সুন্দর নট বাঁধতে হবে।
  • এবার একটি সুন্দর আবৃত্তি করার সাথে এটিকে মায়ের হাতে তুলে দিয়ে তাঁকে একথা স্মরণ করিয়ে দিতে হবে যে যখনই তিনি তাঁর সন্তানের অভাব বোধ করবেন কিম্বা তার ভালোবাসার প্রত্যাশা করবেন তখনই যেন সেই ছোট্ট বাক্সটিকে নিজের হৃদয়ের কাছে নিয়ে গিয়ে খোলেন, তাহলেই তিনি তা অনুভব করতে পারবেন।   

13.এক জার ভর্তি স্মৃতি

একসময় পরিবারের মধ্যে সকলের সাথে থেকে মায়ের আঁচলের ছায়ায় সকল আবদার, বায়না মিটিয়ে বেড়ে ওঠা, মায়ের স্নেহ মমতার কথা আপনার খুব মনে পড়ে আর আপনি সেগুলিকে আবার একবার ফিরে পাওয়ার প্রত্যাশা করেন?আর আপনার মা-ও কি সেই একই ব্যাপারে প্রায়শই কথা বলেন?সেক্ষেত্রে এই এক জার পূর্ণ স্মৃতির আইডিয়াটি সেই সকল স্মৃতিগুলিকে নাগালের মধ্যে ধরে রাখার সহায়তা্র ক্ষেত্রে একদম উপযুক্ত উপায় হয়ে উঠতে পারে।

যে জিনিসগুলো লাগবে

  • পুরোনো কিছু ফটো, সামগ্রী অথবা এমন যেকোনও জিনিস যেগুলির সাথে আপনার ও আপনার মায়ের বেশ কিছু স্মরণীয় মুহূর্ত জড়িত আছে
  • একটি সুন্দর জার
  • রঙীন ফিতে এবং মায়ের উদ্দেশ্যে কিছু বার্তা প্রেরিত কার্ড

কীভাবে বানাতে হবে

  • স্মৃতিচারণাকে পুনরুজ্জীবিত করে তুলতে পারে এমন কিছু মুহূর্তের সাথে জড়িত সকল ছোটখাট বস্তুগুলিকে সংগ্রহ করতে হবে, সেগুলি হতে পারে পুরোনো কিছু ফটো, আপনার ছেলেবালায় পাওয়া কোনও স্মারক বস্তু ইত্যাদি।
  • এবার সবগুলিকে একটি জারের মধ্যে সুন্দর করে সাজিয়ে রাখুন।ইচ্ছে করলে আপনি আবার নানা রঙের কয়েকটি ফিতের টুকরো দিয়ে জারটিকে সাজিয়ে তুলতে পারেন এবং জারের গায়ে ছোট ছোট কার্ডেরর উপর স্পেশালি মায়ের উদ্দেশ্যে কিছু বার্তা লিখে লাগিয়ে দিতে পারেন।
  • এটি আপনার মায়ের টেবিলের উপর সাজিয়ে রাখার উপযোগী একদম উপযুক্ত একটি উপহার হয়ে উঠতে পারে এবং এটি তৈরী করার জন্য আপনার অনেক চিন্তা-ভাবনা করার প্রয়োজন পড়বে যা আপনার এবং আপনার মায়ের অনেক স্মৃতিমেদুর মুহূর্তের কথা আপনাদের দুজনকেই স্মরণ করিয়ে দেবে।

14. ‘মা-তোমার ব্যাপারে আমার ভালো লাগে এমন 10 টি ব্যাপার’- নিয়ে লেখা ছোট্ট কেতাব

সন্তানের জীবনে তার মা যে অনবদ্য তা তাঁকে স্মরণ করিয়ে দিয়ে মাতৃ দিবসে তাঁর মেজাজকে উন্নীত করে তোলার এটি একটি উপযুক্ত উপায়।এই ছোট্ট বইটি যদিও একটি খুব ছোট্ট সাধারণ উপহার কিন্তু এটি রচনা করার জন্য প্রচুর চিন্তাশক্তির প্রয়োজন এবং পরিবারের সকলেই এর একটি অংশ হয়ে উঠতে পারেন।

যে জিনিসগুলো লাগবে

  • বেশ কিছু কার্ড
  • কার্ডগুলিকে একসাথে বাঁধার জন্য একটি সুন্দর ফিতে
  • নানা রঙের পেন বা রঙ পেন্সিল
  • ম্যাগাজিনের অংশ বিশেষ বা এমন কোনও ছবি যেগুলি মায়ের কথা স্মরণ করিয়ে দেয়

কীভাবে বানাতে হবে

  • এমন কিছু ছবি বা লেখারর সন্ধান করুন যেগুলি মায়ের কথা স্মরণ করিয়ে দেয় এবং সেগুলি দিয়ে বইটিকে রঙীন করে তোলা যায়।
  • প্রতিটি কার্ডে সন্তানকে লিখতে হবে যে কেন সে তার মাকে ভালোবাসে তা সে হতে পারে তাঁর সবচেয়ে সেরা আলিঙ্গনের জন্য, কিম্বা সবচেয়ে প্রিয় রেসিপিটি তৈরী করে দেওয়ার জন্য অথবা সন্তানের শত অন্যায় জানা সত্ত্বেও প্রতিবার তাকে ক্ষমা করে দিয়ে স্নেহের আঁচল পেতে হাত বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য।আবার এর উপযোগী করে এর সাথে কোনও ছবিও এঁকে দেওয়া যেতে পারে।
  • এভাবে 10 টি কার্ড তৈরী করা হয়ে গেলে প্রতিটি কার্ডের বাম পাশের কোণে একটি করে ফুটো করতে হবে যাতে তার ভিতর রঙীন ফিতে ঢুকিয়ে সেগুলিকে একসাথে বেঁধে নেওয়া যায়।
  • এভাবে সব কার্ডগুলি একসাথে বেঁধে নিয়ে একটি ছোট্ট বই আকারে গড়ে তুলতে হবে।
  • এবার এর সাথে এক গোছা গোলাপ নিয়ে মায়ের হাতে তুলে দিলে নিঃসন্দেহে তিনি সবচেয়ে বেশি খুশি হবেনই।

মাদার’স ডে উপলক্ষে এই সকল উপহার সামগ্রীগুলির ধারণাগুলি হল কেবল এমন কিছু পরামর্শ যা আপনার পাশাপাশি প্রায় সকল বয়সের সন্তানরাই তাদের নিজেদের সাধ্যমত তাদের মায়েদের জন্য উপহার নির্বাচন করতে এবং তার সাথে তাদের নিজস্ব ছোঁয়া সংযুক্ত করে সেই উপহারকে আরও বৈশিষ্ট্যমণ্ডিত করে তুলতে পারে যা নিঃসন্দেহে মায়ের মনে দাগ কাটবেই।যদিও মায়েরা অল্পেই সন্তুষ্ট, সন্তানের মঙ্গলের বেশি আর কিছুই তাঁরা সন্তানের কাছে আশা করেন না তবুও তাঁর জন্য এই ছো্টোখাটো উপহারগুলি তৈরী করা এবং তিনি যে ছোট ছোট জিনিস ব্যবহার করতে পছন্দ করেন  সেগুলি তাঁকে দেওয়ার মাধ্যমে মায়েদের উদ্দেশ্যে ঘোষিত এই বিশেষ দিনটিকে তাঁদের কাছে আরও একটু বিশেষ মুহূর্ত করে তোলে যার অভিজ্ঞতা ও স্মৃতি তাঁরা স্বযত্নে লালন করে চলবেন সারা জীবন ব্যাপী।