গৃহে থাকা প্রতিটি ঘরণী মায়ের সাথে সম্পর্কিত হওয়া উচিত এমন 10 টি বিষয়

গৃহে থাকা প্রতিটি ঘরণী মায়ের সাথে সম্পর্কিত হওয়া উচিত এমন 10 টি বিষয়

এই মুহুর্তে সামাজিক মাধ্যমের প্রবণতাগুলির সাথে বিশ্বকে গ্রহণ করে, গৃহরতা ঘরণী মায়েরা বহুচর্চিত সমালোচনার ন্যায্য ভাগের পাশাপাশি আরও বেশি প্রশংসা এবং শক্তি অর্জনের একটি দল হিসেবেও আত্মপ্রকাশ করেছে।গৃহরতা একজন ঘরণী মা হওয়াকে বেছে নেওয়া হল সেই মায়ের আত্মোৎসর্গের পথ বেছে নেওয়া এবং সমাজে আরও ভাল মানুষের সংখ্যা বাড়িয়ে তুলতে এই সকল মায়েদের আত্মত্যাগ স্বীকারকে উদযাপন করা প্রয়োজন।

aniview

তবে সামাজিক মাধ্যম বা স্যোসাল মিডিয়া এবং অনুপ্রেরণামূলক উক্তিগুলি থেকে গৃহতা ঘরণী মায়ের বাস্তবতাগুলি ক্লান্তিময় হয়ে উঠতে পারে এবং এই সকল মায়েরাই হীনমন্যতায় ভুগতে পারেন বা যথাযথভাবে সমাদৃত বোধ কম করে থাকতে পারেন।

আর সেই কারণেই, এখানে এমন দশটি বিষয়ের একটি তালিকা দেওয়া হল যেগুলি প্রতিটি গৃহরতা ঘরণী মা-ই এই শর্তে ঐক্যমত হবেন।

1.একজন মা, যিনি এই সকল ক্রিয়াগুলিই করে থাকেন

একজন অভিভাবক হিসেবে সারাটা দিন জুড়েই বাচ্চার সাথে থাকার কারণে, গৃহরতা গৃহিণী মায়েরা প্রায়শই বেশিরভাগ গৃহস্থলীর কাজকর্ম এবং বাচ্চা দেখাশুনার কাজগুলির দায়িত্ব গ্রহণ করে থাকেন।এটি ফলপ্রসূ হতে পারে আবার চ্যালেঞ্জিংও হয়ে উঠতে পারে, বিশেষ করে নতুন মায়েদের ক্ষেত্রে।তা সে বাচ্চার ঘুমের সময়সীমাগুলি নির্ধারণ করা থেকে শুরু করে শিশুর খাদ্য পছন্দগুলি সম্প্রসারণ করা পর্যন্ত, গৃহরতা ঘরণী মায়েরা অক্ষরে অক্ষরে এ সকল ক্রিয়াই সম্পাদন করে থাকেন।

2.”সারা দিন তুমি করটা কি?”

গৃহরতা ঘরণী মায়েরা সর্বদাই যে প্রশ্নটির মুখোমুখি হয়ে থাকেন তা হল, “সারা দিন তুমি করটা কি?” আর বন্ধুবান্ধব কিম্বা সংশ্লিষ্ট সঙ্গী-সঙ্গিনীরা যদি এই প্রশ্নটিই করেন তখন ঘৃহরতা ঘরণী মায়েরা প্রায়শই তাদের এই ঘরে থাকার সিদ্ধান্তটির ন্যায্যতা কতটা তা সন্ধান করার চেষ্টা করেন এবং তারা ঘরে থেকে যা যা করেন তার ব্যাখ্যা করেন।সাধারণত, সমাজ তাদের ঘরে থাকার এই অপার সময়ে ধরে করে থাকা পরিমাণযোগ্য কাজগুলিকে মূল্য দেয়।কিন্তু আপনার কাজের ন্যায্যতা প্রতিপাদন করার প্রয়োজন আপনার নেই এবং এর পরবর্তীতে যদি আপনাকে কেউ এই প্রশ্নটি করেন যে সারা দিন ধরে আপনি কি করেন, বলুন তাদের চেষ্টা করে দেখাতে আপনি যা যা করেন এবং তাহলেই তারা তা জানতে পারবেন।

3.জীবনে নিজে নিজে করার কাজগুলি

গৃহরতা ঘরণী মায়েরা যে সবকিছুই করে থাকেন তার প্রত্যক্ষ প্রমাণ দেখতে পাওয়া যেতে পারে তাদের প্রতিটি সন্তানের জীবনে।নার্সারি সাজানো থেকে শুরু করে, ভেঙ্গে যাওয়া খেলনা জোড়া লাগানো, প্রতিটি অভিনব পোশাক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের জন্য তাদের সন্তানের সবচেয়ে সেরা পোশাকটি থাকার বিষয়কে নিশ্চিত করা, গৃহরতা ঘরণী মায়েরাই হলেন নিজে নিজে করার বিষয়টির স্রষ্ঠা।নিজে নিজেই করার কথা বলার প্রসঙ্গে, এখানে আপনার জন্য দ্রুত সমাধান হিসাবে একটি নমুনা হিসেবে বলা যাক, এর পরের বার যখন আপনার রূপার কানেরর দুলটিতে ময়লা পড়া শুরু হবে, সেটিকে গরম জল এবং বেকিং সোডার সাথে অ্যালুমিনিয়ামের ফয়েলে জড়িয়ে রাখুন।এরপর কয়েক মিনিট পর সেটিকে বের করে নিন এবং একটি পুরোনো টুথব্রাশ দিয়ে সেটিকে ঘষে নিন।পরিষ্কার জলে ধুয়ে ফেলুন এবং সেটি একেবারে নতুন ঝকঝকে দেখাবে।

4.সময় ব্যবস্থাপনা

ঘৃহরতা ঘরণী মায়েরা সবসময় ঘরেতেই থাকার কারণে, মাঝেমধ্যে তাদের পুরো সময়টাই তাদের সন্তানদের ক্রিয়াকলাপ এবং পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের প্রয়োজনীয়তাকে ঘিরে কেটে যায়।তবে মায়েদের নিজেদের স্বার্থেও প্রতিদিন তাদের নিজেদের জন্য অন্তত কিছুটা সময় ব্যয় করাও অবিচ্ছেদ্য।সর্বোপরি এই মূল্যবান বছরগুলি তো আর ফিরে আসবে না, আর সামাণ্য স্বাচ্ছন্দ্য ও শিথিলকরণ এক বিস্ময়কর কাজ করে থাকতে পারে।

5.রাহা খরচের ভেলকি

আপনি যদি একজন ঘরণী মা হয়ে থাকেন, তবে আপনি জানেন যে, আপনার মস্তিষ্কের একটি অংশ সর্বদাই ব্যস্ত থাকে ইতিমধ্যেই আপনার মাসকাবারি বাজেট তৈরী করে ফেলার পরেও আরও অন্যান্য বিভিন্ন ধরনের ব্যয় সংক্রান্ত হিসেব নিকেশের ব্যাপারে।যেমন আপনি যখন আপনার সন্তানের সর্বশেষ চাহিদা কিম্বা নতুন একটা সুন্দর কাটলারি সেটের উপর আপনার মনের প্রবল বাসনার মধ্যে সমন্বয়বিধান করতে চান, তখন আপনি সর্বদাই এর একটি সমাধান নিয়ে এসেও হাজির হন এটি নিশ্চিত করতে যে বাড়ির আর সকলের প্রত্যেকের কি কি প্রয়োজন।

6.সারাদিন ধরে ঝাড়-পোছ পরিষ্কার

বেশিরভাগ মানুষই খুব অগোছালো হয়ে থাকেনে এবং তারা তাদের অপরিষ্কার করে রাখা স্থানগুলিকেও পরিষ্কার করতে মোটে ভালোবাসেন না।কিন্তু আপনি যদি মনে করেন যে আপনার টলমল করে হেঁটে চলে বেড়ানো ছোট্ট বাচ্চাটি পাশের অন্য ঘরে চুপচাপ খেলা করছে, আপনি সম্ভবত জানেন সামনে কি হতে চলেছে- আপনার ঘরটি দেখে মনে হতে পারে ঝড়ে বিধ্বস্ত এক প্রলয়কাণ্ড হয়ে গেছে বলে।একগুচ্ছ খেলনাপত্র ধোয়া-পরিষ্কার করা, সারা দেয়ালের উপর স্কেচ পেনের দাগ, এবং চতুর্দিকে ছিঁটানো পানীয়গুলি পরিষ্কার করতে বেশ কয়েক ঘন্টা সময় নেয়।গৃহরতা ঘরণী মায়েদের এক আশ্চর্য গোপন ক্ষমতা রয়েছে তাদের ঘর বাড়ি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখার অথবা তাদের বাচ্চারা যে সকল বস্তুগুলির দ্বারা ঘর-দোর অপরিষ্কার করে ফেলে সেগুলিকে অন্ততপক্ষে লুকিয়ে ফেলার।

7.সকলের জন্য কেনাকাটা

মুদিখানার একটা লম্বা তালিকা আপনি যোগ করে রাখুন কিন্তু সাথে সাথেই তাই বলে কিনতে ছুটবেন না অথবা প্রতিটি অনুষ্ঠানেই আপনি অসংখ্য উপহার কিনে বসবেন না, কারণ কেনাকাটার কোনও শেষ নেই।স্পষ্টতই, মায়েরা যখন “খুচরো কেনাকাটির” ধারণাটি নিয়ে এসেছিলেন মানুষজন তাদের ব্যাপারে চিন্তাই করতে পারতেন না।সকল মায়েরাই মুদিখানার কেনাকাটি করাটা পছন্দ করেন না এবং এর নৈতিক সমস্যাটি হল ব্যয়বহুল, জৈব খাদ্য বনাম সস্তা, রাসায়নিকযুক্ত খাবার খাওয়ার মধ্যে দ্বিধা।আর ঘরণী মায়েরা জানেন যে কীভাবে অর্থের সাশ্রয় করে অথচ পরিবারের সকলকে খুশি করা যায়।তাই প্রয়োজন মাফিক জিনিসগুলিই সকলের জন্য ক্রয় করুন আপনার বাজেটের মধ্যে থেকেই সর্বোত্তমটিকে বেছে নেওয়ার মাধ্যমে।

8.সকলের জন্য খাদ্য!

কোনও খাবার রান্না করার সময় যদি আপনার নিজের মনের মধ্যেই আপনি এই ধরনের প্রশ্নগুলির উত্তর খোঁজেন যে “এটি কি সে পছন্দ করবে?” “সে তো ঝাল মশলা খায় না, আমার কি রেসিপিটি একটু বদলে দেওয়া উচিত?” “কিন্তু তখন কি আবার অন্যরা খাবারটিকে পছন্দ করবে?” তবে সেক্ষেত্রে আপনার একজন গৃহরতা ঘরণী মা হওয়ার প্রবল সম্ভাবনা থেকে থাকে।বাচ্চা, ছোট শিশু, কিশোর, যুবক থেকে শুরু করে প্রাপ্ত বয়স্ক এবং বৃদ্ধদের খাওয়ানোটা কোনও মজার ছেলেখেলা কাজ নয় আর রান্না করা হল ঘরণী মায়েদের প্রতিদিন করে থাকা নানা কাজের মধ্যে একটি অন্যতম মূখ্য কাজ যা বাড়ির সকলের মুখের দিকে তাকিয়ে প্রতিদিনই তাদের করতে হয়।সুতরাং পরের বার যখন আপনার সারা দিনের অর্ধেক সময় রান্না ঘরে রান্না করে কাটিয়ে আপনার বাচ্চার মুখের সামনে তুলে ধরা খাবারটিতে সে তার রাগ ও অনীহা প্রকাশ করবে, তখন সে ভবিষ্যতে একদিন শুধু এই ঘরের খাবারের জন্যই ভিক্ষা প্রার্থনা করবে যখন তাকে কাটাতে হবে তাৎক্ষণিক নুডলসগুলিকে খেয়ে জীবন ধারণের জন্য।

9.মাইলফলকগুলি উদযাপন করুন

কজন ঘৃহরতা ঘরণী মা হওয়ার সর্বাধিক লাভজনক দিকটি হল আপনার শিশুর প্রতিটি মাইলফলক অর্জন করার সময় আপনার উপস্থিতি এবং সেগুলিকে উপভোগ করা।তার প্রথম হাসি, প্রথম পদক্ষেপ, অস্ফুট স্বরে তার উচ্চারিত প্রথম শব্দ- এই ধরনের মুহূর্তগুলি এক অনাবিল আনন্দধারা এবং অনুভূতিগুলি নিয়ে আসে যা সন্তান এবং মায়ের মধ্যে গূঢ় বন্ধনটিকে আরও দৃঢ় করে তুলতে সহায়তা করে।কোনও মা বাবাই চান না কর্মস্থানে থাকার জন্য সেই সকল মুহূর্তগুলিকে বিনিময় করে নিতে, সুতরাং এগুলিকে অতি যত্নে আগলে রাখুন এবং আপনার পরিবার এবং বন্ধু বান্ধবদের সাথে উদযাপন করুন।

10. আত্ম সন্দেহ এবং আশ্বাস

বর্তমানে এমন এক বিশ্বের জাগরণ হয়েছে যেখানে মহিলারা বাধাধরা ছকগুলি ভঙ্গ করছেন এবং অন্ধ নিয়ম কানুন রীতিগুলির পরিবর্তন করে চলেছেন, গৃহরতা ঘরণী মায়েরা প্রায়শই সমাজে তাদের অবস্থান সম্পর্কে অনিশ্চিত বোধ করেন।তাদের দক্ষতার ব্যাপারে তারা সন্দেহ প্রকাশ করেন, ঘরণী মায়েরা আবার অনেক সময় তাদের বন্ধুদের পেশা জীবনের সাফল্যতায় ঈর্ষান্বিতও হয়ে উঠতে পারেন এবং তাদের এই সকল আত্ম সন্দেহের মুহূর্তগুলিতে মনে আশ্বাস ধরে রাখাটা একান্ত প্রয়োজন।এটি মনে রাখাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ যে প্রতিটি ব্যক্তির সফলতা এবং ক্ষমতাগুলিকে কখনই একই গজে একইভাবে পরিমাপ করা যেতে পারে না।গৃহরতা ঘরণী মায়েদের অবদান তৈরী করে বিকাশ এবং সাফল্যের বুনিয়াদ।

যদিও এটুকু বলাই যথেষ্ট নয়, গৃহরতা ঘরণী মায়েরা হলেন তাদের পরিবার বিশ্বের কেন্দ্রবিন্দু, যিনি পরিবারের সকলের জীবনের সকল কার্যগুলি মসৃণভাবে বয়ে চলাকে নিশ্চিত করেন এমনকি সেটি যদি তাদের নিজেদের জীবনের স্বাচ্ছন্দ্যের মূল্যের বিনিময়েও হয়ে থাকে তবুও তারা সেটি করেন।

সুতরাং আপনি যদি একজন গৃহরতা ঘরণী মা হয়ে থাকেন তবে জেনে রাখুন যে আপনি এর জন্য প্রশংসিত আর আপনার পরিবারের সদস্যরা এটি কল্পনাও করতে পারবে না যে আপনি সারা দিনে যা করেন সেগুলি করে দেখানোর।অতএব, একটা দিন ছুটি নিন, শান্ত হয়ে বসুন আর বিশ্রাম করুন, আর আপনি যে চায়ের কাপটিতে চুমুক দেওয়ার জন্য প্রতীক্ষারতা সেই সামাণ্যটুকু প্রস্তুতের জন্য এবং তাদের নিজেদের সকলের দৈনন্দিন প্রয়োজনের যোগান অন্তত একদিনের জন্য করে নেওয়ার ক্ষেত্রে আপনার পরিবারের সদস্যরা যা কিছু কাণ্ড, বিশৃঙ্খলা করে ফেলে তা লক্ষ্য করতে থাকুন, সংসারে আপনার মূল্য কতখানি আপনি নিজেই বুঝে যাবেন।