বেসাল শারীরিক তাপমাত্রা (বিবিটি): ট্র্যাকিং, চার্টিং এবং আরো

বাসাল দৈহিক তাপমাত্রা নজরে রেখে মহিলারা স্বা বি বি টি চার্ট ভাবিক প্রক্রিয়ায় গর্ভধারণ রোধ করেন। আবার যে সকল মহিলারা গর্ভধারণ করতে চান তারাও তাদের সঠিকসময় জানতে পারেন  বি বি টি  দ্বারা

aniview

এই নিবন্ধটি আপনাকে সাহায্য করবে কেন এবং কিভাবে নিজের জন্য বেসাল বডি টেম্পারেচার প্রস্তুত করতে।

বাসাল দৈহিক তাপমাত্রা (বি বি টি) কি ?

বি বি টি হল ২৪ ঘন্টা সময়ের মধ্যে দেহের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। এটি অব্শ ই তখন হ্য যখন আপনি বিশ্রাম্রত অবস্থায় থাকেন। কয়েক মাসের প্রতিদিনের বি বি টি  পাঠ নিলেই বুঝবেন আপনার ওভ্যুলেশন সময়।

আপনি অবশ্যই আপনার বি বি টি পরিমাপ নির্ণয় করবেন,কোনরকম দৈহিক কাজকর্ম করার আগে। দৈহিক কাজ কর্মের ফলে আপনার দেহের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পায় খুব সামান্য পরিমাণে আপনার বি বি টির মান বাড়ায়। তাই বলা চলে কোন কিছুই বি বি টি মান কমায় না। বিবিটির বিভিন্ন মান দেখলেই আপনি বুঝতে পারবেন আপনার ঋতুচক্রের সময় সীমা মূলত যখন আপনি গর্ভধারণ করার কথা ভাবছেন। সামান্য শারীরিক কসরত করার পর সময় দেখবেন আপনার শরীরের তাপমাত্রা বেড়ে যায়। অনেক সময় এ দিকে ভুলভাবে ঋতু কাল হিসেবে মনে করা হয়

বি বি টি লেভেল জানা গেছে সামান্য বৃদ্ধি পায় ওভ্যুলেশনের সময়। তাই কিছু সময় ধরে যদি আপনার দেহের তাপমাত্রা রেকর্ড করে লক্ষ্য রাখা যায় তাহলে এই বিষয়টির একটি নকশা আপনার কাছে পরিষ্কার হবে এবং কখন ঋতুচক্র ঘটে সে সম্বন্ধে ধারণা হবে। এটি আপনার ঋতুচক্রের সময় সীমা কে বুঝতে সাহায্য করবে যখন আপনি প্রেগনেন্ট হতে চান।

কিভাবে আপনি বিবি টিকে ট্রাক করবেন?

কিভাবে আপনি আপনার বি বি টি অর্থাৎ বেসাল বডি টেম্পারেচার মাপবেন তা দেখা যাক। শুরু করা যাক একদম প্রথম থেকে। যে যন্ত্রটির সাহায্যে বি বি টি পরিমাপ করা হয় তার নাম বিবিটি থার্মোমিটার।

বি বি টি থার্মোমিটারটি একটি বিশেষ ধরনের থার্মোমিটার যা দেহের খুব সামান্য তাপমাত্রা হেরফের পরিমাণ মাপতে পারে একটি সাধারণ থার্মোমিটার এর তুলনায়।। যখন আপনি ঘুম থেকে উঠছেন সেই সময়ে এর সাহায্যে দেহের তাপমাত্রা নির্ণয় করুন আবার মাটিতে পা ফেলার আগে ও এর সাহায্যে তাপমাত্রা নির্ণয় করুন।। বিবিপি সাধারণত 24 ঘণ্টার সময়সীমা ধরে নির্ণয় করা হয়। নিখুঁত পরিমাণ পাওয়ার জন্য প্রতিদিন একই সময় ঘুম থেকে ওঠার চেষ্টা করুন। এই ব্যাপারটি আপনাকে রেগুলারাইজ করতে প্রতিদিন সঠিক সময়ে শুতে এবং ঘুম থেকে উঠতে উৎসাহিত করবে।

সাধারণত বি বি টির ভ্যালু হলো 97.2 থেকে 97.7 ডিগ্রী ফারেনহাইট।। ওভ্যুলেশনের সময় এই তাপমাত্রা. ৫থেকে 1.2 পর্যন্ত বেড়ে যায়। এবং তা চলতে থাকে ঋতুস্রাব চলা পর্যন্ত। । এই বিষয়টি আপনার ওভ্যুলেশন সময় জানতে সাহায্য করে। ওভ্যুলেশন সামনের দিনগুলি ছাড়া অন্য দিনগুলিতে তাপমাত্রা সামান্য কম থাকে তাপমাত্রার পরিমাণ ও ওভ্যুলেশন দিন থেকে ঋতুস্রাব চলা পর্যন্ত বেশী থাকে।

ওভুলেশনের পর যদি আপনি প্রেগনেন্ট হয়ে যান তাহলে বি বি টির মান বেড়ে যায় যত দিন প্রেগনেন্সি থাকে এবং এটি আবার পুনরায় কমতে শুরু করে যখন আবার ঋতুস্রাব শুরু হয়

কিভাবে বিডিটি চার্ট আমাদের সাহায্য করে ?

একটি চার্ট মেনটেন করা অত্যন্ত অধ্যাবসায় এবং আনন্দ জনক কাজ।। বিন্দু গুলিকে যোগ করলে আপনি একটি গ্রাফ পাবেন যেখানে তাপমাত্রার উত্থানপতন পরিষ্কার বোঝা যাবে।। ঋতুচক্র অথবা গর্ভধারণজনিত যে কোন সমস্যা বুঝতে এই চার্ট টি অত্যন্ত সাহায্য করে।। তার থেকেও বড় কথা হল এটি আপনার গর্ভধারনের সম্ভাবনাকে বাড়িয়ে তুলবে যদি আপনি প্রতিদিন তার কিছু খুঁটিনাটি জিনিসের উপর লক্ষ্য রাখেন।

সারভাইক্যাল মিউকাস কি ?

ইস্ট্রোজেন এর প্রভাবে সার্ভিক্স অঞ্চল থেকে ক্ষরিত যোনি থেকে নিসৃত পদার্থ হল সার্ভাইকাল মিউকাস। ঋতুচক্র এবং যৌনক্রিয়ার ইচ্ছের উপর নির্ভর করে সার্ভাইকাল মিউকাস ক্ষরণ এর পরিমান।। সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ হলো এটি সংক্রমণএবং জ্বলন কমাতে সাহায্য করে।

সার্ভাইকাল মিউকাসের ঘনত্ব, রং এবং গন্ধ প্রত্যেকের ক্ষেত্রে আলাদা আলাদা হয়। রং সাধারণত পুরো সাদা থেকে কিছুটা অফ হোয়াইট এবং গন্ধ মাঝারি থেকে গন্ধহীন হয়। ঋতুচক্রের দশা অনুযায়ী এর নকশার পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায়।

  • ঋতুস্রাব বন্ধ হওয়ার পরপরই যোনি থেকে কোনরকম নিঃসরণ ঘটে না যেটি ড্রাই ডে নামে পরিচিত এর কারণ হিসেবে বলা যায় ইস্ট্রোজেনের কর্মক্ষমতা হঠাৎ করে খুব কমে যায়।
  • এরপরই খুব প্রচুর পরিমাণ নিঃসরণ ঘটে থাকে। যাকে অনেক সময় ক্লাউডি বলা হয়।
  • যতই ওভ্যুলিউশন এর সময় এগিয়ে আসে ততই এই নিঃসরণ তরল হতে থাকে, যেটি শুক্রাণু সাঁতার কাটতে সাহায্য করে। এই অবস্থাকে এগ হোয়াইট স্টেজ বলা হয়।
  • ওভ্যুলিউশনের পর এই নিঃসরণের ঘনত্ব বাড়তে থাকে এবং পরিমাণ কমতে থাকে এর কারণ হলো প্রোজেস্টেরন হরমোন এর ক্ষরণ বৃদ্ধি পাওয়া।
  • এটি আপনার ক্রিয়েট এবং চক্র অনুধাবন করলে বোঝা যায়।

বি বি টি এবং সিএম ওভ্যুলিউশন এর আগাম বার্তা দেয়

বি বি টিএবং সি এম যৌথভাবে ওভ্যুলেশন এর সময়, আপনার সন্তান ধারনের উপযুক্ত সময় অথবা প্রাকৃতিক উপায়ে গর্ভধারণ না করতে চাওয়া বিষয়টি স্থির করতে সাহায্য করে।

যখন অপেক্ষাকৃত নরম, তরল, সাদা ডিমের মত নিঃসরণ ঘটবে তখন বুঝতে পারা যাবে যে এটি গর্ভধারণের সর্ব উৎকৃষ্ট সময় কারণ এর ফলে শুক্রাণু খুব সহজেই তার গন্তব্যে যেতে পারবে ওভ্যুলিউশনের আগে। বিবৃতির মানের বৃদ্ধি আপনার অভিয়েশন সূচিত করবে।

আপনার বিবৃতি এবং আপনার সিম আপনাকে সাহায্য করবে এই পুরো বিষয়টি বুঝার জন্য।। অবশ্য কিছুটা সময় লাগবে আপনার এই বিষয়ে অভ্যাস গড়ে তুলতে এবং নকশাটি কে বোঝে

কিভাবে আপনি বি বি টি এবং সারভাইক্যাল মিউকাসের চার্ট বানাবেন ?

আপনার চক্র যদি নিয়মিত হয় তাহলে সন্তান ধারনের জন্য যৌনক্রিয়া শুরু করবেন যখন দেখবেন যে নিঃসরন সাদা ডিমের মত এবং আঠালো হয়ে উঠেছে। যদি আপনি গর্ভধারন করতে চান তাহলে বি বি টি বাড়ার আগে তা করতে হবে।

সকাল বেলার নিঃসরণ লক্ষ্য রাখাই সবথেকে ভাল। তবে মাঝেমধ্যে যোনিতে আঙুল ঢুকিয়ে নিঃসরনের প্রকৃতি যাচাই করে নিতে হবে।

আপনার বিবিটি এবং সি এম এর চার্ট তৈরি করুন পিরিয়ড শুরুর প্রথম দিন ঘুম থেকে ওঠার পর থেকে।

বিবিটি চার্ট কিভাবে রেকর্ড করবেন

বি বি টি এবং সি এম রেকর্ড করার জন্য ইন্টারনেটে অনেক চার্ট পাওয়া যায় এগুলো কে টেমপ্লেট হিসাবে ব্যবহার করতে পারেন।ক য়েকটি অনুচ্ছেদের শেষে যুক্ত করা হল।

  • পিরিয়ড এর প্রথম দিন থেকে রেকর্ড করা শুরু করুন।
  • প্রতিদিন একই সময়ে ঘুম থেকে উঠুন
  • ঘুম থেকে উঠে বসতে যাওয়ার আগে ই আপনার বিবিটি লিখুন এবং সাথে সেই সময়ের ঘরের তাপমাত্রার মান টি লিখুন। খেয়াল করে হাতের নাগালে থার্মোমিটারটি রাখুন
  • অবশ্যি তারিখ ও সময় লিখবেন।
  • বাথ রুমে যান, আপনার মিউকাসটি কিরকম তা খেয়াল করুন। বাথরুম করার আগেই আপনাকে এটি করতে হবে আপনি টয়লেট পেপারের ওপর মিউকাস টি নিয়ে পরীক্ষা করে দেখতে পারেন। চার্টে যেরকম বলা হয়েছে সে রকম ভাবে আপনার মিউকাসের গুণাবলী লিপিবদ্ধ করুন।। কী হিসেবে আপনি ব্যবহার করতে পারেন যেমন পি = পিরিয়ড,ডি=ড্রাই,এস=স্টিকি এবং ই=এগ বা ডিম্বানু।
  • আপনি দেখতে পাবেন যে সি এম এর ক্ষেত্রে যত ডিম্বানু সাদা হচ্ছে তত বি বি টি এর মান বাড়ছে।
  • ডিম্বাণু যত সাদা হবে তত আপনার গর্ভবতী হবার সম্ভবনা বাড়বে।

বি বি টি র বিভিন্ন দশার চার্ট

কিভাবে বাসাল বডি টেম্পারেচার এর পরিমাপ করতে হবে এটা যদি জানতে চান তাহলে নিচের লেখা বিষয়গুলি ভালো করে পড়লে এই সম্বন্ধে একটি পরিষ্কার ধারণা জন্মাবে এবং সেই অনুযায়ী চার্ট এ নোট করতে হবে।

যে সকল মহিলার স্বাভাবিক ঋতুচক্র সম্পন্ন হয় তাদের বি বি টি চার্টে পরিস্কার দুটি দশা দেখতে পাওয়া যায়

  • ফলিকিউলার ফেজ – পিরিয়ডের প্রথম দিন থেকে অভিয়েশন পর্যন্ত এই দশা টি চলতে থাকে। এই সময় ইস্ট্রোজেন এর। সক্রিয়তা জন্য দেহের তাপমাত্রা সাধারণত 97.2 থেকে 97.7 ডিগ্রি পর্যন্ত হয়। যখন আপনি। এই চক্রের মধ্যবর্তী সময়ে এসে পৌছলেনতখন হঠাৎ করে তাপমাত্রা নেমে যায়। যা থেকে বোঝা যায় যে ওভ্যুলেশান শুরু হল।
  • লুটিয়াল ফেজ বা দশা- তাপমাত্রা হঠাৎ কমে যাওয়ার পর। বিবিটি হঠাৎ করে একটা অনেক উঁচু পর্যায়ের উঠে যায় এবং চক্রের শেষ দিন পর্যন্ত ওই জায়গায় স্থির থাকে।। এইটি প্রজেস্টেরন হরমোনের জন্য ঘটে থাকে।। বি বিটির উচ্চতর সূচিমুখ ওভ্যুলেশন কে বোঝায় আর বি বি টির 97.7 থেকে 98.3 ডিগ্রী ফারেনহাইট তাপমাত্রা লুটিয়াল ফেজ কে নির্দেশ করে।

গর্ভসঞ্চারিত হয় নি এরকম অনেক মহিলার ক্ষেত্রে গ্রাফ টিতে একটি তৃতীয় দশা দেখতে পাওয়া যায়। লুটিয়াল দশায় দেহের তাপমাত্রা আবার .7 ডিগ্রী ফারেনহাইট বেড়ে যায়। এটি ৭থেকে ১০দিন পর্যন্ত চলতে থাকে অভিবাসনের পরবর্তী পর্যায়ে। এই বিষয়টিকে লক্ষ্য করতে হবে এবং বি বি টি প্রেগনেন্সি চ্যাট থেকে এই তৃতীয় দশার উপস্থিত আছে কিনা বুঝতে হবে

নমুনা বি বি টি চার্ট দেয়া হলো রেফারেন্স হিসেবে

এখানে একটি ওভয়ুলেশন চার্ট দেওয়া হল যাতে বি বি টি সি এম এর মান বসানো আছে।

নমুনা বি বি টি চার্ট দেয়া হলো রেফারেন্স হিসেবে
সূত্র: হোয়াইট লোটাস ক্লিনিক
নমুনা বি বি টি চার্ট দেয়া হলো রেফারেন্স হিসেবে
সূত্র: উর্বরতা ডটকম

কিভাবে একটি বাসাল বডি টেম্পারেচার চার্ট পরতে হয়

উত্তর হিসেবে বলা যায় যে এটি খুবই সহজ এবং। কয়েকটি সাধারণ ধাপের সাহায্যেই এর ব্যাখ্যা করা যায়।। এটি কে বি এম টি চার্ট বলা হয়।( এটি তৈরি করা হয়েছে ২৮ দিনের স্বাভাবিক ঋতুচক্র অনুযায়ী)

  • প্রথম দিন থেকে ত্রয়োদশ তম দিন পর্যন্ত তাপমাত্রা কম থাকে
  • ১৪ তম দিনে যখন ওভ্যুলেশন শুরু হয় তখন তাপমাত্রা হঠাৎ করে কমে যায়।( এটি ফলিকুলার দশার সমাপ্তি বোঝায়)
  • ১৫ তম দিনে তাপমাত্রার একটি উচ্চতম সূচিমুখ দেখা যায়।(যা লুটিয়াল দশার সূচনা করে)।
  • ১৬ তম দিন থেকে ঋতুচক্রের প্রথম দিন পর্যন্ত দেহের তাপমাত্রা ঊর্ধ্বমুখী থাকে। তাই এই সকালের শেষে আপনারা একটি বি বি টি গ্রাফ পাবেন।

নমুনা গ্রাফ টিতে ২৫দিনের মাথায় দ্বিতীয় বারের জন্য দেহের তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে যা গর্ভধারন কে সূচিত করছে।

কিভাবে একটি বাসাল বডি টেম্পারেচার চার্ট পরতে হয়
সূত্র: ভেরওয়েল ডটকম

একটি ফাঁকা বি বি টি চার্ট দেয়া হলো ছাপানোর জন্য

এখানে একটি ফাঁকা নমুনা টেমপ্লেট হিসেবে ব্যবহারের জন্য একটি ছক দেয়া হল যেটিতে আপনি বি বি টি – সি এম চার্ট তৈরি করতে পারবেন।

একটি ফাঁকা বি বি টি চার্ট দেয়া হলো ছাপানোর জন্য
উত্স: ফ্রিপ্রিন্টেবল মেডিক্যালফর্মস

এই চার্ট টি তে নির্দিষ্ট স্থান আছে যাতে প্রতিদিনের খুঁটিনাটি বিষয় গুলি লিখে রাখা সম্ভব। পিরিয়ডের প্রতিটি চক্রের প্রতিটি দিনের হিসাব লিখে রাখা সম্ভব। আপনি লিখতে পারেন প্রতিটি দিন বার। সপ্তাহ এবং সময় যেখানে আপনি বি বি টি র তাপমাত্রা একটি ডট এর মাধ্যমে চিহ্ণিত করবেন। নির্দেশমতো সিএম। পরীক্ষা করবেন এবং সূচক গুলি লিখে রাখবেন। টিক চিহ্ন অথবা ক্রস চিহ্ন দেবেন যে দিন গুলিতে আপনি সঙ্গম করেছেন।

মহিলারা প্রায়শই নিজেদের পিরিয়ডের সময় সীমা ঠিক মত বলতে পারেন না স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞদের কাছে । ঠান্ডা লাগা কিংবা পা চুলের সমস্যা ক্ষেত্রে অনেক সময় এই ঋতু চক্রের মাধ্যমে ব্যাখ্যা করা যায় । প্রাকৃতিক এবং স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় যে কোন রকম বাহ্যিক রাসায়নিক প্রক্রিয়া চেয়ে অনেক ভালো গর্ভধারণের জন্য

বিবিটি চার্ট টি ভালোভাবে বুঝতে পারলে আপনি নিজে নিজেই আপনার জননতন্ত্র যে সংকেত গুলি প্রদান করছে সেগুলি সম্বন্ধে বুঝতে পারবেন। বি বি টি এবং সিএম ট্র‍্যাক করে আপনি আপনার পরিকল্পনা নিজের মত করে বানাতে পারবেন। পরিবার বৃদ্ধির ব্যপারে এই নির্দেশক গুলো আপনার পরিকল্পনাকে বাস্তবায়িত করতে সাহায্য করবে।