যমজ অথবা ততোধিক সন্তান সহ 27 সপ্তাহের গর্ভবতী

যমজ অথবা ততোধিক সন্তান সহ 27 সপ্তাহের গর্ভবতী

অভিনন্দন! আপনি আপনার যমজ অথবা ততোধিক সন্তানদের আপনার গর্ভের মধ্যে করে এতটা দূর নিয়ে এসেছেন।যমজ সন্তান সহ গর্ভাবস্থার 27 তম সপ্তাহে এসে উপনীত হওয়া বাস্তবিকই সহজ কথা নয় এবং আপনি সমস্তকিছুই জানেন যে আপনাকে এর জন্য কি কি করতে হয়েছে।আর এর জন্য আপনি সাধুবাদ পাওয়ারই যোগ্য।এই পর্যায়ে ভ্রূণের বিকাশ সঠিকভাবে হওয়া উচিত এবং আপনি যেহেতু আপনার গর্ভদশার 27 তম সপ্তাহে পৌঁছে গিয়েছেন, সুতরাং আপনি যে আপনার সন্তানদের ঠিকভাবেই যত্ন নিয়েছেন এটি তার একটি দুর্দান্ত লক্ষণ।এটি এমন একটি পর্যায় যখন আপনাকে আরও সজাগ হয়ে উঠতে হবে কারণ এটি হল আপনার গর্ভদশার চূড়ান্ত পর্যায়।আপনার জীবনধারার পছন্দগুলি এখন থেকে আগের থেকেও বেশি মূল্য রাখা শুরু করবে এবং আপনার বাচ্চাদেরে উপর সরাসরি প্রভাব ফেলবে।সর্বশেষ ত্রৈমাসিকের প্রথম মাসটি আপনার ছোট্ট যমজ বা সন্তান ত্রয়ীকে নিরাপদ এবং সুরক্ষিত রাখা নিশ্চিত করার জন্য এক গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখে।এক্ষেত্রে যমজ গর্ভাবস্থা অথবা তিনটি সন্তান সহ গর্ভবতী মহিলাদের ক্ষেত্রে স্বাভাবিকের তুলনায় কিছুটা বেশি মনোযোগ দেওয়া প্রয়োজন।

aniview

27 তম সপ্তাহে শিশুদের বৃদ্ধি

গর্ভাবস্থার 27 তম সপ্তহের শুরুতে আপনার শিশুদের শারীরিক বিকাশটি আগের সপ্তাহের মতই একইভাবে বৃদ্ধি পাবে, তবে তাদের সচেতনতার মাত্রা মোটের উপর একটি নতুন পাতায় নিয়ে যাবে।সেই পর্যায়ের কথা মনে পড়ে যখন আপনার সন্তানরা আপনার গর্ভের মধ্যে মাঝেমধ্যে তাদের আকস্মিক আন্দোলনগুলির সাথে শান্তাবস্থায় চুপচাপ বিশ্রাম নিত?বেশ, সেগুলিকে এখন অতীতের বিষয় বলে মনে হতে পারে! এখন তাদের দৃষ্টিশক্তির উন্নতি হবে এবং আপনার দেহের মধ্যে এবং বাইরে থেকে উৎপন্ন আলো এবং শব্দের প্রতি সংবেদনশীলতাটি মারাত্মকভাবে বৃদ্ধি পাবে।আর তারা যে উপায়ে তাদের অভিব্যক্তিগুলি প্রকাশ করা শুরু করবে তার একটি হল, যদি বাচ্চারা ঘুমাতে চায় এবং আপনি দিবালোকে বের হন তারা আপনার গর্ভের মধ্যেই অন্য পাশে ঘুরে যেতে পছন্দ করবে এবং শান্তিতে ঘুমানোর জন্য তারা তাদের মুখগুলিকেও ঘুরিয়ে নেবে।

অনেক শিশুর মধ্যেই এই সময় তাদের যৌনাঙ্গের বিকাশ হবে, যদিও অন্য শিশুদের ক্ষেত্রে তা এখনই হবে না।শিশুপুত্রদের টেস্টিক্যালটি ধীরে ধীরে নিচে নামতে শুরু করে কারণ স্ক্রোটাল থলিটি এমন আকারে পৌঁছাতে শুরু করে যা টেস্টিসদুটিকে একত্রে ধরে রাখতে পারে।একইভাবে কন্যা শিশুদেরও ক্লিটোরিসের বৃদ্ধি এই সময়েই শুরু হয়।

যমজ অথবা তিনটি সন্তান সহ গর্ভবতী মায়েদের ক্ষেত্রে শিশুদের আকার সবসময়েই একটি উদ্বেগের কারণ হয়ে ওঠে, কারণ আপনি যে সকল দৃষ্টান্তগুলি পেয়ে এসেছেন সেগুলির বেশিরভাগটাই সম্ভবত একক সন্তান ধারণকারী গর্ভবতী মায়েদের সম্পর্কে। যমজ অথবা তিনটি সন্তান ধাণের ক্ষেত্রে শিশুদের ওজন এবং দৈর্ঘ্য একক সন্তান ধারণকারী মহিলার সন্তানের তুলনায় সাধারণত কম হয়েই থাকে এবং এটি একটি ভালভাবে অবলোকিত ও স্বীকৃত চিকিৎসা ভিত্তিক সত্য।আপনার অর্ভস্থ ছোট্টগুলি খুব শীঘ্রই সেটি পূরণ করে নেবে যখন তারা একবার বাস্তব পৃথিবীতে উদীয়মান হবে।একটি সঠিক আহার শিশুদের সেটি অর্জন করাকে আরও সহপজ করে তুলবে।এর মধ্যে তাদের সবচেয়ে পছন্দের কাজ বুড়ো আঙ্গুলটি চোষার সাথে তাদের মধ্যে চোষণ প্রবৃত্তিটিও আরও শক্তিশালী হয়ে ওঠে, যা পরবর্তীতে তাদের বৃদ্ধির সমর্থনে স্তন দুধ পান করার একটি উপযুক্ত সময়সূচী গড়ে তুলতে সহায়ক হবে।

শিশুদের আকার কি রকম হবে?

শিশুদের আকার কি রকম হবে?

আপনার গর্ভদশার 27 সপ্তাহের মধ্যে আপনার গর্ভস্থ ছোট্টটি আকারে বেড়ে হয়ে উঠবে একটি ফুলকপির মাপে।একক সন্তানের ক্ষেত্রে সাধারণত ওজন হয়ে থাকে 900 গ্রাম মত এবং উচ্চতা প্রায় 37 সেন্টিমিটার মত।তবে একাধিক সন্তানের ক্ষেত্রে এই মাপটি কমে যেতে পারে।

সাধারণ শারীরিক পরিবর্তনগুলি

সাধারণ শারীরিক পরিবর্তনগুলি

27 তম সপ্তাহের সাথে যেহেতু আপনার গর্ভাবস্থার মধুচন্দ্রিমার পর্বটি বিদায় নেয়, আপনার দেহে বিভিন্ন লক্ষণগুলি দেখা দিতে শুরু করে যেগুলি তৃতীয় ত্রৈমাসিকের সূচনার ব্যাপারে আপনাকে পুরোপুরি সচেতন করবে।

শরীরকে জর্জরিত করা ব্যথাটি আপনার ক্রমবর্ধিত জরায়ুর আকার এবং দৈহিক ওজনের কারণে শরীরের অন্যান্য অংশে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করবে।শিশুদের পুরো ওজনটি বহন করার কারণে আপনার থাই এবং পায়ের জয়েন্টগুলি এই যন্ত্রণাটি সবচেয়ে বেশি সহ্য করবে।আভ্যন্তরীণ অঙ্গাণুগুলির চাপ এবং ভরকেন্দ্রের স্থানান্তর সম্মিলিত হয়ে পিঠ এবং কোমরের নিচের যন্ত্রণা এক নতুন রূপ নেবে।

পেট এবং অন্ত্র একসাথে কঠিন সময়ের সম্মুখীন হবে যেহেতু তারা স্থানের জন্য সঙ্কুচিত হয়ে থাকে।ক্রম বর্ধিত বদহজম এবং পূর্ণতাবোধের প্রকোপের জন্য আপনি নিজেকে প্রস্তুত করতে পারেন, কারণ এমন কিছু ঘটনাও আবার এমনকি দেখা দিতে পারে যেখানে আপনার গলায় অ্যাসিড রিফ্লাক্স বেড়ে যায়।এটিকে নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য আপনাকে হয়ত আপনার খাদ্যের বরাদ্দ এবং তার সময়সূচীর মধ্যে আরও সামঞ্জস্য তৈরী করতে হতে পারে।

আপনার হৃদপিণ্ডটি এখন আপনার জরায়ুর সাথে সাথে দেহের অন্যান্য অংশেও প্রচুর পরিমাণে রক্ত পাম্প করবে।এই বর্ধিত রক্ত সঞ্চালনের ফলে আপনার মুখাঞ্চলে এক বিশাল পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয়, যা আপনার মাড়ি, নাসারন্ধ্র এবং গলাকে সংবেদনশীল করে তোলে, যখন আপনি হয়ত ব্রাশ করার সময় আপনার মাড়ি থেকে রক্ত পড়া অনুভব করতে পারেন এবং তার সাথেই আবার কখনও বা আপনার নাক দিয়েও রক্তপাত হওয়ার মত দৃষ্টান্ত লক্ষ্য করা যেতে পারে কিম্বা অবিরত নাক জমাট বোধ হওয়ার সাথে অত্যন্ত গলা ব্যথাও যোগ হতে পারে।

হরমোনের ওঠানামা এই সপ্তাহে তার শীর্ষ স্থান অধিকার করে এবং তার ফলে আপনার ঘুমের সমস্যা দেখা দিতে পারে, আবার তা ছাড়াও আপনি প্রায়শই কিছু অদ্ভুত স্বপ্নেরও সাক্ষী থাকতে পারেন।কিছু মহিলা আবার দিনের বেলায় গরমের ঝলকানি অথবা হঠাৎ ঠাণ্ডা বোধও করে থাকতে পারেন।মোটের উপর যেকোনও ক্ষেত্রেই সেটি গুরুতর যাতে না হয়ে উঠতে পারে তা নিরীক্ষার মধ্যে রাখতে আপনার ডাক্তারবাবুর শরণাপন্ন হওয়া সবচেয়ে ভাল।

27 সপ্তাহে যমজ সন্তান গর্ভধারণের লক্ষণগুলি

যখন আপনি আপনার গর্ভাবস্থার প্রায় 27 সপ্তাহ সম্পন্ন করে ফেলেন, তখন আপনি যে গর্ভবতী এটি বোঝার জন্য বাস্তবিকই এর আর কোনও লক্ষণের প্রয়োজন নেই।তবুও আপনার দেহে বেশ কিছু লক্ষণ তখনও দেখা দিতে থাকবে যেগুলিতে আপনার অভ্যস্থ হয়ে ওঠা প্রয়োজনঃ

তৃতীয় ত্রৈমাসিকটি শুরু হওয়ার সাথে আপনি শ্রমের জন্য ভ্রান্ত অ্যালার্মগুলি পেতে থাকবেন।ব্র্যাক্সটন হিক্স নামক এই সকল ক্ষুদ্র সঙ্কোচনগুলি বেশ ঘন ঘন হতে থাকবে এবং কয়েক মিনিটের মধ্যেই আবার তা ম্লানও হয়ে যাবে।যদিও এগুলি ঠিকই আছে তবে যদি ব্যথার একটি নির্দিষ্ট পুনরাবৃত্তি বা বৃদ্ধি হতে থাকে সেক্ষেত্রে তৎক্ষণাৎ তা আপনার ডাক্তারবাবুর নজরে নিয়ে আসা উচিত।

অভ্যন্তরীণ জরায়ুর চাপের কারণে গ্যাস বের হতে থাকবে এবং অ্যাসিডের রিফ্লাক্স ঘন ঘন অবিচ্ছিন্নভাবে হতে থাকবে।অভ্যন্তরস্থ শিশুরা অন্ত্রের উপর প্রচুর চাপ দিতে পারে, যার ফলে এই সপ্তাহে কোষ্ঠকাঠিণ্যের প্রকোপ বেড়ে যাবে।আবার তার সাথে অর্শও উপস্থিত হতে পারে, যার পুরো কার্যকারিতাটাই আপনার জন্য বিরক্তিকর হয়ে উঠতে পারে।

চারপাশের জিনিসকে চাপ দেওয়া এবং নিজের সাথে আপোষ করার প্রয়োজন হওয়ার আগে আপনার দেহটি শুধুমাত্র আপনার গর্ভের মধ্যে আপনার শিশুদের জন্যই যথেষ্ট স্থান দিতে পারে।তার ফল হিসেবে, আপনার মধ্যচ্ছদা এবং ফুসফুস সেই সংকীর্ণ স্থানের সাথে সংঘর্ষ করবে।এর একটি পরিণতি হল এই অঙ্গাণুগুলি যতটা প্রসারিত হতে পারত তাতে তারা ব্যর্থ হয়,যা ছোট ছোট শ্বাস প্রশ্বাস গ্রহণের দিকে পরিচালিত করে।

সকল অঙ্গগুলির মধ্যে আপনার মুত্রথলিটি সবচেয়ে বেশি চাপ সহ্য করার দায়টি বেশ আক্ষরিক অর্থেই নিতে পারে।এই পর্যায়ে আপনার মুত্রথলি নিয়ন্ত্রণের ক্ষমতাটি আপনার নিয়ন্ত্রের বাইরে চলে যাবে, আর তার ফলে প্রতিটি হাঁচি, হাসি অথবা কোনওরকম চাপ পড়ার সাথে সামাণ্য করে আপনার প্রস্রাব নির্গত হতে থাকবে।ঘন ঘন বাথরুম পরিদর্শনই হল এক্ষেত্রে আপনার একমাত্র উপায়।

যমজ সন্তান সহ গর্ভাবস্থার পেট- 27 সপ্তাহে

আপনি যদি সেই মহিলাদের মধ্যে একজন হয়ে থাকেন যাদের মত ভাগ্যবতী আপনি হয়ে থাকেন, আপনার গর্ভাবস্থায় ভোগ না করা একাধিক বিরক্তিকর লক্ষণগুলির কারণে, তবে নিশ্চিত হন এ ব্যাপারে যে, আপনার গর্ভাবস্থার প্রকৃতপক্ষে কতটা দূরে আপনি আছেন তা অনুধাবন করার জন্য আপনার পেটটিই কাজ করবে।ক্রমশ ওজন বৃদ্ধি পাওয়ায় আপনার বাচ্চাদের বৃদ্ধি অক্ষুণ্ন থাকবে।আপনার ওজনও বৃদ্ধি পাবে যা আপনার বর্ধিত পেটের আকারের দ্বারা প্রতিফলিত হবে।কিছু মহিলা আবার তাদের পেটের চারপাশে কিছু চাপ অথবা ধাক্কাও অনুভব করতে পারেন।

27 সপ্তাহে যমজ সন্তান গর্ভধারণের-আলট্রাসাউন্ড

আসন্ন সপ্তাহগুলি থেকেই সাধারণত আপনার নিয়মিত এবং ঘন ঘন আল্ট্রাসাউন্ড স্ক্যানগুলি করানো শুরু হবে আর আপনার ডাক্তারবাবু কোনও বিশেষ অবস্থা দেখার প্রয়োজন ছাড়া গর্ভদশার এই 27 তম সপ্তাহে আপনাকে আর এটি করানোর কথা বলবেন না।এই পর্যায়ে করা একটি আল্ট্রাসাউন্ড স্ক্যান গর্ভস্থ শিশুদের মাঝে মাঝে তাদের বুড়ো আঙ্গুলকে চুষে শান্ত হয়ে ঘুমানো ব্যতীত আর সেরকম কিছুই প্রকাশ করবে না।

কি খেতে হবে

কি খেতে হবে

এই সপ্তাহতেও আপনার আগের সপ্তাহে চলা ডায়েটটিকেই অনুসরণ করার পরামর্শ দেওয়া হয়।শুধু মনে রাখবেন যে একটি স্বাস্থ্যকর গর্ভাবস্থার মূল কথা হল একটি স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস।বদ হজমের সম্ভাবনা হ্রাস করার জন্য আপনার আহারের পরিমাণটিকে কমিয়ে তা সংখ্যায় বাড়িয়ে তোলা নিশ্চিত করুন।কার্বোহাইড্রেট সমৃদ্ধ খাদ্যগুলির সাথে আপনার প্রাতঃরাশটি শুরু করুন, যখন আবার দিনের বাকি খাদ্যগুলির মধ্যে থাকা উচিত প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম এবং আয়রণ।নিয়মিত দইকে বেছে নিন।পর্যাপ্ত জল এবং ঘরে প্রস্তুত কোনওরকম চিনি যোগ করা ছাড়া ফলের রস আপনার নিয়মিত পান করা উচিত।

গর্ভাবস্থার যত্ন নেওয়ার পরামর্শ বা টিপস

নিম্নোল্লিখিত কয়েকটি টিপসের সাথে ভালোভাবে যত্ন নিয়ে নিজেকে তৃতীয় ত্রৈমাসিকের জন্য প্রস্তুত করুনঃ

করণীয়

  • আল্ট্রাসাউন্ডের মাধ্যমে পরিচালিত পরীক্ষাগুলির ব্যাপারে আপনার ডাক্তারবাবুর সাথে আলোচনা করুন।
  • অকাল প্রসবের সম্ভাবনার ব্যাপারে নিজেকে প্রস্তুত রাখুন।

করণীয় নয়

  • যদি আপনি মাড়ি থেকে রক্তক্ষরণ অনুভব করে থাকেন আপনার দাঁতের স্বাস্থ্যবিধি বজায়ের ব্যাপারে অবজ্ঞা করবেন না।
  • যতটা সপম্ভব আপনার পেটে আঁচড়ানো থেকে বিরত থাকুন।

আপনার কি কি কেনাকাটি করার প্রয়োজন পড়বে

খুব শীঘ্রই আপনার সন্তানরা প্রকৃত বিশ্বে বেরিয়ে আসবে এবং সর্বোত্তম সম্ভাব্য উপায়ে তাদের যত্ন নেওয়ার জন্য আপনার প্রস্তুত হওয়ার প্রয়োজন হবে।সুতরাং এখানে দেওয়া হল আপনার বাচ্চাদের জন্য আপনার কি কি কেনার প্রয়োজন হবেঃ

  • আপনার একাধিক শিশুর জন্য একাধিক আসন বিশিষ্ট একটি প্যারাম্বুলেটর
  • বিভিন্ন প্রকোষ্ঠ বা খোপ বিশিষ্ট একটি বড় মাপের ডায়পার ব্যাগ

27 সপ্তাহ ধরে আপনার গর্ভে আপনার যমজ সন্তানদের বহন করে নিয়ে আসার মাধ্যমে আপনার মনে এই আত্মপ্রত্যয় ও বিশ্বাস জেগে উঠেছে যে প্রসব না হওয়া পর্যন্ত আপনি খুব ভালভাবেই আপনবার বাচ্চাদের নিরাপদে বহন করতে পারেন।এই আস্থাটি ধরে রাখুন এবং নিজেকে আরও সহজ এবং স্বাচ্ছন্দ্যের সাথে সর্বশেষ ত্রৈমাসিকের মধ্য দিয়ে যেতে দেখার জন্য আপনার শারীরিক ও মানসিক শক্তিকে বজায় রাখুন।