শিশুদের জন্য ভারতবর্ষ সম্পর্কে 100 টি আকর্ষণীয় তথ্য

শিশুদের জন্য ভারতবর্ষ সম্পর্কে 100 টি আকর্ষণীয় তথ্য

যদি পৃথিবীটি বহু বৈচিত্র এবং বিভিন্নতার একটি প্রতীক হয়ে থাকে,ভারতবর্ষ আবশ্যিকভাবেই তার অন্তর্ভূক্ত একটি।এই দেশটি এত সুন্দর যে আমাদের শিশুদের এ দেশ সম্পর্কে যা কিছু জানা প্রয়োজন তার সবকিছুই আমাদের বলাটা একেবারেই সঠিক।

aniview

ভারতবর্ষ সম্পর্কে আকর্ষণীয় তথ্য যেগুলি বাচ্চাদের জানা উচিত

বাচ্চারা তথ্য ভালভাসে,সেই কারণে এখানে ভারত সম্পর্কে কিছু মজাদার তথ্য রইল শিশুদের উদ্দেশ্যে।

ভৌগলিক তথ্যসমূহ

  • ভারতবর্ষ সমগ্র বিশ্বের সপ্তম বৃহত্তম দেশ,যার আয়তন হল প্রায় 32,87,590 বর্গ কিলোমিটার।
  • ভারতবর্ষ হল 1.2 বিলিয়ন জনসংখ্যার সাথে দ্বিতীয় জনবহুল দেশের অধিকারী।
  • কর্কটক্রান্তি রেখাটি আমাদের দেশের ঠিক মাঝখান দিয়ে গেছে।
  • ভারতের বৃহত্তম হ্রদটি হল চিল্কা।
  • চেরাপুঞ্জী হল ভারতের সবচেয়ে সিক্ত জায়গা।যেখানের বার্ষিক বৃষ্টিপাতের পরিমাণ হল প্রায় 1200 সেন্টিমিটার মত।
  • ভারতের দীর্ঘতম নদী হল গঙ্গা,যার দৈর্ঘ্য 2525 কিমি.
  • ভারতের সবচেয়ে শীতলতম স্থান হল দ্রাস,যেটি লাদাখের পশ্চিমাংশে অবস্থিত।
  • 8,586 মিটার উচ্চতা সম্পন্ন কাঞ্চনজঙ্ঘা হল ভারতের উচ্চতম শৃঙ্গ।
  • ভারতের সবচেয়ে বৃহত্তম এবং ক্ষুদ্রতম রাজ্যগুলি হল যথাক্রমে রাজস্থান এবং গোয়া।
  • ভারতের সর্বোচ্চ বিন্দু যেখানে কাঞ্চনজঙ্ঘা,সেখানে সর্বোনিম্ন বিন্দুটি হল কুত্তান্ড।

ভৌগলিক তথ্যসমূহসাংস্কৃতিক বিষয়গুলি

  • প্রায় 4.500 বছর পুরানো ভারতবর্ষের সংস্কৃতি হল বিশ্বের প্রাচীনতম সংস্কৃতিগুলির মধ্যে একটি অন্যতম।
  • ভারতবর্ষে দুটি সবচেয়ে জনপ্রিয় ধর্ম হিন্দু ধর্ম এবং বৌদ্ধ ধর্মের জন্ম হয়েছিল।ভারতের মোট জনসংখ্যার প্রায় 84 শতাংশ লোকই হিন্দু।
  • ভারতের ধর্ম সংক্রান্ত তথ্যগুলিকেবলমাত্র হিন্দু এবং বৌদ্ধ ধর্মকেই আমরা ভারতবর্ষে দেখতে পাই না।আমাদের দেশে একাধিক ধর্মের মানুষ বসবাস করেন,যেমনইসলাম,খ্রিষ্টান,শিখ,জৈন এবং আরও অনেক।
  • আগ্রায় অবস্থিত তাজমহলটি হল পৃথিবীর সপ্তম আশ্চর্যের মধ্যে একটি।
  • ভারতে বিভিন্ন ধরণের নৃত্যকলা রয়েছে যেমন ভারতনাট্যম,কথাকলি, কুচিপুরি,ওড়িশি এবং মনিপুরি।
  • শিশুদের জন্য ভারতীয় বস্ত্র সংক্রান্ত তথ্যাবলীএই দেশের প্রতিটি রাজ্যই বিভিন্ন প্রকারের বস্ত্র উৎপাদন করে।শাড়ি থেকে শুরু করে লেহেঙ্গা;লুঙ্গি থেকে কুর্তাভারতে এর সবকিছুই তৈরী হয়।
  • ভারতে 22 টি সরকারি ভাষা আছে।
  • তামিলনাড়ুতে অবস্থিত শ্রী রঙ্গনাথস্বামী মন্দিরটি হল ভারতের সবয়চেয়ে বৃহত্তম মন্দির(156 একর)
  • ভারতের প্রাচীন সিন্ধু সভ্যতাটি প্রায় 8000 বছরের বেশি পুরানো।
  • একদা এক সময় ভারতবর্ষ বৌদ্ধ ধর্মের কেন্দ্রস্থল ছিল এবং সম্রাট আশোক এই ধর্মটিকে সারা বিশ্ব জুড়ে সম্প্রসারিত করতে সহায়তা করেছিলেন,বিশেষ করে দক্ষিণ পূর্ব এশিয়াতে।

সাংস্কৃতিক বিষয়গুলিঐতিহাসিক তথ্যসমূহ

এখানে শিশুদের জন্য কিছু প্রাচীন ভারতের তথ্যাবলী দেওয়া হল

  • গণিতের জগতে ভারতের অবদান অতুলনীয়।গণিতের নানা শাখা যথা বীজগণিত,ক্যালকুলাস এবং ত্রিকোণমিতির জন্ম এই দেশে।শূন্যের জনক হলেন আর্যভট্ট যিনি একজন ভারতীয় ছিলেন।
  • দাবা খেলাটি শুরু হয়েছিল এই দেশে।
  • শিশুদের জন্য ভারতের একটি শান্তিপূর্ণ তথ্য হল, আমাদের ইতিহাসে আমরা কখনও কোনও দেশ দখল করিনি।
  • বিশ্বের প্রথম বিশ্ববিদ্যালয়,তক্ষশিলা ভারতবর্ষেই তৈরী করা হয়েছিল 700 খৃষ্টপূর্বে।
  • সকল ইউরোপীয় ভাষাই নেওয়া হয়েছে সংস্কৃত ভাষা থেকে যেটি হল সবচেয়ে প্রাচীনতম এবং সমৃদ্ধ ভাষা।এই ভাষাটিও ভারতীয়
  • 100 খৃষ্টপূর্বে ভারতবর্ষে ডেসিমেল পদ্ধটিটি আবিষ্কার হয়েছিল।
  • বৌদ্ধায়ন হলেন সেই জিনিয়াস যিনি পাই এর মান নির্ণয় করেছিলেন।তিনি একজন ভারতীয় ছিলেন।
  • চিকিৎসা শাস্ত্রের সর্বপ্রথম রূপ হল আয়ূর্বেদ,যার প্রচলন প্রাচীন ভারতে সর্বপ্রথম হয়েছিল।
  • বিশ্বজয়ী আলেকজান্ডারের সেনাবাহিনী ভারতে প্রবেশের পর আর অগ্রসর না হয়ে পিছু হঠে ফিরে গিয়েছিল, তারা নন্দ বংশের সম্রাটের বিপুল সেনা সম্ভার দেখে ভীত হয়ে গিয়েছিল।
  • ত্রিভাঙ্কুরের নৃপতি মারথান্ডা বর্মা ডাচ নৈবাহিনীকে পরাস্ত করেছিল 1741 সালে।

ঐতিহাসিক তথ্যসমূহপ্রাণী সম্ভার

  • ভারতে প্রায় 500 টি ওয়াইল্ড লাইফ স্যাংচুয়ারী আছে।
  • পূর্ব হিমালয়,পশ্চিমঘাট,এবং ইন্দোবার্মা হল ভারতের তিনটি বায়োডাইভর্সিটি হটস্পট।
  • এশিয়ার হাতি,রয়েল বেঙ্গল টাইগার,এশিয়ার সিংহ,কুমির হল অসংখ্য বিপন্ন প্রজাতির মধ্যে কয়েকটি যেগুলি ভারতে পাওয়া যায়।
  • ভারত হল প্রায় 1300 প্রজাতির পক্ষীর আবাস ভূমি।
  • রয়েল বেঙ্গল টাইগার হল ভারতের জাতীয় পশু।
  • ভারতের জাতীয় পাখি হল ময়ূর
  • গঙ্গার ডলফিন হল ভারতের জাতীয় জলজ প্রাণী।
  • হিমালয়ান ব্লু শিপ একমাত্র ভারতেই পাওয়া যায়।
  • সরাস নামক ক্রেণ জাতীয় পাখিগুলি ভারতে সব থেকে বড় ক্রেণ জাতীয় পাখি।
  • নিউজিল্যান্ডের পর ভারতই হল পৃথিবীর দ্বিতীয় সর্বাধিক ভেড়ার আবাসস্থল(75,000,000)

প্রাণী সম্ভারভারতীয় মূদ্রা সংক্রান্ত তথ্যাবলী

  • দুর্নীতির বিরুদ্ধে পঞ্চম স্তম্ভ NGO গুলির লড়াইকে সহযোগীতা করার স্বার্থে ভারত সরকার শূণ্য মূদ্রা ব্যবস্থা নীতি গ্রহণ করেছে।
  • প্রতিটি ভারতীয় নোটের পিছনের দিকে 15টি ভাষায় এবং সামনের দিকে দুটি ভাষা ইংরাজী ও হিন্দিতে নোটের মূল্যমান লেখা থাকে।
  • কিছুদিন আগের কথা যখন ভারতীয় 5 টাকার মূদ্রা বাংলাদেশে পাচার হয়ে যেত আর সেখানে সেগুলো ক্ষুর বা রেজার তৈরী করতে ব্যবহার করা হত।
  • ভারতীয় নোটগলি তুলা এবং তুলার কাগজের টুকরো দ্বারা বানানো হয়।
  • ভারত পাকিস্তান ভাগ হওয়ার পরেও যতদিন না পাকিস্তান তাদের নিজস্ব টাঁকশাল তৈরী করতে পারেনি ততদিন তারা ভারতীয় মূদ্রা ব্যবহার করেছে।
  • এখন আমরা 5000 এবং 10000 হাজার টাকার নোট দেখতে পাই না কিন্তু 1954 থেকে 1978 পর্যন্ত সেগুলো বাজারে চালু ছিল।
  • ভারত সরকারের অর্থমন্ত্রক এক টাকার নোট ছাপায়।
  • প্রতিটি নোটে INDIA শব্দটি সযত্নে অঙ্কিত থাকে।
  • স্থানীয় ব্যাঙ্কে ছেঁড়া ফাটা নোটগুলো পরিবর্তন করা যায়।
  • নোট বা মূদ্রা নষ্ট করা হল আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

ভারতীয় মূদ্রা সংক্রান্ত তথ্যাবলীখেলাধূলা সম্পর্কিত তথ্যসমূহ

  • হকির জাদুকর ধ্যান চাঁদকে সেই সময় হিটলার জার্মান আর্মিতে ফিল্ড মার্শালের একটি পদে নিযুক্ত করার প্রস্তাব দিয়েছিলেন কিন্তু তিনি সেই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন এবং 1936 সালে বার্লিন অলিম্পিকে ভারতীয় হকি দল সোনা জয়ের পিছনে তিনি ছিলেন প্রধান কারিগর।
  • প্রথম IPL ম্যাচের সময় সাফরাজ খান ছিলেন মাত্র দশ বছর বয়সী।এখন তার বয়স 17 বছর।
  • পাঁচটি আন্তর্জাতিক পুরুষ কবাডি টুর্নামেন্ট হয়েছে যার প্রতিটিতেই ভারত জয়ী হয়েছে।
  • অলিম্পিক খেলায় ভারত 26 টি মেডেল জিতেছে।
  • মার্শাল আর্টস বা আত্ম রক্ষার খেলাটির উদ্ভব ভারতেই।
  • ভারতবর্ষ অলিম্পিকে প্রথম অংশগ্রহণ করেছিল 1900 সালে।
  • গয়াদেবজি নামক একজন কবির মাথায় পরমবধমনামক একটি খেলার ধারণা প্রথম এসেছিল,যেটি বর্তমানে আপনি সাপ এবং মইয়ের খেলা নামে জানেন।
  • পোলো খেলার প্রাথমিক ধারণার সূত্রপাতও ভারতেইযদিও এই খেলাটি তার মূল ধারণা থেকে অনেক পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে অগ্রসর হয়ে আজকের পোলো খেলাটিতে রূপান্তরিত হয়েছে।
  • ভারতবর্ষের একটি জনপ্রিয় খেলাটি হল হকি।
  • NBA এর পরেই IPL হল সবচেয়ে বেশি অর্থ ব্যয় করা খেলা।অর্থাৎ অর্থ ব্যয় করা খেলার সারণীতে এর স্থান হল দ্বিতীয়।

খেলাধূলা সম্পর্কিত তথ্যসমূহভারতীয় সঙ্গীত সংক্রান্ত তথ্যাবলী

  • গন্ধর্ব মহাবিদ্যালয় ছিল ভারতের প্রথম সঙ্গীত বিদ্যালয়।
  • প্রতিটি রাজ্যেই ভিন্ন ধরণের লোকসঙ্গীত সৃষ্টি হয়।তার কয়েকটি উদাহরণ হল গুজরাটের ডান্ডিয়া,বাংলার বাউল এবং মহারাষ্ট্রের লাভণী ইত্যাদি।
  • ভারতের প্রথম সানাইবাদক হলেন বাগেশ্বরী কামার।
  • সরদ এমন একটি বাদ্যযন্ত্র যেটি পুরোপুরিই ভারতীয়
  • তবলাও হল এমনই এক বাদ্যযন্ত্র যেটি ভারতবর্ষেই প্রথম তৈরী হয়েছিল।
  • বাঞ্জারা ছিল ভারতের প্রথম লোক সঙ্গীতের অ্যালবাম,যার মধ্যে অন্তর্ভূক্ত ছিল গুজরাট এবং রাজস্থানের লোক সঙ্গীতগুলি।
  • ভারতের জাতীয় সঙ্গীতটি রচনা করেছিলেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর,যেটি কলকাতায় এক জনসভায় প্রথম গাওয়া হয়েছিল।
  • বীণা হল খুব সুন্দর একটি সুরেলা বাদ্যযন্ত্র,যেটি ভারতে প্রথম তৈরী হয়েছিল।
  • লেডিবার্ড ছিল ভারতের প্রথম মহিলা পরিচালিত ব্যান্ড।
  • ক্যামেটিক সঙ্গীত হল ভারতের একটি অন্যতম প্রাচীন শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের রূপ।

ভারতীয় উৎসব বিষয়ক তথ্যসমূহ

  • দীপাবলি হল আলোর উৎসবএটি রাবণকে পরাজিত করার পর শ্রী রামচন্দ্র এবং সীতা দেবীর প্রত্যাবর্তনের সূচক।
  • হোলি হল রঙের উৎসব এবং এটি হিন্দু ক্যালেন্ডারে নতুন বছর শুরুকে চিহ্নিত করে।
  • ভারতের সবচেয়ে জনপ্রিয় ইসলাম ধর্মের উৎসব হল ঈদ।এটি পবিত্র রমজান মাসের সমাপ্তিকে চিহ্নিত করে।
  • হিন্দু দেবদেবীর আরাধনা এবং নৃত্যের উৎসবটি নবরাত্রি হিসেবে বিবেচিত,যেটি নয় দিন ধরে উদযাপন করা হয়।
  • গণেশ চতুর্থী হল সিদ্ধি বিনায়ক গণেশের আরাধনায় সারা ভারত জুড়ে উদযাপিত হওয়া একটি অত্যন্ত জনপ্রিয় উৎসব।এটি বিশেষ করে ভারতের মুম্বাই শহরে ধূমধামের সাথে বেশ আড়ম্বরপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে।
  • ওনাম হল একটি কৃষি উৎসব,যেটি পুরোপুরিই কেরলবাসীরা উদযাপন করেন।
  • জন্মাষ্টমী হল অপর আরেকটি জনপ্রিয় উৎসব,যা ভগবান শ্রীকৃষ্ণকে বেষ্টন করে উদযাপিত হয়।
  • পোঙ্গল হল তামিলনাড়ুর নববর্ষ এবং এটি হল সেখানকার একটি কৃষি উৎসব।
  • শিখ সম্প্রদায়ের লোকেরা বৈশাখী উদযাপন করেন তাদের কৃষিকাজ শুরু করার সময়কে চিহ্নিত করার লক্ষ্যে।
  • উত্তর ভারতের দিকে হিন্দু মহিলারা তাদের স্বামীর সুদীর্ঘ সুস্থ জীবনের কামনায় করোয়াচৌথ অনুষ্ঠানটি উদযাপন করেন।

ভারতীয় উৎসব বিষয়ক তথ্যসমূহভারতীয় খাদ্যাবলী সংক্রান্ত জানার বিষয়গুলি

  • কর্নাটক ভিসিবেলি বাথ এবং পুলিওগাড়ের জন্য বিখ্যাত।
  • সারা বিশ্বের মধ্যে ভারতবর্ষে সর্বাধিক পরিমাণে মশলাপাতি উৎপন্ন হয়।
  • ভারতের সবচেয়ে জনপ্রিয় পানীয় হল চা
  • ভারতের প্রধান খাদ্য হল ভাত।
  • পৃথিবীর সবথেকে ঝাল লঙ্কা ভুতজোলোকিয়া ভারতবর্ষ থেকেই পাওয়া যায়।
  • ভারতের উপকূলবর্তী অঞ্চলের মাছগুলি খুব সুস্বাদু হয়ে থাকে,যেমন পশ্চিমবঙ্গ এবং কেরালা।
  • পশ্চিমবঙ্গ হল জিভে জল আনা সুস্বাদু রসগোল্লার জন্মভূমি।
  • তামিলনাড়ু তার পোঙ্গলের জন্য প্রসিদ্ধ।
  • দম বিরিয়ানি ছিল প্রকৃতই অর্থ সাশ্রয়কারী খাদ্য রেসিপি,যেটি আওয়াধের নবাব দরিদ্রদের খাওয়ানোর জন্য উদ্ভাবন করেছিলেন।
  • হরিয়াণা রাজ্যটিতে সারা ভারতের মধ্যে প্রায় 60% এরও বেশি বাসমতী চাল উৎপাদিত হয়।

ভারতীয় খাদ্যাবলী সংক্রান্ত জানার বিষয়গুলিআরও অন্যান্য মজাদার তথ্যগুলি

  • ভারতবর্ষের সংবিধান বিশ্বের সর্ববৃহৎ লিখিত সংবিধান।
  • ভারতেই বিশ্বের অন্যতম সুবৃহৎ পোস্টাল নেটওয়ার্কটি আছে।
  • সারা পৃথিবীর মধ্যে ভারতবর্ষেই পঞ্চম বৃহত্তম রেলওয়ে লাইনের নেটওয়ার্কটি আছে।
  • কুম্ভমেলাটিকে বলা হয়ে থাকে যে সেটি নাকি অন্তরীক্ষ থেকেও দেখা যায়।
  • শ্যাম্পু করার ধারণাটি ভারতেই শুরু হয়েছিল।
  • ভারতীয় বৈজ্ঞানিকরাই চাঁদে জলের উপস্থিতি প্রথম আবিষ্কার করেছিলেন।
  • মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পর ভারতবর্ষ হল দ্বিতীয় বৃহত্তম ইংরাজীভাষী জনবসতির আবাস্থল।
  • ভারতবর্ষে একটি বড় অংশে নিরামিষাশীর বাস।মোট জনসংখ্যার প্রায় 31% ই নিরামিষাশী।
  • ভারত হল সেই একটি দেশ যেখানে প্রথম হীরে উত্তোলন করা হয়।
  • PPP পদ্ধতি অনুযায়ী ভারত হল বিশ্বের মধ্যে তৃতীয় বৃহত্তম অর্থনৈতিক দেশ।

আরও অন্যান্য মজাদার তথ্যগুলিশিশুরা হল আমাদের দেশের ভবিষ্যৎ,সুতরাং তারা আমাদের দেশ সম্পর্কে যা কিছুই জানার জন্য উৎসুক হয়ে থাকে তার সবকিছুই সঠিকভাবে তাদের জানানোটাই হল মাবাবা হিসেবে আমাদের কর্তব্য ও দায়িত্ব।ভারতবর্ষ হল আমাদের জন্মভূমিমাতৃভূমি এবং সন্তান হিসেবে তাঁর থেকে আমরা আমাদের প্রয়োজনের অনেকিছুপ্রায় সবকিছুই পাই বললে চলে,সুতরাং আমরাও আমাদের সন্তানদের সঠিকভাবেই বলতে পারি আমাদের দেশের সেই সকল ভাল দিকগুলির কথা যা আমাদের মাতৃভূমি ভারতবর্ষ দিতে পারে।