সি-সেকশনের পরে যোগব্যায়াম অনুশীলন: সেরা অবস্থান এবং সতর্কতা

সি-সেকশনের পরে যোগব্যায়াম অনুশীলন: সেরা অবস্থান এবং সতর্কতা

গর্ভাবস্থা এমন একটি পর্যায় যার মধ্যে দিয়ে শরীরে অসাধারণ শারীরিক পরিবর্তন হয়। প্রসবের পরে, একজন মায়ের তার গর্ভাবস্থার পূর্ববর্তী আকার ফিরে পেতে সময় এবং প্রচেষ্টা লাগে। সি-সেকশন প্রসবের পরে আগের আকারে ফিরে যাওয়া স্বাভাবিক প্রসবের চেয়ে বেশি চ্যালেঞ্জ হতে পারে, কারণ মা কেবল সি-সেকশনের ক্ষত নিরাময় হওয়ার পরেই অনুশীলন শুরু করতে পারেন। প্রসবের পরে আবার আগের আকারে ফিরে যাওয়ার অন্যতম কার্যকর উপায় হল যোগব্যায়াম। যোগব্যায়াম সম্পাদন করা সহজ এবং পাশাপাশি খুব কার্যকরও।

aniview

আপনি কি সিজারিয়ান প্রসবের পরে ব্যায়াম অনুশীলন করতে পারেন?

সি-সেকশনের পরে ব্যায়াম করার ক্ষেত্রে কোনো বিধিনিষেধ নেই, তবে এটি লক্ষণীয় বিষয় যে সি-সেকশন আপনার দেহের অঙ্গগুলির উপর কিন্তু কোনো হালকা প্রক্রিয়া নয় এবং আপনি পুরোপুরি সুস্থ না হওয়া পর্যন্ত আপনার পর্যাপ্ত বিশ্রাম নেওয়া অপরিহার্য। সুতরাং, আপনার অনুশীলনের রুটিন শুরু করার আগে আপনাকে সঠিক সময়টির জন্য অপেক্ষা করতে হবে।

সি-সেকশনের ফলে রক্ত ​​ক্ষরণ হয়, কারণ পেশীগুলি কেটে ফেলা হয় এবং অস্ত্রোপচারের পরে সেলাই করা হয়। আপনি যে কোনো ধরণের অনুশীলন শুরু করার আগে আপনার ঐ ক্ষতগুলি নিরাময় এবং সেলাইগুলি শরীরে মিশে যাওয়া নিশ্চিত করা গুরুত্বপূর্ণ।

নতুন মা হিসাবে আপনি গর্ভাবস্থার পরে পেটের অতিরিক্ত মেদ কমাতে আগ্রহী হতে পারেন। যাইহোক, আপনি নিজের শক্তি পুরোপুরি ফিরে না পাওয়া এবং অস্ত্রোপচারের ক্ষতগুলি সেই পর্যায়ে নিরাময় না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করা ভাল, যখন সমস্ত রকম প্রসারণ এবং চলাচলে নিজেকে আঘাত করার কোনো ঝুঁকি থাকবে না।

সিজারিয়ান প্রসবের পরে যোগব্যায়াম

সাধারণত, মহিলারা প্রসবের ছয় থেকে আট সপ্তাহ পরে যোগব্যায়াম শুরু করতে পারেন। তবে, সি-সেকশনের পরে যোগা শুরু করার বিষয়ে অবশ্যই আপনার চিকিত্সকের সাথে পরামর্শ করা উচিত। চিকিত্সক আপনার শরীরের উপর থাকা শারীরিক ও মানসিক চাপ, পেশীগুলির ক্ষমতা বিবেচনা করবেন এবং আপনাকে প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা দেবেন। আপনার চিকিত্সক একবার সম্মতি দেওয়ার পরে, আপনি সাধারণ আসনগুলি অনুশীলন শুরু করতে পারেন এবং ধীরে ধীরে আরো তীব্র রুটিনে অগ্রসর হতে পারেন। গর্ভাবস্থার পরে যোগব্যায়াম করার সুপারিশের কারণগুলি নিম্নলিখিত:

  • সি-সেকশনের পরে যোগব্যায়ামগুলি আপনার পেশীগুলিকে সঠিক আকার দেবে, তাদের শক্তিশালী করবে এবং সামগ্রিক আরোগ্যলাভে আপনাকে সহায়তা করবে।
  • যোগব্যায়াম লিগামেন্ট এবং আলগা পেশীগুলির পুনরায় শক্তিশালীকরণে সহায়তা করে।
  • যোগব্যায়াম আপনার ফোকাস এবং মনোযোগের ক্ষমতা বৃদ্ধি করবে; এটি আপনার মন, শরীর এবং আত্মাকে শান্ত করবে।
  • যোগব্যায়াম যে কোনো চাপ এবং উদ্বেগজনক পরিস্থিতির সাথে শান্তভাবে মোকাবেলায় সহায়তা করে।
  • যোগব্যায়াম আপনার অঙ্গগুলিকে শক্তি দেবে এবং আপনাকে চাপমুক্ত করবে।

আপনার যোগব্যায়ামের সেশন শুরু করার আগে হালকা স্ট্রেচিং দিয়ে শুরু করুণ এবং শ্বাসপ্রশ্বাসের সঠিক রুটিন অনুসরণ করুন। অতিরিক্ত স্ট্রেচিং ও নড়াচড়া এড়িয়ে চলুন এবং আপনার শরীর যতটা গ্রহণ করতে সক্ষম তার বাইরে নিজেকে চাপ দেবেন না।

সি-সেকশন প্রসবের পরে যে যোগব্যায়ামগুলি করতে হবে

আপনার শরীরকে শক্তিশালী করার এবং গর্ভাবস্থা ও প্রসবের চাপ সহ্য করার পরে এটিকে পুনরায় প্রাণবন্ত করার জন্য যোগব্যায়ম একটি আদর্শ উপায়। অনেক মহিলা সি সেকশনের পরেও পাতলা পেটের জন্য যোগব্যায়াম করেন। তবে আপনি যখন সি-সেকশন প্রসবের থেকে পুনরুদ্ধার করেন তখন যোগব্যায়াম শুরু করা সবচেয়ে ভাল।

সাধারণ ছন্দবদ্ধ শ্বাস-প্রশ্বাসের অনুশীলন প্রাণায়াম, যেমন অনুলম-বিলোম প্রাণায়াম, প্রথম কয়েক সপ্তাহ ধরে ‘ওউম’, শাবাসন ও অন্যান্য বুনিয়াদি প্রাণায়াম দিয়ে শুরু করুন এবং তারপরে জটিল আসনগুলি শুরু করার আগে আপনার শারীরিক শক্তির মূল্যায়ন করুন।

সি-সেকশন প্রসবের পরে যে যোগব্যায়ামগুলি করতে হবে

একবার আপনি যখন নিজেকে যথেষ্ট সুস্থ হয়ে উঠেছেন বলে মনে করেন, আপনি আপনার যোগব্যায়ামে নিম্নলিখিত আসনগুলি অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন:

  • অগ্নিসার ক্রিয়া: এই ক্রিয়া অভ্যন্তরীণ শক্তি এবং প্রাণশক্তি বাড়ায়। এটি বদহজম, কোষ্ঠকাঠিন্য এবং ক্ষুধামন্দে সহায়তা করে, প্রসবের পরে যেগুলির সাধারণত অভিজ্ঞতা হয়, এমন জিনিসগুলির সাথে লড়াই করতে সহায়তা করে।
  • কাঁধারাসন: এই আসনটি পেট এবং শ্রোণী অঞ্চলের অঙ্গগুলিকে আকার দেয়। এটি মহিলা প্রজনন অঙ্গকেও শক্তিশালী করে।
  • ভুজঙ্গাসন: এটি কাঁধ, তলপেট এবং বুকের পেশীকে টোন করে। এই ভঙ্গির অনুশীলনটি পিঠের নিচের অংশের কঠোরতা হ্রাস করবে এবং আপনার বাহু ও কাঁধকে শক্তিশালী করবে।
  • উর্ধ্ব প্রসারিত পদাসন: এই আসনটি পিঠের তলদেশকে শক্তিশালী করে, পেটের পেশী টোন করে এবং অঙ্গবিন্যাসকে উন্নত করে।
  • অধো মুখ শ্বনাসনা: কুকুরের ভঙ্গি বা ডগ পোজ হিসাবেও পরিচিত, এই পোজটি আপনার পিঠ, মেরুদণ্ড, উরু প্রভৃতি পেশীগুলিকে প্রসারিত করে এবং তাদের শক্তি উন্নত করতে সহায়তা করে। এই আসন আপনাকে পুনর্জাগরিত এবং শক্তিশালী বোধ করাবে। এটি মস্তিষ্কেও শান্তকারী প্রভাব ফেলে এবং মানসিক চাপ উপশম করতে সহায়তা করে।
  • তাদাসন: পাহাড়ের ভঙ্গি বা মাউন্টেইন পোজ নামেও পরিচিত, এই আসন পুরো দেহের জন্য দুর্দান্ত উপকারী। এটি আপনার শরীরের উপর নিয়ন্ত্রণ এবং শক্তি উন্নত করতে সহায়তা করে; এটি আপনার পেশী টোন করে এবং রক্ত ​​প্রবাহ ও অঙ্গভঙ্গিমা উন্নত করে।
  • বৃক্ষাসন: একবার আপনি এই আসনগুলির সাথে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করলে আপনি বৃক্ষাসন ভঙ্গিতে যেতে পারেন। বৃক্ষাসন আপনার শ্রোণী অঞ্চলকে শক্তিশালী করে, শরীরের ভারসাম্যকে উন্নত করে এবং পুরো শরীরের উপর ইতিবাচক প্রভাব ফেলে।

কয়েক সপ্তাহ (আদর্শ ৩-৪ সপ্তাহ) এই আসনগুলি অনুশীলন করার পরে, আপনি ‘সূর্য নমস্কার’-এর মতো আরো জটিল যোগব্যায়ামগুলির দিকে অগ্রসর হতে পারেন। তবে, কেবলমাত্র যখন আপনি আরামদায়ক অনুভব করবেন এবং আপনার পেশীর ব্যথা কমে আসে তখনই এর জন্য যান।

সি-সেকশন প্রসবের পরে যে যোগব্যায়ামগুলি করতে হবে

মা হিসাবে, সব দায়িত্বের সাথে এই সমস্ত অনুশীলন করার জন্য সময় নেওয়া কঠিন হতে পারে, বিশেষত আপনি যদি চাকরী করেন। আপনার অনুশীলনগুলি সংক্ষিপ্ত ও সাধারণ ক্রমগুলিতে পরিকল্পনা করুন এবং সেগুলি দুই থেকে তিনবার পুনরাবৃত্তি করুন। সি-সেকশনের পরে আপনি যে সমস্ত ধরণের অনুশীলন করেছেন, তার জন্য আপনার শরীর কিভাবে যোগব্যায়ামগুলিতে প্রতিক্রিয়া জানায় সে বিষয়ে গভীর মনোযোগ দিন এবং আপনি যদি অস্বস্তি বোধ করেন তবে এখনই থামুন। যোগব্যায়াম অনুশীলনের প্রাথমিক পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য আপনি একজন পেশাদার যোগা প্রশিক্ষকের সাহায্য নিতে পারেন। গর্ভবতী মহিলাদের জন্যও যোগব্যায়াম বাঞ্ছনীয়।

প্রসবের পরে প্রাক-গর্ভাবস্থার আকারে ফিরে যাওয়া একজন মায়ের পক্ষে গুরুত্বপূর্ণ, কারণ এটি তাকে আরো ভাল বোধ করাবে, আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে তোলে এবং সন্তানের লালনপালনের সাথে সম্পর্কিত চ্যালেঞ্জগুলির জন্য তাকে প্রস্তুত করে তোলে। যোগব্যায়াম দেহকে অভ্যন্তরীণ ও বাহ্যিকভাবে শক্তিশালীকরণ এবং একই সাথে মনকে শিথিল করার কার্যকর ও সুবিধাজনক উপায়।

সি-সেকশনের সার্জারির পরে পুনরুদ্ধার স্বাভাবিক প্রসবের পরে পুনরুদ্ধারের চেয়ে বেশি সময় নিতে পারে। সুতরাং, অস্ত্রোপচারের পরে কোনো অনুশীলন বা যোগব্যায়াম করার সময় অতিরিক্ত সতর্কতা অবলম্বন করা জরুরী। প্রসবের পরে কমপক্ষে ছয় সপ্তাহের জন্য কোনো ভারী গতিবিধি বা ব্যায়াম অনুশীলন এড়ানো ভাল। একটি নিয়ন্ত্রিত ডায়েট অনুসরণ করার মধ্যে প্রয়োজনীয় পুষ্টি রয়েছে, যা সি-সেকশন থেকে দ্রুত পুনরুদ্ধারে সহায়তা করবে।