আপনার ৭ মাস বয়সী শিশুর বৃদ্ধি এবং উন্নয়ন

আপনার ৭ মাস বয়সী শিশুর বৃদ্ধি এবং উন্নয়ন

আপনার শিশুর বৃদ্ধি এবং উন্নয়নআপনার ছোট্টটি সাত মাস বয়সী হয়ে গেছে, সে অবশেষে ‘না’ বুঝতে সক্ষম হয়েছে এবং যখন আপনি তার নাম ধরে ডাকেন তখন প্রেমময়ভাবে আপনার দিকে তাকিয়ে থাকে । দিনের পর দিন, আপনি খুব আনন্দিত এবং আপনার শিশুর বৃদ্ধি ও উন্নয়নের মাইলস্টোন অনুযায়ী বিকাশ দেখতে উন্মুখ । এখানে ৭ মাসের শিশুর উন্নয়নের বিষয়ে যা আশা করা যায়, তা রয়েছে ।

aniview

শিশুর বৃদ্ধি

সাত মাসে, আপনার শিশু তার জীবনের একটি পরিবর্তনশীল পর্যায়ে রয়েছে । তার পায়ের উপর আংশিকভাবে তার ওজন সহ্য করা থেকে হামাগুড়ি দেওয়া পর্যন্ত এবং তার আশেপাশের অন্বেষণের মাধ্যমে, আপনার ছোট্টটি অভিজ্ঞতার পরিধি পাবে । এবং আবেগগুলির আকস্মিক প্রবাহ দিয়ে, যখন সে খেলনা পেতে ব্যর্থ হয় তখন সে বিড়বিড় করে এবং ছোট বাক্যাংশগুলির মাধ্যমে যা চায় তা প্রকাশ করতে চায় বা প্রকাশ করতে পারে না । তার মাথা এবং শরীরের আকার পরিবর্তন, আরো কম্প্যাক্ট এবং একটি ৭ মাস বয়সী শিশুর ওজন দ্বিগুণ হয় । আপনি দেখতে পারেন যে ছেলেদের চেয়ে এই বয়সে মেয়েদের পা বেশি লম্বা হয় এবং আপনাকে তার পোশাকের পরবর্তী আকারের পোশাক তাদের জন্য কিনতে হবে ।

শিশুর উন্নয়ন

সাত মাস বয়সী হওয়ার পর এই সপ্তাহগুলিতে আপনার শিশু তার উন্নয়নমূলক পর্যায়ে থাকবে । সে মেঝেতে সব রকমের চলাচল বা মহড়া চেষ্টা করছে এবং কিছু সময় পরেই কোনো সমর্থন ছাড়াই বসতে পারবে । তাকে তার আশপাশটা অন্বেষণ করার জন্য উত্সাহিত করার চেষ্টা করুন এবং যখনই আপনার প্রয়োজন তখন তার পাশে থাকুন । আপনার শিশু এখন তার যত্নশীলদের প্রতি সচেতন হবে এবং বিভিন্ন মানুষের কণ্ঠস্বর আলাদা করে চিনতে সক্ষম হবে । সে আদর পেতে চাইবে, একটি আলিঙ্গন প্রয়োজন হতে পারে, অথবা সে এখন কিছুই না করে বসে থাকতে পারে । কখনও কখনও সে কোনো নতুন জিনিস অন্বেষণে আগ্রহী নাও হতে পারে । এটি একেবারেই স্বাভাবিক এবং নিশ্চিত হোন যে আপনি একজন অভিভাবক হিসাবে আপনার যথাসাধ্য করছেন ।

সে মেঝেতে সব রকমের চলাচল বা মহড়া চেষ্টা করছে

২৮ সপ্তাহ বয়সী শিশুর উন্নয়ন

ডায়পার র‍্যাস: এটি আপনার সন্তানের পাচকতন্ত্রের জন্য একটি কমনীয় সময় যেহেতু আপনি ধীরে ধীরে তার খাদ্যের মধ্যে কঠিন খাবার অন্তর্ভুক্ত করা শুরু করেন । আপনার শিশুর ডায়পার র‍্যাসের বিকাশ হতে পারে, যার মানে আপনাকে তার পিছনের অংশ ভালো করে মুছতে হবে এবং র‍্যাস হওয়া প্রতিরোধ করার জন্য প্রায়ই তার ডায়পার পরিবর্তন করতে হবে । কখনও কখনও লাল ফুসকুড়ি তাপের কারণে তার নিতম্বের উপর তৈরি হতে পারে, তাই তাকে হাইড্রেআপনার শিশুর বৃদ্ধি এবং উন্নয়নট রাখা এবং তার ডায়পারগুলি পরিষ্কার রাখা গুরুত্বপূর্ণ ।

দাঁত বেরনো: আপনার শিশু ক্রমবর্ধমান, প্রায় এই সময়ে তার দাঁত বেরনো শুরু হবে । খেলা এবং মজার সঙ্গে এই সময় তার মন আটকে রাখা নিশ্চিত করুন কারণ এটি খুব বেদনাদায়ক ।

২৯ সপ্তাহ বয়সী শিশুর উন্নয়ন

রুটিন: আপনার শিশু ধীরে ধীরে তার রুটিনে অভ্যস্ত হবে, সে আপনার সাথে কথা বলতে এবং আপনার সাথে সময় কাটাতে চেষ্টা করবে । এই সময় তার নতুন কিছু শেখার সময়, যেমন রুটি, কলা এবং বেবি স্টিকের মতো আঙুল দিয়ে ধরে খাওয়ার খাবারগুলি কীভাবে খেতে হয় । সে অনেক সময়ের জন্য ঘুমোবে, কারণ প্রতিদিন সে প্রচুর পরিমাণে কঠিন খাবার খাবে ।

ধোয়া এবং খাওয়ানো: আপনার সন্তান তার নিজের হাতে খাওয়ার চেষ্টা করার কারণে নিজের উপর খাবারের দাগ ছেড়ে দিতে পারে । তাকে নিজে নিজে খেতে উত্সাহিত করুন কারণ সে দুধ খাওয়ানোর প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে গেলে তাকে কিছুটা ব্যস্ত রাখবে । কিন্তু তার জামাকাপড় থেকে দাগ ধুয়ে দিতে এবং প্রায়ই ডায়পার পরিবর্তন করতে নিশ্চিত করুন ।

৩০ সপ্তাহ বয়সী শিশুর উন্নয়ন

দুষ্টু আচরণ: আপনার শিশু এই বয়সে ক্রমবর্ধমান দুষ্টু হয়ে উঠবে । সে তার চারপাশের বিশ্বের অন্বেষণ করতে পারে, সে কামড়াবে, ডিগবাজী খাবে, ঘুরবে এবং সবকিছু করতে চাইবে । এর অর্থ হচ্ছে, যখন আপনি তাকে বুকের দুধ খাওয়াচ্ছেন তখন আপনাকে কামড়ানোর মতো অনুসন্ধান ট্রিগার করতে পারে । চিৎকার করার আপনার প্রতিক্রিয়াকে সে মজাদার মনে করতে পারে এবং সে সেই কাজ আরো করতে থাকবে ।

শেখার আচরণ: আপনার শিশু ব্যস্ত হয়ে ওঠে এবং তার চারপাশে বিভিন্ন জিনিস অনুসন্ধান করার চেষ্টা করে, সে তার জাগরণে ঘটা সবকিছু মনে রাখতে পারে না । যাইহোক, কোন আচরণ আপনার ছোট্টটি যেন না করে এটা চাইলে আপনি এমন কিছু জিনিস পুনরাবৃত্তি করে তার মধ্যে ভদ্র আচরণ ধীরে ধীরে প্রবেশ করাতে পারেন, সেগুলি হল খেলনাগুলি নিক্ষেপ না করা বা লোকেদের না কামড়ানো, বা এমনকি কারো চুল ধরে না টানা ।

হামাগুড়ি দেওয়া: এটি আপনার ছোট্টেটির জন্য একটি উত্তেজনাপূর্ণ সময় যেহেতু সে বাড়ির ভিতরে সাহস দেখিয়ে ঘুরে বেড়াতে শুরু করবে এবং হামাগুড়ি দেওয়ার লক্ষণ দেখাবে । আপনার ঘরে স্বাস্থ্যকর পরিবেশের অভাব থেকে সে যেন অসুস্থ হয়ে না পড়ে এবং অনিরাপদ কণাগুলি থেকে তাকে নিরাপদ রাখতে ঘর এবং ধুলো পুঙ্খাআপনার শিশুর বৃদ্ধি এবং উন্নয়ননুপুঙ্খভাবে পরিষ্কার করেন কিনা তা নিশ্চিত করুন, যা না করা হলে ডায়রিয়া এবং কান্নাকাটিয়ের গুরুতর আঘাতের কারণ হতে পারে ।

সে বাড়ির ভিতরে সাহস দেখিয়ে ঘুরে বেড়াতে শুরু করবে

৩১ সপ্তাহ বয়সী শিশুর উন্নয়ন

খাবারের সাথে পরীক্ষা করা: আপনার সন্তান খাদ্যের বিভিন্ন স্বাদ এবং টেক্সচারের পরীক্ষা নিতে শুরু করবে । তার পাচকতন্ত্রের জন্য বিভিন্ন ধরণের খাদ্যের প্রবর্তন করে তাকে তার সুবিধা নিতে দিন ।

দাঁত বেরনোর সময়: যদি সে ইতিমধ্যে দাঁত বেরনোর প্রক্রিয়ার মধ্যে না গিয়ে থাকে তাহলে এখন আপনার সন্তানের দাঁত বেরনো শুরু হতে পারে । এই সময়ে, তার নিচের সামনে দাঁতের সম্ভবত উত্থান হবে ।

ঘুমপাড়ানি গানের সময়: তাকে পার্কে নিয়ে যান এবং তাকে বিভিন্ন পরিবেশের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিন । নার্সারির ছড়া এবং অন্যান্য নরম সুরের গান রাতে ঘুমের সময় তাকে শুনিয়ে ঘুম পাড়ান । তাকে তার চাক্ষুষ আশেপাশকে শুষে নিতে দিন এবং তাকে অন্যান্য শিশুদের সাথে বন্ধুত্ব করা ও পোষা প্রাণীদের নজর রাখতে দিন ।

শিশুর স্বাস্থ্য

সাত মাস বয়সে, আপনাকে তাকে টিকা দেওয়ার বিষয়ে বা ডাক্তার দেখানো সম্পর্কে চিন্তা করতে হবে না । শুধু নিশ্চিত হোন যে আপনি প্রতিটি খাবারের আগে আপনার শিশুর হাত পরিষ্কার করছেন এবং তাকে মেঝেতে হামাগুড়ি দেওয়ানোর চেষ্টা করছেন । আপনার শিশুর ইমিউনো সিস্টেমটি উন্নয়নশীল এবং ধীরে ধীরে বিভিন্ন সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে অভ্যস্ত হয়ে উঠছে তাই সর্বদা মেঝে সুপার পরিষ্কার রাখার বিষয়ে উদাসীন হবেন না । শুধু আপনার বাড়ি যেন স্বাস্থ্যকর থাকে নিশ্চিত করুন, ব্যাস এটাই ।

আপনার বাড়ি যেন স্বাস্থ্যকর থাকে নিশ্চিত করুন

শিশুর মাইলস্টোন – ৭ মাস

৭ মাস বয়সে, কিছু উন্নয়নমূলক মাইলফলক রয়েছে যা আপনার শিশুর জন্য সন্ধান করা উচিত । আপনি আপনার শিশুর মধ্যে পর্যবেক্ষণ করতে পারেন তেমন কিছুতে নীচেরগুলি অন্তর্ভুক্ত:

  • বর্ধিত ক্ষুধা: আপনার শিশুর খাদ্যে বিভিন্ন স্বাদ এবং টেক্সচার চেখে দেখার চেষ্টা করতে চায় ।
  • বস্তু স্মৃতি: গোপন করে রাখা জিনিস আর আপনার ছোট্টটিকে বোকা বানাতে পারবে না । আপনার সন্তান তাদের খুঁজে পাবে ।
  • উন্নত গভীরতার উপলব্ধি: আপনার শিশুর দূরত্ব সম্পর্কে সচেতনতা এবং কত দূরে তা বুঝতে পারবে ।
  • উন্নত রঙ-এর উপলব্ধি: আপনার শিশু আপনার এবং তার আশেপাশ সনাক্ত করতে সক্ষম হবে । উন্নত রঙ-এর উপলব্ধি এছাড়াও বোঝায় যে সে তার আশেপাশের অন্বেষণ করতে এবং সেগুলি নিরীক্ষণ করতে সক্ষম হবে ।
  • বেশি ঘুম: ঘুমের সময় দীর্ঘ হবে, এবং আপনার শিশু এখন আরো বেশি ঘুমাবে । এটি বৃদ্ধি এবং উন্নয়নের একটি ভাল সূচক ।
  • মানসিক এবং সামাজিক উন্নয়ন: আপনার শিশু আপনাকে এবং আপনার পরিবারের সদস্যদের চিনতে সক্ষম হবে । সে আলাদা আলাদা কণ্ঠস্বরে আলাদা আলাদা প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করবে এবং যখন আপনি কিছু বলবেন তখন নীরব হয়ে শুনবে ।
  • ভুলভাল বকবক করা: যা খুশি ভুলভাল বকবক করা, এতে ব্যঞ্জনবর্ণ ভিত্তিক শব্দ অন্তর্ভুক্ত, এবং সে এমনকি বাক্যাংশ বলতে শুরু করতে পারে । সে এখন ‘মা’ এবং ‘বাবা’ বলতে সক্ষম হবে এবং ধীরে ধীরে তার শব্দভান্ডার বাড়বে, সে এমনকি তার চারপাশের বস্তুর সাথে শব্দের সংযোজন করবে ।

আচরণ

যখন আপনি কাজের জন্য ঘর ছেড়ে দেবেন তখন আপনার শিশুটি এখন বিচলিত হবে না । সে জানে যে আপনি ফিরে আসবেন এবং সময়ের একটি ধারনা পাবে । উপরন্তু, সে দাঁত বেরনোর প্রক্রিয়ার সময় রাগী বা খিটখিটে হতে পারে এবং সে অচেনা বস্তু বা মানুষ চিনতে না পারলে অনেক কান্নাকাটি করতে পারে । আপনার তাকে বিছানায় ফেলতে সমস্যা হতে পারে, এবং তার আচরণটি কেবলমাত্র তার আশেপাশের অন্বেষণ এবং পর্যবেক্ষণের কারণে চ্যালেঞ্জিং হতে পারে ।

৭-মাস-বয়সী শিশুর ক্রিয়াকলাপ

এই সাত মাস বয়সী শিশুর ক্রিয়াকলাপগুলি আপনার ছোট্টটির বৃদ্ধির এবং উন্নতিতে সহায়তা করবে । তাকে ব্যস্ত রাখার জন্য কি করতে হবে তা এখানে রয়েছে ।

  • লুকোচুরি:

আংশিকভাবে বস্তু লুকান এবং আপনার ছোট্টটিকে এটি খুঁজতে দিন । যদি সে ইতিমধ্যে আংশিক লুকানো বস্তু খুঁজে বের করতে সক্ষম হয়, তবে সেগুলিকে গোপন করুন অথবা সম্পূর্ণরূপে লুকিয়ে রাখুন এবং আপনার খেলা শুরু করুন ।

  • মুখ সনাক্তকরণ:

আপনার ফটো অ্যালবাম আনুন এবং বন্ধুদের ও পরিবারের সদস্যদের ছবি নির্দেশ করুন । তাদের সম্পর্কে আপনার শিশুর সাথে কথা বলুন এবং তাদের নাম বলুন । এটি প্রায়ই করুন, এবং সে ধীরে ধীরে স্মরণ করতে পারবে এবং তাদের সনাক্ত করতে সক্ষম হবে ।

  • ব্লক জোগাড় করা:

একই মাপের বিভিন্ন রঙের ব্লক বা একটি ব্লক সেট নিন এবং ব্লকগুলি উপরে উপরে কীভাবে জোগাড় করবেন তা আপনার ছোট্টটিকে দেখান । তাকে নিজে নিজে সেটি করতে দিন এবং ধৈর্য ধরে সময় নিয়ে তাকে চেষ্টা চালিয়ে যাওয়ার জন্য উত্সাহিত করুন । এটি একটি মোটর-দক্ষতা উন্নয়ন কার্যকলাপ যা বস্তু-অবস্থান সমন্বয়ে তার অনুভূতি গঠন করবে ।

একটি ব্লক সেট নিন এবং সেগুলি উপরে উপরে আপনার ছোট্টটিকে রাখতে দিন

  • পিউরি খেলা:

এটা তার স্বাদ পরীক্ষার সময় । বিভিন্ন রঙিন খাবার বিশুদ্ধ চারটি বাটিতে রাখুন এবং তাকে সেগুলি চেখে দেখতে দিন । এটি শুধুমাত্র গন্ধ এবং স্বাদের অনুভূতিই বিকাশ করবে না, পাশাপাশি আপনি তার খাদ্য পছন্দগুলি সম্পর্কে আরো জানতে পারবেন । তার মুখের অভিব্যক্তি লক্ষ্য করুন এবং সে পছন্দ করে তা লক্ষ্য করুন!

  • নার্সারির ছড়া:

একটি ছবিযুক্ত বই নিন এবং আপনার কোলের উপর আপনার ছোট্টটিকে বসিয়ে একটি গান শোনান ও নার্সারির ছড়া গুনগুন করুন । ছড়াতে আপনার কণ্ঠের অভিব্যক্তি ইতিমধ্যে তার তথ্য শোনার প্রক্রিয়াকরণের জ্ঞানের জন্য কাজ করবে । এটি তার ভুলভাল বকবক করার দক্ষতা বিকাশ এবং তাকে নতুন শব্দ শেখাবে ।

৭-মাস-বয়সী শিশুর যত্ন

আপনাকে মনে রাখতে হবে যে আপনার শিশুর নির্দিষ্ট কিছু চাহিদা এবং স্বতন্ত্র কৌতুহল রয়েছে । আপনার শিশুর আচরণের কারণে আপনার প্রথমে ঘুমানোর অসুবিধা হতে পারে তবে আপনি ধীরে ধীরে তার খাওয়ানো, ঘুমানো এবং আচরণের নিদর্শনগুলির সঙ্গে আরও বেশি প্রত্যাশিত হতে পাবেন, যা আপনার জীবনকে আরও সহজ করে তুলবে । আপনার শিশু এছাড়াও তার ঘুমানোর রুটিন ব্যবহার করবে ।

ঘুম

প্রায় ৬ মাস বা তার বেশি সময়ের পরে, আপনার শিশুর ডায়েটে নতুন খাবারগুলি একবার উপস্থাপিত হওয়ার পরে আপনার শিশু আরও বেশি ঘুমাবে । আপনার শিশুর ঘুমের সময় এবং নিদর্শন পৃথক প্রোফাইলের উপর ভিত্তি করে পরিবর্তিত হবে তবে আপনি যদি তার ঘুমের রুটিনটি যেকোন ভাবেই পরিবর্তন করতে আগ্রহী হন তবে আপনার নিজের ঘুমের অভ্যাসগুলি সম্পর্কে চিন্তা করুন এবং ঘুমানোর সময় তাদের আপনাকে প্রয়োজন কিনা তা বিবেচনা করুন । বুকের দুধ খাওয়ানো শিশু রাতে মাঝে মাঝে ঘুম থেকে জেগে উঠবে যতক্ষণ না তাকে নতুন খাদ্য গোষ্ঠী এবং দুধ খাওয়ানোর সঙ্গে পরিচিত করা হয় ।

আপনার শিশু আরও বেশি ঘুমাবে

খাওয়ানো

আপনার কাজ হল কঠিন খাবার সহ, নতুন খাদ্য গ্রুপের সাথে আপনার ছোট্টটির পরিচয় করিয়ে দেওয়া । আপনার শিশু বিভিন্ন স্বাদ এবং টেক্সচার অনুসন্ধান করবে, এবং তার ক্ষুধা এই সময় পরিবর্তনশীল থাকবে । আপনি একবার তার খাদ্যে কঠিন খাবার যোগ করার সময় তাকে বেশি ঘুমিয়ে থাকতে দেখতে পারেন । স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তোলার লক্ষ্যে এবং সেটির অংশের মাপ ও কত ঘন ঘন সে খেতে চায় সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন । তাকে খুব বেশি খাবার খাওয়াবেন না এবং নিশ্চিত করুন যে সে প্রতিদিন ৩বার খাবার পায় ।

বাবা-মায়ের জন্য টিপস

বাবা-মায়ের জন্য তাদের জীবনকে সহজতর করতে এখানে কিছু টিপস দেওয়া হয়েছে-

  • অন্যদের সাথে ভাগ করে নিন: বন্ধু বা পরিবারের বাড়তি সদস্যযুক্ত বাবা-মায়েদের ক্ষেত্রে, আমরা তাদের সাথে আপনার ছোট্টটিকে ভাগ করে নেওয়ার সুপারিশ করি । যদি নানসি কাকিমা সন্ধ্যায় আপনার পুচকেটির যত্ন নিতে চায়, তাকে করতে দিন! মানুষের বৈচিত্র্য আপনার ছোট্টটির ভাল করবে ।
  • একজন বেবিসিটার ভাড়া করুন: আপনি যদি কর্মজীবন এবং মাতৃত্বের ভারসাম্যহীন কঠিন সময় কাটাচ্ছেন, তাহলে এটি একটি বেবিসিটার ভাড়া নেওয়ার সময় । এটি কেবল আপনার ছোট্টটিকেই সাহায্য করবে না তবে সে ব্যক্তিটির প্রতি একবার অভ্যস্থ হওয়ার পরে আপনি তার জন্য আরও নিরাপদ বোধ করবেন ।
  • তাকে বিভ্রান্ত করুন: যখন আপনার ছোট্টটি খুব বেশি শব্দ করে তখন যদি কেউ ‘না’ বলে বা বকাবকি করে, তবে তাকে কেবল একটি খেলা বা একটি মজার কার্যকলাপ দিয়ে বিভ্রান্ত করুন । মনে রাখবেন, তাদের আশ্চর্য এবং কৌতূহলী মন আছে ।
  • মনস্তাত্ত্বিক স্বাস্থ্যবিধি: আপনার শিশুকে বিভিন্ন কক্ষগুলি অন্বেষণ করতে দিন এবং তাকে বিছানার মধ্যে খুব বেশি সময় ব্যয় করতে দেবেন না । তার অনাক্রম্যতা সিস্টেম এখনও উন্নয়নশীল তাই তাকে বিভিন্ন মাইক্রোঅরগানিজমে উন্মুক্ত করুন ।

এই ৭ মাস বয়সী শিশুটির জন্য আপনার নজরদারি এবং বিকাশের মাইলফলকগুলির প্রয়োজন । আপনার সন্তানের এই লক্ষণগুলি সন্ধান করুন এবং তার বৃদ্ধি ও উন্নয়ন পর্যায়ে তাকে সাহায্য করুন এবং এতে সে সুখী হবে, আপনিও হবেন ।