আপনার 4 মাসের শিশুর বৃদ্ধি এবং বিকাশ

FOUR MONTHS OLD BABY

মা বাবা হওয়া প্রকৃতপক্ষে একটি আশীর্বাদস্বরূপ এবং এই অনুভূতিটা আরো স্পষ্ট হবে যখন আপনার শিশুটি ঘটনা বহুল চারমাসে পদার্পণ করবে তার সুমিষ্ট হাসি এবং অনবরত মুখের বুলি আপনার পৃথিবীটিকে আরো বেশী সুন্দর করে তুলবেচোখ বুলিয়ে নিন নিচে আলোচিত চার মাস বয়সের শিশুর সবধরণের বিকাশের ধারা সম্পর্কে যা আপনাকে সাহায্য করবে

aniview

শিশুর বৃদ্ধি

জন্মের প্রথম বছরের প্রতিটা মাসেই আপনার শিশুর বৃদ্ধি ও বিকাশ খুব দ্রুত হতে থাকে যখন তার শরীরের এবং মস্তিষ্কের বৃদ্ধি ঘটে যদি আপনি ভাবেন যে চারমাসের শিশুর ওজন কত হতে পারে, তবে এটি খুব সাধারণ ব্যাপার, আপনি শিশুর জন্মকালীন বয়সকে দ্বিগুণ করে নিন তাহলে খুব সহজেই একটি পরিষ্কার ধারণা পেয়ে যাবেন তার আদর্শ ওজনের যাই হোক আপনার শিশুর ওজন বৃদ্ধি পাবে বৃদ্ধির নির্দিষ্ট মান অনুযায়ী যদি আপনার মনে হয় আপনার বাচ্চার মুখে, থাইয়ে, হাতগুলিতে অথবা পিছনে যথেষ্ট মাংস হয় নি, তবে ডাক্তারের সাথে কথা বলুন

শিশুর বিকাশ

  • যখন আপনার শিশু প্রথম পৃথিবীতে আসে তখন তার দৃষ্টিক্ষমতা খুবই কমজোরী থাকে আর স্পষ্ট ভাবে কিছু দেখতেও পায় না, কিন্তু চারমাস বয়সে তার দৃষ্টিশক্তি অনেকটা বৃদ্ধি পায় বিশেষত রঙের ধারণা করতে পারে সেই ধারণাকে আরো বেশী স্পষ্ট করার জন্য আপনার শিশুকে বিষয়ে আরো বেশী উৎসাহ দেওয়ার জন্য আপনি উজ্জ্বলবর্ণের কিছু জামাকাপড় খেলনার সাথে তার পরিচয় কর‍রাতে পারেন

  • যখন আপনার শিশুর মুখের বুলি ফোটার সময় হয় তখন মনে হবে পৃথিবীতে এর থেকে ভাল এবং সুন্দর আর কিছুই হতে পারে না যাই হোক আপনি যদি একটু বেশী মনোযোগ দেন তবে লক্ষ্য করবেন যে, আপনি তার সামনে যা কিছুই বলেন তার প্রতিটা শব্দই সে অনুকরণ করার চেষ্টা করে

16 সপ্তাহের শিশুর বিকাশ

এই সময়ে আপনার শিশুটি তার নিজের গলায় বেশ কিছু নতুন শব্দ তৈরী করতে শেখে এবং সেগুলিকে সে বুঝতেও পারে আপনার ছোট্ট সোনার মুখ দিয়ে অনর্গল আধো আধো বুলির ফোয়ারা ঝরতে থাকে যেমন মাম্মা বা দাদ্দা এই ধরণের, যদিও সে এগুলির অর্থ জানে না মনে রাখুন আপনার শিশুর অনুকরণ করার ক্ষমতা এই সময় থেকে বাড়তে থাকে,তাই সে আপনার প্রতিটি শব্দের ও ভাবভঙ্গীর অনুকরণ করার চেষ্টা করে আপনার থেকেও অনেক মিষ্টিভাবেই, যা সত্যই সুখকর

17 সপ্তাহে আপনার শিশুর বিকাশ

17 সপ্তাহের মধ্যেই আপনার শিশুর ওজন বেড়ে প্রায় দ্বিগুণ হয়ে যায় এবং তার পেটটিও আগের থেকে অনেক বড় হয়ে ওঠে যদি আপনি তাকে বুকের দুধ খাওয়ান তবে দিনে 6-8 বার খাওয়ানোটাই তার পক্ষে যথেষ্ট অথবা 5-6 বার খাওয়ালেই হবে,যদি আপনি এর সাথে তাকে সলিড খাবার ও খাওয়ান যাইহোক এই সময়ে তার মধ্যে অনেকরকম বিভ্রান্তি সৃষ্টি হতে পারে যেহেতু সে এখন থেকে সজাগ হয়ে যায় বাইরের শব্দ এবং অন্যান্য উদ্দীপনা সৃষ্টিকারী শব্দ সম্পর্কে সে তার হাত ও পাগুলি দিয়ে খালতে পারবে, কোন জিনিসকে ধরবার জন্য সেগুলিকে ব্যবহার করতে পারবে এবং একা একাই খেলতে পারবে আগের থেকে অনেক বেশী সময় ধরে

18 সপ্তাহে আপনার শিশুর বিকাশ

আপনার শিশুটি এই সময় থেকে নানা রকম ভাবে আওয়াজ করে হাসতে থাকবে যদিও তার চাহিদা গুলি বোঝাবার জন্য সে তার প্রাথমিক ধাপের কান্নাটিকেই বজায় রাখবেমজাদার মুখভঙ্গী, নানা ধরণের আওয়াজ এবং পিকবু ইত্যাদি খেলা গুলি তাদের মুখে সর্বদা হাসি ফুটিয়ে তোলে সে সব কিছুর অন্বেষণ করতে ভালবাসবে এবং খুব সাধারণ ছোটখাটো জিনিস যেমন কাপড়ের টুকরো, ঝুনঝুনি, তার মাথার কাছে ঝোলানো ঘন্টা এগুলি নিয়ে খেলতে ভালোবাসবে সে এই সময়ে রঙ ও ছায়ার মধ্যে প্রভেদ করতে শিখবে , এবং রঙীন জামাকাপড় ও খেলনার প্রতি বেশী উৎসাহ প্রকাশ করবে

19 সপ্তাহে শিশুর বিকাশ

আপনার বাচ্চার মেরুদণ্ড এই সময় অনেক বেশী শক্ত হয়ে যায় এবং তার সংলগ্ন পেশীগুলিকেও সমর্থন করতে পারে, তাই যখন আপনি তাকে তুলে ধরেন তখন সে তার ঘাড় থেকে মাথাটিকে অনেকক্ষন তুলে সোজা করে রাখতে পারে তার শব্দভান্ডারও বাড়তে থাকে, তাই আপনি নিজেকে এই সময় থেকেই প্রস্তুত করান অসংখ্য অসংলগ্ন বিড়বিড়ানি শোনার জন্য যা বেশ কিছুদিন ধরে চলবে রাত্রে আপনার ও আপনার শিশুর ভাল ঘুম নিশ্চিত করার জন্য তাকে ঘুম পাড়ানো, খাওয়ানো, স্নানকরানো, গল্পপড়ে শোনানো,ঘুমপাড়ানি গান গেয়ে শোনানো এই সব কিছুই একটি নির্দিষ্ট রুটিন অনুযায়ী করুন

শিশুর স্বাস্থ্য

আপনার শিশু এখন প্রস্তুত সেই সকল কার্যকরী টিকাগুলি নেওয়ার জন্য যেগুলি চার মাস বয়সের শিশুদের দেওয়া প্রয়োজন এই প্রাথমিক টিকা গুলি দেওয়ায় যদি আপনার বাচ্চার কোন প্রতিকূল প্রতিক্রিয়া দেখা যায় তবে তা ডাক্তারবাবুকে অবশ্যই জানান শিশুদের অ্যালার্জির প্রবণতাও থাকে তাই সতর্ক থাকুন যদি বয়সের এই ধাপে আপনি আপনার শিশুকে কোন সলিড খাবার খাওয়ান বুকের দুধ হল শিশুর প্রাথমিক খাদ্য যার মধ্য থেকে সে সকল পুষ্টিগুণই লাভ করে এর পর ধীরে ধীরে তার সলিড খাবারের সাথে পরিচয় ঘটে ও অভ্যস্থ হয়ে ওঠে ন্যাপি র‍্যাস থেকে সাবধানে রাখুন এবং যতটা সম্ভব তাকে শুকনো রাখার চেষ্টা করুন যখন ডায়পার বদলাবেন তখন বাচ্চার পিছন পরিষ্কার করতে অল্প গরম জল ব্যবহার করুন

শিশুর মাইলফলক – 4 মাস বয়সে

নীচের মাইলফলক গুলি ভীষণ গুরুত্ব পূর্ণ যেগুলি শিশু তার চারমাস বয়সে অর্জন করে

  • যত্ন ভালোবাসায় প্রতিক্রিয়া জানায়যখন আপনি আপনার বাচ্চাটিকে আদর করেন ভালোবাসেন তখন আপনার বাচ্চাটিও তার প্রতিক্রিয়া জানায় হেসে নানারকম খুশি হওয়ার অঙ্গভঙ্গী করে আপনার ছোট্টসোনা এখন বুঝতে পারে তাকে চুম্বন করা গায়ে হাত বোলানো তাকে ভালোবাসারই সমতুল্য তাই যখন আপনি তার উপর আপনার ভালোবাসা বর্ষণ করেন সেও তার যথাযথ প্রতিক্রিয়া দেখায় আপনার চারমাসের শিশু এই সময় থেকে বুঝতে পারে তাকে ভালোবাসা কি? বিশেষত সেটা যখন তার মা বাবা বা ভাইবোনের কাছ থেকে সে পায়

  • স্মৃতিশক্তি বিকাশের প্রকাশচারমাসে আপনার বাচ্চার কোন কিছু চিনতে পারার ক্ষমতা বাড়ে, তাই সে কোন নির্দিষ্ট খেলনা এবং মানুষ কে দেখলে তাদের প্রতি সেইরূপ প্রতিক্রিয়ার বহিঃপ্রকাশ ঘটায় সে বিভিন্ন ভাবে তার পছন্দ অপছন্দ গুলিকে প্রকাশ করে, সে তার ঠাকুরদাদার সঙ্গ পেতে ভালোবাসতে পারে অথবা তার মাসি, পিসির আদরগুলো প্রত্যাখ্যানও করতে পারে সে অনেক জিনিসের মধ্য থেকে তার প্রিয় খেলনা টি কিম্বা উজ্জ্বল বর্ণের বলটিকে পছন্দ করে নিতে পারে এবং এইভাবেই তার সংগ্রহের পরিমাণটিও বাড়িয়ে তুলতে পারে

  • আবেগ প্রকাশআপনার শিশু যেমন ভালোবাসা বুঝতে পারে ঠিক তেমনই সে তার দুঃখ প্রকাশ করতে পারে চারমাস বয়সে আপনাকে যখন চারিপাশে কোথাও দেখতে পাবে না কিম্বা ঘর থেকে কোথাও আপনাকে বেড়োতে দেখবে তখন সে কেঁদে উঠবে যখন আপনাকে কাছে আসতে দেখবে সে আবার তার কান্না থামিয়ে দেবে তার দুঃখ প্রকাশের কান্না তার ক্ষিধে পাওয়ার কান্না থেকে আলাদা হয়, আপনিও সেটির পার্থক্য বুঝতে পারবেন

  • শক্ত করে মাথাটি ধরে রাখতে পারবেযখন আপনি আপনার বাচ্চাকে আপনার বাহুতে নেবেন কোন রকম সাপর্ট ছাড়াই সে তার মাথাটি সোজা করে ধরে রাখতে পারবে, কারণ এই সময়ে তার ঘাড়ের পেশীগুলি অনেক বেশী শক্ত হয়ে যায় আর তার ফলে সে তার মাথাটিকে স্বাভাবিক ভাবে নাড়াতে সক্ষম হয় এটিও লক্ষ্য করতে পারেন যখন আপনি তাকে অনুভূমিক অবস্থা থেকে তুলে ধরেন সে কিভাবে তার মাথাটিকে ধরে রাখতে পারে কারুর সাহায্য ছাড়াই

  • পেশীগুলি আরো বেশী শক্তিশালী হয়যখন আপনি আপনার বাচ্চাকে তার পেটের উপর ভর দিয়ে ধরেন তখন সে তার কনুইগুলি দিয়ে নিচের দিকে ঠেলে নামাতে চেষ্টা করে আপনার বাচ্চার বাহুর উপরের অংশের এবং পিঠ ও কাঁধের পেশীগুলি এই সময় অনেক বেশি শক্তিশালী হয়ে যায়, যা তাকে এই কাজটি করতে সাহায্য করে

  • উল্টাতে পারেএই সময় আপনার শিশুর অঙ্গ সঞ্চালনা অনেক বেশী বেড়ে যায়, যার সাহায্যে সে খুব সহজেই পেটের দিক থেকে পিঠের দিকে উল্টে যেতে পারে শারীরিক বিকাশের এটি খুব বড় একটি ধাপ যেটি মূলত হয় কাঁধ ও পিঠের শক্তি বৃদ্ধির ফলে

  • নানা ভাবে হাসতে পারবেচারমাসে সে মুখে নানারকম আওয়াজ করবে ও কলকলিয়ে হেসে উঠবে ও তার সাথে সাথে হাতপা এর সঞ্চালনা চলতে থাকবে যা কিছুতেই সে মজা ও উৎসাহ পাবে যেমন হঠাৎ করে কিছু করতে পারা কিম্বা কোন অদ্ভুত শব্দ, যা তার মনোযোগ আকর্ষণ করবে ও হাসির উদ্রেক করবে এবং মুখে গিরগির আওয়াজ করতে থাকবে

আচরণ

চার মাসে আপনার বাচ্চা আপনার সাথে ও পরিবারের অন্যান্যদের সাথে সংযোগ রক্ষা করতে পারবে আপনার শিশুটি অন্যান্য ভাই বোনেদের কেও ঠিক সেই ভাবেই সাড়া দেবে যেভাবে আপনাকে সাড়া দেয় সে ধীরে ধীরে শিখে যায় কাকে বিশ্বাস করা যাবে আর কাকে নয়, যখন তার হঠাৎ কিছুর প্রয়োজন হয়ে পড়ে আপনার ছোট্টটিকে টেলিভিশন ও অন্যান্য যাবতীয় ডিজিটাল সামগ্রীর থেকে দূরে রাখাই শ্রেয়,যেহেতু এগুলির কোনটাই তার উদ্দীপনায় প্রয়োজন নেই তার চারমাস বয়সে তার মস্তিষ্কের উদ্দীপনা বাড়ানোর জন্য আপনি ও আপনার পরিবারের বাকি সদস্যরাই এক্ষেত্রে যথেষ্ট

4 মাসের শিশুর ক্রিয়াকলাপ

নীচের কাজ গুলির থেকে যে কোন একটি বেছে নিন যা আপনার শিশুর বিকাশের ক্ষেত্রে ও তাকে ব্যাস্ত রাখতে সাহায্য করবে চারমাসের বাচ্চার জীবনে এই কাজগুলির প্রভাব ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ, যার দ্বারা সে নিজেও কিছুটা সময় কাটিয়ে ফেলতে পারে আর তার পশাপাশি আপনিও কিছুটা বিরতি পান

1.একটা ছোটো নরম খেলনা তার বুকের উপর রাখুন আর দেখুন সে কি প্রতিক্রিয়া দেখায় দেখবেন যতক্ষণ না সেটি পড়ে যায় ততক্ষণ সেটির উপরেই সে তার মনোযোগ আকৃষ্ট করে রাখেকাছাকাছি থাকুন আর পুনরায় সেটি সেখানে তুলে দিন

2.কিছু রঙীন মোজা আপনার বাচ্চার পায়ে পরিয়ে দিন অথবা যদি চান তবে ফুট র‍্যাটেলও ব্যবহার করতে পারেন ছোট একটি ভাজ করা তোয়ালে তার নিতম্বের তলায় এমন অবস্থায় রাখুন যাতে সে সহজেই তার পা গুলি লক্ষ্য করতে পারে

3. বাচ্চার সামনে বই পড়া প্রমাণ করে তার ঞ্জানের দক্ষতা বৃদ্ধি পায় এমন ধরণের বই পছন্দ করুন যে গুলিতে অনেক রঙীন ছবি ও ইমেজ আছে আপনার বাচ্চা সেগুলিকে ধরবে, অনুভব করার চেষ্টা করবে এমনকি বইগুলির স্বাদও নিতে চাইবে, তাই তাদের বইয়ের পৃষ্ঠা গুলি ও চরিত্র গুলিকে ছুঁতে দিন

4. যখন আপনার শিশু ঘুম থেকে জেগে ওঠে সে অনবরত তার হাতপা গুলিকে ছুঁড়তে থাকে যখন সে আপনার পিঠে শুয়ে থাকে তাকে সেখান থেকে তুলে কিছু অতিরিক্ত করাতে পারেন তার চারপাশে কিছু খেলনা ছড়িয়ে দিতে পারেন যাতে সে বিভিন্ন দিকে নিজেকে সঞ্চালন করতে পারে

5. বল হল এমন একটি বস্তু যেটি সব বাচ্চাই ভীষণ পছন্দ করে, বিশেষত সেটি যখন গড়াতে থাকে তারা অবাক হয়ে যায় কিভাবে সেটি ঘটছে এই ভেবে বলটিকে বাউন্স করান, গড়িয়ে দিন এবং তারপর সেটিকে পুনরায় দেওয়ালে বাউন্স করান এগুলি আপনার শিশুকে বুঝতে সাহায্য করবে যে বল দিয়ে কি কি করা যায়

4 মাসের শিশুর যত্ন

চারমাসে আপনার বাচ্চা পা ছুঁড়তে শুরু করবেতাই কিছু নিরাপদ বিষয়ের উপর এই সময় থেকে খেয়াল রাখতে হবে এই সময় তাদের হাত থেকে কোন কিছু জোর করে ছারিয়ে নিলে সে সেগুলিকে বেশী করে আঁকড়ে ধরতে চায় তার জন্য সে ডিকবাজিও খেতে পারে সেই জায়গায় পৌঁছিয়ে সেটিকে ধরার জন্য ধূলো বালি সব জায়গাতেই রয়েছে তাই নিয়মিত ভাবে আপনার শিশুর বিছানা ও যে খেলনাগুলি সে ব্যবহার করে সেগুলি ঝাড়ুন ও পরিষ্কার করুনঘুমের অভ্যেস এর কিছুটা যদি উন্নতি ঘটে তবে তাকে ঘুম থেকে জোর করে টেনে তোলার ও খাওয়ানোর চেষ্টা করবেন নাতাদের আরাম করে ঘুমোতে দিন এবং নিজের মত উঠতে দিন

খাওয়ানো

সময়ের সাথে সাথে আপনার শিশুর চারমাস বয়সে তার খাওয়ার ধরণগুলিরও অনেক উন্নতি ঘটবে একজন দক্ষ মানুষের মতইআপনার বাচ্চার খাওয়ার ধরণে উন্নতি ঘটে যেহেতু তার চোষার ও কোন কিছুর খাওয়ার ইচ্ছে অনেকটা বেড়ে যায় খাওয়া সংক্রান্ত কোন সমস্যা যা তার আগে ছিল তা এই সময় থেকে ধীরে ধীরে কমতে থাকে তার চারমাসে পড়া অবধি বাচ্চার বিকাশ ও তার পুষ্টির সমস্ত চাহিদাই পূরণ হয়ে যায় তার মা এর বুকের দুধে অথবা বোতলের দুধের সাহায্যে আপনি সলিড খাবারের সাথে তার পরিচয় করাতে পারেন তার ছয় মাস বয়সে, যখন তার সহ্য শক্তি বাড়বে এবং তার অ্যালার্জি হওয়ার ঝুঁকিও কম থাকবে

ঘুমানো

আপনার শিশুর ঘুমানোর প্যাটার্ন এখন অনেক বেশী নির্দিষ্ট হয়ে গেছে,সে দিনের বেলায় কম সময় এবং রাতের বেলায় দীর্ঘ্য সময় ধরে একটানা ঘুমাবে। আপনি ভাবতে পারেন সে দিনের বেলায় কম ঘুমাচ্ছে এবং রাতের বেলায় বেশী সময় ধরে ঘুমাচ্ছে।যাই হোক দিনের ঘুম তাকে রাতের গাঢ় ঘুম হতে সাহায্য করে। এই পর্যায়ে আপনার বাচ্চাটি অবশ্যই আপনাকে বাধা দেবে যখন আপনি তাকে ঘুম পাড়াতে চাইবেন এটা হবে আপনার একটা নতুন অভিজ্ঞতাতবে আপনি ছেড়ে দেবেন না,আগে যেমন করছিলেন তেমনই করবেনআপনার সঙ্গীকেও এর মধ্যে জড়ান এবং তার সাহায্য নিন আপনার সোনামণিকে ঘুম পাড়াতে।

বাবা মায়েদের জন্য কিছু পরামর্শ

চার মাসের বাচ্চাদের পরিচর্যা করার ব্যাপারে এখানে বাবা মায়েদের জন্য কয়েকটি পরামর্শ দেওয়া হল।

  • আপনার বাচ্চাটিকে কোলে বসান তার সামনে আপনি যে বইটি পড়তে চাইছেন সেটি খুলে বসুন এবং পড়তে শুরু করুন।এক উজ্জ্বল রঙের বই আপনার জন্য সবথেকে ভাল, আপনার আগ্রহী নতুন পড়ুয়ার জন্য যেটা তাকে আকর্ষণ করবে এবং তার দেখবার ক্ষমতার বিকাশ ঘটাবে।

  • আপনার শিশুটি যে সকল খেলনা, বস্তু ,ব্যাক্তিকে দেখছে সেগুলোকে নাম দিয়ে চিহ্ণিত করুন যখন তার বাবা আসবে তখন তাকে বলুন হাই ড্যাড অথবা কোন বল দেখিয়ে বলুন এই খেলনা টা হল বল।এটা হল দারুন উপায় তাকে নাম ও বস্তুর মধ্যে সম্পর্ক শেখানোর এবং নতুন শব্দ শেখানোর।

  • আপনার আনন্দের সোনাটির সাথে যত পারুন কথা বলুন, সে দেখবেন কয়েকটি শব্দ শিখে নেবে তার মানে না জেনেও।কতগুলো শব্দ যেমন দাদা, মামা,অথবা বাবা এর মত সহজ শব্দগুলো আপনার বাচ্চার কছে বারবার বলুন তার সাথে কথা বলার সময়।

  • তাকে উপুর হয়ে শোবার ব্যাপারে উৎসাহ দেবার সময় খেলনা অনান্য বস্তুগুলো তার নাগালের বাইরে রাখুন।এর ফলে তার ঘাড়ের এবং পিঠের মাংসপেশী গুলো সবল হবে খেলনা গুলো তার দৃষ্টিক্ষেত্রের মধ্যে রাখুন যাতে সেগুলোর নাগাল পাবার জন্য তার ঘাড় ও মাথা ঘোরাতে পারে

  • আপনার শিশুটির অঙ্গ সঞ্চালনের ওপর ভালভাবে নিয়ন্ত্রন আনার জন্য নানা ধরনের কার্যকলাপ করুন যাতে তার বাহু এবং কনুই এর সন্ধি সচল হয়।যখন আপনি কবিতা আবৃত্তি করবেন বা গান করবেন আপনি তার হাত দুটো ধরবেন এবং ধীরে ধীরে একদিক থেকে অন্যদিকে দোলাবেন।

প্রতিটি শিশুই অনন্য তাদের দেহের গঠন এবং বৃদ্ধির ক্ষেত্রে। ঘাবড়াবেন না যদি আপনার বাচ্চাটি উদ্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তার মাইলফলক গুলো অতিক্রম না করতে পারে।

উদাহরণ স্বরুপ বলা যায় প্রিম্যাচিউর বাচ্চাদের কিছুটা বেশী সময় লাগে আদর্শ বিকাশ ঘটতে। আপনার ডাক্তারের সাথে কথা বলুন এবং তার সীমাবদ্ধতা বুঝে আপনার চার মাসের শিশুটির বিকাশের ধারা লক্ষ্য করুন।