গর্ভপাতের পর সঙ্গম

MISCARRIAGE

মহিলাদের গর্ভপাত হল তাদের জন্য শারীরিক ও মানসিক ভাবে ভীষণ আঘাতমূলক একটি ঘটনা মানসিক এবং শারীরিক উভয় ক্ষেত্রে আরোগ্যের জন্য কিছু সময় নেওয়ার প্রয়োজন হয়একবার গর্ভপাত ঘটার পর পুনরায় আগের নিয়মিত জীবনযাত্রায় ফিরে আসা এবং পুনরায় আপনার সঙ্গীর সাথে সঙ্গম করার চেষ্টা শুরু করা একটি চ্যালেঞ্জের বা বাজি ধরার মত কাজ হতে পারেএই নিবন্ধে আলোচনা করা হল প্রথমবার গর্ভপাত হওয়ার পর পুনরায় সঙ্গম করার জন্য কত সময় জুড়ে অপেক্ষার প্রয়োজন,গর্ভপাতের পরে সঙ্গম করা নিরাপদ কিনা, মানসিক আঘাতের সাথে কীভাবে মোকাবিলা করতে শিখবেন এবং গর্ভপাত ঘটার পরে গর্ভবতী হওয়ার জন্য পরামর্শ—এই সকল বিষয়ে

aniview

গর্ভপাতের পর কখন সঙ্গম করা নিরাপদ?

একবার গর্ভপাতের পর পুনরায় সঙ্গম শুরু করার জন্য অপেক্ষা করার সময় প্রতিটা দম্পতির পরিবর্তনের তারতম্যের কারণ হিসাবে বিবেচনা করা হয়,যেমন তাদের শারীরিক ও মানসিক আরোগ্যের জন্য প্রয়োজনীয় সময়ের উপরদম্পতিরা পুনরায় সঙ্গম শুরু করতে পারে যখন তারা এ ব্যাপারে মানসিক ভাবে প্রস্তুত থাকে এবং মহিলার শরীর যখন সম্পূর্ণ রূপে সেরে ওঠে তখনই

সাধারণত, যদি প্রথম ত্রৈমাসিকে গর্ভপাত ঘটে থাকে এবং সেক্ষেত্রে কোনওরকম সমস্যা না থাকে যেমন যন্ত্রণা, যোনির দুর্গন্ধ,রক্তস্রাব অথবা গর্ভাবস্থার অনবরত লক্ষণ প্রকাশ, সেক্ষেত্রে আপনি পুনরায় সঙ্গম শুরু করতে পারেন গর্ভপাত ঘটার 2-3 সপ্তাহ পরেযাই হোক, যদি গর্ভপাত দ্বিতীয় বা তৃতীয় ত্রৈমাসিকে ঘটে থাকে,তবে সেক্ষেত্রে পুনরায় যৌনক্রিয়া শুরু করার জন্য কমপক্ষে 6 সপ্তাহ অপেক্ষা করা ভালো

গর্ভপাতের পরে আপনার আবেগের সাথে মোকাবিলা করতে শিখুন

গর্ভপাত ঘটার পর শারীরিক পরিবর্তনের সাথে মোকাবিলা ছাড়াও একজন মহিলাকে মোকাবিলা করতে হয় তার আবেগের সাথেওএরকম দুঃখজনক বা আঘাতমূলক ঘটনা ঘটার পর আপনার কিরকম অনুভূতি হবে তা প্রতিটি মানুষের ক্ষেত্রে বিভিন্ন হতে পারেএক্ষেত্রে দুঃখ পাওয়াটা কিছুটা স্বাভাবিক এছাড়াও গর্ভপাত ঘটার পর উদ্বিগ্ন, রাগ বেড়ে যাওয়া, দোষারোপ করা অথবা খিটখিটে হয়ে যাওয়াটাও কিছুটা স্বাভাবিকএই দ্বন্দ্বপূর্ণ আবেগের ফলে আরও একবার আপনার সঙ্গীর সাথে অন্তরঙ্গ হয়ে ওঠার মুহূর্তটি কঠিন হয়ে উঠতে পারে

এটি তখনই হতে পারে যখন আপনি পুনরায় আরেকবার আপনার সঙ্গীর সাথে অন্তরঙ্গ হওয়ার মানসিকতায় থাকেন, এবং এটি হল সম্পূর্ণ স্বাভাবিকআপনার সঙ্গীর কাছে প্রকাশ করুন আপনার অনুভূতি এবং সমর্থনের জন্য বলুন

যদি আপনার গর্ভপাতের অভিজ্ঞতা থাকে তবে নিজেকে যথেষ্ট সময় দিন এই বিধ্বংসী ঘটনার ফলে সৃষ্ট মানসিক যন্ত্রণা থেকে নিজেকে মুক্ত করতেআপনার অনুভূতিগুলি আপনার সঙ্গীর কাছে খুলে প্রকাশ করা বুদ্ধিমানের কাজ হবেপ্রয়োজন হলে এই বিষন্নতাকে কাটিয়ে উঠতে আপনার একটি কাউন্সিলিং অথবা আপনাদের দুজনেরই কাউন্সিলিং এর সাহায্য নিতে পারেনআপনার সঙ্গীর সাথে আলোচনা করুন এবং যদি আপনি প্রস্তুত থাকেন পুনরায় অন্তরঙ্গ হওয়ার জন্য তবে অন্য আরেকটি গর্ভাবস্থার জন্য চেষ্টা করার সিদ্ধান্ত নিন

কখন আপনি আরেকটি গর্ভাবস্থা পেতে পারেন?

পুনরায় গর্ভধারণের ক্ষেত্রে বেশীর ভাগ ডাক্তারই দম্পতিদের এই পরামর্শ দিয়ে থাকেন যে,গর্ভপাত ঘটার পর প্রথম মাসিক সম্পূর্ণভাবে সম্পন্ন হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতেএটি সাধারণত 4 সপ্তাহ মত সময় নেয়একটি গর্ভপাত ঘটার পর মহিলাদের শরীরে এই সময়টুকুর প্রয়োজন হয় তাদের হরমোনের মাত্রা পুনরায় স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনা নিশ্চিত করার জন্যআবার পুনরায় আপনার মাসিক চক্র শুরু হয় এবং আপনি সঠিকভাবে গণনা করতে পারেন আপনার প্রজননের উর্বর সময়টিকেসুতরাং আদর্শগত ভাবে, গর্ভপাত ঘটার পরে আপনার কমপক্ষে একমাস অপেক্ষা করা উচিত আরেকবার গর্ভধারণের চেষ্টা করার জন্য

আপনার শারীরিক আরোগ্য লাভের প্রয়োজনীয় সময়ের উপরেও এটি নির্ভর করেকিছু মহিলার আবার গর্ভপাতের পর যোনি রক্তপাত হতে পারে কিছুদিনের জন্যসেটি হতে পারে যন্ত্রণাদায়ক অথবা যন্ত্রণাহীনসংক্রমণের সম্ভাবনা কমাবার জন্য যতদিন না রক্তপাত সম্পূর্ণরূপে বন্ধ হয় ততদিন সঙ্গম থেকে বিরত থাকাই ভালো

কিছু মহিলার আবার গর্ভাবস্থা টিস্যু বা কলা অপসারণ করতে হয় অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে, আরোগ্য লাভের জন্য সেক্ষেত্রে প্রয়োজন হয় দীর্ঘ সময়েরতাছাড়াও আবার গর্ভপাতের পর অবশিষ্ট সার্ভিক্স এবং জরায়ুর বিস্তৃতি আংশিকভাবে হয়ে থাকেএটি তাদের সংক্রমণের প্রবণতা বাড়িয়ে দেয় সুতরাং, ডাক্তাররা পরামর্শ দেন সেই সময় যৌন মিলন না করার জন্য এবং সম্পূর্ণ রূপে আরোগ্য লাভ না করা পর্যন্ত ট্যাম্পুন ব্যবহারের নির্দেশ দেনএই নিরাময় প্রক্রিয়া দুই সপ্তাহ পর্যন্ত সময় নিতে পারে।

গর্ভপাতের পর গর্ভবতী হওয়ার পরামর্শ

  • প্রসব পূর্ববর্তী সময়ে ভিটামিন গ্রহণ—গর্ভধারণের জন্য পুনরায় চেষ্টা শুরু করার কমপক্ষে একমাস আগে থেকে ডাক্তারের নির্ধারিত প্রসবকালীন ভিটামিন গ্রহণ করা শুরু করুন,বিশেষ করে ফলিক অ্যাসিড
  • সম্পূর্ণরূপে আরোগ্য লাভ না করা পর্যন্ত অপেক্ষা করুন—পুনরায় আরেকবার গর্ভধারণের জন্য আপনার শারীরিক ও মানসিক দিক থেকে সম্পূর্ণরূপে আরোগ্য লাভ করা এবং এটির জন্য নিজেকে প্রস্তুত করা নিশ্চিত করুনআপনার স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞের সাথে কথা বলুন এবং এই মানসিক আঘাতের জন্য কাউন্সিলিং করানোর প্রয়োজন হলে কখনই তা দ্বিধা করবেন না অথবা গর্ভপাতের এই মানসিক যন্ত্রণা থেকে বেরিয়ে আসার জন্য যদি আপনার সাহায্যের প্রয়োজন হয় আপনার সঙ্গীর পাশাপাশি একটি সহনশীল সমর্থন নিতেও দ্বিধা বোধ করবেন না
  • স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস এবং নিয়মিত যোগ ব্যায়াম—আপনার খাবারের সাথে প্রচুর পরিমাণে ফল ও সবজি খাওয়া শুরু করুনএকটি স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস গর্ভপাতের ঝুঁকির সম্ভাবনা প্রায় 50% কমিয়ে দেয়সুস্থ থাকতে নিয়মিত ব্যায়াম করুনএটি ভবিষ্যতে গর্ভপাতের সম্ভাবনা উল্লেখযোগ্য ভাবে কমিয়ে দেয়
  • ক্ষতিকারক পদার্থগুলি এড়িয়ে চলুন—এড়িয়ে চলুন মাদক দ্রব্য,নিকোটিন এবং ড্রাগ সম্পূর্ণ রূপে বন্ধ করুনক্যাফিন গ্রহণে হ্রাস টানুন কিম্বা যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলুনএই সকল উপাদান গুলি গর্ভপাতের ঝুঁকি বাড়িয়ে তোলে এবং গর্ভাবস্থায় অন্যান্য সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়ায়
  • আরাম করুন এবং চিন্তা ও চাপমুক্ত থাকুন—গবেষণানুযায়ী পরীক্ষিত যে,মানসিক চাপ গর্ভপাতের ঝুঁকি উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি করেশান্ত থাকার চেষ্টা করুন মানসিক চাপ ও উদ্বেগ কমানোর কোনো পদ্ধতি যেমন যোগা,শ্বাসপ্রশ্বাসের ব্যায়াম,বই পড়া,হাঁটতে বেড়োন অথবা আপনার পছন্দের যেকোনো কাজ করতে পারেন যা আপনাকে শান্ত করে ও খুশী রাখে,সেগুলি প্রয়োগের মাধ্যমে নিজেকে চাপ মুক্ত করার চেষ্টা করুন

  • আপনার ডাক্তারবাবুর নির্দেশ মত পুনরায় সঙ্গম করার জন্য অপেক্ষা করুন—আপনার ডাক্তারবাবুর পরামর্শ অনুসরণ করুন এবং পুনরায় যৌন কর্ম শুরু করার আগে অপেক্ষা করুন যত সময় আপনার ডাক্তারবাবু নির্দেশ দেনযদি গর্ভপাতের পরে আপনার যোনি থেকে রক্তপাত ঘটে, অপেক্ষা করুন এটি সম্পূর্ণভাবে বন্ধ হওয়া পর্যন্তগর্ভপাতের রক্তস্রাবের পর প্রথম সঙ্গম করার সময় সাবধানতা অবলম্বন করুনযদি পুনরায় রক্তপাত শুরু হয়,সঙ্গম বন্ধ করে ডাক্তারের সাথে আলোচনা করুন
  • স্বাস্থ্যকর যৌনজীবন—সপ্তাহে অন্তত তিনবার সঙ্গম গর্ভধারণের সম্ভাবনা স্বাভাবিকভাবেই বাড়িয়ে দেয়আপনার প্রজননের উর্বর সময় নির্ধারণের জন্য আপনি ওভুলেশন স্টিক ব্যবহার করতে পারেন ওভুলেশনের দিন সঙ্গম করুন এবং কমপক্ষে এর 3-4 দিন আগেও সঙ্গম আপনার গর্ভধারণের সমস্যাগুলির উন্নতি ঘটায়

যেকোনো মহিলা ও তার সঙ্গীর কাছে গর্ভপাত ঘটা হল অত্যন্ত মানসিক যন্ত্রণার একটি অভিজ্ঞতাসেক্ষেত্রে শারীরিক অবস্থাও যথেষ্ট ভালো থাকে না পুনরায় সন্তান ধারণের চেষ্টা শুরু করার জন্য অন্তরঙ্গ হওয়ারআপনার মানসিক যন্ত্রণা কাটিয়ে উঠে নিজের গতি পুনরায় বজায় রাখার জন্য আপনার নিজেকে যথেষ্ট সময় দিতে হবেআপনার যাবতীয় ভয়,আতঙ্ক এবং অন্যান্য অনুভূতি গুলি আপনার সঙ্গীর সাথে আলোচনা করুনএকবার আপনি যদি মানসিকভাবে প্রস্তুত হয়ে যান পুনরায় মাতৃত্ব গ্রহণের সমস্যাগুলিকে কাটিয়ে উঠে নতুন ভাবে মা হয়ে ওঠার জন্য, তবে আপনার স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞের সাথে কথা বলুনআপনার প্রসবকালীন ভিটামিন গুলি গ্রহণ করুন এবং ডাক্তারের নির্দেশ মেনে পুনরায় সন্তানধারণের জন্য সামনের দিকে এগিয়ে চলুন