ছোট শিশু এবং সদ্য হেঁটে চলে বেড়ানো বাচ্চাদের পরিপাকের উন্নতি ঘটাতে 10 টি কার্যকর ঘরোয়া প্রতিকার

ছোট শিশু এবং সদ্য হেঁটে চলে বেড়ানো বাচ্চাদের পরিপাকের উন্নতি ঘটাতে 10 টি কার্যকর ঘরোয়া প্রতিকার

মাতৃত্ব নিয়ে আসে তার নিজস্ব চ্যালেঞ্জ এবং উদ্বেগ এবং একজন মায়ের ক্ষেত্রে তার সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জগুলির মধ্যে একটি হল তার সন্তানের স্বাস্থ্যের ব্যাপারে মোকাবিলা করা।এবং আপনি যদি আপনার বাচ্চার অথবা সদ্য হাঁটতে শেখা ছোট শিশুটির বদহজমের ব্যাপারে উদ্বিগ্ন হয়ে থাকেন,তবে,এই নিবন্ধটি সেক্ষেত্রে ভাল ফলপ্রসূ প্রমাণিত হতে পারে কারণ আমরা এখানে আলোচনা করতে চলেছি কিছু কার্যকর ঘরোয়া প্রতিকার সম্পর্কে যেগুলি ছোট শিশু এবং সদ্য হেঁটে চলে বেড়ানো বাচ্চাদের পরিপাকের উন্নতির ক্ষেত্রে সহায়তা করে।

aniview

ছোট শিশু এবং সদ্য হেঁটে চলে বেড়ানো বাচ্চাদের বদহজমের চিকিৎসার জন্য ঘরোয়া প্রতিকারগুলি

ছোট শিশু এবং সদ্য হাঁটতে শেখা বাচ্চাদের মধ্যে সম্পূর্ণরূপে বিকাশপ্রাপ্ত পাচন তন্ত্র থাকে না,যা তাদের হজমের সমস্যাগুলির জন্য সংবেদনশীল করে তোলে।যদি আপনার বাচ্চার মধ্যে ডায়রিয়া,কোষ্ঠকাঠিণ্য কিম্বা অন্য কোনও পেটের সমস্যা দেখা দিয়ে থাকে,তবে সে ক্ষেত্রে আপনার শিশুটি হয়ত হজমের সমস্যায় ভুগছে এমন সম্ভাবনাই থাকে। যাইহোক,তবে আপনি যদি নিম্নলিখিত ঘরোয়া প্রতিকারগুলির কোনোটি অনুসরণ করেন সেক্ষেত্রে সেটি বদহজমজনিত সমস্যার চিকিৎসায় সহায়তা করতে পারে।

ছোট শিশু এবং সদ্য হেঁটে চলে বেড়ানো বাচ্চাদের বদহজমের চিকিৎসার জন্য ঘরোয়া প্রতিকারগুলি

১. উষ্ণ কমপ্রেস

শিশু বা টডলার পদাধিকারী ছোট বাচ্চাদের গ্যাস এবং পেট ফেঁপে যাওয়ার মত সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার একটি দুর্দান্ত উপায় হল উষ্ণ সঙ্কোচনের(কমপ্রেস) ব্যবহার,এছাড়াও এটি আবার আপনার ছোট্ট সোনাটিকে প্রশমিত করে তাকে শান্ত করে তুলতেও সহায়তা করে।আপনাকে যা করতে হবে সেটি হল আপনাকে একটি নরম ওয়াশক্লথ অথবা তোয়ালে এবং এক বাটি উষ্ণ জল নিতে হবে।এবার তোয়ালেটিকে উষ্ণ জলের মধ্যে ডুবিয়ে ভিজিয়ে ফেলুন এবং এর মধ্যস্থ অতিরিক্ত জলটিকে নিংড়ে বের করে দিন।এবার সেই উষ্ণ তোয়ালেটিকে ধীরে ধীরে আপনার সন্তানের পেটের উপর স্থাপন করে 2-3 মিনিটের জন্য রেখে দিন।এই উপসর্গের উপশমে সহায়তার জন্য আপনি এই প্রক্রিয়াটির পুনরাবৃত্তি দিনে বেশ কয়েকবার পর্যন্ত করতে পারেন।

উষ্ণ কমপ্রেস

২. সঠিকভাবে ঢেকুর তোলান

স্তন পান করার সময় অথবা বোতলে খাওয়ার সময় আপনার সন্তান প্রচুর পরিমাণে বাতাস গিলে ফেলে।ফলে তার পাকস্থলীতে আটকে থাকা এই অতিরিক্ত বাতাসের কারণে তার পেট ব্যথা,গ্যাস হয় এবং পেট ফেঁপে যায় যা আপনার বাচ্চাকে অত্যন্ত অস্থির করে তোলে এবং চরম অস্বস্তির মধ্যে ফেলতে পারে।এই সমস্যা কাটিয়ে ওঠার সবচেয়ে ভাল উপায় হল মাঝেমধ্যেই আপনার বাচ্চাকে ঢেকুর তোলান,বিশেষ করে খাওয়ানোর পর।ঢেকুর তোলাতে আপনি আপনার সন্তানের পিঠের দিকে একটি হাতের সাপোর্ট দিয়ে এবং অপর হাতটিকে তার ঘাড়ে সাপোর্ট করে তাকে উপরের দিকে খাঁড়া করে তুলে ধরে রাখতে পারেন।বিকল্প হিসেবে,আপনি আবার আপনার ছোট্টটিকে তার পেটের উপর ভর দিয়ে উপুড় করে আপনার কোলের উপর শুইয়ে দিয়ে তার পিঠের উপর হালকা করে চাপড়ে আঘাত করতে পারেন।

সঠিকভাবে ঢেকুর তোলান

৩.স্তন দুধ

উপরের আলোচনা মত,আপনার সন্তানের পাচন তন্ত্রটি এখনও অপরিণত থাকে,অতএব সেই কারণে অন্ততপক্ষে ছয় মাস না হওয়া পর্যন্ত বুকের দুধই তাদের জন্য আদর্শ। বেশিরভাগ চিকিৎসকই নবাগত মায়েদের পরামর্শ দিয়ে থাকেন তাদের সন্তানেরা ছয় মাসের সীমারেখা অতিক্রম না করা পর্যন্ত তাদের একচেটিয়াভাবে স্তন দুধ পান করানোর জন্য।আপনার সন্তানকে স্তন দুধ পান করানোর সময় তা থেকে সে কেবল তার প্রয়োজনীয় সকল পুষ্টিই পায় না এটি আবার আপনার সন্তানের হজমের ক্ষেত্রেও প্রভূত সহায়ক হয়ে থাকে।

স্তন দুধ

৪. স্তন পান করানোর অবস্থান

কিছু সময় আবার স্তন দুধ পান করানোর অবস্থানের মত সামান্য কিছু ছোটখাটো পরিবর্তন অ্যাসিড রিফ্লাক্সের সাথে মোকাবিলা করার ক্ষেত্রে আপনার সন্তানকে সহায়তা করতে পারে।আপনার বাচ্চা যদি ক্রমাগত অথবা নিয়মিতভাবে উগরে ফেলতে থাকে,তবে সেক্ষেত্রে তার অ্যাসিড রিফ্লাক্সে ভোগার সম্ভাবনা থাকে।স্তন পান করানোর সময় অথবা বোতলে করে খাওয়ানোর সময় আপনার উচিত তাকে সোজা করে খাড়া অবস্থায় ধরে রাখা।এটি তার পেটের সামগ্রীগুলিকে তার গ্রাসনালীতে পুনরায় ফিরে আসার ক্ষেত্রে বাধার সৃষ্টি করতে পারে।এছাড়াও আবার আপনার বাচ্চাকে উপরের দিকে খাঁড়া করে অন্ততপক্ষে আধ ঘন্টার জন্য ধরে রাখা তার অ্যাসিড রিফ্লাক্সের প্রকোপকে দূরে রাখার ক্ষেত্রে সহায়ক প্রমাণিত হতে পারে।

স্তন পান করানোর অবস্থান

৫. দই

দইয়ে রয়েছে ভাল ব্যাকটেরিয়া এবং প্রোবায়োটিকগুলি যেগুলি আপনার ছোট্ট সোনার পাচন স্বাস্থ্যের জন্য ভীষণ উপকারী।আপনার বাচ্চা যদি ডায়রিয়া,বমি এবং কোষ্ঠকাঠিণ্যে ভুগে থাকে,সেক্ষেত্রে তাকে দই দেওয়া সহায়ক প্রমাণিত হতে পারে।কয়েক চামচ দই নিয়ে সেটির সাথে কয়েক চামচ জল যোগ করে পাতলা করে নিন।এবার এটিকে আপনার সন্তানকে খাওয়ান দিনে বেশ কয়েকবার অথবা যতক্ষণ না সে কিছুটা ভাল অনুভব করে।তবে ছয় মাসের কম বয়সী বাচ্চাদেরেকে দই খাওয়ানোর পরামর্শ কখনই দেওয়া হয় না।আমরা আপনাকে পরামর্শ দিই যে আপনার ছোট্ট সোনাটিকে দই খাওয়ানোর পূর্বে একবার আপনার ডাক্তারবাবুর পরামর্শ নিয়ে নিন।

দই

৬. মালিশ

আপনার ছোট্ট ব্যক্তিটির হাড় এবং পেশীগুলিকে শক্তিশালী করে তোলার আর একটি দুর্দান্ত উপায় হল মালিশ।তবে এটি আবার যেকোনও ধরণের হজম সম্পর্কিত অস্বস্তি যেগুলির মুখোমুখি আপনার বাচ্চা হতে পারে সেগুলি লাঘব করারও একটি চমৎকার উপায়। আপনি যেকোনও ভাল মানের শিশু মালিশ তেল নিতে পারেন এবং সেটি দিয়ে আপনার সন্তানের পেট এবং তলপেট অঞ্চলে ধীরে ধীরে ঘড়ির কাঁটার অভিমুখে বৃত্তীয় গতিতে মালিশ করে দিতে পারেন।এটি আবার আপনার শিশুর পেটের অভ্যন্তরে জমে থাকা গ্যাসকে মুক্ত করারও একটি অকল্পনীয় উপায়।আপনি আবার আপনার শিশুর পাগুলিকে তার পেটের উপর তুলে ধরে আলতো চাপ দিয়েও মালিশ করতে পারেন।

মালিশ

৭.কলা

কলা হল একটি অন্যতম সেরা খাদ্য যেটি আপনি আপনার পুচকি সোনাকে দিতে পারেন তার হজমের উন্নতি করতে।এছাড়াও কলা হল প্রথম শ্রেণীর শক্ত খাদ্য যেটি দিয়ে আপনার সন্তান তার শক্ত খাবার খাওয়া শুরু করতে পারে কারণ এটি আপনার শিশুর পরিপাকতন্ত্রে হজমের জন্য অত্যন্ত সহজ।ফাইবার বা তন্তু সমৃদ্ধ হওয়ার কারণে,কলা শিশুদের কোষ্ঠকাঠিণ্যের চিকিৎসায় ভালভাবে কাজ করে এবং আপনার বাচ্চা যদি বমি অথবা ডায়রিয়াতে ভুগে থাকে তবে তাকে কলা খাওয়ানো শিশুর অন্ত্রের স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী প্রমাণিত হতে পারে।তবে আপনার সোনাটি যদি ছয় মাসের কম বয়সী হয়ে থাকে তবে তাকে কলা দেবেন না।

কলা

৮. ঘরে প্রস্তুত গ্রাইপ ওয়াটার

আপনি বাড়িতেই গ্রাইপ ওয়াটারটিকে তৈরী করে নিতে পারেন আদা,ক্যামোমাইল এবং মৌরি বীজ সহযোগে।বেশিরভাগ চিকিৎসকই শিশুদেরকে দোকান থেকে কেনা গ্রাইপ ওয়াটার দেওয়ার সুপারিশ নাও করে থাকতে পারেন কিন্তু গৃহে প্রস্তুত গ্রাইপ ওয়াটার নিশ্চিতভাবে অনেক বেশি নিরাপদ।এটি অল্প বয়সী শিশু এবং একটু বেশি বয়সী শিশু উভয়ের ক্ষেত্রেই বেশ কার্যকর।

ঘরে প্রস্তুত গ্রাইপ ওয়াটার

৯. ব্রকোলি

আপনার ছোট্ট ব্যক্তিটির জন্য ব্রকোলিও চমৎকার।এই সবুজ সবজিটি ফাইবার, ফোলেট,ক্যালসিয়াম এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্টগুলির দ্বারা পরিপূর্ণ।ব্রকোলি আপনার শিশুর গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল ট্র্যাক্টে যে কোনও ধরণের প্রদাহ হ্রাস করতে সহায়তা করে।এর মধ্যস্থ পর্যাপ্ত ফাইবার বা তন্তু কোষ্ঠকাঠিণ্যের সাথে মোকাবিলা করার জন্য দুর্দান্ত।এটি আবার অন্ত্রের স্বাস্থ্য,পুষ্টিকর উপাদানের শোষণ এবং শিশুর অনাক্রম্যতার উন্নতিতেও প্রভূত সহায়তা করে।তাই বলে খুব বেশি পরিমাণে ব্রকোলি আপনার পুচকে সোনাকে যেন দিয়ে বসবেন না কারণ এটি থেকে পেটে গ্যাস বা ঐ ধরণের অন্যান্য কিছু সমস্যা শিশুদের মধ্যে হতে পারে।

ব্রকোলি

১০. মৌরি তেল

হজমজনিত সমস্যার সাথে মোকাবিলা করার জন্য সবচেয়ে কার্যকর অপরিহার্য তেলগুলির মধ্যে একটি হল মৌরি তেল।আপনি এই তেলের কয়েক ফোঁটা নিতে পারেন এবং সেটি আপনার শিশুর নিয়মিত মালিশ করার তেল বা তাকে পরিচর্যাকারী অন্যান্য তেল যেমন নারকেল তেলের সাথে মিশ্রিত করে সেটিকে আপনার ছোট্টটির পেটের উপর ও তার চারপাশে আলতো করে ঘষে দিতে পারেন।এটি হজমের সমস্যা সম্পর্কিত ব্যথা এবং অস্বস্তি প্রশমিত করতে সহায়তা করে।

মৌরি তেল

এই সবগুলিই হল বর্ষ প্রাচীন ঘরোয়া প্রতিকার যেগুলি একদম ছোট্ট শিশু এবং সদ্য হাঁটতে শেখা ছোট্ট বাচ্চাদের বদহজমজনিত সমস্যার মোকাবিলায় সহায়তা করে থাকে এবং আপনার ছোট্ট সোনাটির জন্যও এটি বেশ কার্যকর হতে পারে।তবে এগুলির মধ্যে কোনওটাই যদি কার্যকর না হয় ও সমস্যা অব্যহত থাকে অথবা আপনার বাচ্চার অবস্থা খারাপ থেকে ক্রমশ আরও খারাপ হতে থাকে,তবে সেক্ষেত্রে অবশ্যই ডাক্তারী সহায়তার প্রয়োজন।