গর্ভাবস্থায় সবেদা (চিকু) খাওয়া – এটি কি ক্ষতিকারক?

গর্ভাবস্থায় সবেদা (চিকু) খাওয়া – এটি কি ক্ষতিকারক?

আপনি যখন গর্ভবতী হন, তখন আপনি যা খান তা আপনার জীবনের একটি বড় অংশ হয়ে যায়। ডাক্তার আপনাকে সেই সব খাবারের একটি তালিকাও দেন যা আপনার ডায়েটে অন্তর্ভুক্ত করা এবং বাদ দেওয়া উচিত। কিছু খাবার গর্ভাবস্থায় খাওয়ায় সম্পূর্ণরূপে নিষেধ থাকে, আবার কিছু কিছু খাবার আপনার এবং আপনার শিশুর পক্ষে খুব উপকারী। যদিও গর্ভাবস্থায় বেশিরভাগ ফলেরই সুপারিশ করা হয়, এমন অনেক ফল রয়েছে যাদের কঠোরভাবে এড়ানো উচিত। আসুন জেনে নেওয়া যাক আপনি গর্ভাবস্থায় চিকু বা সবেদা খেতে পারেন কিনা।

aniview

গর্ভাবস্থায় চিকু খাওয়া কি নিরাপদ?

গর্ভাবস্থায় সবেদা খাওয়া ভাল কিনা, আপনার এই প্রশ্নের উত্তর হল, গর্ভাবস্থায় চিকু খাওয়া কেবল নিরাপদই নয়, বাস্তবে এটি আপনার শিশু এবং আপনার পক্ষে উপকারীও। সবেদা বিভিন্ন পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ, যার কারণে এটি গর্ভবতী মহিলাদের জন্য এক ধরণের সুপারফুড। এটিতে ভিটামিন, খনিজ এবং স্বাস্থ্যকর ক্যালোরি রয়েছে, পাশাপাশি এটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্টগুলিতেও সমৃদ্ধ।

চিকুর পুষ্টিগুণ

প্রতি ১০০ গ্রাম সবেদায় থাকা পুষ্টিগুণের মান এখানে দেওয়া হল।

পুষ্টিগুণ মান
শক্তি ৮৩ ক্যাল
ফ্যাট .১ গ্রাম
শর্করা ১৯.৯ গ্রাম
প্রোটিন .৪৪ গ্রাম
ফাইবার .৩ গ্রাম
ফোলেট ১৪ এমসিজি
ভিটামিন এ ১৮ এমসিজি
ভিটামিন সি ১৪.৭ এমজি
নিয়াসিন .২ এমজি
রাইবোফ্লোবিন .০২ এমজি
থিয়ামিন .০৫৮ এমজি
সোডিয়াম ১২ এমজি
পটাশিয়াম ১৯৩ এমজি
ক্যালসিয়াম ২১ এমজি
কপার বা তামা .০৮৬ এমজি
আয়রন .৮ এমজি
ম্যাগনেসিয়াম ১২ এমজি
ফসফরাস ১২ এমজি
জিংক .১ এমজি

উৎস: https://nutritiondata.self.com/facts/fruits-and-fruit-juices/2061/2

একজন গর্ভবতী মহিলা একদিনে কতটা চিকু খেতে পারেন?

পরিমিতরূপে যে কোন কিছু খাওয়াই হল সুস্বাস্থ্যের মূল চাবিকাঠি, কেবলমাত্র আপনি যখন গর্ভবতী হন তখনই নয়, তবে সবসময়। আপনি যে পরিমাণ গ্রহণ করতে পারবেন তা আপনার ওজন এবং বয়সের উপর নির্ভর করবে। তবে আপনার ডায়েটরি চার্ট সম্পর্কে আপনার চিকিত্সকের পরামর্শ নিতে হবে, বিশেষত আপনি যখন গর্ভবতী। চিকুর উপকারগুলি অনুভব করার জন্য, একদিনে মোটামুটি ১০০১২০ গ্রাম পরিমাণে খাওয়া উচিত।

গর্ভাবস্থায় চিকু খাওয়ার স্বাস্থ্যকর উপকারিতা

আপনার গর্ভাবস্থায় সবেদা খাওয়া যে নিরাপদ তা আপনি জানলেন, এখন আমরা গর্ভাবস্থায় এর উপকারিতাগুলি নিয়ে আলোচনা করতে পারি।

  • পাওয়ার হাউস

ফলটি ফ্রুকটোজ এবং সুক্রোজ সমৃদ্ধ যা আপনার তাত্ক্ষণিক শক্তি বাড়িয়ে তুলবে। এই কারণে সবেদা অন্য খাবারের তুলনায় একটি দুর্দান্ত স্ন্যাক।

  • পরিপাকতন্ত্রের স্বাস্থ্য উন্নত করে

আপনি যখন গর্ভবতী হন, তখন আপনার দেহে বিভিন্ন পরিবর্তন আসবে। আপনার পাচনতন্ত্রকে স্বাস্থ্যকর রাখার একটি উপায় হল দৈনিক সবেদা খাওয়া, কারণ এটি অন্ত্রে কোন প্রদাহের বিরুদ্ধে লড়াই করে।

  • হাড়কে শক্তিশালী করে

আপনি চিকু পুষ্টিগুণ সম্পর্কে যেমনটা জেনেছেন, এটি ক্যালসিয়াম, আয়রন এবং ফসফরাসের সমৃদ্ধ উত্স। হাড়ের স্বাস্থ্যের সুরক্ষার জন্য এই খনিজগুলি গুরুত্বপূর্ণ।

  • ব্যাকটিরিয়ার সংক্রমণ প্রতিরোধ করে

আপনার গর্ভাবস্থায় সংক্রমণ প্রতিরোধের দুর্দান্ত উপায় হল সবেদা খাওয়া, যা পলিফেনলিক অ্যান্টিঅক্সিডেন্টগুলির উপস্থিতির কারণে ব্যাকটিরিয়ার সংক্রমণের বিরুদ্ধে সুপরিচিত প্রতিরোধক।

  • স্ট্রেস কম করে

বেশিরভাগ গর্ভবতী মহিলারা স্ট্রেসের অভিযোগ করেন। চিকু সম্পর্কে একটি খুব কম পরিচিত তথ্য হল এটি একটি প্রাকৃতিক প্রশান্তকারী, যা স্নায়ুগুলিকে শান্ত করে এবং স্ট্রেসও কমায়।

  • টক্সিনগুলি অপসারণ করে

সবেদা একটি প্রাকৃতিক মূত্রবর্ধক এবং ডিটোক্সাইফিং এজেন্ট। এটি আপনার শরীর থেকে অস্বাস্থ্যকর বিষাক্ত পদার্থগুলি প্রস্রাবের মাধ্যমে বের করে দেয়, এবং মূত্রের স্বাস্থ্যকর হার বজায় রাখার ক্ষেত্রে সহায়তা করবে।

  • রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে

গর্ভবতী মহিলাদের যে সমস্যাগুলির মোকাবেলা করতে হয় তার মধ্যে সবচেয়ে সাধারণ বিষয়গুলির মধ্যে একটি হল রক্তচাপের ওঠানামা। চিকুতে প্রচুর পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম এবং পটাসিয়াম রয়েছে, যা রক্তচাপের সঠিক নিয়ন্ত্রণের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ।

  • বমিভাব হ্রাস করে

আপনি যদি সকালের অসুস্থতার কোন সমস্যায় ভুগছেন, তবে সবেদা খাওয়া এর সঠিক সমাধান হতে পারে। এটি আপনাকে বমি বমি ভাব এবং মাথা ঘোরার অবসান করার জন্য প্রয়োজনীয় শক্তি দেয়।

  • দুর্বলতার সাথে লড়াই

এমনকি গর্ভাবস্থায় সবেদার রস খাওয়া আপনার শরীরের জন্য দুর্দান্ত উপকারী। এটি শক্তিসরবরাহকারী পুষ্টিতে পূর্ণ যা আপনাকে ক্লান্তি এবং সাধারণ দুর্বলতা কাটিয়ে উঠতে সহায়তা করবে।

কিভাবে সঠিক চিকু বাছবেন এবং স্টোর করবেন

আপনি যখন পুষ্টি থেকে সর্বোত্তম মান পেতে চান, তখন সমস্ত ফলের জন্যই সঠিক নিয়ম হল সেটি তাজা খাওয়া। এর অর্থ হল যে আপনি কোন চিকুকে সর্বোচ্চ তিন থেকে চার দিনের জন্য সঞ্চয় করতে পারবেন। যদি এই সময়সূচিটি আপনার জন্য খুব চাপের হয়, তবে আপনি কিছুটা কাঁচা সবেদা কিনতে পারবেন এবং একবার পাকে গেলে সেগুলি খেতে পারেন। পরীক্ষা করুন যে ফলটির একটি মসৃণ পৃষ্ঠতল আছে কিনা এবং আপনি যখন এটি আলতো চাপ দেন তখন কিছুটা নরম হয় কিনা। ফলটি যত নরম হবে, খাওয়ার জন্য তত বেশি প্রস্তুত হবে। কুঁচকানো ত্বক বা ত্বক নষ্ট হয়ে যাওয়া ফলগুলি বেছে নেবেন না।

আপনি কয়েক দিনের জন্য ঘরের তাপমাত্রায় চিকু সংরক্ষণ করতে পারেন, তবে আপনি এটি এক সপ্তাহ পর্যন্ত ফ্রিজেও সংরক্ষণ করতে পারেন। নিশ্চিত হয়ে নিন যে আপনি ফলটি শীতল ও শুকনো জায়গায় সংরক্ষণ করেছেন যা সরাসরি সূর্যের আলো থেকে দূরে থাকে।

কিভাবে সঠিক চিকু বাছবেন এবং স্টোর করবেন

গর্ভাবস্থায় চিকু খাওয়ার পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া

যখন অতিরিক্ত পরিমাণে খাওয়া হয় তখন গর্ভবতী মহিলাদের জন্য সবেদার কিছু পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হতে পারে। চিকুতে ক্যালোরির পরিমাণ বেশি থাকে এবং অতিরিক্ত পরিমাণে সেবন করলে আপনার ওজন বেশি হয়ে যেতে পারে।

স্বাস্থ্যকর চিকু মিল্কশ্যেকের রেসিপি

এই মিল্কশ্যেকের রেসিপি স্বাস্থ্যকর, সুস্বাদু এবং আপনার প্রতিদিনের পুষ্টিগুণ গ্রহণের এটি এক দুর্দান্ত উপায়। এছাড়াও, গরম আবহাওয়ার সময় এটি শীতল এবং সতেজ রাখে। এই চিকু মিল্কশ্যেকটি তাজা অবস্থায় তৈরি করাই সেরা, তবে প্রয়োজনে আপনি ২৪ ঘন্টা পর্যন্ত এটি ফ্রিজেও সংরক্ষণ করতে পারেন।

উপকরণ:

  • চিকু (পাকা) – ২টি
  • দুধ/২ কাপ
  • বরফ/৪ কিউব
  • মধু / ম্যাপেল সিরাপপ্রয়োজন মতো।

নির্দেশাবলী:

  • চিকুগুলি ভাল করে ধুয়ে খোসা ছাড়িয়ে নিন।
  • চিকুগুলি ছোট ছোট কিউবে কেটে সমস্ত বীজ সরিয়ে ফেলুন।
  • চিকুর কিউবগুলিকে একটি ব্লেন্ডারে রেখে অর্ধেক পরিমাণ দুধ যুক্ত করুন।
  • এক থেকে দুই মিনিটের জন্য ব্লেন্ড করুন।
  • অবশিষ্ট দুধ যোগ করুন এবং আবার ব্লেন্ড করুন।
  • এটি যথেষ্ট মিষ্টি হয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখার জন্য টেস্ট করুন। যদি তা না হয় তবে প্রয়োজন মতো মধু যোগ করুন।
  • বরফের কিউব যোগ করুন।
  • আপনি মসৃণ মিল্কশ্যেক না পাওয়া পর্যন্ত ব্লেন্ড করুন।
  • একটি গ্লাসে ঢালুন এবং উপভোগ করুন।

গর্ভাবস্থায় সবেদা বা চিকু খাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে, আপনার চিকিত্সকের সাথে পরামর্শ করা গুরুত্বপূর্ণ। আপনার স্বাস্থ্য, ওজন এবং বয়সের উপর নির্ভর করে আপনার চিকিত্সক যদি চান তবে আপনি ফলটি পরিমিতভাবে খেতে পারেন বা না চাইলে এটি পুরোপুরি এড়ানো উচিত।