গর্ভাবস্থায় সিবিসি (সম্পূর্ণ রক্ত গণনা) পরীক্ষা

গর্ভাবস্থায় সিবিসি (সম্পূর্ণ রক্ত গণনা) পরীক্ষা

গর্ভাবস্থায়, ভ্রূণের স্বাস্থ্যের সঠিক মূল্যায়ন করতে বিভিন্ন পরীক্ষা করা হয়। এই নিবন্ধে, আমরা আপনাকে সম্পূর্ণ রক্ত ​​গণনা বা কমপ্লিট ব্লাড কাউন্ট (সিবিসি) পরীক্ষা এবং এর গুরুত্ব সম্পর্কে জানাবো।

aniview

সিবিসি পরীক্ষা কী?

সম্পূর্ণ রক্ত ​​গণনা পরীক্ষা (সিবিসি) পরীক্ষা গর্ভাবস্থার প্রাথমিক পর্যায়ে হবু মায়ের মধ্যে বিকাশমান কোন স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সমস্যা নির্ধারণের জন্য করা হয়। এই পরীক্ষাটি রক্তে হিমোগ্লোবিন এবং হেমোটোক্রিটের স্তর পর্যবেক্ষণ করে, যা আপনার আয়রনের স্তর নির্ধারণ করে এবং আপনি রক্তাল্পতায় আক্রান্ত কিনা তা পরীক্ষা করে। যদি আপনার রক্তে আয়রনের মাত্রা কম থাকে, তবে আপনার জন্য আয়রনের সাপ্লিমেন্ট নির্ধারণ করা হতে পারে। সিবিসি লোহিত রক্তকণিকা, শ্বেত রক্তকণিকা এবং প্লেটলেটগুলির গণনাও করে।

সম্পূর্ণ রক্ত ​​গণনা পরীক্ষা কি প্রয়োজনীয়?

সিবিসি পরীক্ষা প্রকৃতপক্ষে প্রয়োজনীয়, কারণ এটি হবু মায়ের কোন অসুস্থতা বা সংক্রমণ নির্ণয় করতে সহায়তা করে। পরীক্ষাটিতে তিন ধরণের রক্ত ​​কোষের গণনা গণনা করার পাশাপাশি হবু মায়ের স্বাস্থ্য সম্পর্কেও একটি সাধারণ ধারণা পাওয়া যায়।

এই রক্ত ​​পরীক্ষা কি পরিমাপ করে?

. লোহিত রক্তকণিকা (আরবিসি)

লোহিত রক্তকণিকা এবং হিমোগ্লোবিনের মাত্রা তার ভ্রূণের রক্তের মাধ্যমে অক্সিজেন বহন করার ক্ষমতার ইঙ্গিত দিতে পারে। হিমোগ্লোবিনের কম মাত্রা গর্ভবতী মহিলাদের ক্লান্ত এবং অসুস্থ করে তোলে। এই পরিস্থিতি সংশোধন করার জন্য আয়রনের সাপ্লিমেন্ট বা পরিপূরক নির্ধারণ করা হয়।

. শ্বেত রক্তকণিকা (ডাব্লুবিসি)

শ্বেত রক্তকণিকাগুলি বিশেষত গর্ভাবস্থায় মানবদেহে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। পাঁচ ধরণের ডাব্লুবিসি রয়েছেবেসোফিল, নিউট্রোফিল, ইওসিনোফিল, লিম্ফোসাইট এবং মনোসাইট। এগুলি সমস্তই দেহের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থার গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ, যা মা এবং শিশু উভয়কে যে কোন ধরনের সংক্রমণ থেকে মুক্ত রাখার জন্য দায়ী। এটিও জানাতে পারে যে মাকে রক্ত ​​সংক্রান্ত কোন রোগ আছে কিনা, যেমনসিকেল সেল অ্যানিমিয়া বা লিউকেমিয়া।

. প্লেটলেট

প্লেটলেটগুলি রক্ত ​​কোষের ধরণের তিনটি গঠন করে এবং তিন প্রকারের মধ্যে সবচেয়ে ছোট; তবে তাদের গুরুত্ব বিশাল। প্লেটলেটগুলি রক্ত ​​জমাট বাঁধার জন্য দায়ী। যদি প্লেটলেটগুলির সংখ্যা খুব কম থাকে তবে এর অর্থ হল রক্ত ​​খুব শীঘ্রই জমাট বাঁধবে না, যদিও সংখ্যাটি বেশি হওয়ার অর্থ হল মা হঠাৎ অভ্যন্তরীণ রক্ত ​​জমাট বেঁধে এবং রক্তক্ষরণে সংবেদনশীল।

. হিমোগ্লোবিন (এইচবি / এইচবিবি)

হিমোগ্লোবিন হল আপনার রক্তের প্রোটিন যা অক্সিজেন ধারণ করে।

. হেমাটোক্রিট (এইচসিটি)

এটি আপনার রক্তে লোহিত রক্ত ​​কণিকার শতাংশ নির্ধারণ করে।

. মিন কার্পাসকুলার ভলিউম (এমসিভি)

এমসিভি আপনার লোহিত রক্তকণিকার গড় আকার পরিমাপ করে।

সিবিসি পরীক্ষার জন্য কীভাবে প্রস্তুতি নেওয়া যায়

যদি আপনার রক্তের সম্পূর্ণ রক্ত ​​গণনার জন্য পরীক্ষা করা হয় তবে আপনি পরীক্ষার আগে সাধারণত কিছু খেতে বা পান করতে পারেন। যদি এটি অন্য পরীক্ষাও করানো হয়, তবে আপনার ডাক্তার আপনাকে নির্দিষ্ট কয়েক ঘন্টা উপোষ করে থাকতে বলতে পারেন।

সিবিসি পরীক্ষাটি কীভাবে হয়?

সিবিসি পরীক্ষা করানোর জন্য কয়েক মিনিটের প্রয়োজন। একজন নার্স আপনার হাতে একটি সূঁচ ঢুকিয়ে দেবেন এবং রক্তের নমুনা নেবেন। এই নমুনাটি পরীক্ষার জন্য কোন প্যাথলজি ল্যাবে পাঠানো হবে। আপনার রক্তের নমুনা দেওয়ার পরে আপনি ক্লিনিক থেকে বাড়ি ফিরতে পারেন।

সিবিসি পরীক্ষার ফলাফলগুলি আসলে কী জানায়?

পরীক্ষার ফলাফল গর্ভবতী মহিলার কোন অসুস্থতার সূত্রপাত সনাক্ত করতে সহায়তা করে।

  • যদি ডাব্লুবিসি গণনা কম হয় তবে আপনার সংক্রমণের ঝুঁকি বেশি থাকে। স্বাভাবিক পরিসীমা হল প্রতি মাইক্রোলিটারে ৪৫০০ থেকে ১০০০০টি কণিকা (সেল / এমসিএল)
  • আপনার আরবিসির সংখ্যা কম থাকলে আপনার রক্তাল্পতা হতে পারে। পুরুষদের জন্য স্বাভাবিক পরিসীমা হল প্রতি মাইক্রোলিটারে ৪৫ লাখ ৫৯ লাখ কণিকা (সেল / এমসিএল); মহিলাদের জন্য, এটি ৪১ লাখ থেকে ৫১ লাখ হয় (সেল / এমসিএল)
  • পুরুষদের জন্য হিমোগ্লোবিনের সাধারণ পরিসীমা হল প্রতি ডেসিলিটারে ১৪ থেকে ১৭.৫ গ্রাম (জিএম / ডিএল); মহিলাদের জন্য, এটি ১২.৩ থেকে ১৫.৩ গ্রাম (জিএম / ডিএল)
  • এইচসিটি রেঞ্জ স্কেলে কম মাত্রা আয়রনের ঘাটতির লক্ষণ হতে পারে। উচ্চ মাত্রার অর্থ হল আপনি ডিহাইড্রেটেড বা জলশূন্য হয়ে পড়েছেন। পুরুষদের জন্য এর স্বাভাবিক পরিসীমা হল ৪১.% থেকে ৫০.%-এর মধ্যে। মহিলাদের ক্ষেত্রে, পরিসীমাটি থাকে ৩৬.% এবং ৪৪.%-এর মধ্যে।
  • আপনার আরবিসি যদি স্বাভাবিকের চেয়ে বড় আকারের হয়, তবে আপনার এমসিভি বেড়ে ওঠে। আপনার যদি ভিটামিন বি১২ বা ফোলেটের স্তর কম থাকে তবে এটি ঘটতে পারে। আপনার লোহিত রক্তকণিকা যদি ছোট আকারের হয় তবে আপনার এক ধরণের রক্তাল্পতা হতে পারে। একটি সাধারণ পরিসরের এমসিভির মাত্রা হল ৮০ থেকে ৯৬।
  • প্লেটলেটগুলির সাধারণ পরিসীমা হল ১,৫০,০০০ থেকে ৪,৫০,০০০ প্লেটলেট / এমসিএল।

এখানে গর্ভাবস্থার প্রথম থেকে প্রথম তৃতীয় ত্রৈমাসিকের সিবিসির সাধারণ মান রয়েছে।

প্রথম ত্রৈমাসিক

ইউনিট বা মাত্রা গণনা
এইচবি জি/ডিএল ১১.১৪.
আরবিসি *১০^/ইউএল .৫২.৫২
এইচসিটি % ৩১৪১
এমসিভি এফএল ৮১৯৬
এমসিএইচ পিজি ২৭৩২
এমসিএইচসি জি /ডিএল ৩৩৩৭
আরইটিসিএস আরবিসির % ..
পিএলটি *১০^/ইউএল ১৫০৪০০
ডাবলুবিসি *১০^/ইউএল 5000-13000
ডিফারেনশিয়াল লিউকোসাইটিক গণনা: নিশ্চিত মান/ইউএল শতাংশ %
বিএএসও ১১০এর থেকে কম
ইওসিএনও ৫০০এর থেকে কম
ইএনইইউটিআর ১৮০০৭৫০০ ৪০৭০
এসটিএএফএফ
এসইজিএম ৪০৭০
এলওয়াইএমপিএইচ ১০০০৩৫০০ ২০৪৫
এমওএনও ৮০৮৮০

দ্বিতীয় ত্রৈমাসিক

ইউনিট বা মাত্রা গণনা
এইচবি জি/ডিএল ১০.১৩.
আরবিসি *১০^/ইউএল ..৪১
এইচসিটি % ৩০৩৮
এমসিভি এফএল ৮২৯৭
এমসিএইচ পিজি ২৭৩২
এমসিএইচসি জি /ডিএল ৩৩৩৭
আরইটিসিএস আরবিসির % ..
পিএলটি *১০^/ইউএল ১৫০৪০০
ডাবলুবিসি *১০^/ইউএল ৬২০০১৪৮০০
ডিফারেনশিয়াল লিউকোসাইটিক গণনা: নিশ্চিত মান/ইউএল শতকরা %
বিএএসও ১১০এর থেকে কম
ইওসিএনও ৫০০এর থেকে কম
ইএনইইউটিআর ১৮০০৭৫০০ ৪০৭০
এসটিএএফএফ
এসইজিএম ৪০৭০
এলওয়াইএমপিএইচ ১০০০৩৫০০ ২০৪৫
এমওএনও ৮০৮৮০

তৃতীয় ত্রৈমাসিক

ইউনিট বা মাত্রা গণনা
এইচবি জি/ডিএল .১৩.
আরবিসি *১০^/ইউএল ..৪৪
এইচসিটি % ২৮৩৯
এমসিভি এফএল ৯১৯৯
এমসিএইচ পিজি ২৭৩২
এমসিএইচসি জি /ডিএল ৩৩৩৭
আরইটিসিএস আরবিসির % ..
পিএলটি *১০^/ইউএল ১৫০৪৫০
ডাবলুবিসি *১০^/ইউএল ৫০০০১৩০০০
ডিফারেনশিয়াল লিউকোসাইটিক গণনা: নিশ্চিত মান/ইউএল শতকরা %
বিএএসও ১১০এর থেকে কম
ইওসিএনও ৫০০এর থেকে কম
ইএনইইউটিআর ১৮০০৭৫০০ ৪০৭০
এসটিএএফএফ
এসইজিএম ৪০৭০
এলওয়াইএমপিএইচ ১০০০৩৫০০ ২০৪৫
এমওএনও ৮০৮৮০

 

যেমনটা আমরা উপরে উল্লেখ করেছি, মায়ের সার্বিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে এবং তার দেহে ভাইরাসের উপস্থিতি সনাক্ত করতে সিবিসি পরীক্ষা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। যাতে, মা এবং শিশু উভয়েরই স্বাস্থ্য সুরক্ষিত রাখা সম্ভব হয়।