গর্ভাবস্থায় ক্ষুধা বৃদ্ধি-কারণসমূহ এবং সমাধানগুলি

গর্ভাবস্থায় ক্ষুধা বৃদ্ধি

গর্ভাবস্থায় মাঝেমধ্যে আপনার পেটটিকে একটি নিম্নতল বিহীণ কূপের ন্যায় মনে হতে পারে।গর্ভাবস্থার অর্থ হল অনবরত ক্ষুধার্থ হয়ে ওঠা,দ্রুত পেট পূর্ণ হওয়ার বোধ না হওয়া এবং বিচিত্র খাদ্যের সমন্বয়গুলি খেতে চাওয়া!ভয় পাবেন না,কারণ গর্ভাবস্থায় খিদে বেড়ে যাওয়া সম্পূর্ণভাবে স্বাভাবিক।আসুন এবার আমরা দেখে নিই কেন এবং কীভাবে গর্ভাবস্থায় ক্ষিদে বেড়ে যায় এবং কীভাবে আপনি সেটির সাথে মোকাবিলা করতে পারেন।

aniview

গর্ভাবস্থায় সাধারণত কখন ক্ষিদে বেড়ে যায়?

গর্ভাবস্থার দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে সাধারণত গর্ভবতী মহিলাদের মধ্যে ক্ষিদে বেড়ে যায় তবে কিছু মহিলা আবার প্রথম ত্রৈমাসিকের প্রথমের দিকেই এটি অনুভব করে থাকেন।কিন্তু সাধারণত এটি ঘটে দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে,যেহেতু এটি হল সেই সময় যখন আপনার প্রাতঃকালীন বমি বমি ভাব সাধারণত শেষ হয় এবং ক্ষুধা যন্ত্রণা শুরু হয়,সুতরাং আপনার প্রথম ত্রৈমাসিকে হারিয়ে ফেলা ওজন আপনি এই সময় পুনরায় লাভ করতে পারেন।

প্রাথমিক গর্ভাবস্থায় ক্ষিদে বেড়ে যাওয়াটা কি স্বাভাবিক?

প্রাথমিক গর্ভাবস্থায় ক্ষিদে বেড়ে যাওয়াটা কি স্বাভাবিক?

গর্ভাবস্থার প্রথম ত্রৈমাসিকে আপনার দেহের প্রোজেস্টেরণের মাত্রা বাড়তে থাকে,সেই কারণে আপনি এই সময় গা গোলানো বমি বমি ভাব অনুভব করবেন(যা মর্নিং সিকনেসের দিকে পরিচালিত করে)এবং ক্ষুধার মাত্রা বেড়ে যায়।সাধারণত বমি হওয়ার পর আপনার পেট খালি হয়ে যাওয়ার কারণে আপনি হঠাৎ করে ক্ষুধা যন্ত্রণা অনুভব করবেন।এটি ছাড়াও গর্ভাবস্থায় বমি করার কারণে আপনার দেহে হারিয়ে যাওয়া ক্যালোরিগুলি আপনার পেটের অভ্যন্তরে আপনার শিশুর বেড়ে উঠতে প্রয়োজনীয় পুষ্টি যোগানের জন্য পুনরায় প্রয়োজন হওয়ায় আপনি সম্ভবত ক্ষুধার্থবোধ করতে পারেন।গর্ভাবস্থায় মহিলাদের রক্তের মাত্রা উচ্চ থাকে এবং সেগুলিকে বজায় রাখার জন্য ক্যালোরির প্রয়োজন হয়।এই কারণে তীব্র ক্ষিদে পায় এবং খাবারের প্রতি তাদের লালসা বেড়ে যায়।এটি সাধারণত 7-12 সপ্তাহের মধ্যে হয়ে থাকে,যেখানে আপনি পূর্বে আপনার সবচেয়ে পছন্দের খাদ্যগুলিকেই অপছন্দ করা শুরু করতে পারেন এবং হয়ত বা আবার অন্যান্য খাদ্যগুলির প্রতি আপনার খাবার আকাঙ্ক্ষা আরও বেড়ে যেতেও পারে।এর সাথে গর্ভাবস্থায় বহু মহিলা আবার শেষ রাতে তীব্র ক্ষিদে অনুভব করতে পারেন।এটি সাধারণত দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকের শেষের দিকে স্থিত হয় এবং যা খুবই সাধারণ একটি ব্যাপার।

গর্ভাবস্থায় আপনি সবসময় কেন ক্ষিদে অনুভব করেন?

  • গর্ভাবস্থার দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে ক্ষিদে বেড়ে যাওয়ার কারণগুলির মধ্যে একটি হল বৃদ্ধিপ্রাপ্ত ভ্রূণ যার সঠিকভাবে বৃদ্ধি এবং বিকাশের জন্য পর্যাপ্ত পুষ্টির প্রয়োজন।
  • এছাড়াও আপনার শরীরে রক্তের উচ্চ মাত্রা এবং গর্ভাবস্থার পর্যায়ে হয়ে থাকা অন্যান্য প্রক্রিয়াগুলি বজায় রাখতে আপনার দেহে অতিরিক্ত ক্যালরির প্রয়োজন হয়।
  • গর্ভাবস্থার তৃতীয় ত্রৈমাসিকে এবং দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকের শেষের দিকে আপনার দেহে দুধ উৎপাদনের কারণেও আপনার হয়ত ক্ষুধা বৃদ্ধি পেতে পারে,কারণ এই সময় আপনার দেহ গর্ভাবস্থার জন্য প্রস্তুত হতে থাকে।

অতিরিক্ত ক্ষুধা সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্যগুলি

আপনাকে খেতে হবে দু’টি মানুষের জন্য,তবে মনে রাখার গুরুত্বপুর্ণ বিষয়টি হল এটি যে আপনাকে তাই বলে সর্বদা বিশালাংশে খাদ্য গ্রহণ করতে হবে না।আপনার ভ্রূণটি আপনার থেকে বহুলাংশে ক্ষুদ্র এবং আপনার বরাদ্দ খাদ্যের আকারগুলি সেই অনুযায়ী তৈরী করা উচিত।যতক্ষণ না আপনার পেট পরিতৃপ্ত হয় আপনার খাওয়া উচিত এবং গর্ভাবস্থায় আপনার ভাগে অবশ্যই ছোটখাটো অল্প স্বল্প খাবার এবং জলখাবারগুলি থাকতে পারে।তবে এটিকে বেশ সহজভাবে বলতে গেলে,আপনার খাদ্যের প্রতি তীব্র আকাঙ্খা এবং অতিভোজনের মধ্যে এগুলিকে অন্তর্ভূক্ত করবেন না।অতিরিক্ত ফ্রাইড চিকেন বা ভাজা মাংস,সিঙ্গারা অথবা জন্মদিনের কেক আপনার বাচ্চা অথবা আপনার-কারও জন্যই স্বাস্থ্যকর নয়!

গর্ভাবস্থায় ক্ষিদে বেড়ে যাওয়ার ব্যাপারে আপনি কি করতে পারেন?

গর্ভাবস্থায় ক্ষিদে বেড়ে যাওয়ার ব্যাপারে আপনি কি করতে পারেন?

নিচে বেশ কয়েকটি পরামর্শ দেওয়া হল যেগুলি আপনি আপনার ক্ষুধা যন্ত্রণাকে দূরে ঠেলে রাখার ক্ষেত্রে প্রয়োগের চেষ্টা করতে পারেনঃ

১. আপনার ক্যালোরি গণনা পরীক্ষা করুন

প্রথম ত্রৈমাসিকে,বেশিরভাগ মায়েদেরই অতিরিক্ত ক্যালোরির প্রয়োজন হয় না।আর দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে আপনার সাধারণ ডায়েটের তুলনায় 350 ক্যালোরি বেশি প্রয়োজন হবে যেটি আবার তৃতীয় ত্রৈমাসিকে বেড়ে হবে 500 ক্যালোরি।আপনি এর মধ্যেই সংলগ্ন থাকার এবং অতিরিক্ত চরিতার্থ না করার বিষয়টি নিশ্চিত করুন।

২. ডিহাইড্রেশন বা জলবিয়োজন এড়িয়ে চলুন

কখনও কখনও আপনি ক্ষুধার সহিত ডিহাইড্রেশনকে গুলিয়ে ফেলতে পারেন কারণ আপনার দেহ অতিরিক্ত সময় কাজ করে এবং গর্ভাবস্থায় আরও তরলের চাহিদা হয়।আপনার শরীরে তার প্রয়োজনীয় তরল পুনরায় পূরণ করতে হবে,সুতরাং,প্রতিদিন 12-13 কাপ জল পান করুন-অথবা তারও বেশি যদি আপনি গরম আবহাওয়ায় বসবাস করেন এবং প্রচুর ঘেমে থাকেন।সোডা জলের মত মিষ্টি পানীয়গুলি বর্জন করুন এবং তাজা ফলের রস অথবা জলের সহিত সংলগ্ন থাকুন।

৩. স্বাস্থ্যকর খাবার খান

আপনার গর্ভাবস্থাকালীন ডায়েটটি একটি স্বাস্থ্যকর হবে এবং সেটি কেবল আপনার পেট ভরিয়ে তোলার বিপরীতে আপনার ও আপনার সন্তানের স্বাস্থ্যের জন্যও বেশ উপকারী হবে তা নিশ্চিত করুন।প্রক্রিয়াজাত অথবা পরিমার্জিত কোনও খাদ্য চয়নের পরিবর্তে তাজা এবং সম্পূর্ণ খাবারগুলি ডায়েটে রাখুন।শক্তির জন্য সম্পূর্ণ শস্য অথবা ফলের সাথে স্বাস্থ্যকর ফ্যাট (দুধ অথবা বাদাম মাখন) এবং প্রোটিনকে জুড়ে দিন।আপনি এমন ধরনের খাবারগুলিকে খেতে পারেন যেগুলিকে আরও বেশি চিবানোর প্রয়োজন কারণ এগুলি আপনাকে পূর্ণ বোধ করতে সহায়তা করবে।পুষ্টি এবং ফাইবারে সমৃদ্ধ স্যালাডের একটি বৃহৎ বাটি এক বাটি নুডলস অথবা পাস্তার তুলনায় আপনাকে অনেক বেশি পূর্ণ করবে।

৪. জলখাবারগুলি চালিয়ে যান

আপনি যদি বাইরে থাকেন এবং হঠাৎ ক্ষুধা যন্ত্রণা অনুভব করেন, এক প্যাকেট বাদাম অথবা ঐ জাতীয় কিছু মিশ্রণ আপনার সাথে নিয়ে বেড়োন যা আপনাকে অনতিবিলম্বে রাস্তার অস্বাস্থ্যকর জাঙ্ক খাবারগুলির দিকে আকৃষ্ট হওয়ার থেকে ফিরিয়ে এনে স্বাস্থ্যকরভাবে পরিপূর্ণ রাখতে সহায়তা করবে।

৫. বারে বারে খান কিন্তু অল্প পরিমাণে

প্রতিটি বড় খাদ্যের পরিবর্তে আপনার একবারে খাওয়ার বিশাল পরিমাণ খাদ্যটিকে তিন ঘন্টা ধরে ছোট ছোট খাবারের মধ্যে ভাগ করে নিন।এর ফলে আপনার ইতিমধ্যে অভিজ্ঞতা হয়ে থাকা ফোলাভাব,গ্যাস এবং অম্বল হওয়ার প্রবণতা তুলনামূলকভাবে কমবে।

৬. লোভ সংবরণ করুন

আপনি সপ্তাহে একবার আপনার প্রিয় খাবার খাওয়ার ইচ্ছেটিকে পূরণ করতে পারেন,তবে সাধারণভাবে আপনার কেনাকাটার তালিকায় অথবা আপনার রান্নাঘরের সরঞ্জামের মধ্যে জাঙ্ক খাবারগুলিকে রাখবেন না।কারণ যা দৃষ্টির বাইরে থাকে তা অচিরেই স্মরণের বাইরে চলে যায়!

৭. আপনার গর্ভাবস্থার ওজন পরিদর্শন করুন

আপনি আপনার গর্ভাবস্থায় অবিশ্যম্ভাবীরূপে ওজন লাভ করবেন।সুতরাং এটিতে আপনার খাওয়ার অভ্যাসটি যে খুব বড় আকারে অবদান রাখবে না সেটি নিশ্চিত করুন।জাঙ্ক খাবারগুলি খাওয়ার ফলে তা আপনার গর্ভাবস্থায় ওজন বৃদ্ধির পাশাপাশি ডায়বেটিস এবং হার্টের অবস্থার মত অন্যান্য সমস্যাগুলিকেও বাড়িয়ে তোলে,যদি আপনি ইতিমধ্যেই এগুলির প্রতি সংবেদনশীল হয়ে থাকেন,তবে সেগুলি আবার আপনার গর্ভাবস্থায় সার্বিকভাবেই প্রভাব ফেলতে পারে।সুতরাং আপনি যদি খুব দ্রুত হারে আপনার ওজন বৃদ্ধি পেতে লক্ষ্য করেন,তবে সেক্ষেত্রে এর অন্তর্নিহিত কারণগুলি দেখতে আপনার ডাক্তারবাবুর কাছে পরীক্ষা করান।

আপনার গর্ভাবস্থার তৃতীয় ত্রৈমাসিক থেকে আপনার ক্ষুধা ধীরে ধীরে হ্রাস পেতে থাকবে কিন্তু ততদিন পর্যন্ত,আপনার গর্ভাবস্থাকালীন ক্ষুধা যন্ত্রণাটিকে আপনার মত করে মোকাবিলা করার জন্য উপরিল্লিখিত পরামর্শগুলি অনুসরণ করুন।আপনার খাদ্য গ্রহণ বাড়ানোর সাথে সর্বদা উচ্চ মানের খাদ্য গ্রহণের কথা মাথায় রাখবেন যাতে এটি আপনার আরও অধিক কোনও সমস্যার কারণ না হয়ে ওঠে।