আপনার শিশুকে কি গ্রাইপ ওয়াটার দেওয়া উচিত?

শিশুকে গ্রাইপ ওয়াটার দেওয়া

নবজাতক এবং শিশুরা প্রায়শই কোনও স্পষ্ট কারণ ছাড়াই কাঁদতে পারে। এই ক্ষেত্রে সাধারণত দোষী হয় কোলিক বা পেটে ব্যথা। কোলিক কী তা সম্পর্কে সুস্পষ্ট সংজ্ঞা নেই, তবে বাচ্চারা যখন বর্ধিত সময়ের জন্য অতিরিক্ত কাঁদে তখন এটি ব্যবহৃত হয়। এটি সাধারণত তিন সপ্তাহ থেকে তিন মাস বয়সী শিশুদের মধ্যে দেখা যায়। গ্যাসের ফলে তৈরি পেটে অস্বস্তিই কোলিকের কারণ হিসাবে ব্যাপকভাবে বিশ্বাস করা হয় এবং অনেক পিতামাতার পক্ষে গ্রাইপ ওয়াটার এই ক্ষেত্রে পছন্দের প্রতিকার।

aniview

গ্রাইপ ওয়াটার কী?

গ্রাইপ ওয়াটার এমন একটি সূত্র যা পেট ফাঁপা, কোলিক, বদহজম, হেঁচকি এবং দাঁতে ব্যথার কারণে হওয়া অস্বস্তি প্রশমিত করে। এটি বিভিন্ন প্রকারে উপলব্ধ এবং এগুলিতে বিভিন্ন ঔষধিগুলির মিশ্রণ রয়েছে।

গ্রাইপ ওয়াটার – উপকরণ

মৌরি, আদা, ক্যামোমাইল, অ্যালকোহল, দারুচিনি এবং পাতি লেবুর নির্যাস হল এমন কিছু উপাদান যা গ্রাইপ ওয়াটারে পাওয়া যায়। মূলত জল, অ্যালকোহল, ডিল বীজের তেল, চিনি এবং সোডিয়াম বাইকার্বোনেট এই প্রতিকারের উপাদান ছিল। গ্লিসারিন কিছু ব্র্যান্ডের ব্যবহৃত একটি উপাদান। পিতা-মাতা ও চিকিৎসকদের আপত্তির পরে বর্তমান সময়ে গ্রাইপ ওয়াটারে অ্যালকোহলের ব্যবহার বন্ধ হয়েছে। কিছু ব্র্যান্ড কৃত্রিম সুইটনার ব্যবহার করে, যা শিশুদের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক হতে পারে। কোনও কোনও ভারতীয় ব্র্যান্ডে পুদিনার তেল পাওয়া যেতে পারে।

গ্রাইপ ওয়াটার বিভিন্ন স্বাদে যেমন কমলালেবু বা স্ট্রবেরিতে পাওয়া যায়।

গ্রাইপ ওয়াটার কি শিশুদের জন্য নিরাপদ?

কোনও দৃঢ় তথ্য নেই যা প্রমাণ করতে পারে যে গ্রাইপ ওয়াটার শিশুদের জন্য নিরাপদ নয়। গ্রাইপ ওয়াটার কার্যকর কিনা সে সম্পর্কে মতামতগুলি পৃথক, কারণ কিছু মানুষ তাদের বাচ্চাদের পক্ষে এটি সহায়ক বলে প্রমাণিত করেছেন, অন্যদের কাছে তা নয়। সুরক্ষার ক্ষেত্রে, যেগুলিতে অ্যালকোহল, কৃত্রিম সুইটনার বা সোডিয়াম বাইকার্বোনেট রয়েছে সেগুলি বাচ্চাদের জন্য সুপারিশ করা হয় না।

গ্রাইপ ওয়াটারের কিছু উপাদান এবং তারা কীভাবে শিশুকে প্রভাবিত করে তা এখানে ভেঙে বোঝানো হয়েছে:

  • অ্যালকোহল: অ্যালকোহল শিশুদের জন্য উপযুক্ত নয় এবং এটি শিশুর আসক্তির কারণ হতে পারে।
  • সোডিয়াম বাইকার্বোনেট: বেকিং সোডা নামেও পরিচিত, এটির কারণে একটি মিল্ক-অ্যালকালাই সিনড্রোম হতে পারে, যা রক্তে ক্যালসিয়ামের মাত্রা বাড়ায়। যেহেতু ছয় মাসের কম বয়সী শিশুদের কেবলমাত্র বুকের দুধ বা ফর্মুলা খাওয়ানো হয়, তাই তাদের এই অবস্থার ঝুঁকি বেশি থাকে, যা কিডনির সমস্যাও তৈরি করতে পারে।
  • চিনি: অতিরিক্ত চিনি মাড়ির এবং বিকাশমান দাঁতের ক্ষয়ের কারণ হতে পারে।
  • ডিল বীজের তেল: এটি একটি উদ্ভিজ্জ তেল যা উপকারের পাশাপাশি বদহজম থেকে মুক্তি দেয়। তবে কিছু শিশুদের এ থেকে অ্যালার্জি হতে পারে এবং এই উপাদানটি ব্যবহার করার সময় অবশ্যই সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত।

প্রাকৃতিক উপাদান এবং শিশুর খাবারের সংমিশ্রণ সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির পরেও কিছু ব্র্যান্ডের তৈরি গ্রাইপ ওয়াটারে প্যারাবেন, উদ্ভিজ্জ কার্বন বা দুগ্ধজাত সামগ্রী থাকতে পারে যা এড়ানোই উপযুক্ত। শিশুদের গ্রাইপ ওয়াটার দেওয়া যায় কিনা তা নিয়েও চিকিৎসকদের মতামত বিভক্ত। বাজারে বিভিন্ন ব্র্যান্ড রয়েছে এবং বাচ্চাদের তাদের অবস্থা ও শারীরিক গঠনের জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত এমন একটি দেওয়া উচিত।

গ্রাইপ ওয়াটারের ব্যবহার কী?

গ্রাইপ ওয়াটার হজম সমস্যা এবং হেঁচকি ও কোলিকে আক্রান্ত শিশুদের কিছুটা আরাম বা প্রশান্তি দেওয়ার পাশাপাশি প্রচুর উপকারিতা দেয় বলে জানা যায়। পেট ফাঁপা শিশু এবং অ্যাসিডিটির মতো গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল সমস্যায় ভুগছে এমন শিশুরা এটি থেকে উপকার পেতে পারে। দাঁত বের হওয়ার সময় বাচ্চাদের চুলকানি হতে থাকে এবং প্রচুর কান্নাকাটি করে। এর ফলে তারা অনেকটা পরিমাণ বায়ু গিলে ফেলতে পারে যা এরপরে পেট ফাঁপা আরও বাড়ায়। হেঁচকিগুলি যা ডায়াফ্রাম ইরিটেশনের জন্য আসে, বাচ্চাদের ক্ষেত্রে বিরক্তিকর প্রমাণ হতে পারে এবং পেট ফাঁপা, অ্যাসিড রিফ্লাক্স বা বদহজমের কারণে ঘটে। গ্রাইপ ওয়াটার ডায়াফ্রামটিকে প্রশমিত করে এবং এইভাবে বাচ্চাদের হেঁচকি থেকে মুক্তি দেয় বলে মনে করা হয়।

গ্রাইপ ওয়াটারের ব্যবহার কী?

শিশুদের কখন গ্রাইপ ওয়াটার দেওয়া যেতে পারে?

গ্রাইপ ওয়াটারের নির্মাতারা দাবি করেন যে এটি দুই সপ্তাহের মতো কম বয়সী শিশুদের দেওয়া যেতে পারে। তবে, এক মাসের কম বয়সী শিশুদের এটি দেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয় না, যেহেতু তাদের পাচনতন্ত্রটি এখনও বিকাশমান এবং সংবেদনশীল হতে পারে। তাদের মধ্যে এমনও রয়েছেন যারা অনুমান করেন যে ছয় মাস অবধি শিশুদের বুকের দুধ বা ফর্মুলা দুধ ছাড়া আর কিছু দেওয়া উচিত নয়। সুতরাং, সেরা বিকল্পটি হল শিশুকে কখন এই সূত্র দেওয়া যায় সে সম্পর্কে আপনার শিশু বিশেষজ্ঞের সাথে পরামর্শ করা।

একটি শিশুকে গ্রাইপ ওয়াটার কীভাবে দেওয়া যায়?

একবার খাওয়ানোর প্রায় দশ মিনিট পরে শিশুকে কিছুটা গ্রাইপ ওয়াটার দেওয়ার উপযুক্ত সময়। এটি একটি ড্রপার বা চামচ ব্যবহার করে শিশুকে খাওয়ানো যায় এবং সুস্বাদু স্বাদের কারণে বেশিরভাগ শিশুই কোন গোলমাল ছাড়াই এটি খাবে। এটি সাধারণত দিনে একবার দেওয়া হয়, তবে বরাবরের মতো, আপনার ডাক্তার আপনাকে ডোজ সম্পর্কে আরও ভাল পরামর্শ দিতে সক্ষম হতে পারেন।

গ্রাইপ ওয়াটারের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া

গ্রাইপ ওয়াটারের কোনও চিকিৎসা-প্রমাণিত পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই। তবে এটি সম্ভব হতে পারে যে আপনার শিশুর কোন একটি নির্দিষ্ট ব্র্যান্ডের এক বা একাধিক উপাদানের প্রতি অ্যালার্জি রয়েছে। উপাদানের তালিকা চেক করা আপনাকে সেই ব্র্যান্ডগুলি এড়াতে সহায়তা করতে পারে। গ্রাইপ ওয়াটার খাওয়ার পরে আমবাত, জলযুক্ত চোখ, ফোলা ঠোঁট বা জিহ্বা, বমি বমি ভাব, চুলকানি এবং শ্বাস-প্রশ্বাসের কোনও পরিবর্তন অ্যালার্জিজনিত প্রতিক্রিয়া হওয়ার লক্ষণ হতে পারে। আপনার শিশু যদি এরকম কোনও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখায় তবে অবিলম্বে চিকিৎসাগত যত্ন নেওয়ার চেষ্টা করুন।

গ্রাইপ ওয়াটার কি ফর্মুলা দুধের সাথে মিশ্রিত করা যায়?

ফর্মুলা দুধের সাথে গ্রাইপ ওয়াটার মিশ্রিত করার পরিবর্তে ফর্মুলার দুধ প্রস্তুত করতে ব্যবহৃত কিছু জলের পরিবর্তে গ্রাইপ ওয়াটার ব্যবহার করুন। এটি ফর্মুলার স্বাদ পরিবর্তন করতে পারে। আপনি এটি জল বা বুকের দুধের সাথে মিশ্রিত করতে পারেন, তবে এমন সম্ভাবনা রয়েছে যে আপনার শিশুটি সর্বদা এই মিশ্রণের দাবি শুরু করতে পারে।

সেরা ফলাফলের জন্য, এটি শিশুর কাছে এটির আসল আকারে দিন।

শিশুর জন্য গ্রাইপ ওয়াটারের বিকল্প

গ্রাইপ ওয়াটার ছাড়াও, বেশ কয়েকটি উপায় রয়েছে যার মাধ্যমে আপনি আপনার শিশুকে প্রশান্ত করতে পারেন এবং তাকে আরও ভাল বোধ করাতে সহায়তা করতে পারেন। পেটের উত্তেজনা এবং গ্যাস থেকে মুক্তি পেতে মৃদু পেটের ম্যাসাজ চেষ্টা করুন। ফর্মুলা দুধের ব্র্যান্ডটি পালটানো কিছু শিশুদের জন্য সহায়ক হিসাবে প্রমাণিত হতে পারে। আপনার শিশুটি যখন কুঁকড়ে থাকে তখন তাকে আপনার কাঁধের উপরে রাখুন এবং তাকে ঢেঁকুর তুলতে সহায়তা করার জন্য আলতো করে তাদের পিঠে চাপ দিন। আপনার বাচ্চাকে আরও ভাল অনুভব করতে সহায়তা করার জন্যও এটি করতে পারেন। কোন কাপড় দিয়ে মুড়ে রাখা আপনার শিশুকে আরামদায়ক করতে পারে এবং তাকে শিথিল করতে সহায়তা করতে পারে। যদি সম্ভব হয় তবে নিশ্চিত হন যে আপনার শিশু ছয় মাস বয়স পর্যন্ত একচেটিয়াভাবে বুকের দুধ খায়। কারণ গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল ট্র্যাক্টকে স্বাস্থ্যকর রাখার জন্য বুকের দুধই সবচেয়ে ভাল।

গ্রাইপ ওয়াটার বাছাই ও দেওয়ার জন্য টিপস

যদি আপনার শিশুকে নিত্যান্তই গ্রাইপ ওয়াটার দিতে হয় তবে আপনি এই টিপসটি ব্যবহার করুন যাতে আপনি কোন সঠিকটির জন্য সঠিক ধরণের সন্ধান করতে পারেন।

  • এমন কোনও ফর্মুলেশন চয়ন করবেন না যার মধ্যে সোডিয়াম বাইকার্বোনেট রয়েছে, কারণ এটি আপনার শিশুর পেটের পিএইচ স্তরে ভারসাম্যহীনতা তৈরি করতে পারে।
  • আপনার শিশুর অ্যালার্জি নেই এমন কিছু নিশ্চিত করার জন্য সাবধানতার সাথে উপাদানগুলির তালিকাটি দেখুন।
  • কোনও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া বা প্রতিক্রিয়ার জন্য নজর রাখুন।
  • ডোজ এবং ব্যবহৃত ব্র্যান্ড সম্পর্কে আপনার ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন।
  • এমন একটি ব্র্যান্ড সন্ধানের চেষ্টা করুন যা যথাসম্ভব প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করে।
  • কোন পরিমাণে অ্যালকোহলযুক্ত গ্রাইপ ওয়াটার কিনবেন না।
  • সুক্রোজ, উদ্ভিজ্জ কার্বন বা চারকোল রয়েছে এমন সমাধানগুলি পরিষ্কার ভাবে দেখুন।
  • নির্দেশাবলী পড়ুন এবং প্রস্তাবিত হিসাবে সঠিক ডোজ দিন।

গ্রাইপ ওয়াটার বাছাই ও দেওয়ার জন্য টিপস

এই বিশ্বে যতদিন শিশুরা থাকবে ততদিন ঘ্যানঘ্যানে শিশু এবং কোলিক থাকবেই! তবে গ্রাইপ ওয়াটার প্রতিবার এর সমাধান হতে পারে না। আপনার শিশুর কেন অস্বস্তি হচ্ছেবা ব্যথা হচ্ছে তা বোঝার চেষ্টা করা আপনার পক্ষে গুরুত্বপূর্ণ। পরবর্তী পদক্ষেপটি হল কোনও বাহ্যিক এজেন্ট ব্যবহার না করে ছোট্টটিকে প্রশান্তি ও সান্ত্বনা দেওয়া। আপনি যদি প্রথমবারের মতো পিতা বা মাতা হয়ে থাকেন তবে কিছুই কাজ করছে না না বলে মনে হওয়া আপনার পক্ষে কঠিন হতে পারে। যাইহোক, একবার আপনি এটিতে অভ্যস্থ হয়ে গেলে জিনিসগুলি স্থির হয়ে যায় এবং আপনি ঠিক কীভাবে আপনার বাচ্চাকে শান্ত করবেন তা জানবেন।

দাবি অস্বীকার: এই তথ্যটি কেবল একটি গাইড এবং কোনও যোগ্য পেশাদারের চিকিৎসার পরামর্শের বিকল্প নয়।