আপনার শিশুর ত্বকের যত্ন নেওয়ার একটি সম্পূর্ণ গাইড

আপনার শিশুর ত্বকের যত্ন নেওয়ার একটি সম্পূর্ণ গাইড

আপনার সাত রাজার ধন আদরের ছোট্ট সোনাটি অবশেষে আপনার বাড়িতে আলো করে এসেই গেছে, আর দেখতে দেখতে একসময় আপনারা দুজনেই একসাথে আপনাদের এই নতুন জীবনযাত্রার চলার পথটিতে আরও এককদম এগিয়ে চলতে শুরু করে দিয়েছেন।আপনার ঐ এক রতি শিশুটির ছোট্ট ছোট্ট হাতপায়ের আঙ্গুলগুলি, পায়ের পাতা, চুল এবং ত্বকের মতো যাবতীয় খুঁটিনাটি দিকগুলি সুরক্ষিত রাখার জন্য আপনি সর্বদা সদা ব্যস্ত হয়ে ওঠার সাথে অতিরিক্তভাবেই তৎপর হয়ে ওঠেন।তবে তাসত্ত্বেও আপনি হয়ত আপনার ছোট্টটির ত্বক খুব সহজেই শুষ্ক হয়ে যেতে লক্ষ্য করতে পারেন, যা আপনাকে কিছুটা চিন্তায় ফেলে দিতে পারে।

aniview

শিশুদের ত্বক প্রাপ্তবয়স্কদের ত্বকের চেয়ে অনেক দ্রুত আর্দ্রতা হারায়, আর এ কারণেই সেটি রক্ষা করার জন্য এবং বিকাশে সহায়তা করতে আপনার সে ব্যাপারে একটু অতিরিক্তই যত্ন নেওয়া প্রয়োজন।আপনার শিশুর এই সূক্ষ্ম ত্বকের যত্ন নেওয়ার বিষয়ে আপনার যা কিছু জানা উচিত এবং তার জন্য তার ত্বকে কী কী ব্যবহার করতে পারেন এবং কীই বা ব্যবহার করতে পারবেন না সে সবকিছু সম্পর্কে জানতে নিবন্ধটি আপনাকে সহায়তা করবে।

আপনার শিশুর ত্বকের যত্ন নেওয়ার পূর্বে বিবেচনা করার মত কিছু বিষয়

এটি কেবল শিশুর ত্বকের বিষয়ই নয় যেটি সূক্ষ্ম ও সংবেদনশীল, এটি হল তাদের সামগ্রিক অনাক্রম্যতন্ত্র বা সম্পূর্ণ রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থার বিষয়।শিশুপণ্য এবং তাদের জন্য প্রস্তুত পোশাকগুলিতে ব্যবহৃত কড়া রাসায়নিক, রং এবং সুগন্ধিগুলি শিশুদের মধ্যে স্কিন র‍্যাশ, জ্বলন এবং এমনকি একজিমা দেখা দেওয়ারও কারণ হয়ে উঠতে পারে।তবে তার মধ্যেও সুসংবাদটি হল এই যে, এব্যাপারে একটু অনুসন্ধান ও গবেষণা চালানোর দ্বারা আপনি কিন্তু এই সকল সমস্যাগুলিকেই আগে থেকে প্রতিরোধ করতে পারেন।

শিশুর ত্বকের প্রাকৃতিক যত্নআপনার যা যা জানা প্রয়োজন

আপনি কি কখনও খেয়াল করেছেন যে আপনার শিশুর ত্বক কীভাবে কুঁচকে যায়? এটা স্বভাবত হয়ে থাকে এখন মায়ের গর্ভের বাইরে এই বহির্বিশ্বের সাথে তার জীবনের সামঞ্জস্য করার কারণে, যেখানে তার ত্বকের আদ্রতা খুব দ্রুত হ্রাস পেতে থাকে।

জন্মের পর প্রথম কয়েকদিন শিশুদের ত্বক ভার্নিক্স নামক একটি সুরক্ষামূলক আচ্ছাদন দ্বারা আবৃত থাকে।সাধারণত কোনওরকম ঘষার প্রয়োজন ছাড়াই সেটি আপনা থেকেই খসে যায়।একবার সেটি উঠে যাওয়ার পর আপনার ছোট্টটির ত্বকের যত্ন নেওয়ার জন্য আপনার অনুসন্ধান প্রক্রিয়াটি শুরু হয়ে যায়।আপনার বাচ্চার ত্বকের যত্ন নেওয়ার ব্যাপারে যে গূঢ় সত্যটি মনে রাখা গুরুত্বপূর্ণ তা হল– “অল্পই অনেক

এই গুটি কয়েকপয়েন্টগুলি নিয়ে এখন আমরা নিম্নে আলোচনা করতে চলেছি, যেগুলি আপনার শিশুর সূক্ষ্ম ত্বককে রক্ষা করতে, তাকে পুষ্ট করে তুলতে এবং আপনার ছোট্ট দেবদূতের ত্বকে জ্বলন সৃষ্টিকারী শুষ্কতা প্রতিরোধ করতে সহায়তা করবে।

1.আপনার শিশুকে কম স্নান করান

প্রথম বছরে আপনার শিশুকে প্রতি সপ্তাহে তিনবারের বেশি স্নান করালে তা তার ত্বক থেকে ত্বককে সুরক্ষিত রাখার উপযোগী কিছু প্রাকৃতিক তেল দূর করতে পারে।যা তার ত্বককে করে তোলে শুষ্ক এবং র‍্যাশগুলি দেখা দেওয়ার প্রতি আরও বেশি সংবেদনশীল করে তুলতে পারে।

তাহলে এখন আপনি হয়ত এ বিষয়টি চিন্তা করতে পারেন যে, বাচ্চারা কি তাহলে সত্যিই অপরিচ্ছন্ন ও ময়লা হয়ে যাবে না? ডায়পার দুর্ঘটনা, লালা গড়ানো বা থুতু ছিঁটিয়ে ফেলার মত ক্ষেত্রেও কিন্তু স্নান না করিয়েও আপনি সহজেই তাকে পরিষ্কার রাখতে পারেন।

অধিকাংশ দিনই আপনি আপনার শিশুকে দ্রুত স্পঞ্জ স্নান করান।যাইহোক, তবে যে দিন আপনি বাচ্চাকে ঠিকমত একটা সম্পূর্ণ স্নান করাবেন সেদিন নিশ্চিত হয়ে নিন যে আপনি তার স্নানের জন্য কোনওরকম টক্সিনমুক্ত পণ্যগুলি ব্যবহার করবেন কারণ আপনি নিশ্চই চাইবেন না যে সেই সকল বিপজ্জনক পদার্থগুলি আপনার শিশুর ত্বকে প্রবেশ করুক।মমস কো.ন্যাচারাল বেবি ওয়াশ শিশুর স্নানের সময়ের জন্য উপযুক্ত কারণ এটিতে নারকেল ভিত্তিক হালকা ক্লিনজার রয়েছে যা শুষ্কতা বাড়ায় না।এমনকি, এটি আবার প্রথম 3 বছরও আপনার বাচ্চার জন্য ব্যবহার করা যেতে পারে যখন তার ত্বকটি থাকে অতিরিক্ত মাত্রায় সংবেদনশীল।এটি একটি শীতল, টিয়ারফ্রী ফরমূলা যা বাচ্চার কোনওরকম জ্বালাজ্বলন বা কান্নাকাটি ছাড়াই টাবে বসে এক আনন্দময় জলকেলির দ্বারা স্নান করার জন্য দুর্দান্ত!

2.সুগন্ধি পণ্যগুলির ব্যবহার খর্ব করা

আপনার শিশুর জন্য সুগন্ধি পণ্যগুলি ব্যবহারের ক্ষেত্রে একটা বড় নাহাঁকুন।এগুলি কেবল আপনার সোনার নরম তুলতুলে ত্বকের ওপর জ্বলনই সৃষ্টি করবে না তার সাথে আবার তার আভ্যন্তরীণ অঙ্গাণুগুলিতেও সমস্যা সৃষ্টি করে।কৃত্রিম সুগন্ধিগুলিতে রাসায়নিক ব্যবহার করা হয়ে থাকে যা আপনার ছোট্ট শিশুর বিকাশশীল ক্ষুদ্র দেহটি সহ্য করতে পারে না।তাই আপনার সন্তানের জন্য ব্যবহারের ক্ষেত্রে কেবল ইউএসডিএসার্টিফায়েড জৈব পণ্যগুলি ব্যবহার করলে তা কেবল আপনার ছোট্টটির ত্বকের সঠিক যত্নই নেবে না তার সাথে তা পুষ্ট করে তুলবে এবং আপনার আদরের সোনাটির ত্বকের যথাযথ পরিচর্যা নেওয়ার ব্যাপারে আপনার জীবনের অনেকটা চাপও হ্রাস করবে।

3.আপনার বাচ্চাকে পরানোর আগে যেকোনও জামাকাপড় ভালমতো ধুয়ে শুকিয়ে নিন

আপনার শিশুর ব্যবহারের জামাকাপড়, ন্যাপকিন, বিছানাপত্রের সরঞ্জাম, কম্বল প্রভৃতি সবকিছুই প্রথমে ভালভাবে ধুয়ে নিন একমাত্র শিশুদের জন্যই বিশেষভাবে প্রস্তুত হালকা, রাসায়নিকমুক্ত ডিটারজেন্ট ব্যবহারের দ্বারা।নতুন জামাকাপড়ের মধ্যে থাকা রং এবং রাসায়নিকগুলি আপনার বাচ্চার ত্বকে জ্বলন সৃষ্টি করতে পারে।

4. শিশুর ত্বককে ময়েশ্চারাইজ করুন

যদিও বাচ্চাদের ত্বক শুষ্ক হয়ে থাকে, তবে তাদের ত্বক আবার প্রাকৃতিক তেলগুলিও উৎপন্ন করে।যাইহোক, কিছু শিশুর ক্ষেত্রে, এই তৈল গ্রন্থিগুলির বিকাশ পেতে আরও বেশি সময় লাগে।একমাত্র প্রাকৃতিক, জৈব উপাদানের দ্বারা প্রস্তুত একটি ভাল মানের লোশন ব্যবহার করলে তা আপনার শিশুর ত্বককে কোমল রাখার সাথে পরিবেশগত কারণে জ্বালাপোড়াগুলি হওয়া থেকে বাঁচতে তার ত্বকের ওপর একটি প্রতিরক্ষামূলক বাধা গড়ে তুলতেও সাহায্য করে।

মমস কো.ন্যাচারাল বেবি লোশনের মধ্যে রয়েছে অ্যাপ্রিকট তেল এবং অ্যাভোকাড তেলের মতো শুধুমাত্র ননটক্সিক উপাদানগুলি, যা আপনার শিশুর ত্বকে তার প্রয়োজনীয় আদ্রতা দেয়, বিশেষকরে স্নান করার পরে।অর্গানিক রাইস ব্র্যান অয়েল আপনার শিশুর ত্বকে অতিরিক্ত আদ্রতা এনে দেয় এবং সারা দিন/রাত্রি ধরে তা সুরক্ষিত রাখে।এগুলি আপনার শিশুর ত্বকে ভালভাবে ঘষে দিন, কারণ ত্বকের সাথে ত্বকের মধ্যে যে চামড়ার যোগাযোগ হয় তা কিন্তু মাসন্তানের মধ্যে একটি দুর্দান্ত বন্ধন গড়ে ওঠার প্রতীক স্বরূপ।তদতিরিক্ত, এটি কোনও লুকানো রাসায়নিক বা বিষক্রিয়া ছাড়াই, প্রকৃতির স্নিগ্ধতার ছোঁয়ায় আপনার শিশুর ত্বকের পরিচর্যার মাধ্যমে তা পুষ্ট করে তোলে এবং তার স্বাস্থ্যকর বৃদ্ধি এবং বিকাশেও উৎসাহ যোগায়!

শিশুর ত্বকের সাধারণ অসুস্থতা বা ব্যায়রামগুলিকীভাবে প্রতিরোধ এবং নিরাময় করা যায়

1.একজিমা

একজিমা হল শুষ্ক, লালচে এবং চুলকানিযুক্ত এক ধরনের র‍্যাশ বিশেষ যা সাধারণত স্ক্যাল্প ও মুখমণ্ডলের ওপর, কনুইয়ে এবং বাচ্চাদের হাঁটুর পিছনের দিকে বেড়ে উঠতে দেখা যায়।একজিমা প্রতিরোধ করা সহজ।

  • আপনার বাচ্চাকে সর্বদা সুতির মতো প্রাকৃতিক তন্তুর পোশাক পরানো নিশ্চিত করুন।
  • স্নানের আগে এবং পরে যথাক্রমে একটি অর্গানিক বেবি ওয়াশ এবং বেবি লোশন ব্যবহার করুন।
  • আপনার বাচ্চার চুলের দিকটাও অবহেলা করবেন না।মমস কো.ন্যাচারাল বেবি শ্যাম্পুর মতো একটি হেয়ার ওয়াশ ব্যবহার করুন যেটি আপনার শিশুর স্ক্যাল্পকে আলতো করে পরিষ্কার করে এবং তার সাথে আবার টিয়ারফ্রীও বটে! নারকেল ভিত্তিক ক্লিনজারের সাথে ব্লেন্ড করা অর্গানিক অর্গান তেল, অর্গানিক মরিঙ্গা তেল এবং প্রোভিটামিন বি সহযোগে প্রস্তুত একটি সমৃদ্ধ মিশ্রণ ব্যবহারের দ্বারা আপনি আপনার শিশুর স্ক্যাল্প এবং চুল পরিষ্কার করে তা স্বাস্থ্যকর করে তুলতে পারেন।এই ফরমূলাটি হল আবার হাইপোঅ্যালার্জিক, অর্থাৎ যার অর্থ হল আপনার বাচ্চার সংবেদনশীল ত্বকের সাথে এর কোনওরকম প্রতিক্রিয়া হওয়ার ব্যাপারে আপনার চিন্তা করার মতো কিছু নেই।

2. ডায়পার জনিত র‍্যাশ

গড়ে, একটি শিশু তার জন্মের প্রথম বছরে প্রতিদিন প্রায় 10-12 টি ডায়পার ব্যবহার করে! যদিও প্রতিটি মা তার সন্তানের সর্বোত্তম যত্ন পাওয়ার ব্যাপারটি নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে যেকোনওরকম চেষ্টা করে যাওয়া থেকে নিজেকে থামিয়ে রাখতে পারেন না, তবুও তার মধ্যে আবার ছোট ছোট বিষয়গুলি কখনও কখনও তাদের নজরে নাও যেতে পারে।

দীর্ঘক্ষণ ধরে ভিজিয়ে ফেলা বা ময়লা ডায়াপারে বসে থাকার ফলে ডায়াপার র‍্যাশ হতে পারে।আবার আপনার শিশুকে স্নান করানোর পরে যদি তাকে ঠিকভাবে মুছিয়ে শুকনো করা না হয় তবে সেক্ষেত্রেও ডায়াপার জনিত র‍্যাশগুলি দেখা দিতে পারে।এটি আপনার শিশুর যৌনাঙ্গ অঞ্চলের নিকটে তার ত্বকের ক্ষুদ্র ভাঁজগুলির মধ্যে আর্দ্রতা বা ভিজে ভাবটা আটকে রাখে।ব্যাকটিরিয়া এবং ছত্রাক এমন পরিবেশকেই পছন্দ করে যা শীতল ও আদ্র এবং শীঘ্রই সেখানে ছোট ছোট লাল ফুসকুড়ি রূপে র‍্যাশগুলি প্রকট হয়ে ওঠে যা আপনার ছোট্টটির মধ্যে প্রচুর অস্বস্তি সৃষ্টি করে।

ডায়পার র‍্যাশ প্রতিরোধ এবং নিরাময় করার জন্য আপনি যা করতে পারেন

  • মাঝেমধ্যেই আপনার শিশুর ডায়পার চেক করুন।
  • ময়লা হয়ে গেলেই ডায়পার বদলে দিন
  • ডায়পার পরিহিত জায়গাটিকে সুগন্ধিমুক্ত ক্লিনজার দিয়ে হালকা করে পরিষ্কার করে দিন এবং সেখানে কোনওরকম ঘষবেন না।
  • ঐ অঞ্চলটিকে মুছে শুকনো করার জন্য পরিষ্কার এবং নরম কাপড় ব্যবহার করুন।

একটি কার্যকর ডায়াপার র‍্যাশ ক্রিম বিদ্যমান ডায়াপার জনিত র‍্যাশ নিরাময়ে দীর্ঘ পথ অতিক্রম করে।প্রকৃতপক্ষে, প্রতিবার আপনার শিশুর ময়লা ডায়াপার পরিষ্কার করার পরে ঐ অঞ্চলে একটি ডায়াপার র‍্যাশ ক্রিম ব্যবহার করা হল সর্বদাই একটা ভাল অভ্যাস।প্রতিটি ডায়াপারব্যাগের জন্য একটি করে ডায়াপারর‍্যাশ ক্রিম থাকা আবশ্যক, কারণ শিশুদের ত্বকে র‍্যাশ হওয়ার ঝুঁকি বেশি থাকে আর আপনার ছোট্ট শিশুটিও তাতে ভোগে এরকমটা নিশ্চই একজন মা হিসেবে আপনি কখনই চাইবেন না!

মনে রাখবেন যে অ্যান্টিবায়োটিক কোর্সে থাকা শিশুদের মধ্যে সহজেই ডায়াপার জনিত র‍্যাশগুলি বিকাশ পেতে পারে তাই সেটি প্রতিরোধের জন্য এই সময়ে অতিরিক্ত যত্ন নিন।

শিশুর ত্বক থাকে সর্বোত্তম, যখন প্রায়শই তা মায়ের স্পর্শে থাকে

আপনার শিশু আপনাকে এতটাই ভালবাসে যে আপনার কাছ থেকে সে যা কিছুই পায়, তার সবকিছুই তাকে পাইয়ে দেয়তার সার্বিক স্বাচ্ছন্দ্যবোধ,আরাম, সুরক্ষা এবং স্থিতিশীলতা। এমনকি তার ক্ষুদ্র দেহটিও আপনার মৃদু স্পর্শ এবং গন্ধে সুপ্রতিক্রিয়া জানাতে থাকে।

আপনার স্পর্শটি এন্ডোরফিনগুলি মুক্ত করে যা আপনার ছোট্টটিকে স্বাচ্ছন্দ্যে এবং আরামদায়ক রাখতে সহায়তা করে এবং ফলস্বরূপ, নতুন এবং স্বাস্থ্যকর কোষ গঠনের গতি বাড়ায়।দেখুন এটি কিভাবে কাজ করে?

শোওয়ানোর আগে শিশুসুরক্ষিত ম্যাসেজ বা মালিশের তেল দিয়ে একটি ভাল ম্যাসেজ করে দিলে তা আপনার শিশুর ত্বকের জন্য এক অত্যাশ্চর্যজনক কাজ করতে পারে।এটি কেবল আপনার এবং শিশুর মধ্যে একটা সুদৃঢ় বন্ধন গড়ে তুলতেই সহায়তা করে না তার পাশাপাশি আবার এটি দিনের বেলায় তার দেহ থেকে হারিয়ে যাওয়া যেকোনও তেলের ভাগ পুনরায় পূরণ করতেও সাহায্য করে।

10 টি পুষ্টিকর প্রাকৃতিক তেলের সমৃদ্ধ সংমিশ্রণে আপনার শিশুর ত্বককে সিক্ত করতে মমস কো.ন্যাচারাল বেবি ম্যাসেজ অয়েল ব্যবহার করুন।শিশুর পরিচর্যার কিছু প্রচলিত তেলগুলির মধ্যে যেমন ওমেগা ফ্যাটি অ্যাসিড এবং ক্যালসিয়ামে সমৃদ্ধ তিলের তেল এবং বাদামের তেল, অর্গানিক হুইট জার্ম অয়েল শিশুর ত্বক ময়েশ্চারাইজ করার জন্য এবং জোজোবা ও ক্যামোমাইল আপনার শিশুর ত্বককে প্রশমিত করার জন্য ব্যবহার করতে পারেন।

এই তেলে দিয়ে মালিশ করলে তা আপনার ছোট্টটির হাড়ের গঠণ ও বৃদ্ধিতে সাহায্য করবে এবং রাতে তাকে ভালভাবে ঘুমাতেও সহায়তা করবে।এর অর্থ হল আপনিও নিশ্চিন্তে চোখ বুজে দুদণ্ড বিশ্রাম নেওয়ার একটা অবকাশ পেয়ে যাবেন!

যদিও আপনার শিশুকে ম্যাসেজ করার জন্য কোনও বিশেষ কৌশল নেই, তবে ঘুম পাড়ানোর আগে কীভাবে আপনি আপনার ছোট্টটিকে একটা সেরা ম্যাসেজ দিতে পারেন তা এখানে আলোচনা করা হলঃ

  • তেলটি কেবলমাত্র হালকা গরম করুন বা সেটিকে সামান্য উষ্ণ করে তোলার জন্য আপনার আঙ্গুলগুলির মাঝে নিয়ে সেটি ঘষুন।
  • তারপরে তার সাথে নরমভাবে কথা বলতে বলতে মৃদু অথচ দৃঢ় গতিতে সেই তেল হাতটিকে আপনার বাচ্চার বুক, পেট, হাত এবং পায়ের ওপর ঘষুন। আপনি লক্ষ্য করবেন যে আপনার প্রতিটি স্পর্শের সাথে কীরকম উল্লাসের সাথে আপনার সোনা ক্রমাগত প্রতিক্রিয়া করতে থাকে।
  • আপনার শিশুর বিস্তৃত অংশে যেমন পেট এবং পিঠে বৃত্তীয় গতিতে তেলটি ম্যাসাজ করুন এবং তার অঙ্গপ্রত্যঙ্গগুলির উপর আরও রৈখিক স্ট্রোকগুলি দিন।
  • আর এই সময়ে সর্বক্ষণ আপনার ছোট্টটিকে ব্যস্ত রাখতে পুরো সময়টা জুড়ে তার সাথে চোখের যোগাযোগ বজায় রাখুন।
  • এই সময় আপনি আবার আপনার খোকা/খুকির সাথে গান গেয়ে বা কথোপকথনের মাধ্যমে তার সাথে আলাপচারিতা বজায় রাখতে পারেন।গর্ভের অভ্যন্তরে থাকার সময় থেকেই সে আপনার কণ্ঠ্যস্বরের সাথে পরিচিত, আর তাই এটি কেবল এর সাথে তার মনের স্বাচ্ছন্দ্যকে যুক্ত করবে।

তাহলে আপনি নিশ্চই এখন পুরো ব্যাপারটি বুঝে গেছেন! আপনার শিশুর ত্বকের ভালভাবে যত্ন নেওয়া যেতে পারে শুধুমাত্র এই কয়েকটি সাধারণ টিপস এবং সাবধানতাগুলি অবলম্বনের মাধ্যমেই।অতএব, আপনার শিশুর পণ্যগুলিকে টক্সিনমুক্ত রাখুন এবং আপনার শিশুর ত্বক এবং চুলকে আপনার কোমল স্পর্শের সাথে যত্নে রাখুন যা আপনাকে করে তুলবে চাপমুক্ত! আর এর সবথেকে ভাল দিকটি হল আপনার শিশুটি থাকবে আনন্দে, সুস্থ এবং অবশ্যই কোমল এবং আরও তরতাজা ও ফুটফুটে!