কিভাবে একটি শিশুকে বুকের দুধ খাওয়াতে হয়

কিভাবে একটি শিশুকে বুকের দুধ খাওয়াতে হয়

প্রতি নবজাতকের প্রথম ছয় মাসের জন্য ডাক্তাররা একচেটিয়া বুকের দুধ খাওয়ানোর সুপারিশ করেন, কারণ বুকের দুধ শিশুর সর্বোত্তম পুষ্টি প্রদান করে এছাড়া, বুকের দুধ খাওয়ানোর সময় ক্ষরিত হওয়া হরমোনগুলি মায়ের প্রসব পরবর্তী আরোগ্যকে ত্বরাণ্বিত করে তবে বিভিন্ন কারণে অনেক মায়েদের তাদের নবজাতককে বুকের দুধ খাওয়ানো কঠিন বলে মনে হয়, এই কারণগুলির মধ্যে রয়েছে কয়েকজন মা বুকের দুধ খাওয়ানোর সঠিক পদ্ধতি সম্পর্কে জানেন না বুকের দুধ খাওয়ানোর সময় উদ্ভূত অন্যান্য সাধারণ উদ্বেগগুলি মোকাবেলা করার জন্য সঠিকভাবে খাওয়ানোর উপায়টি জানা গুরুত্বপূর্ণ

aniview

কিভাবে শুরু করতে হবে

যদিও এটি অদ্ভুত শোনাতে পারে, বুকের দুধ খাওয়ানো শুরু করার চেষ্টা করার সময়, শিশু এবং তার মা উভয়েরই কিছু নির্দেশিকার প্রয়োজন হতে পারে এখানে আপনার শুরু করতে সাহায্য করার জন্য কয়েকটি কৌশল রয়েছে

কিভাবে বসবেন?

আপনি নিজেকে যতটা সম্ভব আরামদায়ক করে তুলতে পারেন যাতে আপনি আপনার সন্তানের উপর সম্পূর্ণ মনোযোগ দিতে পারেন সহায়তার জন্য বালিশ ব্যবহার করুন এবং আপনার শরীরকে প্রাকৃতিক আরামদায়ক অবস্থানে রাখুন আপনি যদি সিসেকশন থেকে আরোগ্য লাভ করছেন, তবে ডাক্তার আপনাকে আপনার পাশ ফিরে শুতে এবং শিশুকে আপনার পাশে রাখতে বলতে পারেন আপনি বুকের দুধ খাওয়ানোর জন্য যে অবস্থানটিই চয়ন করুন না কেন, বসে থাকা বা শুয়ে থাকার সময় আপনার মেরুদণ্ডটি যেন কোনো ভুল অবস্থানে না থাকে, কারণ এটি ব্যথা অস্বস্তি সৃষ্টি করবে

আপনি প্রস্তুত হলে, এটি আপনার বাচ্চাকে খাওয়ানোর সময় এবং এটির প্রথম ধাপটি হল একটি ভাল ল্যাচ নিশ্চিত করা ল্যাচিং বলতে আপনার শিশু কিভাবে আপনার স্তনের উপর তার মুখ স্থাপন করে তা বোঝায় একটি ভাল ল্যাচ অত্যাবশ্যক কারণ এটি ভালোভাবে চোষা এবং দুধের অবিরাম প্রবাহ নিশ্চিত করে এটা আরো প্রয়োজন কারণ এটা আপনার শিশুর খাদ্যনালীতে বাতাস প্রবেশ করতে বাধা দেয়, যা সম্ভবত পেটের সমস্যা বা এমনকি শূলবেদনার কারণ হতে পারে

কিভাবে স্তনের উপর শিশুকে ল্যাচ করবেন?

প্রথম ধাপে বাচ্চার পাশের দিকটি ধরুন যাতে সে আপনার মুখোমুখি হয় এবং তার পেট আপনার পেটকে স্পর্শ করছে তা নিশ্চিত করুন যদি প্রয়োজন হয়, শিশুকে তুলে ধরতে বালিশ ব্যবহার করুন

  • আপনার স্তনকে কাপের মতো ব্যহহার করুন এবং তারপর আপনার বুড়ো আঙুল বাকী আঙুলগুলি আপনার এরিওলার চারপাশে স্থাপন করার চেষ্টা করুন

  • তার নাক এবং উপরের ঠোঁটের মধ্যে আপনার স্তনবৃন্ত রাখুন একটি বিকল্প পদ্ধতি হল আপনার স্তনবৃন্ত দিয়ে আপনার শিশুর গালটি আস্তে আস্তে স্পর্শ করা এর ফলে সাধারণত সে প্রবৃতিগতভাবে এটির দিকে ফেরে এবং তার মুখ খোলে, এইভাবে তাকে এটির কাছে আনতে সাহায্য করে

  • আপনার বাচ্চার মাথা পিছনের দিকে বাঁকান এবং ধীরে ধীরে আপনার স্তনবৃন্ত দিয়ে তার ঠোঁটে সুড়সুড়ি দিন যাতে সে মুখ খোলে

  • শিশুকে সাহায্য করুন যাতে সে আপনার স্তন তার মুখের মধ্যে রাখতে পারে, প্রথমে নীচের চোয়াল রেখে স্তনবৃন্তের নীচে তার ল্যাচ যাতে ভালোভাবে শুরু হয় তা নিশ্চিত করুন

  • আস্তে আস্তে তার মাথা সামনের দিকে তুলুন এর ফলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে তার উপরের চোয়াল স্তনের উপর দৃঢ়ভাবে চেপে বসে

  • শিশুর মুখের মধ্যে পুরো স্তনবৃন্ত এবং এরিওলার 1 1/2 ইঞ্চি যেন ল্যাচ করা থাকে তা নিশ্চিত করুন

শিশুর স্বাভাবিক খাওয়ার প্রবৃত্তি শক্তিশালী হয় এবং সে আপনার দেওয়া উত্সাহে প্রতিক্রিয়া জানাতে পারে যাইহোক, যদি আপনার শিশু এই অনুশীলনে সাড়া না দেয়, তবে আপনি নিম্নলিখিত কৌশলগুলি চেষ্টা করতে পারেন

সফলভাবে বুকের দুধ খাওয়ানোর জন্য ল্যাচ করার কৌশল

শুরুতে, আপনার বাচ্চাকে সঠিক অবস্থানে পেতে কয়েকবার প্রচেষ্টা করতে হতে পারে এখানে বুকের দুধ খাওয়ানোর জন্য আরও কিছু ল্যাচ করার পদ্ধতি রয়েছে:

  • যদি আপনার বাচ্চা তার মুখ খোলার মাধ্যমে প্রতিক্রিয়া না দেয়, আপনার স্তনে চাপ দিয়ে তার ঠোঁটের উপর দুধের কিছু ফোঁটা ফেলার চেষ্টা করুন

  • যদি আপনার শিশু স্তনবৃন্ত থেকে মুখ ফিরিয়ে নেয়, তাহলে আপনার সবচেয়ে কাছে থাকা শিশুর গালটিতে আলতো টোকা দিন এটি বাচ্চাদের উদ্দীপিত করে আপনার দিকে ঘুরিয়ে দেয় এবং তারা চুষতে (রুটিং) শুরু করে এটি রুটিং রিফ্লেক্স হিসাবেও পরিচিত এবং এটি শিশুটির মাথা আপনার বুকের দিকে ঘুরিয়ে দেয় এবং এইভাবে বুকের দুধ খাওয়ানোর প্রক্রিয়াতে সাহায্য করে

  • যখন আপনার বাচ্চা তার মুখ দিয়ে স্তনটি খুঁজছে, তখন তার উপর ঝুঁকে পড়ার পরিবর্তে, সবসময় তাকে আপনার বুকের কাছে তুলে ধরুন

  • আপনার শিশুর মুখ আপনার স্তনবৃন্ত এবং এরিওলা উভয়কে আচ্ছাদন করে আছে নিশ্চিত করার মাধ্যমে ল্যাচ সঠিক আছে তা নিশ্চিত করুন

  • একটি সঠিক ল্যাচ দুধের মসৃণ প্রবাহে সহায়তা করে, যেখানে অনুপযুক্ত ল্যাচের ফলে শুধুমাত্র স্তনবৃন্তকে চোষে যা স্তনবৃন্তকে ফুলিয়ে এবং ফাটিয়ে দেয় এবং এটি দুধের প্রবাহকে সীমিত করে

  • আপনার বাচ্চার চিবুক এবং তার নাকের ডগা আপনার স্তন স্পর্শ করলে এটি একটি ভাল ল্যাচ চেক করুন এবং শিশুর ঠোঁট যেন বাইরের দিকে ছড়ানো থাকে তা নিশ্চিত করুন

  • প্রাথমিক দিনে খাওয়ানোর সময় ল্যাচটি বার বার পরীক্ষা করুন এবং নিশ্চিত করুন যে শিশুটি নিজের নীচের ঠোঁট বা জিহ্বা না চোষে

  • শিশুটি খাওয়া শুরু করলে, আপনি চোষাগেলাশ্বাসপুনরাবৃত্তির একটি স্থির প্যাটার্ন দেখতে পাবেন এটি শিশুর গাল এবং চোয়ালের অনুরূপ ছন্দময় গতির মাধ্যমেও দৃশ্যমান হবে আপনি গেলা বা ঢোক গেলারও কিছু শব্দ শুনতে পারেন

  • যদি ল্যাচ করা থাকলে ব্যাথা দেয় বা বাচ্চার অসুবিধা হয় তবে স্তন্যপান বন্ধ করুন একটি শিশুর ল্যাচ খুব শক্তিশালী হতে পারে এবং কেউ যেন তাকে তার মায়ের বুক থেকে সরিয়ে নেওয়ার জন্য জোর না করে আস্তে আস্তে আপনার কড়ে আঙ্গুলটি আপনার শিশুর মাড়ি এবং বুকের মধ্যে রেখে ল্যাচটি ভাঙা যেতে পারে কান্নাকাটি করে ছোটটি দুধ খাওয়া বন্ধ হওয়ার প্রতিবাদ জানাতে পারে সে সম্পর্কে চিন্তা করবেন না এবং নতুনভাবে ল্যাচ করার প্রক্রিয়া শুরু করুন

ল্যাচটি যে ভালো হয়েছে তা কিভাবে নিশ্চিত করবেন?

উপরোক্ত কৌশল অনুশীলন করার পরে, ল্যাচটি যে ভালো এবং আপনার শিশুর জন্য আরামদায়ক তা ভালোভাবে চেক করা গুরুত্বপূর্ণ সেটি নিশ্চিত করতে নিম্নলিখিত কিছু লক্ষণ আপনি লক্ষ্য করতে পারেন

  • আপনি আপনার শিশুর স্বাচ্ছন্দ্য সহকারে গ্রাস করার আওয়াজ শুনতে পারেন,

  • আপনার শিশুর নীচের ঠোঁট আস্তে আস্তে নীচে টেনে আনুন এবং যদি আপনি তার জিহ্বাটি সঠিকভাবে দেখতে সক্ষম হন, তবে এটি নির্দেশ করে যে আপনার বাচ্চা ঠিকমতো ল্যাচ করে আছে

  • আপনি যদি ক্লিক ক্লিক বা চাপড়ানোর শব্দ শুনতে না পান, এটি একটি ভালো ল্যাচের লক্ষণ

  • আপনার শিশুর চিবুক আপনার স্তন স্পর্শ করে

  • আপনার শিশু আপনার স্তন ছেড়ে আসার সময় আপনার স্তনবৃন্ত চ্যাপ্টা হয় না বা আকৃতি বিকৃত হয় না

  • ফিডের শেষে, আপনার শিশু কোনো নির্দেশক অঙ্গভঙ্গি বা সন্তুষ্টির শব্দ তৈরি করে

বুকের দুধ খাওয়ানোর সময়ে যে অবস্থানগুলি কাজ দেয়

সঠিক ল্যাচ হওয়ার সাথে, এটি গুরুত্বপূর্ণ যে মা এবং শিশু উভয় খাওয়ানোর জন্য সঠিক অবস্থানে থাকে উভয়কে আরামদায়ক এবং শিথিল হতে হবে

এখানে চেষ্টা করার জন্য কিছু অবস্থান আছে:

1. ক্রস ক্র্যাডল হোল্ড: প্রারম্ভিক খাওয়ানোর জন্য এই হোল্ড ব্যবহার করুন

এই অবস্থানটি বেশ প্রচলিত এবং সম্ভবত নতুন মায়ের জন্য এটি সবচেয়ে সহায়ক কারণ এটি তাদের সন্তানদের তাদের প্রসবের পরে সঠিকভাবে ল্যাচ করতে দেয় এটি একটু অদ্ভূত বলে মনে হতে পারে, তবে এই অবস্থানটি সঠিকভাবে অনুশীলন করা মায়ের শিশুর উভয়ের জন্য বুকের দুধ খাওয়ানোর প্রক্রিয়াতে খুব সহায়ক এবং উপকারী হতে পারে

  • হাতল ওয়ালা একটি চেয়ারে সোজা হয়ে বসুন

  • আপনার পেট দিয়ে শিশুকে ধরুন যাতে সে আপনার শরীরের সংস্পর্শে থাকে

  • মাথার পেছনে অবলম্বন দেওয়ার জন্য হাতের তালু ব্যবহার করে, আপনি শিশুকে যে স্তন থেকে বুকের দুধ খাওয়াচ্ছেন তার বিপরীতে বাহুটির ভাঁজটি ব্যবহার করে দোলনার মতো করে ধরুন

  • আপনার খালি হাতটি ব্যবহার করে আপনার স্তনটিকে নীচের দিক থেকে ইউআকারের হোল্ড ব্যবহার করে অবলম্বন দিন এবং শিশুর মুখের দিকে নির্দেশিত করুন

2. ক্র্যাডল হোল্ড

আপনার বাচ্চাটি কয়েক সপ্তাহ বয়সী হলে এবং বুকের দুধ খাওয়ানোর সময় আপনি তাকে ধরে রাখতে অভ্যস্ত হলে, একটি ক্র্যাডল হোল্ড অনুশীলন করা যেতে পারে

  • সোজা হয়ে বসুন এবং আপনার দিকে শিশুর মুখ এবং শরীর ফিরিয়ে রেখে তাকে আপনার কোলে পাশ ফিরিয়ে শোওয়ান

  • আপনার হাত দিয়ে আপনার শিশুর মাথা, পিঠ এবং নীচের দিকে কুশন করার চেষ্টা করুন

  • বিপরীত হাত দিয়ে আপনার স্তনটি ধরে রাখুন এবং আস্তে আস্তে চাপুন যাতে স্তনবৃন্ত শিশুর নাকের দিকে নির্দেশিত হয়

3. ফুটবল হোল্ড

এই অবস্থানটি আমেরিকান ফুটবল থেকে অনুপ্রাণিত যা রাগবি নামে বেশী পরিচিত যদি আপনার সিসেক হয়ে থাকে বা যদি যমজ সন্তানকে আপনার বুকের দুধ খাওয়াতে হয়, তবে এই অবস্থানটি ভাল কাজ করে

আপনার শিশুর নিচে আপনার হাত দিয়ে ধরে রাখুন

আপনার হাত দিয়ে তার মাথা এবং ঘাড় ধরুন

আপনার বাচ্চাকে যে পাশ থেকে খাওয়ানো হচ্ছে সেই পাশ দিয়ে আপনার পিঠের দিকে বাচ্চার পাদুটি ছড়িয়ে দিন

আপনি আপনার হাতকে অবলম্বন দেওয়ার জন্য একটি বালিশ নিতে পারেন এবং শিশুর মুখকে আপনার বুকের দিকে নির্দেশ করতে আপনার খালি হাতটি ব্যবহার করতে পারেন

4. পাশেশোয়ানোর অবস্থান

এই অবস্থানটি বিশেষত সিজার করে প্রসবের পর বা আপনার শরীরে প্রসবের পরে ব্যাথা থাকলে উপকার দিতে পারে

  • আপনি পাশ ফিরে শোন এবং আপনার বাচ্চাকে আপনার পাশে পাশ ফিরিয়ে শোয়ান যাতে আপনি এবং শিশু একে অপরের মুখোমুখি হন

  • আপনার স্তনের নীচের দিকে আপনার শিশুর মাথাটি রাখুন যাতে তার মাথাটি আপনার স্তনবৃন্তের সাথে এক লাইনে থাকে

  • প্রয়োজন হলে, আপনার শিশুর মাথাটিকে অবলম্বন দেওয়ার জন্য আপনার হাতের নীচের দিকটি ব্যবহার করুন এবং খালি হাতটি দিয়ে আপনার স্তনকে চাপ দিন

5. রিক্লাইনিং হোল্ড

এই অবস্থান আবার সেই মায়েদের জন্য খুব দরকারী, যারা একটি সিসেকশন থেকে আরোগ্য লাভ করছেন বা যাদের বসতে অসুবিধা হচ্ছে বিছানায় বাচ্চাদের দুধ খাওয়ানো মায়েরাও এই হোল্ড অনুশীলন করতে পারেন

  • একটি পালঙ্ক বা বিছানার উপর আরামদায়কভাবে চিত হয়ে শোন অবলম্বনের জন্য বালিশ ব্যবহার করুন যাতে আপনার উপরের পিঠ, ঘাড় এবং মাথা আরামে থাকে

  • আপনার বাচ্চাকে আপনার বুকের উপর তার পেটের উপর ভর করে শোয়ান যাতে সরাসরি আপনার স্তনের নীচে তার মুখটি থাকে

  • শিশুর স্বাভাবিকভাবেই স্তনবৃন্ত খুঁজে বের করবে যদি প্রয়োজন হয়, আপনি আপনার স্তন চেপে এবং আপনার ছোটটির মুখের দিকে এটি নির্দেশ করে তাকে আরও উত্সাহিত করতে পারেন

বাচ্চাদের বুকের দুধ খাওয়ানোর জন্য সেরা কৌশল

যতক্ষণে আপনার বাচ্চা টডলারহুডে প্রবেশ করে, ততক্ষণে সে কিছু বুকের দুধ খাওয়ানোর অবস্থানের সাথে অভ্যস্ত হয়ে যাবে এই পর্যায়ে, বেশিরভাগ শিশু অবস্থান পরিবর্তন করে করে বুকের দুধ খাওয়া উপভোগ করে যেখানে তারা উল্টে বুকের দুধ খাওয়ার চেষ্টা করে, তাদের পা হাওয়ায় রেখে দেয়, এক পায়ে অবলম্বন দেয় এবং পা নাড়ায়, বাঁকায় এবং উল্টো দিকে ঘোরায় এবং আরও অনেক কিছু বাচ্চাদের জন্য বুকের দুধ খাওয়ানোর কিছু কৌশল:

  • বাচ্চাকে আলাদা আলাদা অবস্থানে রাখার চেষ্টা করার পরিবর্তে, আপনি তাকে বুকের দুধ খাওয়ানোর সময় ধরা এবং খেলার জন্য কিছু দিতে পারেন আপনি বাচ্চাদের মনোযোগ অবস্থান পরিবর্তন করা থেকে অন্য কিছুতে নিয়ে যাওয়ার অন্য, একটি নার্সিং নেকলেস ব্যবহার করার চেষ্টা করতে পারেন

  • আপনি আপনার সন্তানের সাথে কথাও বলতে পারেন বা সম্ভবত একটি বই পড়তে চেষ্টা করতে পারেন গান বা আঙ্গুলের খেলাও কিছু পরিমাণে সাহায্য করতে পারে

  • আপনি যদি আপনার শিশুর ঘন ঘন অবস্থান পরিবর্তন না চান তবে কেবল দৃঢ় হোন এবং তাকে বলুন, কিন্তু আপনার কণ্ঠস্বরকে নীচে রাখুন এমনকি একটি আলিঙ্গন আপনার কাজে দিতে পারে আপনি তাকে সতর্ক করে দিতে পারেন যে আপনি তাকে নিচে রেখে দিয়ে খাওয়ানো বন্ধ করবেন এবং আবার তার কারণ ব্যাখ্যা করুন

  • জনসাধারণের স্থানে যাওয়ার জন্য বাড়ি ছাড়ার আগে একটি বাচ্চাকে দুধ খাওয়ানো সর্বোত্তম সর্বদা একটি স্ন্যাক বা রস সাথে রাখুন যাতে আপনার শিশু যখন খাওয়ার জন্য কাঁদবে বা চিত্কার করবে তখন আপনি অফার করতে পারেন

একটি নবজাতককে কতক্ষণ ধরে বুকের দুধ খাওয়াতে হবে

সাধারণত, আপনি প্রথম প্রথম নবজাতককে বুকের দুধ খাওয়ানোর সময় 20 থেকে 30 মিনিট ধরে একটি সেশন স্থায়ী হয় তবে এটি 60 মিনিট পর্যন্ত প্রসারিত হতে পারে মনে রাখবেন প্রতিটি শিশুর আলাদা এবং আপনি সত্যিই প্রতিটি ফিডের কোনো সময়সীমা ঠিক করতে পারবেন না সাধারণত, প্রারম্ভে এবং বৃদ্ধি বাড়ার সময় বেশীক্ষণ ধরে খাওয়ানোর প্রয়োজন বুকের দুধ খাওয়ানোর সময়সূচি অনুসরণ করার পরিবর্তে আপনার বাচ্চার চাহিদা অনুযায়ী খাওয়ানো সহজ

একবার আপনার বাচ্চা খাওয়াতে দক্ষ হয়ে গেলে, আপনার বুকে সে মাত্র পাঁচ মিনিট সময় নিতে পারে এখানে কিছু লক্ষণ রয়েছে যা শিশুর ভালভাবে খাওয়া হয়েছে কিনা তা বুঝতে সাহায্য করবে:

  • যদি আপনার স্তন খাওয়ানোর সেশনের পরে নরম বোধ হয়, এবং আপনার বাচ্চা শিথিল সন্তুষ্ট বলে মনে হয় তবে তার অর্থ হল সে ভালো খেয়েছে

  • কখনও কখনও, যখন শিশুকে তাদের মা খাওয়ান তখন সে ঘুমায় যদি এমন হয়, তবে ফিডের সময় তাকে জাগানোর জন্য বাচ্চার হাত, পা, ঘাড় বা কানে সুড়সুড়ি দিন আপনি স্তন পালটাতে পারেন এবং শিশুকে ঝাঁকিয়ে নিতে পারেন যাতে সে না ঘুমায়

আমার কতদিন ধরে বুকের দুধ খাওয়ানো উচিত

আপনার বাচ্চাকে প্রথম ছয় মাসে শুধু বুকের দুধ খাওয়ানোর পরামর্শ দেওয়া হয় এবং কোনও খাদ্য বা জল না দেওয়া বাঞ্ছনীয় তার পর, শিশুর ইচ্ছা অনুসারে কঠিন খাবারের সাথে বুকের দুধ খাওয়ানো চালিয়ে যাওয়া যেতে পারে বুকের দুধ খাওয়ানো শুধু দুধ সরবরাহের চেয়ে অনেক বেশিএটি মা এবং শিশুর মধ্যে বন্ধনকে শক্তিশালী করার উপায় এবং সন্তানের নিরাপত্তার উৎস যতদিন আপনারা উভয়ে আরামদায়ক থাকেন, ততদিন চালিয়ে যান

কত ঘন ঘন বুকের দুধ খাওয়াতে হবে

বাচ্চারা জন্মের সময় ক্ষুধার্ত থাকে না, এবং তাদের ক্ষুধা শুধুমাত্র তৃতীয় দিনের মাথায় বৃদ্ধি পায় অতএব, প্রাথমিকভাবে, চাহিদা কম হবে এবং আপনাকে প্রক্রিয়াটিকে শুরু করতে বা ঠেলে শুরু করতে হবে

প্রথম কয়েক সপ্তাহে, আপনার শিশুর প্রতি দুইতিন ঘণ্টা অন্তর বুকের দুধ খাওয়ার প্রয়োজন হবে এর মানে হল 24 ঘণ্টায় আপনাকে 8 থেকে 12 বার দুধ খাওয়াতে হবে তবে, অনেকেই বিশ্বাস করেন যে একটি সময়সূচী অনুসরণ করার পরিবর্তে, নবজাতকদের দুধ খাওয়ানো তাদের চাহিদা অনুযায়ী করা উচিৎ এবং আপনার বাচ্চা ক্ষুধার্ত হলে তবেই করা উচিত আমরা সুপারিশ করি যে আপনি আপনার ডাক্তার ল্যাক্টেশন বিশেষজ্ঞের সাথে পরামর্শ করুন এবং তিনি যা বলেন সেটি অনুসরণ করুন

শিশুর বৃদ্ধির সাথে সাথে, তার পেটও বৃদ্ধি পায় সময়ের সাথে সাথে, সে আরো বেশী সময় ধরে ফিড গ্রহণ শুরু করবে, এবং ফ্রিকোয়েন্সি কমে আসবে

একটি ফলপ্রসূ নার্সিং অভিজ্ঞতার জন্য, এই কৌশলগুলি ব্যবহার করুন এবং আপনার সহজাত বিশ্বাস ব্যবহার করুন শুভ নার্সিং!