কীভাবে শিশুর দাঁত ব্রাশ করাবেন-কখন এবং কীভাবে সেটি শুরু করবেন

কীভাবে শিশুর দাঁত ব্রাশ করাবেন

খুব শীঘ্রই আপনার সন্তান তার মুক্তো সাদা দন্তগুলির অধিকারী হয়ে উঠবে যা তার হাসিটিকে করে তুলবে আরও অমূল্য।ভবিষ্যতে কোনওরকম গুরুতর দাঁতের সমস্যা এড়াতে প্রথম থেকেই তার দাঁতগুলিকে সুরক্ষা প্রদান নিশ্চিত করা হল আপনার কাজ।একদম প্রথম বয়স থেকে দাঁতের একটি স্বাস্থ্যসম্মত রুটিন নিয়মিতভাবে মেনে চললে তা শিশুর একটি সুঅভ্যাসে পরিণত হবে,যা তাকে এবং তার দাঁতকে সুস্থ রাখবে।এটি দন্তক্ষয় প্রতিরোধ করবে এবং তাছাড়াও এটি আবার তার পুষ্টি এবং বাকশক্তির বিকাশের সাথে হয়ে থাকা যেকোনও সমস্যা রোধ করবে।কখন এবং কীভাবে আপনার সন্তানের দাঁত ব্রাশ করা শুরু করা উচিত সে সম্পর্কে আপনার জানার মত সবকিছুই এখানে দেওয়া হল।

aniview

কখন আপনার সন্তানের দাঁত ব্রাশ করা শুরু করবেন?

আপনার সন্তানের দাঁত পরিষ্কার করা কিম্বা ব্রাশ করানো শুরু করার সবথেকে ভাল মুহূর্তটি হল তার মাড়ি থেকে তার প্রথম দাঁতটি উঁকি ঝুঁকি মারার পর্ব অতিক্রম করে বের হওয়ার সময় থেকে।সেটা তার তিন থেকে নয় মাস বয়সের মধ্যে যেকোনও সময়ে হতে পারে।শিশুর প্রথম দাঁত দেখা দেওয়ার বয়সের ক্ষেত্রে আবার ব্যাপক পরিবর্তন হতেও দেখা যেতে পারে যেখানে কিছু বাচ্চার বয়স আবার এক বছর না হওয়া অবধি হয়ত তাদের দাঁতই ওঠে না।

আপনার ছোট্ট শিশুটির দাঁত ব্রাশ করার জন্য আপনার কি কি প্রয়োজন হবে?

আপনার সন্তানের দাঁত ব্রাশ করা জন্য আপনার প্রয়োজন হবে বাচ্চাদের দাঁত মাজানোর একটি নরম টুথব্রাশ এবং ফ্লুওরাইডযুক্ত টুথপেস্ট।আপনার সোনাটি যদি অতীব ছোট্ট হয়,সেক্ষেত্রে আপনি পরিষ্কার ভিজে কাপড়ের একটি টুকরো,আপনার হাতের আঙ্গুল অথবা একটা গজ প্যাডও ব্যবহার করতে পারেন আপনার সন্তানের দাঁত পরিষ্কার করার জন্য।আপনার ছোট্ট ব্যক্তিটির যেকোনও রকম অস্বস্তি ও অসুবিধা এড়াতে সেগুলিকে ধীরে ধীরে ব্যবহার করার কথা মাথায় রাখবেন।আপনি যদি একটি শিশুদের টুথব্রাশ ব্যবহার করে থাকেন,তবে সেক্ষেত্রে নিশ্চিত করুন,সেটি যেন নরম ব্রিস্টেলযুক্ত,ছোট মাথার এবং লম্বা হাতলযুক্ত হয়ে থাকে।শিশুদের জন্য কেবলমাত্র একটি চালের দানার সম পরিমাণ টুথপেস্টই ব্যবহার করুন।

কীভাবে আপনার সন্তানের দাঁত ব্রাশ করাবেন?

আপনার সন্তানের দাঁত ব্রাশ করিয়া দেওয়ার ব্যাপারে তাকে স্বাচ্ছন্দ্যে রাখার চাবিকাঠিটি হল প্রক্রিয়াটি ধীরে ধীরে সঞ্চালনা করা।এখানে শিশুদের দাঁত ব্রাশ করানোর শ্রেষ্ঠ উপায়গুলি দেওয়া হলঃ

  1. পর্যাপ্ত আলো আছে এমন জায়গায় বসুন।আপনার সন্তানের মাথাটি আপনার কোলের উপর রাখুন।
  2. আপনার সন্তানের ছোট্ট টুথব্রাশটির উপর অথবা একটি গজ প্যাডের উপর খুব সামাণ্য পরিমাণে টুথপেস্ট নিন।মনে রাখবেন একটা ক্ষুদ্র চালের কণার পরিমাপের সমতুল্য টুথপেস্টই একটি শিশুর জন্য যথেষ্ট।
  3. ধীরে ধীরে আপনার সোনার মুখের কাছে যান এবং তার টুথব্রাশটিকে মৃদুভাবে প্রবেশ করিয়ে আস্তে আস্তে তার প্রতিটি দাঁত ব্রাশ করিয়ে দিন।আপনাকে তার প্রতিটি দাঁতের সামনে এবং পিছনে মৃদুভাবে বৃত্তীয় গতিতে এবং ছোট ছোট স্ট্রোকে ব্রাশ করাতে হবে যা সামনে এবং পিছনে উভয় দিকেই চালিত হয়ে থাকে।আপনাকে প্রতিদিন দুবার করে এটি করতে হবে।
  4. টুথব্রাশটি দিয়ে তার জিভটিকেও অবশ্যই পরিষ্কার করে দেবেন।এটি ব্যাকটেরিয়ার পুঞ্জীভবন হওয়া রোধ করবে এবং মুখের দুর্গন্ধও এড়ানো যাবে।
  5. পরিষ্কার জলে টুথব্রাশটিকে ভালভাবে ধুয়ে নিয়ে সেটিকে শুকনো হতে দিন।আপনার ব্যবহার করা টুথপেস্টের পরিমাণটি অতি নগণ্য মাত্রায় থাকার কারণ হেতু আপনার সন্তানের মুখ ধোয়ানোর প্রয়োজন হবে না।

আপনার বাচ্চা যদি তার দাঁত ব্রাশ করানো পছন্দ না করে সেক্ষেত্রে কি করণীয়?

শিশুদের মাড়ি অত্যন্ত সংবেদনশীল হওয়ায় তাদের দাঁত ব্রাশ করানোর সময় তাদের আঘাতও হয়ত লেগে যেতে পারে।সুতরাং,এই কারণের জন্যও হয়ত দাঁত ব্রাশ করানোর সমগ্র প্রক্রিয়াটির ক্ষেত্রেই বাঁধা দেওয়ার সম্ভাবনা আপনার শিশুটির মধ্যে থাকতে পারে।আপনার শিশুটি যদি তার দাঁত পরিষ্কার করার ব্যাপারে খুব বেশি উৎসাহী না হয়ে থাকে,সেক্ষেত্রে আপনি নিম্নলিখিত টিপসগুলি প্রয়োগ করার চেষ্টা করতে পারেনঃ

আপনার বাচ্চা যদি তার দাঁত ব্রাশ করানো পছন্দ না করে সেক্ষেত্রে কি করণীয়?

  • শান্ত হনঃ আপনার সন্তানের মাড়িগুলি অত্যন্ত সংবেদনশীল।সে যদি বিশেষভাবে তার টুথব্রাশটিকেই পছন্দ না করে থাকে,সেক্ষেত্রে আপনি সর্বদা ওয়াশক্লথ বা গজ প্যাড ব্যবহারের চেষ্টা করতে পারেন।
  • তাদের অন্যমনস্ক করে রাখুনঃ শিশুদের একটি বিষয়ের উপর মনোযোগ আকর্ষণ করা প্রয়োজন।সুতরাং দাঁত মাজানোর সময় কোনও শিশু সঙ্গীত কিম্বা গল্প শোনানোর মাধ্যমে তাদের অন্যমনস্ক করে তোলা এক্ষেত্রে কিছুটা সহায়তা করতে পারে।
  • আপনার বাচ্চার সাথে সাথে আপনিও ব্রাশ করুনঃ আপনি দাঁত ব্রাশ করা নিয়েও একটি খেলা তৈরী করে ফেলতে পারেন।আপনার ছোট্টটিকে দেখান যে আপনি কীভাবে নিজে ব্রাশ করছেন এবং তারপর তাকেও সেটি চেষ্টা করে দেখাতে বলুন এবং আপনি তাকে সেটি করতে দিন।
  • তার কৌতুহল পূরণ করুনঃ বাচ্চারা নতুন জিনিসগুলির সাথে খেলতে ভালবাসে।আপনার সোনাকে এই ব্রাশ করার ব্যাপারটিকে এবং তার টুথব্রাশটিকে উপভোগ করার জন্য পর্যাপ্ত সময় দিন।এভাবে খেলার ছলে তার মুখের ভিতরে আপনা থেকেই তার টুথব্রাশটিকে ঢুকিয়ে ফেলার সম্ভাবনা থাকবে।

আপনার সন্তানের দাঁত দিনে কতবার করে আপনার ব্রাশ করিয়ে দেওয়া উচিত?

আপনি প্রতিদিন দুবার করে আপনার সন্তানের দাঁত ব্রাশ করানোর মাধ্যমে একটা রুটিন তৈরী করতে পারেন।আর সেটি হতে পারে ভোরবেলায় একবার এবং রাত্রে শুতে যাওয়ার আগে আরেকবার।

আপনি কি শিশুর মাড়ি ব্রাশ করতে পারেন?

যদিও খাওয়ানোর পর আপনার সন্তানের মাড়ি পরিষ্কার করে দেওয়াটা ব্যাকটেরিয়ার বৃদ্ধি প্রতিরোধ করতে সহায়তা করতে পারে,তবে এক্ষেত্রে সেটি সবচেয়ে ভাল হয় যদি আপনি এটি করার জন্য টুথব্রাশের ব্যবহার না করে থাকেন।এর বদলে বরং আপনি একটি পরিষ্কার এবং নরম ভিজা কাপড়ের টুকরো ব্যবহার করতে পারেন।আপনি আবার এমনকি সিলিকন অথবা রবারের নরম ডগাযুক্ত ব্রাশ ব্যবহার করতে পারেন, যেগুলি আপনার সোনার সংবেদনশীল মাড়ির পক্ষে বেশ নরম হয়ে থাকে।মাড়ি পরিষ্কারের জন্য আপনার টুথপেস্ট ব্যবহারের প্রয়োজন নেই।আপনি আবার এমনকি আপনার ছোট্টটির দাঁত দেখা দেওয়ার আগেই তার মাড়িগুলি পরিষ্কার করে দেওয়া শুরু করে দিতে পারেন।

ব্রাশ করানোর সময় আপনার ছোট্টটির দাঁত থেকে যদি রক্ত বেরোতে শুরু করে সেক্ষেত্রে কি করণীয়?

ব্রাশ করানোর সময় যদি আপনি আপনার বাচ্চার দাঁত থেকে রক্ত বেরোতে দেখেন,সেক্ষেত্রে এটি কোনও সংক্রমণের সংকেত হতে পারে।মাড়ির নমনীয়তা এবং প্রদাহের মত অন্যান্য কোনও লক্ষণও এর সাথে যুক্ত আছে কিনা তা পরীক্ষা করুন।নিয়মিত ব্রাশ করা এবং দাঁতের যত্ন নেওয়ার সাথে এই অবস্থাটি কাটিয়ে ওঠার সম্ভাবনা আছে।তবে,যদি সেটি না হয়ে থাকে,সেক্ষেত্রে অবিলম্বে আপনার ছোট্টটিকে একজন দন্ত চিকিৎসকের কাছে নিয়ে গিয়ে তাঁর থেকে ডাক্তারি পরামর্শ গ্রহণ করা প্রয়োজন।

প্রতিবার খাওয়ানোর পরেই কি শিশুদের দাঁত ব্রাশ করানো আবশ্যক?

না,প্রতিবার খাওয়ানোর পরেই আপনার সন্তানের দাঁত ব্রাশ করানোর প্রয়োজন নেই আপনারপ্রাতঃরাশের পর এবং রাত্রে শুতে যাওয়ার আগে,দিনে এই দুবার ব্রাশ করানোই যথেষ্টতবে ব্যাকটেরিয়া গড়ে ওঠা রুখতে খাওয়ানোর পর আপনি আপনার সন্তানের মাড়িগুলি মুছে দিতে পারেন।

আপনি কি নারকেল তেল দিয়ে আপনার ছোট্টটির দাঁত ব্রাশ করতে পারেন?

আপনার ছোট্ট সোনাটির দাঁত ব্রাশ করার জন্য উন্নত মানের ফ্লুওরাইড টুথপেস্ট অথবা আপনার সন্তানের দন্ত চিকিৎসকের দ্বারা সুপারিশকৃত কোনও টুথপেস্ট ব্যবহার করাই হল সর্বোত্তম।চিকিৎসা বিশেষজ্ঞদের মতানুযায়ী,এক্ষেত্রে এমন কোনও বৈধ প্রমাণ নেই যা দাঁতের জন্য উত্তম হিসেবে নারকেল তেলকে প্রতিপন্ন করে।

শিশুদের আবার দাঁতের ক্ষয় এবং দাঁতের গহ্বর হওয়ার মত ঝুঁকিতে থাকার সম্ভাবনাও প্রবল থাকে।যথাযথভাবে শিশুর দাঁত পরিষ্কার করা যায় কীভাবে তা জানা থাকলে ভবিষ্যতে যেকোনও গুরুতর দাঁতের সমস্যা রোধ করার ক্ষেত্রে আপনার পক্ষে সহায়ক হয়ে উঠতে পারে।আপনার সন্তা্নের অন্তত ছয় কিম্বা সাত বছর বয়স না হওয়া পর্যন্ত তাকে দাঁত ব্রাশ করার ক্ষেত্রে সমানে আপনার সহযোগীতা করে যাওয়া হল তার সেই কার্যটিকে সঠিকভাবে সম্পাদন করার বিষয়টিকে নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে গ্রহণ করা সবচেয়ে ভাল পদক্ষেপ।এর কারণ হল যদি দুধের দাঁতে গহ্বর এবং ক্ষয় দেখা দেয় অথবা কোনও সংক্রমণের দ্বারা মাড়ি ক্ষতিগ্রস্থ হয়,তবে তা পরবর্তীতে স্থায়ী দাঁতগুলিতেও প্রভাব ফেলতে পারে।শুরু থেকে সঠিক ভাবে বাচ্চার দাঁত ব্রাশ করালে তা এই সমস্যাগুলিকে প্রতিরোধ করতে পারে।