বাচ্চাদের কি বালিশ ব্যবহার করে ঘুমানো উচিত?

বাচ্চাদের কি বালিশ ব্যবহার করে ঘুমানো উচিত?

আপনি নরম এবং আরামদায়ক বালিশের উপর শুয়ে থাকা অবস্থায়, আপনার সন্তানকেও একটি বালিশ দিয়ে তাকেও সেই ধরনের আরাম দেওয়ার কথা মনে হতে পারে। একথা অস্বীকার করার নয় যে বালিশ অনেক আরাম দেয়, ঘুমানোর ভঙ্গি উন্নত করে এবং আরও ভালভাবে ঘুমাতে সাহায্য করে। তবে, আপনার ছোট্ট আনন্দের টুকরোর জন্য বালিশ ব্যবহার করা বুদ্ধিমানের কাজ না হতে পারে। এর কারণ হল বালিশ ব্যবহার করা আপনার ছোটটির জন্য বিপজ্জনক হতে পারে। তাই, আপনি যদি ভাবছেন যে আপনার শিশুর একটি বালিশ দরকার কিনা বা সেটি ছাড়া সে চালিয়ে নিতে পারে কিনা এবং এই ধরনের বিভিন্ন প্রশ্নগুলি, তাহলে আমরা আপনাকে নিম্নলিখিত নিবন্ধটি পড়ার সুপারিশ করছি। এখানে, আপনার ছোট্টটির জন্য বালিশ কখন এবং কীভাবে ব্যবহার করবেন সে বিষয়ে আমরা আপনার যা জানা প্রয়োজন তা আমরা আলোচনা করব।

aniview

একটি নবজাতক শিশুর কি বালিশ ব্যবহার করা উচিত?

আপনার বাচ্চার আরাম আপনার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, এবং বাবা-মা হিসাবে, আপনার সন্তানকে আরামদায়ক ভাবে রাখার জন্য আপনি যথাসাধ্য করতে পারেন। আপনি যদি প্রথমবার বাবা-মা হয়ে থাকেন এবং আপনার নবজাতক একটি বালিশ ব্যবহার করতে পারে কিনা ভাবছেন, তবে আমাদের সুপারিশ হল যে আপনাকে এটি এড়িয়ে চলতে হবে। এটি দেখা গেছে যে, যে কোনো ধরনের নরম বিছানার উপাদান বাচ্চাদের দমবন্ধ হওয়া বা বিষম খাওয়ার বিপদ ঘটাতে পারে। সুতরাং, কোন বয়সের শিশু বালিশ নিয়ে ঘুমাতে শুরু করতে পারে এই প্রশ্নটি যখন করা হয়, আমরা পরামর্শ দিই যে দুই বছরের পরে যেকোনো সময় আপনি আপনার ছোট্টটির জন্য বালিশ ব্যবহার শুরু করতে পারেন। তবে, এই বয়সের পরেও যদি আপনার মনে হয় যে আপনার বাচ্চা বালিশ ছাড়াই আরামদায়ক ভাবে ঘুমাতে পারে, তাহলে আপনি আপনার বাচ্চার জন্য বালিশ ব্যবহার না করতে পারেন।

বাচ্চাদের জন্য বালিশ কেন সুপারিশ করা হয় না?

বাবা-মা হিসাবে, আপনি আশ্চর্য হতে পারেন কেন বালিশ আপনার শিশুর জন্য সুপারিশ করা হয় না। কারণ আপনার শিশুর জন্মের পর প্রথম মাসগুলিতে তার ঘাড় এবং মাথার সঠিক নিয়ন্ত্রণের অভাব থাকে। এর মানে হল যে আপনার বাচ্চার নাক বা মুখ যদি একটি বালিশ বা অন্য কোনো নরম বিছানার উপাদান দ্বারা আবৃত হয়ে যায়, সেক্ষেত্রে সে হয়তো তার মাথা সরাতে সক্ষম হবে না। এটি অল্পবয়সী শিশুদের ক্ষেত্রে দমবন্ধ হওয়া এবং বিষম খাওয়ার বিপদ ঘটাতে পারে।

বাচ্চাদের জন্য বালিশ কেন সুপারিশ করা হয় না?

এর পাশাপাশি, অল্পবয়সী শিশুরা পালক, ধুলো পোকা ইত্যাদি বিভিন্ন অ্যালার্জি উপকরণের প্রতি সংবেদনশীল, এবং বালিশের উপর ঘুমানোর ফলে আপনার শিশুর বিভিন্ন ধরনের এলার্জি প্রতিক্রিয়া হতে পারে। অতএব, বেশিরভাগ শিশু বিশেষজ্ঞরা কেবল আপনার শিশুকে সমতল এবং দৃঢ় পৃষ্ঠের উপরে শুইয়ে রাখতেই সুপারিশ করেন না, সাথে তারা আপনাকে অতিরিক্ত বড় কম্বল, বিছানা বাম্পার এবং বালিশ ব্যবহার না করতেও পরামর্শ দেন। আপনার শিশুকে ঘুমাতে সাহায্য করার আদর্শ উপায় হল আপনার শিশুকে কোনো বালিশ ছাড়াই চিত করিয়ে শোওয়ানো।

কিভাবে একটি শিশুর জন্য সঠিক বালিশ চয়ন করবেন?

বালিশ বিষম খাওয়ার ঝুঁকি সৃষ্টি করে এবং শিশুদের এসআইডিএস বা হঠাৎ শিশু মৃত্যু সিন্ড্রোমের অন্যতম কারণ। অতএব, বাচ্চাদের জন্য বালিশ এড়িয়ে যাওয়া উচিত যতক্ষন পর্যন্ত না স্বাস্থ্যের জটিলতা বা অন্যান্য কারণে আপনার ডাক্তার বালিশ ব্যবহার করতে পরামর্শ দেন। উপরে আলোচনা করা হয়েছে যে, বাচ্চাদের দুই বছর বয়সের পরে বালিশ দেওয়া যেতে পারে, কিন্তু সত্য হল এই যে দুই বছরেরও পরেও, কোনো প্রয়োজন নেই। যেহেতু পরিবারের প্রত্যেকে বালিশ ব্যবহার করেন, সেই কারণেই শুধু আপনি হয়তো আপনার বাচ্চার জন্য বালিশ ব্যবহার করছেন, অথবা আপনি আপনার বাচ্চার বিছানা আপনার মতো দেখতে চান, যে কারণে আপনি আপনার শিশুর জন্য একটি বালিশ আনতেও পারেন। তবে, কিছু কিছু জিনিস রয়েছে যা আপনার বাচ্চার জন্য একটি বালিশ বেছে নেওয়ার আগে আপনার মনে রাখা উচিত। এখানে আপনার বাচ্চার জন্য সঠিক বালিশ নির্বাচন করতে সহায়তা করার পরামর্শ দেওয়া হল:

  • আমরা আপনাকে আপনার শিশুর জন্য একটি সমতল এবং দৃঢ় বালিশ চয়ন করার সুপারিশ করি; তবে, আপনার বড় সন্তানকে, আপনার ব্যবহার করা বালিশের মতো একটি বালিশ দিতে পারেন।
  • আপনার বাচ্চা যদি এখনও ক্রিবে ঘুমায়, তবে আপনার বাচ্চার ক্রিবের মধ্যে পুরোপুরি এঁটে যায় এমন ছোট বা আঁটসাঁট বালিশ নেওয়া বুদ্ধির কাজ হবে।
  • আমরা আপনার শিশুর বালিশের জন্য বিশুদ্ধ সুতীর কভার ব্যবহার করার সুপারিশ করি যাতে সেগুলি আপনার শিশুর জন্য নরম এবং আরামদায়ক হয়। এছাড়াও, হালকা রঙের কভার বেছে নিন, যাতে সেগুলি নোংরা হয়ে গেলেই আপনি তাদের পরিবর্তন করতে পারেন।

কিভাবে একটি শিশুর জন্য সঠিক বালিশ চয়ন করবেন?

  • আপনার সন্তানের জন্য যা সেরা তা-ই আপনি চান এতে কোনো সন্দেহ নেই, কিন্তু বালিশের ক্ষেত্রে একটি সাদামাটা এবং মৌলিক বালিশ ব্যবহার করুন। সুগন্ধি ভরা বালিশের দিকে নজর দেবেন না এবং সেগুলি কিনবেন না, কারণ শিশুরা খুব এলার্জি প্রবণ হয়।
  • ক্ষুদ্র গুটিকা দিয়ে ভর্তি বালিশ ব্যবহার করবেন না। কারণ যদি বালিশটি ছিঁড়ে যায়, গুটিকাগুলি বেরিয়ে আসতে পারে এবং আপনার শিশু সেগুলিকে গিলে ফেলতে পারে। এর থেকে বিষম খাওয়া এবং অন্যান্য জটিলতা সৃষ্টি হতে পারে।
  • আপনার শিশুর জন্য কোনো পালকযুক্ত বালিশ ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন। যদিও এই বালিশ খুব নরম এবং আরামদায়ক, এটি শিশুদের এলার্জি প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করতে পারে।

আপনি একটি উপযুক্ত বালিশ পেলে, সেটিকে আপনার শিশুর জন্য ব্যবহার করতে পারেন। অনেক সময়, বাচ্চারা বালিশের উপর ঘুমাতে চায় না। উপরে বর্ণিত হয়েছে যে, শিশুদের জন্য বালিশের কোনো প্রয়োজন নেই, এবং যদি আপনার বাচ্চা বালিশ ব্যবহার করতে পছন্দ না করে, তবে তাকে ব্যবহার করার জন্য জোর করার দরকার নেই। আপনার বাচ্চার আচরণ থেকে বোঝা জরুরি যে সে বালিশ ব্যবহার করতে স্বচ্ছন্দ কিনা। তবে, বালিশ ব্যবহার করা কিছু স্বাস্থ্যের সমস্যার ক্ষেত্রে সহায়ক হতে পারে এবং সেটা হল যখন আপনার সন্তান রিফ্লাক্স, কানের সংক্রমণ, দীর্ঘস্থায়ী সর্দি, এবং এই ধরনের অন্যান্য অবস্থা থেকে ভোগে – তবে নিশ্চিত করুন যে তার শিশু বিশেষজ্ঞ নিশ্চিত করেছেন যে সে এই বয়সে একটি বালিশ ব্যবহার করতে পারে। আপনার বাচ্চার জন্য বালিশ ব্যবহারের সঠিক বয়স এবং সঠিক ধরনের বালিশ কী হতে পারে তা জানতে আপনার ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করুন।