গর্ভাবস্থায় দাদ – লক্ষণ, প্রভাব এবং প্রতিকার

গর্ভাবস্থায় দাদ

‘দাদ’ বা ‘রিংওয়ার্ম’ শব্দটি বিভ্রান্তিকর হতে পারে কারণ লোকেরা দাদকে একটি কৃমি সংক্রমণ বলে ভাবতে পারেন। তবে দাদ প্রকৃতপক্ষে, একটি ছত্রাক সংক্রমণ যেটি ছত্রাকের দ্বারা হয়ে থাকে। দাদ হল মাথার ত্বক বা দেহের ত্বকের একটি অত্যন্ত সংক্রামক বা ছোঁয়াচে সংক্রমণ যা সাধারণত গর্ভাবস্থায় দেখা দিতে পারে।

aniview

চিকিৎসার ভাষায় ‘দাদ’ বা ‘রিংওয়ার্ম’ কে টিনিয়া বলা হয়। দাদ সংক্রমণটি বিভিন্ন ধরণের হতে পারে যা নির্ভর করে যে এটি শরীরের কোন অংশটিকে এটি প্রভাবিত করে যেমন টিনিয়া ক্যাপাইটিস (মাথার ত্বক), টিনিয়া কর্পোরিস (দেহ), টিনিয়া পেডিস (পায়ের পাতা), টিনিয়া ক্রুরিস (কুঁচকি), টিনিয়া ম্যানাস (হাত)।

দাদেরলক্ষণগুলি

দাদরোগের সংক্রমণের কয়েকটি লক্ষণ হতে পারে:

  • চামড়াটি প্রদাহের সহিত গোলাকার দাগায়িত হয়ে ফুলে উঠতে পারে যা একটি পৃথক বলয় তৈরি করে।
  • কিছু ক্ষেত্রে, বলয়ের কেন্দ্রে থাকা ত্বক পরিষ্কার হতে পারে।
  • ত্বক ফোসকা যুক্ত বা খসখসে হয়ে যেতে পারে।
  • ত্বকেখুবচুলকানিঅনুভবহতেপারে।
  • যদি কোনও ক্ষেত্রে মাথার ত্বকে দাদরোগের সংক্রমণটি ঘটে থাকে ত্যবে সেক্ষেত্রে মাথার ত্বক থেকে চুলের গুচ্ছগুলি খসে পড়তে শুরু করে।

গর্ভাবস্থায় দাদের কী কী ঝুঁকি এবং প্রভাব রয়েছে?

গর্ভবতী মহিলাদের একটি সাধারণ উদ্বেগ হতে পারে যে ‘গর্ভাবস্থাকে কি দাদ প্রভাবিত করতে পারে?’ উত্তরটি হ’ল: বেশিরভাগ ক্ষেত্রে, গর্ভাবস্থায় দাদ নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে এমন সম্ভাবনা খুব কমআপনিমনেরাখতেপারেনএমনকয়েকটিবিষয়নিম্নেআলোচিতহলঃ

  • একজন গর্ভবতী মহিলা অন্য যে কোনও সুস্থ ব্যক্তির মতো দাদরোগের সংক্রমণে আক্রান্ত হওয়ার একই ঝুঁকিতে থাকেন কারণ ত্বকের সংক্রমণ সহজেই সংক্রামিত হয়।
  • গর্ভাবস্থায় দাদ অজাত শিশুর কোনও ক্ষতি না করতে পারে।
  • ত্বকের সংক্রমণের জন্য দায়ী ছত্রাকটি ত্বকের পৃষ্ঠে উপস্থিত মরা কোষগুলি থেকে খাবার খায় এবং ত্বকের গভীর স্তরগুলিতে আক্রমণ করতে পারে না।
  • খুব বিরল ক্ষেত্রে যদি ছত্রাকটি প্রবেশের ব্যবস্থা করে ফেলে, কিন্তু শ্লেষ্মা ঝিল্লিতে বেঁচে থাকতে পারে না।

গর্ভাবস্থায় দাদের চিকিৎসা

দাদরোগের সংক্রমণের চিকিৎসা করা সাধারণত সহজ তবে গর্ভাবস্থায়, মৌখিক ওষুধ খাওয়ার সময় সাবধানতা অবলম্বন করা গুরুত্বপূর্ণ কারণ কিছু ওষুধ শিশুর সুস্বাস্থ্যের উপর বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে। তাই গর্ভবতী থাকার সময় দাদরোগে আক্রান্ত হলে সর্বদা একজন চিকিৎসকের কাছে যান। সংক্রমণটি নিরাময়ের জন্য ডাক্তার ট্রায়ামসিনোলোন এবং ন্যাস্টাটিন সমন্বিত টপিক্যাল ক্রিমের পরামর্শ দিতে পারেন। প্রতিদিন দুবার বা চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী ক্রিম প্রয়োগ করা অস্বস্তি থেকে মুক্তি দিতে পারে।

দাদের ঘরোয়া প্রতিকার

কিছু ঘরোয়া প্রতিকার যা দাদের চিকিৎসায় সহায়তা করতে পারে সেগুলি হ’ল:

  • হলুদ

হলুদে কারকিউমিন রয়েছে যা অ্যান্টিফাঙ্গাল এবং অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি বৈশিষ্ট্যযুক্ত। সংক্রামিত ত্বকে হলুদ ছিটিয়ে দিলে দাদের বৃদ্ধিকে সীমাবদ্ধ করতে সাহায্য করে এবং নিরাময়ের গতি বাড়ায়।

হলুদ

  • আদা চা

আদা চাতেও অ্যান্টিফাঙ্গাল বৈশিষ্ট্য রয়েছে। আদা চা পান করা আপনাকে দ্রুত নিরাময়ে সহায়তা করতে পারে। আক্রান্ত জায়গায় আদা চাবুলিয়েদিলেঅস্বস্তিথেকেমুক্তিদিতেসহায়তাকরতেপারে।

আদা চা

  • রসুন

রসুন এটির নিরাময়কারী গুণের জন্য জনপ্রিয় কারণ এতে আজোয়িন রয়েছে। সংক্রামিত ত্বকে রসুনের কয়েকটি কোয়া থেঁতো করে লাগালে নিরাময় প্রক্রিয়াটিকে ত্বরান্বিত করতে পারে। রসুনের তেলও ব্যবহার করতে পারেন।

রসুন

  • নারকেল তেল

আক্রান্ত ত্বকে কিছু নারকেল তেল লাগালে আপনার দুর্দশাগ্রস্ত ত্বককে প্রশান্ত করতে সহায়ক হতে পারে কারণ এটি অ্যান্টিফাঙ্গাল এবং মাইক্রোবিয়াল বৈশিষ্ট্যযুক্ত।

নারকেল তেল

  • আলু

প্রভাবিতত্বকেআলুরটুকরোরাখাদাদসংক্রমণনিরাময়েকার্যকরপ্রমাণিতহতেপারে।

আলু

  • অ্যাপেল সীডার ভিনিগার

অযাপেল সীডার ভিনিগার এর অ্যান্টিফাঙ্গাল বৈশিষ্ট্য থাকায় দাদ সংক্রমণের লক্ষণগুলি হ্রাস করতে কার্যকর নিরাময় হতে পারে।

  • ঘৃতকুমারী (অ্যালো ভেরা)

অ্যালোভেরাছত্রাকেরসংক্রমণেরএকটিনিরাপদএবংপ্রাকৃতিকপ্রতিকার।আক্রান্তত্বকেঅ্যালোভেরারজেলপ্রতিদিনকয়েকবারছড়িয়েদেওয়াপ্রদাহএবংচুলকানিথেকেস্বস্তিআনতেপারে।

ঘৃতকুমারী (অ্যালো ভেরা)

গর্ভবতী থাকাকালীন দাদ কীভাবে প্রতিরোধ করবেন?

গর্ভবতী হওয়ার সময় ভাল স্বাস্থ্যবিধি বজায় রাখা দাদ প্রতিরোধে সহায়তা করতে পারে। পরিষ্কার জল এবং একটি জীবাণুনাশক ক্লিনজার দ্বারা সংক্রামিত ত্বক ধুলে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া সীমাবদ্ধ করতে সহায়তা করতে পারে। আস্তে আস্তে চাপড় দিয়ে ত্বক শুকিয়ে নিন। পোশাক, তোয়ালে, চিরুনি এবং অন্যান্য ব্যক্তিগত জিনিস অন্যের সাথে ভাগ করে নেওয়া এই সময় বোকামির লক্ষণ। গর্ভবতী মহিলারা কোনো আক্রান্ত ব্যক্তির সাথে শারীরিক সংস্পর্শে আসা এড়ানোর চেষ্টা করতে পারেন। এছাড়াও দাদ সংক্রমণ কোনও আক্রান্ত প্রাণী বা পাবলিক জায়গা থেকেও গর্ভবতী মহিলার দেহে ছড়িয়ে যেতে পারে যেমন সুইমিং পুল বা লকার রুম কারণ আর্দ্র জায়গায় ছত্রাক দ্রুত বৃদ্ধি পেতে থাকে।। তাই গর্ভবতী থাকার সময় এই জাতীয় স্থানগুলি এড়ানো ভাল।

ছত্রাকের সংক্রমণ সাধারণত স্ব-চিকিৎসাযোগ্য। তবে, যদি গর্ভবতী মহিলার দাদ সংক্রমণ হয় তবে এই অবস্থার জন্য চিকিৎসা নির্ণয় করা বুদ্ধিমানের কাজ। গর্ভাবস্থায় জ্বালা এবং অস্বস্তি সৃষ্টি করা ব্যতীত, দাদ গর্ভাবস্থায় অন্য কোনও নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে না।