শিশুদের জন্য কুইনোয়া বা কাওন বা কাউন চাল – স্বাস্থ্যকারী উপকারিতাসমূহ এবং রেসিপিগুলি

শিশুদের জন্য কুইনোয়া বা কাওন বা কাউন চাল

একটি শিশুর জন্ম দেওয়া হল জীবনের সমস্ত ভাল কিছুগুলির একটি সুচনা।শিশুরা তাদের মা-বাবার দ্বারা প্রয়োজনীয় ভালোবাসা এবং লালন পালনের সহিত জন্মগ্রহণ করে থাকে।সুতরাং ভাল খাদ্য,বস্ত্র,বাসস্থান ইত্যাদির মত সকল সম্ভাব্য সুখ স্বাচ্ছন্দ্যগুলি সন্তানকে দেওয়া মা-বাবারই দায়িত্ব।নবজাত শিশুদের খাওয়ানোর জন্য সবচেয়ে ভাল হল মায়ের দুধ।ছয় মাস পর,সাধারণ খাবারগুলিকে পিউরি এবং সহজে হজমযোগ্য এরকম খাদ্য পদ রূপে ধীরে ধীরে তার সাথে পরিচয় করানো যেতে পারে।এক্ষেত্রে প্রচুর পুষ্টিকর উপাদানে পরিপূর্ণ একটি বিস্ময়কর বিকল্প হল কুইনোয়া বা কাউন বা কাওন চাল।

aniview

কুইনোয়া হল হাজার হাজার বছর ধরে দক্ষিণ আমেরিকায় চাষ হয়ে আসা একধরনের বীজ।এটিকে উচ্চারিত করা হয় “কীন-ওয়াহ” রূপে।ইতিহাস বলে যে,ইনকারা এটির নাম কুইনোয়া দিয়েছিল কারণ তারা বিশ্বাস করত যে এগুলি তাদের ভাল স্বাস্থ্য এবং বহু বছরের দীর্ঘ জীবন দিতে পারে।যাইহোক,তবে তারা বিশ্বাস করত যে কুইনোয়াগুলি হল এক ধরনের দানা শস্য এবং তারা এটি জানত না যে এগুলি হল আসলে এক ধরনের বীজ।

কখন আপনি আপনার বাচ্চার সাথে কুইনোয়ার পরিচয় করাতে পারেন?

বেশীরভাগ ক্ষেত্রে,ডাক্তা্রা 8(আট) মাস বা তার বেশি বয়সী বাচ্চাদের জন্য কুইনোয়া বা কাউন চালের সুপারিশ করে থাকেন।তবে কিছু মা-বাবা আবার তাদের বাচ্চাদের 8 মাস পূর্ণ হওয়ার পূর্বেই তাদের সেগুলি খাওয়ানো শুরু করে দেন। আপনার বাচ্চাকে কখন এটি খাওয়ানো শুরু করবেন সে সম্পর্কে আপনার স্বাস্থ্যসেবা সরবরাহকারীর সাথে পরামর্শ করুন।যখন আপনি প্রথমবার তাদের এই কাওন চালটি পরিবেশন করবেন,তাদেরকে এটি খুব অল্প পরিমাণে দেওয়া নিশ্চিত করুন।প্রথম বারেই কখনই তাদের খুব বেশী দেবেন না যেহেতু যেকোনও নতুন খাদ্য উপাদানের সহিত মানিয়ে নিতে দেহের বেশ কিছুটা সময়ের প্রয়োজন হয়।

কুইনোয়া বা কাওন চালের পুষ্টি মান

কুইনোয়া হল একটি শক্তিশালী সমৃদ্ধ খাদ্য যেটিকে শিশুদেরকে বিভিন্ন উপায়ে দেওয়া যেতে পারে।এটি পুষ্টিগত দিক থেকে একটি পরিপূর্ণ খাদ্য যা প্রোটিন,ভিটামিন এবং খনিজে সমৃদ্ধ।এছাড়াও কাউন চালের মধ্যে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টগুলি এবং ভাল পরিমাণে ফাইবার জাতীয় উপাদান যেগুলি হল শিশুদের জন্য কোষ্ঠকাঠিণ্যকে এড়িয়ে চলার ক্ষেত্রে একটি প্রাকৃতিক রেচক।এমন বহু পুষ্টিকর উপাদান যেগুলি কুইনোয়া বা কাওন চালের মধ্যে পাওয়া যায় সেগুলি হল নিম্নরূপঃ

100গ্রাম রান্না করা কুইনোয়া না কাওন চাল পরিমাণ
ক্যালোরি 120
জল 72%
প্রোটিন 4.4 g
কার্বোহাইড্রেট 21.3 g
শর্করা 0.9 g
ফাইবার বা তন্তু 2.8 g
ফ্যাট 1.9 g
স্যাচুরাটেড বা সম্পৃক্ততা 0.23 g

সূত্রঃ  https://www.healthline.com/nutrition/foods/quinoa#section1

শিশুদের জন্য কুইনোয়া হল একটি শক্তিশালী সুপার খাদ্য এবং এটি তাদের সঠিক বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজনীয় সবকিছুর যোগান দিয়ে থাকে।এর বহু অত্যাশ্চার্যজনক উপকারিতা আছে এবং তার ফলে এটি ছোট্ট সোনাদের জন্য একটি স্বাস্থ্যকর খাদ্য হিসেবে বিবেচিত।

ছোট শিশুদের জন্য কুইনোয়ার বিস্ময়কর স্বাস্থ্যকর উপকারিতাগুলি

কাওন চাল বা কুইনোয়ার স্বাস্থ্যকর উপকারিতাগুলি নিম্নরূপঃ

১. অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট

চালে রয়েছে উচ্চ মাত্রায় অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা মানব দেহের জন্য প্রয়োজনীয়।

২. নিম্ন মাত্রায় কোলেস্টেরল এবং উচ্চ মাত্রায় প্রোটিন

পুষ্টিবিদরা শিশুদের জন্য কাওন চালের সুপারিশ করে থাকেন কারণ অন্যান্য প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবারের তুলনায় এতে খুব কম মাত্রায় কোলেস্টেরল থাকে।

৩. আঁশ বা তন্তুর মাত্রা বেশি

মায়েরা এটিকে সুপারিশ করে থাকেন কারণ এটি হজম করা সহজ যা ফুলে যাওয়া, কোষ্ঠকাঠিন্য ইত্যাদি হ্রাস করে।কুইনোয়ায় থাকা ডায়েটরি ফাইবার বা খাদ্যগত তন্তুর কারণে এটি অন্ত্রের গতিবিধিতেও ভালভাবে সহায়তা করে থাকে।

৪. উচ্চ মাত্রায় প্রোটিন

উচ্চ মাত্রার প্রোটিন শরীরের ভরের ক্ষেত্রে সহায়তা করে।

৫. অ্যামাইনো অ্যাসিড

কাওন চালের অ্যামাইনো অ্যাসডের মাত্রা চুলের বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।

৬. রাইবোফ্লাভিন

কুইনোয়া দৈহিক কলাগুলিতে সংযোগ স্থাপনে সহায়তা করে যা আপনার ছোট্টটির ত্বককে পুনরুজ্জীবিত করতে সহায়তা করে থাকে।

আপনার ছোট্ট সোনাটিকে কাওন চাল দেওয়ার সময় যে সতর্কতাগুলি গ্রহণ করতে হবে

  • আপনি যে কাওন চালটিকে ব্যবহার করবেন সেগুলির তুষের ন্যায় বহিরাবরণগুলি উন্মোচন হয়ে থাকা গুরুত্বপূর্ণ।আপনি কাওন চালের যে প্যাকেটগুলি ক্রয় করেন সেগুলির বেশিরভাগগুলিতেই তুষের ন্যায় বহিরাবরণগুলি উন্মোচন হয়ে থাকা কুইনোয়া বা কাওন চালই থাকা উচিত।তবুও সময় বিশেষে আপনার সতর্ক হওয়া উচিত কারণ কাওন চালগুলির তুষের ন্যায় বহিরাবরণগুলি যদি উন্মোচন করা হয়ে না থাকে তবে সেগুলি খাদ্য উপযোগী হতে পারে না।
  • কাওন চালের তুষের ন্যায় আবরণগুলিতে থাকে স্যাপোনিন যা চালগুলিকে বেশ তিক্ত করে তোলে।কাওন চালগুলিকে ক্রয় করার পর সেগুলির দ্বারা আপনার শিশুর জন্য খাদ্য প্রস্তুতের পূর্বে সেগুলিকে জলের ধারায় ধুয়ে নিয়ে বেশ কিছু সময়ের জন্য ভিজিয়ে রাখুন।ভালভাবে ধোয়ার মাধ্যমে এর সকল তিক্ততা দূর হয়ে যাবে।
  • আপনার সন্তানের জন্য যখন এই কাওন চালটিকে রান্না করবেন সেটিতে লবণ যোগ করবেন না।ডাক্তাররা বলে থাকেন যে আপনার ছোট্ট সোনার জন্য লবণের কোনও প্রয়োজন নেই।
  • কাওন চাল থেকে শিশুদের মধ্যে যদি কোনও অ্যালার্জি হয়ে থাকে তা আপনাকে লক্ষ্য রাখতে হবে।অন্যান্য বীজের মতই কিছু মানুষের মধ্যে কুইনোয়া অ্যালার্জি প্রতিক্রিয়ার কারণ হতে পারে।

একটি শিশুর জন্য কীভাবে কুইনোয়া বা কাওন চাল রান্না করবেন?

শিশুদের জন্য খুব যত্ন সহকারে কুইনোইয়া বা কাওন চাল রান্না করা উচিত।এই বীজের তিক্ত স্বাদের কারণে ব্যবহারের পূর্বে চালগুলি থেকে তার তুষের ন্যায় আবরণগুলিকে উন্মোচিত করে নেওয়া উচিত।বিভিন্ন উপায়ে আপনি আপনার ছোট্টটির জন্য এই চাল প্রস্তুত করতে পারেন।আপনার ছোট্ট ব্যক্তির পছন্দের উপর ভিত্তি করে এটিকে সুস্বাদু করে তোলা নিশ্চিত করুন।যদি তার একটি মিষ্টি দাঁত থাকে তবে আপনি এটির সাথে ফল যোগ করতে পারেন। আপনার ছোট্টটি যা খেতে পছন্দ করে সেই উপকরণগুলির সহিত রেসিপিগুলিতে ব্যক্তিগত রূপ দিন।

শিশুদের জন্য সুস্বাদু কুইনোয়া বা কাওন চালের রেসিপিসমূহ

আপনার বাচ্চার পছন্দের উপর ভিত্তি করে এবং তার সাথে আবার আপনার রান্নাঘরে থাকা উপকরণগুলির উপর নির্ভর করে বহু রেসিপিই সহজে প্রস্তুত করা যায়।এখানে বেশ কিছু ভীষণ সহজ রেসিপির উল্লেখ করা হল যেগুলি শিশুদের উপভোগ করার প্রবণতা থাকে।সেগুলিকে বের করুন।

১. কুইনোয়ার সাধারণ রেসিপি

আপনার যা প্রয়োজন

  • কুইনোয়া বা কাওন চাল
  • জল

কুইনোয়ার সাধারণ রেসিপি

কীভাবে প্রস্তুত করবেন

  • জলের ধারায় কুইনোয়া বা কাওন চালগুলিকে পরিষ্কার করে ধুয়ে নিন
  • 2 ঘন্টার জন্য জলের মধ্যে ভিজিয়ে রাখুন
  • 30 মিনিটের জন্য কাওন চালগুলিকে সেদ্ধ করুন
  • এবার এটিকে ঠাণ্ডা হতে দিন
  • সেদ্ধ করা কাওন চালের ভাতকে জল দিয়ে ভালভাবে চটকে পিঁষে নিয়ে একটি পিউরি রূপে গড়ে তুলুন
  • এবার এটি পরিবেশনের জন্য সম্পূর্ণ প্রস্তুত।

২. সবজি অথবা মাংসের সহিত কুইনোয়া বা কাউন চালের রেসিপি

আপনার যা প্রয়োজন

  • কাউন চাল বা কুইনোয়া
  • জল
  • টমেটো,আলু,গাজরের মত যেকনও সবজি এবং এমনকি মাংসও

সবজি অথবা মাংসের সহিত কুইনোয়া বা কাউন চালের রেসিপিকীভাবে প্রস্তুত করবেন

  • জলের ধারায় কুইনোয়া বা কাউন চালগুলিকে পরিষ্কার করে ধুয়ে নিন
  • 2 ঘন্টার জন্য জলের মধ্যে ভিজিয়ে রাখুন
  • 30 মিনিটের জন্য কাউন চালগুলিকে সেদ্ধ করুন
  • এবার এটিকে ঠাণ্ডা হতে দিন
  • যেকোনও সবজি/মাংসকে সেদ্ধ করে নিন
  • রান্না করা কাউন চালের ভাত,জল এবং সবজি অথবা মাংস সব একসাথে একটি মিক্সচার গ্রাইন্ডারের মধ্যে ভাল করে মিশ্রিত করে একটি পিউরি হিসেবে তৈরী করে নিন।
  • এবার এটি পরিবেশনের জন্য সম্পূর্ণ প্রস্তুত।

৩. কুইনোয়ার পোরিজ বা মণ্ড

আপনার যা প্রয়োজন

  • কুইনোয়া বা কাউন চালের গুঁড়ি(1/4 কাপ)
  • জল-1-2 কাপ

কুইনোয়ার পোরিজ বা মণ্ডকীভাবে প্রস্তুত করবেন

  • এক কাপ জলের মধ্যে কাউন চালের গুঁড়িটিকে যোগ করুন
  • এবার এটিকে স্টোভের উপরে বসান এবং রান্না করার সময় এটিকে সমানে ভালভাবে ফ্যাটাতে থাকুন যাতে এর মধ্যে কোনও রকম দলা না থেকে থাকে।
  • আপনার সন্তানের উপযোগী সঠিক ঘনত্ব একবার পেয়ে গেলেই স্টোভটিকে নিভিয়ে দিন।
  • আপনি কুইনোয়া বা কাউন চালের পোরিজ বা মণ্ডটিকে আরও সুস্বাদু করে তুলতে এটির সাথে কিছু ফল মিশাতে পারেন।

৪. কুইনোয়া এবং কড়াইশুঁটি

আপনার যা প্রয়োজন

  • রান্না করা কুইনোয়া বা কাওন চালের ভাত
  • মুরগি অথবা সবজি
  • কড়াইশুঁটি

কুইনোয়া এবং কড়াইশুঁটিকীভাবে প্রস্তুত করবেন

  • একটি সসপ্যানের মধ্যে এক এক করে সকল উপকরণগুলিকে যোগ করে সেগুলিকে ফুটিয়ে সেদ্ধ করুন
  • গ্যাসের আঁচটিকে কিছু সময়ের জন্য কমিয়ে রাখুন
  • এটিকে খুব বেশি ঘন করে তৈরী করবেন না।

৫. কুইনোয়া ফ্রুটি ফিস্ট

আপনার যা প্রয়োজন

  • কুইনোয়া বা কাউন চাল-1/4 কাপ
  • জল-1/2 কাপ
  • কিশমিশ-বড় এক চামচ
  • চটকানো কলা-1/2
  • সূক্ষ্ম ঘনকাকারে কাটা আপেল
  • দারুচিনি

কুইনোয়া ফ্রুটি ফিস্টকীভাবে প্রস্তুত করবেন

  • একটা সসপ্যানের মধ্যে কিছুটা জল নিয়ে ফুটান
  • এর সাথে কাউন চাল যোগ করে ভালভাবে নেড়ে নিন
  • মিশ্রণটিকে ফুটিয়ে নিন
  • দুই মিনিট পর গ্যাসের আঁচ কমিয়ে দিন
  • এখন এর সাথে কিশমিশ এবং আপেলের টুকরোগুলিকে যোগ করে আরও কয়েক মিনিটের জন্য কম আঁচে বসিয়ে রাখুন
  • যতক্ষণ না জলটি শুষে যায় আঁচ কম করেই রাখুন
  • এবার এর সাথে চটকানো কলাটিকেও যোগ করুন
  • সুগন্ধের জন্য এর সাথে এক চিঁমটে দারুচিনি গুঁড়ো যোগ করুন
  • আপনি এটিকে একটি পিউরি রূপে তৈরী করে পরিবেশন করতে পারেন।

আরও এমন অনেক রেসিপি আছে যেগুলি আপনি ইন্টারনেটে খুঁজে পাবেন কিন্তু সেগুলি আপনার সন্তানের জন্য উপযোগী নাও হতে পারে।সুতরাং সেই সকল রেসিপিগুলির দিকেই নজর রাখুন যেগুলি শুধুমাত্র শিশুদের জন্যই বিশেষভাবে অভিপ্রেত।

মনে রাখার কিছু বিষয়

  • এমন কিছু জিনিস রয়েছে যেগুলি আপনার বাচ্চার প্রয়োজন এখনই নেই।লবণ এবং অতিরিক্ত পরিমাণে চিনি পরিহার নিশ্চিত করুন।বাচ্চার বয়স অনুপাতে কোনও কৃত্রিম মিষ্টিজাত জিনিস আপনার সন্তানের খাদ্যের সহিত মিশ্রিত করার কোনও প্রয়োজন নেই যেহেতু এটি খুব একটা স্বাস্থ্যকর নয়।
  • প্রতিদিন এক জিনিস খেয়ে খেয়ে শিশুরা মাঝেমধ্যে বিরক্ত হয়ে উঠতে পারে।প্রতি সপ্তাহে আপনি নতুন নতুন বিভিন্ন ধরণের রেসিপি প্রস্তুত করার চেষ্টা করতে পারেন যাতে একটা সময়ের পর আপনার বাচ্চা সেই খাবারের প্রতি এক ঘেয়ে না হয়ে ওঠে।কুইনোয়া বা কাউন চালের সবচেয়ে ভাল জিনিসটি হল এই যে আপনার যেকোনও একটি রেসিপিই অনুসরণ করার প্রয়োজন পড়ে না।যেটা করলে আপনার বাচ্চার জন্য সেরা হবে তার ভিত্তিতে আপনি সতর্ক থাকতে পারেন।
  • এটিকে চেহারায় আকর্ষণীয় করে তুলুন।পোরিজ বা মণ্ডের চেহারাটাই একটা সময়ে আপনার ছোট্ট ব্যক্তিটিকে এটির প্রতি বেশ বিরক্ত করে তুলবে।এটির স্বাদ ভাল হওয়া সত্ত্বেও সে স্বাভাবিক ভাবেই হয়ত এটিকে খেতে চাইবে না।সুতরাং একটা সুন্দর বাটিতে করে বেশ কিছু ফলের সাথে এটিকে সুন্দরভাবে সাজিয়ে বেশ আকর্ষণীয় করে আপনার আদরের সোনাটিকে পরিবেশন করুন।

আপনি হয়ত ভাবতে পারেন-কুইনোয়া বা কাউন বা কাওন চালগুলি কি শিশুদের জন্য ভাল?কাউন চাল বা কুইনোয়ার সকল উপকারিতাগুলির সাথে সাথে,এটি নিশ্চিতভাবেই আপনার সন্তানের জন্য উপকারী।এটি একটি স্বাস্থ্যকর খাদ্য উপাদান,এবং আপনার পরিবারের ছোট্ট সদস্যটি খুশি হবে যাতে সেইভাবেই আপনি এটিকে তৈরী করতে পারেন।