গর্ভাবস্থায় চা পান করা

গর্ভাবস্থায় চা পান করা

“এমন কোনও বৃহৎ অথবা গুরুতর সমস্যা নেই যা এক কাপ সুন্দর চায়ের দ্বারা হ্রাস করা যায় না”-বলেছিলেন বিখ্যাত দার্শনিক বার্নার্ড-পল হেরাক্স।

aniview

সুগন্ধযুক্ত এক কাপ উষ্ণ চা আপনাকে শিথিল হতে সহায়তা করার এবং আপনার চিত্তকে প্রফুল্ল করে তোলার একটি দুর্দান্ত উপায়।যখন আপনি অন্তঃসত্ত্বা তখন কোন পানীয় আপনি গ্রহণ করতে পারেন তার উপর আপনার কিছু বাধা নিষেধ থাকবে।বেশিরভাগ মহিলারা সচেতনভাবেই কফি থেকে দুরত্ব বজায় রাখেন এটিতে উচ্চ মাত্রায় ক্যাফিন থাকার কারণে।কিন্তু যখন এক কাপ আরামদায়ক চায়ের কথা আসে যা মর্নিং সিকিনেসকে সহজ করে তুলতে এবং আপনার মেজাজকে উন্নত করে তুলতে পারে তখন তা এই সকল সংরক্ষণগুলিকে এক পাশে সরিয়ে রাখে।বিশেষ করে ভেষজ চাগুলিতে বহুবিধ স্বাস্থ্যকর উপকারিতা থাকে এবং গর্ভাবস্থায় সেগুলি মানসিক চাপ এবং শারীরিক অস্বস্তিগুলিকে লাঘব করে সহজ করে তোলে।

গর্ভাবস্থায় চা পান করা কি নিরাপদ?

হ্যাঁ,এটি নিরাপদ বলেই বিবেচিত এবং এমনকি গর্ভাবস্থায় কিছু বিশেষ ধরনের চা পান করা বেশ উপকা্রীও বটে।চায়ের মধ্যে রয়েছে পলিফেনল যা আপনার হৃদপিণ্ডকে সুরক্ষিত রাখে।অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে ভরপুর এই চা আপনার অনাক্রম্যতা বৃদ্ধি করে এবং কিছু বিশেষ ধরণের ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি হ্রাস করে।তবে গর্ভবতী মহিলাদের অবশ্যই নিজেকে সংযত করতে হবে এবং এমন কিছু চায়ের থেকে দূরে সরে থাকতে হবে যেগুলি তাদের এই সময়ে গ্রহণ করা নিরাপদ না হতে পারে।

গর্ভাবস্থার সহিত আসা উদ্বেগ এবং মানসিক চাপের মোকাবিলায় গর্ভবতী মায়েদের জন্য ভেষজ চাগুলি হল একটি দুর্দান্ত বিকল্প।ভেষজ-নিমজ্জিত চায়ের জল দেহকে হাইড্রেট রাখার এক চমৎকার উপায়।যদিও গর্ভাবস্থায় বেশিরভাগ চা পান করাই নিরাপদ,তবে তার মধ্যে কিছু বর্জন করাই সবচেয়ে ভাল।এটি সুপারিশ করা হয় যে গর্ভাবস্থায় নতুন কিছু শুরু করার পূর্বে আপনি আপনার ডাক্তারবাবুর পরামর্শ নিয়ে নিন।

এক কাপ চায়ে ক্যাফিন পরিমাণটি কি?

গর্ভাবস্থায় ক্যাফিন খুবই উত্তেজক হতে পারে,এবং অধিকাংশ মহিলারাই এই সময় ক্যাফিনেটেড পানীয়গুলি এড়িয়ে চলেন।গর্ভাবস্থায় এক দিনে মোটামুটি 200 মিলিগ্রাম মত ক্যাফিন গ্রহণ করা আপনার পক্ষে নিরাপদ।

আপনার চায়ের কাপে থাকা ক্যাফিনের শতকরা পরিমাণটি এটি প্রস্তুত হওয়ার পদ্ধতি,জলের তাপমাত্রা,চা-পাতা ভিজিয়ে রাখার সময়কাল এবং পাতার আকারের ভিত্তিতে পরিবর্তিত হতে পারে। সাধারণ চা অথবা দুধ চা,হোয়াইট টি,গ্রীন টি এবং কালো বা ওলোং চা এর মতো এক কাপ অ-ভেষজ বিকল্পের মধ্যে প্রায় 40-50 মিলিগ্রাম মত ক্যাফিন থাকে।অন্যদিকে ভেষজ চায়ের মধ্যে প্রায় 0.4 মিলিগ্রাম মত ক্যাফিন থাকে যা সেগুলিকে গর্ভাবস্থায় ব্যবহারের একটি নিরাপদ বিকল্প হিসেবে বিবেচনার যোগ্য করে তোলে।

গর্ভাবস্থায় গ্রহণযোগ্য নিরাপদ চাগুলি

গর্ভাবস্থায় গ্রহণযোগ্য নিরাপদ চাগুলি

ভেষজ চাগুলি আবার তিসানস(ফরাসী ভাষায়) নামেও পরিচিত,বিভিন্ন গাছের ছাল,পাতা,বেরি,মূল,ফুল এবং বীজগুলিকে নির্দিষ্ট অনুপাতে জলের মধ্যে একত্রে ঢেলে এগুলি প্রস্তুত করা হয় যা পানকারীকে ঔষধি উপকারিতাগুলি সরবরাহ করে।এগুলি বিভিন্ন সংমিশ্রণে উপলভ্য।গর্ভাবস্থায় যে সকল চাগুলি নিরাপদ সেগুলি নিম্নরূপঃ

  • আদা চা হল মর্নিং সিকনেস মোকাবিলার একটি চমৎকার উপায়।এটি পেট ব্যথা থেকে স্বস্তি দেয়,গা গুলানো বমি বমি ভাব দূর করে এবং হজম শক্তি বৃদ্ধি করে।কয়েক কুঁচি আদার টুকরোকে গরম জলের মধ্যে ফুটিয়ে নিয়ে তার সাথে মধু যোগ করে সেটিকে গরম গরম পান করা গর্ভবতী মহিলার জন্য বেশ ভাল।আপনি আবার আদা দিয়ে দুধ চাও বানাতে পারেন।
  • মেন্থল চা বমি হওয়ার এবং গা গুলিয়ে বমি বমি ভাবের অনুভবটিতে স্বস্তি আনতে সহায়তা করে।এটি আবার পেটের পেশীগুলির শিথিলকরণে ও গ্যাস এবং স্ফীতিভাব হ্রাসের ক্ষেত্রেও সহায়তা করে থাকে।এই চা মর্নিং সিকনেসের জন্য দুর্দান্ত এবং আপনার মেজাজকে মুহূর্তের মধ্যে কিছুটা ভাল করে তুলতে পারে।
  • তৃতীয় ত্রৈমাসিকের পর থেকে লাল রাস্পবেরি পাতার চা পান করা প্রসবোত্তর রক্ত স্রাব প্রতিরোধে এবং প্রসবের সময় সঠিক সংকোচনের জন্য জরায়ুর পেশীগুলির টানে সহায়তা করে।এতে উচ্চ মাত্রায় ক্যালসিয়াম এবং ম্যাগনেসিয়াম থাকে।তবে দয়া করে মনে রাখবেন যে,এটি গর্ভাবস্থার প্রথম দিকের সময়কালে(প্রথম এবং দ্বিতিয় ত্রৈমাসিকে)পরিহার করা উচিত।এর কারণ হল এই চায়ে সংকোচনকে বাড়িয়ে তোলার সম্ভাবনা রয়েছে বিশেষ করে যদি আপনি খুব বেশি পরিমাণে সেটিকে পান করে থাকেন।এটির কারণে আপনার গর্ভাবস্থার প্রথম দিকে গর্ভপাতের মত ঘটনাও ঘটে যেতে পারে।
  • রুবিওস টি হল একটি ক্যাফিন মুক্ত বিকল্প যা জিঙ্ক,আয়রণ,ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্টগুলি দ্বারা পূর্ণ থাকে।এটি মুক্ত মূলকগুলির সাথে লড়াই করে এবং দেহকে বিষমুক্ত করতে সহায়তা করে।এছাড়াও এটি আবার অ্যাসিড রিফ্লাক্সকে সহজ করে তুলতে এবং হজম শক্তি বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে।এটি দেহে আয়রণের শোষণকে বৃদ্ধি করে এবং অ্যালার্জি,সর্দি,এবং অন্যান্য সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সহায়তা করে।এক কাপ এই চা পান করা হল অনাক্রম্যতা বৃদ্ধি করার একটি চমৎকার উপায়।
  • নেটেল টি বা নেটেল চাতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন A,C এবং K থাকে এবং এটি আবার আয়রণ,ম্যাগনেসিয়াম,পটাসিয়াম এবং ক্যালসিয়ামের মত খনিজে সমৃদ্ধ।তবে গর্ভাবস্থার দ্বিতীয় এবং তৃতীয় ত্রৈমাসিকে এটি খাওয়ার জন্য সুপারিশ করা হয়ে থাকে।গর্ভাবস্থার প্রথম ত্রৈমাসিকে এটিকে এড়িয়ে চলা উচিত কারণ এটি জরায়ুকে উদ্দীপ্ত করে তুলতে পারে এবং যার পরিণতিতে গর্ভপাত ঘটতে পারে।
  • ড্যান্ডেলিয়ন চায়ে উচ্চ মাত্রায় ক্যালসিয়াম,আয়রণ এবং পটাসিয়াম থাকে।এটি হল গর্ভাবস্থাকালে একটি মৃদু এবং কার্যকর মূত্রবর্ধক প্রতিকার। এটি আবার দেহের তরল ধারণকেও সহজ করে তোলে।
  • ক্যামোমাইল চা হল ম্যাগনেসিয়াম এবং ক্যালসিয়ামের একটি ভাল উৎস এবং এটি আবার জয়েন্টের বা সন্ধির প্রদাহকে সহজ করে তুলতে সহায়তা করে।এটি অনিদ্রা প্রতিরোধ করে এবং কার্যকর প্রসব সংকচনকে উন্নীত করে।তবে আপনার যদি হে জ্বর হওয়ার প্রবণতার কোনও ইতিহাস থাকে তবে সেক্ষেত্রে ক্যামোমাইল চা এড়িয়ে চলুন।
  • সুগন্ধযুক্ত লেবুর নির্যাসের চা একটি প্রশমনকারী প্রভাব আনে এবং গর্ভাবস্থায় অনিদ্রা,উদ্বেগ,এবং বিরক্তির বিরুদ্ধে লড়াই করতে সহায়তা করে।
  • রোজিপ চা যাকে আবার ‘ইলিক্সির অফ ইউথ” হিসেবেও অভিহিত করা হয়ে থাকে,ভিটামিন C দ্বারা সমৃদ্ধ হয়ে থাকে।এটি ফুলে যাওয়া হ্রাস করতে সহায়তা করে এবং ফ্লু-এর বিরুদ্ধে লড়াই করে।এটি আবার বিশ্রামকক্ষে (বাথরুমে) যাওয়ার সংখ্যা হ্রাস করতেও সহায়তা করে থাকে।

আপনি আবার এমনকি মধু,দারুচিনি,লবঙ্গ,লেবুর বহিরাবরণ এবং ফলের রসের মত বিভিন্ন উপাদানগুলি গরম জলের সহিত সংযুক্ত করে আপনার নিজের পছন্দানুযায়ী ভেষজ চায়ের মিশ্রণটি প্রস্তুত করে নিতে পারেন।এছাড়াও আবার ক্যাফিনবিহীন গ্রীন অথবা ব্ল্যাক টিও গ্রহণ করতে পারেন।

গর্ভাবস্থায় নিরাপদ চা পানের উপকারিতাগুলি

গর্ভাবস্থার উপযোগী নিরাপদ চায়ের কাপে চুমুক এক রাশ উপকারিতা সরবরাহ করে থাকে।প্রতিটি গুল্মে আছে বিভিন্ন ওষধি বৈশিষ্ট্য এবং আপনি আপনার মেজাজ এবং প্রয়োজনীয়তার উপর ভিত্তি করে সর্বোত্তম চা-টিকে চয়ন করতে পারেন।ক্যাফিনেটেড পানীয়গুলি প্রস্তুত করার ক্ষেত্রে গর্ভাবস্থাকালীন-নিরাপদ চা চয়ন হল একটি বুদ্ধিমানের পছন্দ কারণ সেগুলিঃ

  • মর্নিং সিকিনেস,গা গুলিয়ে বমি বমি ভাব,বমি এবং ডায়রিয়াকে কমাতে সহায়তা করে।
  • উদ্বেগ এবং মানসিক চাপকে হ্রাস করতে সহায়তা করে।
  • প্রসবের জন্য জরায়ুকে প্রস্তুত করে।
  • একটি সহজ উপায়ে পুষ্টিকর উপাদানগুলিকে সরবরাহ করে।
  • জল গ্রহণের উপায়টিকে সুস্বাদু এবং সহজ করে তোলে।

পান করার জন্য কীভাবে নিরাপদ চা-গুলিকে চয়ন করবেন

ভেষজ চাগুলি প্রাকৃতিকভাবেই ক্যাফিন মুক্ত হয়ে থাকে।আর এই বৈশিষ্ট্যটিই সেগুলিকে গর্ভবতী মহিলাদের অ-ভেষজ প্রতিরূপগুলির তুলনায় সেগুলিকে তাদের জন্য উপকারী এবং নিরাপদ করে তুলেছে।তবে গর্ভাবস্থায় ব্যবহারের জন্য সকল ভেষজগুলিই নিরাপদ নয়।আপনার ব্যবহারের পূর্বে সেই চায়ের প্যাকেটের বা বাক্সের উপর লিপিবদ্ধ উপকরণগুলির তালিকাটিকে দেখে নেওয়া প্রয়োজন এবং আপনার পান করার জন্য নিরাপদ বলে গণ্য যে সকল চা সেগুলির একটি তালিকা প্রস্তুত করতে সহায়তার জন্য আপনার স্বাস্থ্যসেবা অনুশীলনকারীর সহিত আলোচনা করা দরকার।আপনার সঠিক চাটিকে বেছে নেওয়ার পূর্বে খুব সতর্কতার সহিত এর নির্দেশিকাবলীটি পড়ে নিন।

গর্ভাবস্থায় যখন কোনওকিছুই ব্যবহারের কথা আসে তখন সেক্ষেত্রে সংযমই হল সবচেয়ে বড় চাবিকাঠি।এটি আপনার এক কাপ চায়ের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য।আপনি প্রথমে অল্প পরিমাণ দিয়ে শুরু করতে পারেন এবং আপনার প্রতিদিনের ডায়েটে আরও বেশি পরিমাণে সংযুক্ত করার পূর্বে লক্ষ্য করুন যে আপনার শরীরে এটি কতটা এবং কি প্রতিক্রিয়া দেখায়।

কখনই যা খুশি পান করে ফেলবেন না যদি আপনি সেগুলির উপকরণ এবং উপকারিতাগুলি সম্পর্কে নিশ্চিত না হয়ে থাকেন।সর্বদা অজানা উপকরণগুলিকে পরিহার করুন কারণ যেহেতু আপনি নিশ্চিত নন যে সেগুলি কীভাবে আপনার দেহে এবং আপনার বাচ্চার উপর প্রভাব ফেলবে।

কতটা চা আপনার পান করা উচিত

গর্ভাবস্থায় সংযম অনুশীলন করা সবচেয়ে ভাল।এই সময় এক দিনে 200 মিলিগ্রাম পর্যন্ত ক্যাফিন গ্রহণ করা নিরাপদ হওয়ার কারণে,আপনি সারা দিনে 3-4 কাপ অভেষজ চা কোনও রকম ক্ষতি ছাড়াই পান করতে পারেন।শুধু মনে রাখবেন যে অতিরিক্ত মাত্রায় ক্যাফিন গ্রহণ গর্ভপাতের মত ঘটনায় ভোগার ঝুঁকি বাড়িয়ে তুলতে পারে।

যে সকল চাগুলিকে পরিহার করে চলতে হবে

যে সকল চাগুলিকে পরিহার করে চলতে হবে

প্রতিরোধ সর্বদাই নিরাময়ের চেয়ে শ্রেষ্ঠ।যদি কোনও ক্ষেত্রে কোনও বিশেষ চায়ের নিরাপত্তা সম্পর্কে আপনার মনে কোনও রকম সন্দেহ থেকে থাকে,সেক্ষেত্রে সর্বদা আপনার ডাক্তারবাবুকে দিয়ে তা পরীক্ষা করিয়ে নেওয়া উচিত।গর্ভাবস্থায় বর্জন করতে হবে এমন কিছু ভেষজ চাগুলি নিম্নরূপঃ

  • সেজ টি(তুলসী পাতার রস মেশানো চা)উচ্চ রক্ত-চাপ এবং গর্ভপাতের সমস্যার সহিত জড়িত।
  • পার্সলে পাতার চা ভ্রূণের বিকাশে প্রভাব ফেলে এবং গর্ভপাতের ঝুঁকি বাড়িয়ে তোলে।
  • জবা ফুলের রস মেশানো চা সংকোচন সংঘটিত করে এবং এর ফলে গর্ভপাত ঘটে থাকে।
  • লোবেলিয়া চায়ে রয়েছে নিকোটিন।
  • পোস্ত দানার চা গর্ভাবস্থায় সম্পূর্ণ রূপে বর্জনযোগ্য।
  • সোনামুখী পাতার চা হল একটি প্রাকৃতিক জোলাপ বা রেচক।
  • অ্যালোভেরার চা বেদনা এবং সংকচনকে প্ররোচিত করে।
  • গ্রীন টিতে উচ্চ মাত্রায় ক্যাফিন থাকে যা ফলিক অ্যাসিডের শোষণ হ্রাস করে।
  • ডায়েটিং করার যেকোনও ধরনের চা,PMS,ডিটক্সিফিকেশন এবং ক্লিনজিং বা পরিষ্কারক চা এই সময় বর্জন করা প্রয়োজন।
  • ভেষজ পূর্ণ যে সকল চাগুলি গর্ভপাত,সংকোচন এবং বেদনাকে প্ররোচিত করে এই অবস্থায় পান করা একদমই উচিত নয়।
  • ভেষজ রেচক যুক্ত এবং মূত্রবর্ধক প্রভাব রয়েছে এমন ধরনের যেকোনও চা এড়িয়ে চলা উচিত।এগুলির মধ্যে অন্তর্ভুক্ত হল কালো কোহশ,নীল কোহশ, কোকো,ডং কাই,আলফালফা,মৌরি,তুলসী,ক্যালেন্ডুলা,ক্যাটনিপ(পুদিনা বিশেষ), মেথি গাছ, গিংকো, জিনসেং,
  • জুনিপার, লেমনগ্রাস, মিসলেটো, জায়ফল,রেউচিনি এবং হলুদ ডক।
    গর্ভাবস্থায় নিরাপদ নয় এমন ধরনের চা পানের সম্ভাব্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াগুলি

গর্ভাবস্থায় সেবন করা নিরাপদ নয় এমন কিছু চা পান করার ফলে একাধিক নানা ধরনের সমস্যা সৃষ্টি হয়ে থাকে যার ফল স্বরূপ গর্ভপাত,গর্ভস্রাব অথবা অকাল সংকোচন এবং প্রসব বেদনা প্ররোচিত হতে পারে।

বাড়িতেই কি আপনি চা-কে ডিক্যাফিনেটেড(ক্যাফিন মুক্ত) করতে পারেন?

বাড়িতে চা কে ক্যাফিন মুক্ত করার একটি চালু পদ্ধতি আছে যা দীর্ঘদিন ধরে চলে আসছে চা-প্রেমীদের জন্য।আপনি কয়েকটি ধাপে চা কে ক্যাফিন মুক্ত করতে পারেন।আপনাকে যা করতে হবে তা হল এক কাপ গরম জলের মধ্য একটা টি ব্যাগ 20 থেকে 40 সেকেন্ড ভিজিয়ে রাখতে হবে।এরপর জল টাকে ফেলে দিয়ে কাপে আবার নতুন করে গরম জল নিতে হবে এবং টি ব্যাগটাকে আবার ঐ কাপের জলে ডুবিয়ে দিতে হবে।এটা বলা হয়ে থাকে যে চা এর মধ্যে থাকা বেশির ভাগ ক্যাফিন(50% থেকে 80%) এই পদ্ধতিতে বেড়িয়ে যায়,দূর্ভাগ্যবশত,এটি সত্য নয়। প্রকৃতপক্ষে চা কে ডিক্যাফিনেটিং করা একটি জটিল কাজ।বিভিন্ন ধরনের রাসায়নিক যেমন কার্বন ডাই অক্সাইড,ইথাইল অ্যাসিটেট,অথবা মিথিলিন ক্লোরাইড এর মধ্য থাকে আবার ব্যবসায়িক চা প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলো অনেক সময় কিছু মিশিয়ে দেয় ডিক্যাফিনেড চা তৈরির জন্য।তাই সহজ কথায় একটা টি ব্যাগকে 30 সেকেন্ড গরম জলে ডুবিয়ে রাখলেই সেটা আশ্চর্যজনক কোনো কাজ করে না,এটিই দাবী করা যায়!তাই আপনাকে যেটা করতে হবে তা হল আপনাকে সম্পূর্ণভাবে ক্যাফিন মুক্ত চা খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে যা শুধুমাত্র স্বাস্থ্যকরই নয় এর অনেক উপকারী গুণাগুণও আপনাকে যোগান দিয়ে থাকে।

এটা বলা হয়ে থাকে যে চা গর্ভাবস্থার জন্য ভাল যদি আপনি সঠিক চা খুঁজে নিতে পারেন।আপনি যদি গর্ভাবস্থা নিরাপদ চা সংযমের সাথে পান করেন তাহলে সেটি আপনার উদ্বেগ এবং চাপ কমাতে সাহায্য করে।আপনি আপনার ডাক্তারবাবুর সাথে পরামর্শ করে নিন কোনপ্রকার চা আপনি খাবেন এবং তার পরিমাণ সম্পর্কে জেনে নিন যা আপনার গর্ভাবস্থায় নিরাপদ হবে।