যমজ অথবা ততোধিক সন্তান সহ গর্ভাবস্থার ঊনিশ তম সপ্তাহ

যমজ অথবা ততোধিক সন্তান সহ গর্ভাবস্থার ঊনিশ তম সপ্তাহ

এক্ষেত্রে আপনার গর্ভাবস্থার 19 তম সপ্তাহে যখন আপনি আপনার গর্ভে যমজ অথবা এমনকি ততোধিক সন্তানকে বহন করে আসেন, তখন জেনে রাখুন যে তাদের গর্ভধারণের সময় থেকেই আপনি তাদের সঙ্গে নিয়ে অনেক দূর এগিয়ে এসেছেন।এ ব্যাপারে কোনও সন্দেহ নেই যে, আপনি এখন আরও স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করবেন এবং নিজের দেহের নিয়ন্ত্রণে থাকবেন আর তাদের নিজেদের দ্বারাই তৈরী হতে পারে এমন সূক্ষ্ম পরিবর্তনগুলি সপ্তাহের সাথে সাথে আপনার পরিচিত হয়ে উঠতে থাকবে।আপনার পেটের মধ্যে শিশুদের নিরাপদ রাখা গর্ভাবস্থার 19 তম সপ্তাহে অগ্রাধিকার পায়।একটি যথার্থ পুষ্টি পরিকল্পনা যা শিশুর বৃদ্ধির জন্য সঠিক পুষ্টি গ্রহণকে নিশ্চিত করে, তার সাথে আপনার নিজের জন্য একটি ভারসাম্য যুক্ত অনুশীলন এবং ফিটনেসের সমন্বয়, আপনাদের উভয়কেই একসাথে প্রস্তুত করতে পারে আপনার গর্ভাবস্থার চূড়ান্ত মাসের জন্য।

aniview

19 তম সপ্তাহে শিশুদের বৃদ্ধি

গর্ভাবস্থার 19 তম সপ্তাহটি আপনার জন্য অসংখ্য ঘটনা ধারণ করে যা আপনাকে স্তম্ভিত করে দেবে।আপনার সন্তানরা আসন্ন সপ্তাহগুলিতে তাদের নিজেদের এবং তাদের চারপাশের পরিবেশ সম্পর্কে আরও বেশি সচেতন হয়ে ওঠে এবং আগামী মাসগুলিতেও সেটি অব্যহত রাখবে।

গর্ভস্থ ছোট্টগুলির নিজেদের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গগুলির উপর উন্নত নিয়ন্ত্রণ ক্ষমতা থাকার সাথে, শিশুরা মুষ্ঠি গঠণের জন্য তাদের হাতের আঙ্গুলগুলিকে দৃঢ়ভাবে মুড়ে রাখতে সমর্থ হবে এবং সম্ভবত এইরকম ভাবে তারা দীর্ঘক্ষণ থাকতেও পারবে।কিছু শিশু আবার এমনকি তাদের বুকের উপর দিয়ে তাদের হাতগুলিকেও সরাতে পারে এবং যদি ইতিমধ্যে নাও করে থাকে তবে তারা তাদের হাতের বুড়ো আঙ্গুলটিকে চোষাও আরম্ভ করতে পারে।

যদিও তাদের প্রাণবন্ত, আনন্দিত ও বাঁচিয়ে রাখার জন্য আপনার দেহের বিভিন্ন অংশগুলি প্রয়োজনীয় সকল পদক্ষেপ গ্রহণ করে, কিন্তু মানুষের মধ্যে উপস্থিত বিভিন্ন সংবেদনগুলি আপনার সন্তানদের মধ্যেও সক্রিয় হয়ে ওঠে।যখন আপনি কথা বলেন, কোনও সুর গুণ গুণ করেন অথবা কোনও একটি সঙ্গীত শোনেন কিম্বা আপনি যখন কোনও কিছু খান, তখন আপনার গর্ভস্থ শিশুদের মস্তিষ্ক এই সকল সঙ্কেতগুলিকে প্রক্রিয়াকরণ করতে থাকে এবং নিজেদের মধ্যে সেগুলির বোধ শক্তি গড়ে তোলার প্রয়াস করার সাথে প্রচুর সংবেদনশীল অনুভবগুলি আপনার গর্ভের মধ্যে থেকেই তারা অর্জন করে ফেলে।এভাবেই স্নায়ুতন্ত্র শরীরের প্রতিটি ইঞ্চিকে মস্তিষ্কের সাথে সংযোগ স্থাপন করে একটি বিশাল নেটওয়ার্ক গঠণ করে।

আপনার গর্ভাবস্থার পূর্ব সপ্তাহগুলিতে আপনার শিশুরা যদি ভার্নিক্সের(সাদা চীজের ন্যায় একটি পদার্থ যা ভ্রূণের ত্বকের উপর আচ্ছাদিত থেকে ত্বককে সুরক্ষিত রাখে) দ্বারা আচ্ছাদিত না হয়ে থাকে, তবে এটি আদর্শগতভাবে এই সপ্তাহের মধ্যে অবশ্যই হয়ে যাওয়া উচিত।আপনার শিশুদের দেহকে আচ্ছাদিত করে রাখা দেহের লোম এবং তরলের স্তর থাকার দরুণ তাদের দেহের তাপমাত্রা সর্বোত্তম স্তরে নিয়ন্ত্রণের সাথে তারা সুরক্ষিত থাকে।হাড়ের বিকাশের ক্রম উন্নতি এগিয়ে চলতে থাকে এবং সময়ের সাথে তা শক্ত হয়ে ওঠার পাশাপাশি আবার হৃদযন্ত্র এবং বৃক্কের কার্যকারীতারও উন্নতি ঘটে।

শিশুদের আকার কি রকম হবে?

শিশুদের আকার কি রকম হবে?

আপনি যদি আপনার গর্ভাবস্থার 8’ম অথবা 9’ম সপ্তাহে করা আপনার শিশুর আল্ট্রাসাউন্ড স্ক্যানটির সাথে এখনের তুলনা করেন, তবে আপনার এখনের আল্ট্রাসাউন্ডটিতে তাদের আকারের যে পরিবর্তন দেখবেন তা অবাক করার থেকে কিছু কম নয়।এই পর্যায়ে শিশুদের ওজন সাধারণত প্রায় 200 গ্রামের মধ্যে ঘোরাফেরা করে, যেটি আবার একাধিক শিশু গর্ভে থাকার ক্ষেত্রে কমে যায়।যাইহোক তাদের শারীরিক আকার হবে একটা আম বা টমেটোর আকারের থেকে বড়। বেশিরভাগ শিশুই এই পর্যায়ে দৈর্ঘ্যে হয়ে উঠবে 14-15 সেন্টিমিটার মত, তবে অনুরূপভাবেই যমজ বা তনটি শিশুর ক্ষেত্রে তা তুলনামূলকভাবে কিছুটা ছোট হবে।

সাধারণ শারীরিক পরিবর্তনগুলি

আপনার গর্ভাবস্থার 19’তম সপ্তাহে আপনার দেহে হয়ে চলা সকল পরিবর্তনগুলিই হল সাধারণত শারীরিক পরিবর্তন কারণ আপনার গর্ভ মধ্যস্থ শিশুদের বৃদ্ধিকে সমর্থন করার জন্য ক্রমবর্ধিত ওজন এবং অভ্যন্তরীণ পরিবর্তনগুলি মোকাবিলার জন্য আপনার দেহ সর্বাত্মক চেষ্টা করে।

গর্ভাবস্থার এই পর্যায়ে আপনার দেহে রক্ত ​​সঞ্চালন এখনও বেশ জোরদার থাকে।খুব ছোট্ট নয় এমন ক্রমবর্ধমান ব্যাক্তিগুলির জন্য আপনার রক্তের পরিমাণ এবং প্রবাহিত রক্ত ​​সঞ্চালনের পরিমাণ বৃদ্ধি পাওয়ায় এটি আপনার শরীরের বিভিন্ন অঞ্চলে বিশেষত আপনার নাকে এর উপস্থিতিটি অনুভূত করে থাকেন।সকল মহিলাই তাই বলে নাক দিয়ে রক্তক্ষরণ অনুভব করেন না, তবে প্রায় 15 থেকে 20 শতাংশ মহিলার মধ্যে এটি হওয়ার প্রবণতা থাকে, আর সেটি উচ্চ মাত্রায় দেখা দেয় সেই সকল মহিলাদের মধ্যে যারা তাদের গর্ভাবস্থায় গর্ভে একাধিক শিশু ধারণ করেন।যত বেশি সংখ্যক বাচ্চা গর্ভে থাকে, নাসারন্ধ্রের ভিতরে উপস্থিত রক্তবাহ বা নালীগুলিতে তত বেশি চাপ পড়ে । অনেক সময় এই অত্যধিক চাপে এগুলি ফেটে যায় এবং রক্তপাত শুরু হয়।

এই পর্যায়ে হয়ে থাকা একটি অদ্ভুত ঘটনা হল শরীরের অন্যান্য অংশ তুলনায় রক্ত সরবরাহ শ্রোণী অঞ্চলের দিকে বেশি মাত্রায় হয়,যেখানে জরায়ুটি অবস্থিত।এটি সাধারণত গর্ভবতী মহিলাদের পায়ে প্রভাব ফেলে, যা শেষ পর্যন্ত স্বাভাবিকের তুলনায় পরিমাণে কম রক্ত পেয়ে থাকে।এবং শেষ পর্যন্ত ত্বকের নীচে উপস্থিত শিরাগুলি গাঢ় নীল বা বেগুনি বর্ণে ফুলে উঠে, পাকানো এবং বৃহৎ রেখা আকারে প্রদর্শিত হয়।এগুলিই ভেরিকোস শিরা হিসেবে অভিহিত।যদিও অধিকাংশ ক্ষেত্রেই এগুলিকে শুধুমাত্র বিশ্রী দেখায়,তবে তা খুব কমই সমস্যার সৃষ্টি করে, আবার মাঝে মধ্যে আপনি এগুলিকে যন্ত্রণাদায়ক ভাবেও পেতে পারেন।

রক্ত সঞ্চালন জনিত আরেকটি সমস্যা হল দেহের কোন বিশেষ অংশে রক্ত জমে যাওয়া এবং সেখান থেকে অন্য কোথাও রক্ত প্রবাহিত হতে না পারা।যদিও একজন গর্ভবতী মহিলা সুষম খাদ্য গ্রহণ করে থাকা সত্বেও তার দেহে পটাশিয়ামের পরিমাণ কমে যেতে পারে।এই সমস্ত কারণগুলি এক সাথে সংঘটিত হওয়ার ফলে দেহের বিভিন্ন অংশ ফুলে যায়।এরসাথে যদি আবার আপনি গর্ভাবস্থায় একটানা অনেকক্ষণ দাঁডিয়ে থাকেন বা গ্রীষ্মের প্রখর রোদে বাইরে বের হন তাহলে আক্ষরিক অর্থেই আপনার মুখ, পায়ের পাতা, বা পা ফুলে যেতে পারে এই কারণে।ক্যাফিন গ্রহণের পরিমাণ কমিয়ে আর পটাশিয়ামের গ্রহণের মাত্রা বাড়িয়ে আপনি এই পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে পারবেন বিচক্ষণতার সঙ্গে।

যমজ সন্তান ধারণের গর্ভাবস্থার 19 তম সপ্তাহের লক্ষণগুলি

যখন আপনার গর্ভে আপনি একাধিক সন্তান ধারণের অভিজ্ঞতা লাভ করে চলেছেন তখন আপনার দেহে তার লক্ষণগুলি ফুটে ওঠে, এক্ষেত্রে মূল লক্ষ্য হল শিশুগুলির যত্ন এবং সুরক্ষা।যেটি সেই সময়ে আপনার পরিস্থিতিকে বিকারগ্রস্থ করে তুলতে পারে।

শরীরের গঠনের পরিবর্তন থেকে নিষ্কৃতি পাওয়ার কোনো পথ নেই।আপনার দেহের ভিতরে বাড়ন্ত শিশুগুলির ওজন বৃদ্ধি আপনার দেহের স্বাভাবিক ভরকেন্দ্রের পরিবর্তন সূচিত করে।আপনার চলাফেরা সহ ভঙ্গিমা পরিবর্তনের চাপ নেওয়ার ব্যাপারে আপনার পশ্চাদ দেশের উপর আপনি নিশ্চিন্তে ভরসা করতে পারেন এবং সেটি নিজে থেকেই অতিরিক্ত চাপ বহন করে নেবে।এই সমস্ত কিছুই পিঠে ব্যাথের কারণ হয়ে উঠতে পারে।সঠিক দেহ ভঙ্গিমা এবং পাশ ফিরে শোওয়া এই যন্ত্রণার হাত থেকে কিছুটা কাঙ্খিত মুক্তি আনতে পারে।

বর্ধনশীল ভারী শিশুগুলির ওজন এই চাপ বৃদ্ধির জন্য একমাত্র শরীর সংস্থানিক ভাবে দায়ী নয়।রক্তবাহগুলির সাথে সাথে নানাবিধ স্নায়ু এবং শরীরের পেশীগুলির উপরে চাপ বৃদ্ধি পায়।এর ফলশ্রুতি হিসাবে আপনার পায়ে ক্র্যাম্প বা খিঁচুনি লাগতে পারে কিন্তু খুব সহজেই সেটিকে নিয়ন্ত্রণ করা যেতে পারে যদি কুশলতার সাথে ম্যাসাজ বা মালিশ অথবা সঠিক ভাবে বারংবার স্ট্রেচ বা প্রসারিত করা যায়।অপর একটি যন্ত্রণা যা অনুভূত হয় তা হল তলপেটে যা জরায়ুর আকৃতির ক্রমবর্দ্ধমানতার কারণে উদ্ভূত হয়।জরায়ুটিকে সঠিক ভাবে রাখার জন্য এর অভ্যন্তরস্ত লিগামেন্টগুলি আরো বেশি পরিমাণে প্রসারিত হয়ে যায় আর ব্যাথার সৃষ্টি করে।যদি তিনটি সন্তান হয় তাহলে এই লিগামেন্টের যন্ত্রণা এতটাই প্রবল হয়ে ওঠে যে আপনি তা কল্পনাও করতে পারবেন না।

সমসগ্র রক্ত সঞ্চালনটি শিশুগুলি কেন্দ্রিক হয়ে ওঠার সাথে এবং জরায়ু আভ্যন্তরীন ভাবে মধ্যচ্ছদা বা ডায়াফ্রামের ওপর চাপ বৃদ্ধি করার ফলে প্রশ্বাসের সাথে অক্সিজেন গ্রহণের মাত্রা কমে যায় এবং সাথে সাথে মস্তিষ্কেও রক্ত সঞ্চালন কম হয়।যাইহোক হঠাৎ করে ঝোঁকের পরিবর্তন অথবা দীর্ঘক্ষণ একটানা মনঃসংযোগ মাথা যন্ত্রণা কিমবা ঝিমুনির সৃষ্টি করে।এগুলি যদি পুনঃ পুনঃ হতে থাকে তবে নিজেকে সুরক্ষিত রাখাটা জরুরী।

যমজ সন্তান সহ গর্ভদশা- 19 সপ্তাহে পেটের আকৃতি

পূর্ববর্তী সপ্তাহগুলির তুলনায়, এখন আপনার পেটের বৃদ্ধিপ্রাপ্ত আকারটি এই সময় কালের একটি অনবদ্য প্রমাণ স্বরূপ হয়ে উঠবে এবং প্রায়ঃশই আপনাকে তার সাথে ভারসাম্য রক্ষা করতে হবে।এই সময় আপনার জরায়ুটি নাভির নিচে নেমে আসবে আর আপনার পেটটি অভ্যন্তরস্থ শিশুগুলির অস্তিত্বের সাথে মানিয়ে নেয়।

যমজ সন্তানের গর্ভাবস্থার 19 সপ্তাহ- আলট্রাসাউন্ড

অনেক ডাক্তার বাবু আপনার আল্ট্রাসাউন্ড পরীক্ষাটিকে পিছিয়ে দেন আপনার গর্ভদশার যাত্রাপথের ঠিক মধ্যবর্তী সময়টিতে সেটি করবার জন্যে।যদি আপনি সেটা আগে করতে চান তাহলে আলট্রাসাউন্ড আপনার সন্তানদের কিরকম দেখতে তার একটা সুন্দর ছবি উপহার দেবে।শিশুদের আবরণী ত্বকটি আংশিক স্বচ্ছ,নিখুত দৃষ্টিতে তাদের অস্থির গঠণের সাথে সাথে অনেকগুলি অঙ্গের গঠন খুব সহজেই দেখে নিতে পারা যায়।অনেক ডাক্তার বাবু পুনরায় এই পরীক্ষাটি করেন এবং তাদের সিদ্ধান্ত পুনঃবিবেচনা করেন যে শিশুগুলির কোনোরকম অস্বাভাবিকতা আছে কিনা বা তাদের স্বাস্থ্য সংক্রান্ত কোনো সমস্যা আছে কিনা সেই বিষয়ে।

কি খেতে হবে

কি খেতে হবে

যেহেতু আপনার গর্ভস্থ সন্তানরা গর্ভদশার সামনের দিকে এগিয়ে চলছে তাই তাদের পর্যাপ্ত পুষ্টি প্রাপ্তির বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।যেকোনো ধরণের ভাজাভুজি, মশলাদার খাবার এবং যেসকল খাদ্যে ট্রান্স ফ্যাট আছে তার সাথে সাথে যেসব খাবারে রঙ, সংরক্ষক বা প্রজারভেটিভ ইত্যাদি আছে সেগুলো এড়িয়ে চলার পরামর্শই দেওয়া হয়। সেদ্ধ মাংস তার সাথে শাক সবজি এবং বাদাম যেগুলি আয়রণ এবং ক্যালশিয়ামে পরিপূর্ণ সেগুলি গ্রহণ করাই উচিত।

গর্ভাবস্থার যত্ন নেওয়ার পরামর্শ বা টিপস

আপনার শরীরের কয়েকটি বিষয়ে এবং আপনার অভ্যাসের কতগুলি ব্যাপারে নজর রাখলেই আপনি একটি সুরক্ষিত নিরাপদ গর্ভাবস্থা অতিবাহিত করতে পারবেন।

করণীয়

  • আপনি যদি এই সময়েই একজন শিশুরোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ গ্রহণ করা শুরু করেন তবে সেটা একটা দারুণ ব্যাপার হবে।
  • কিছুটা সময় বিশ্রাম নিন বিশেষত সন্ধ্যার দিকে এবং আপনার সন্তানদের সাথে ভাল সময় কাটান।

করণীয় নয়

  • আগত সপ্তাহগুলিতে একটানা কঠোর ব্যায়াম করা থেকে বিরত থাকুন।
  • যোনি অঞ্চলে হয়ে থাকা যেকোনো ধরনের জ্বলন বা প্রদাহ হলে তা অগ্রাহ্য করবেন না সেটা ইষ্টের সংক্রামণ জনিত কারণেও হতে পারে।

আপনার কি কি কেনাকাটি করার প্রয়োজন পড়বে

আপনি যদি আপনার গর্ভদশাটিকে আরও সুন্দর অভিজ্ঞতায় ভরিয়ে তুলতে চান তাহলে কয়েকটি উপকরণ কিনতে হবে সেগুলি হলঃ

  • একটা ম্যাটারনিটি বেল্ট যা শিশুদের ওজন বহন করতে সাহায্য করবে।
  • যদি আপনি এখন ও অবধি কিনে না থাকেন তবে মাতৃত্বকালীন জামাকাপড় অথবা ব্রাগুলিও কিনে ফেলুন।

ঘরের ভিতরে বা বাইরে 19 সপ্তাহের যমজ সন্তানের গর্ভাবস্থায় ঘুরে বেড়ানোটা খুব একটা সমস্যার বিষয় নয়।প্রতিদিন নিয়মমাফিক হালকা ব্যায়াম করুন আপনার সঙ্গীর সাথে সুন্দর ভাবে হাঁটুন এবং আপনার এই সুন্দর গর্ভাবস্থার ফলটি কি অসাধারণ হতে পারে সেই বিষয়ে কল্পনা করতে থাকুন।