স্তন্যপান করানো সম্পর্কিত সর্বাধিক সাধারণ সমস্যা এবং তাদের সমাধান

স্তন্যপান করানো সম্পর্কিত সর্বাধিক সাধারণ সমস্যা এবং তাদের সমাধান

আপনার সদ্যোজাত শিশুকে খাওয়ানোর সর্বোত্তম উপায় হল স্তন্যপান করানো, কারণ এটি কেবলমাত্র পুষ্টির চেয়ে অনেক বেশি কিছু দেয়, যেমন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো অ্যান্টিবডিগুলিও দেয়। উপরন্তু, এটি মা এবং সন্তানের মধ্যে বন্ধনের একটি মুহূর্ত তৈরি করে। তবে আপনার শশুকে বুকের দুধ খাওয়ানোর সময় আপনি বিভিন্ন ধরণের চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে পারেন। নবজাতককে স্তন্যপান করানো সংক্রান্ত কিছু সমস্যা ও তাদের সম্ভাব্য সমাধান নীচে আলোচনা করা হয়েছে।

aniview

১. দুধ কম সরবরাহ

এটি স্তন্যপান করানোর সব থেকে বড় সমস্যাগুলির মধ্যে একটি। দুধের কম সরবরাহের অনেক কারণ থাকতে পারে, যেমন স্তনগ্রন্থির সমস্যা বা অপর্যাপ্ত স্তন্যপান করানো।

কিভাবে চিকিত্সা করবেন: আপনার শিশু যেন দিনের বেলা আপনার স্তন পুরোপুরি খালি করে তা নিশ্চিত করুন। যদি আপনার শিশু আপনার স্তনগুলিতে যতটা দুধ থাকে সবটা সেবন না করে, তবে আপনার শরীর আর বেশি দুধ উত্পাদন করবে না। আপনার শিশুকে দুইটি স্তন থেকেই প্রতিবার খাওয়ান, যতক্ষণ না তাদের শেষ ফোটাটি বের হচ্ছে ততক্ষণ শিশুকে তাদের সাথে ধরে রাখুন। মাঝেমধ্যে আপনার ছোট্ট শিশুটি স্তন্যপান করার ব্যাপারে আগ্রহী নাও হতে পারে, যার ফলে আপনার দুধ সরবরাহ হ্রাস পায়। এই ক্ষেত্রে, আপনি আপনার দুধ একটি ব্রেস্ট পাম্প ব্যবহার করে বের করতে এবং বোতল সেগুলি খাওয়ানোর জন্য রাখতে পারেন।

কিভাবে প্রতিরোধ করবেন: নিশ্চিত হয়ে নিন যে আপনি সময়মতো খাচ্ছেন ও ঘুমাচ্ছেন এবং সঠিক জল পান বজায় রয়েছে। আপনার শিশুকে যথাযথভাবে ল্যাচ করান এবং অবস্থান গ্রহণ করুন। প্রথম ছয় মাস আপনার শিশুর ভালোর জন্য শিশুকে ফর্মুলা খাওয়াবেন না, যাতে তারা স্তন্যদানের প্রতি আগ্রহ হারাবে না।

২. স্তন লিক করা

আপনার স্তনবৃন্ত তৃতীয় ত্রৈমাসিক থেকে আপনার শিশুর বুকের দুধ খাওয়ানো বন্ধ না করা অবধি ঘন ঘন লিক করার আশা করতে পারেন। লেট-ডাউন রিফ্লেক্সের কারণে লিক হয়, যা আপনার শিশুর সান্নিধ্যে দুধের উত্পাদনকে উদ্দীপিত করে। আপনার স্তনে যদি খুব বেশি দুধ জমা থাকে তবেও এটি ঘটতে পারে।

কিভাবে চিকিত্সা করবেন: আপনি আপনার স্তনকে লিক হওয়া থেকে ‘থামিয়ে’ রাখতে পারবেন না, তবে এই লিকেজ আপনার জন্য সামান্য বিব্রতবোধের কারণ হয় এবং তাই একে সহজতর করার জন্য আপনি কিছু করতে পারেন। আপনি ব্রা-এর নীচে বিশেষ নার্সিং প্যাড পরতে পারেন, যা লিক হওয়া দুধকে শোষণ করে। কোনও দাগ আড়াল করতে গাঢ় রঙের পোশাকের সাথে এগুলি পরুন।

কিভাবে প্রতিরোধ করবেন: ঘন ঘন বুকের দুধ খাওয়ানো লিক হওয়ার সম্ভাবনা হ্রাস করে। তবে কয়েক মাস পরে বিষয়টি পুরোপুরি অদৃশ্য হয়ে যাবে, তাই এই নিয়ে উদ্বেগের দরকার নেই।

স্তন লিক করা

৩. অত্যাধিক পূর্ণ স্তন

আপনার প্রসবের পরপরই, আপনার স্তনে দুধের উত্পাদন দ্রুত বৃদ্ধি পায়, এগুলি তাদের আরও বড় এবং ভারী করে তোলে। এটি স্তনের পূর্ণতা হিসাবে পরিচিত।

কিভাবে চিকিত্সা করবেন: ঠান্ডা-গরম কমপ্রেশন (সেঁক) দেওয়া এবং নিয়মিত বুকের দুধ খাওয়ানোর মাধ্যমে পরিপূর্ণ স্তনের অস্বস্তি হ্রাস করা যায়। যদি আপনি আপনার শিশুটি যত বেশি পরিমাণে দুধ খাচ্ছে তার চেয়ে বেশি পরিমাণে দুধ উত্পাদন করছেন, পাম্পিং শুরু করুন বা এটি একটি ব্রেস্ট মিল্ক ব্যাঙ্কে অনুদান দেওয়ার বিষয়ে বিবেচনা করুন।

কিভাবে প্রতিরোধ করবেন: নিশ্চিত করুন যে আপনি ভাল খাবার খান, যথেষ্ট পরিমাণ ঘুমান এবং পর্যাপ্ত জল পান করেন, যাতে আপনি আপনার শিশুর স্তন্যদানের সময়কালে সুস্থ থাকতে পারেন। নার্সিংয়ের পরিপূরক যেমন দুধের বোতল এবং প্যাসিফায়ারগুলি এড়িয়ে চলুন, যাতে আপনার শিশু বুকের দুধ খাওয়ার বিষয়ে আগ্রহী থাকে। দুধের প্রবাহকে ত্বরান্বিত করতে এবং দুগ্ধনালীতে বাধা রোধ করতে নিয়মিত আপনার স্তন এবং স্তনবৃন্তগুলিতে ম্যাসাজ করুন।

৪. শিশুর শারীরিক সমস্যা

আপনার শিশুর শারীরবৃত্তীয় ত্রুটি থাকতে পারে, যেমন একটি বড় জিহ্বা, আর্চ হওয়া তালু বা গাল, মাড়ি বা চোয়ালের সমস্যা। এ কারণে আপনার স্তনগুলিতে দৃঢ়ভাবে ল্যাচ করে থাকতে অসুবিধা পেতে পারে।

কিভাবে চিকিত্সা করবেন: এই ক্ষেত্রে সার্জারি হল সর্বোত্তম বিকল্প এবং এগুলি গৌণ প্রক্রিয়া, তাই উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই।

কিভাবে প্রতিরোধ করবেন: শারীরিক অস্বাভাবিকতা আপনার নিয়ন্ত্রণে না থাকায় এই সমস্যাটি প্রতিরোধ করা যায় না। তবে, যেমন আগেই যেমনটা বর্ণনা করা হয়েছে, এটি সফলভাবে চিকিত্সা করা যেতে পারে।

৫. উল্টো স্তনবৃন্ত

স্তনবৃন্তগুলি সাধারণত বাইরের দিকে ঝুঁকতে থাকে, কিছু মহিলার সমতল বা বিপরীত দিকে ঘুরে থাকা স্তনবৃন্ত থাকে, যার জন্য দুধ ভেতরে ফিরে যায়। এটি সফল ল্যাচের জন্য খুব জটিল করে তোলে। ফ্ল্যাট স্তনবৃন্তগুলি অত্যধিক দুধ উত্পাদন এবং স্তব্ধ স্তনগুলির কারণেও হতে পারে।

কিভাবে চিকিত্সা করবেন: আপনার সন্তানের নার্সিংয়ের সময় আপনার স্তনকে দৃঢ়ভাবে চাপ দেওয়ার চেষ্টা করুন। অন্য একটি পদ্ধতি হল স্তন ও স্তনবৃন্তগুলি ম্যাসাজ করার জন্য আপনার নিজের আঙুলগুলি বা একটি সাকশন ডিভাইস ব্যবহার করা জড়িত।

কিভাবে প্রতিরোধ করবেন: যেহেতু এটি একটি শারীরিক অবস্থা, তাই এটি প্রতিরোধ করা যায় না। তবে, আপনার যদি স্তনের অন্য কোন সমস্যা না থাকে, তবে আপনার শিশু সঠিকভাবে ল্যাচ না করলেও পর্যাপ্ত দুধের আশ্বাস দেওয়া হয়। যাই হোক না কেন, আপনার শিশুর অবিরাম স্তন্যপান সময়ের সাথে সাথে তাদের ল্যাচিংয়ের ক্ষমতা উন্নত করবে।

উল্টো স্তনবৃন্ত

৬. স্তন্যপান করানোর ভুল ল্যাচ

যদি আপনার শিশু আপনার স্তনগুলিতে সঠিকভাবে ল্যাচ করতে না শেখে, তবে আপনার স্তন দুধের উত্পাদন কমিয়ে দেবে, এতে শিশু অসুস্থ হবে। তাছাড়াও, কোন ব্যথা বা অস্বস্তি তৈরি না করে আপনার শিশুর ল্যাচ করতে কিছুটা সময় লাগতে পারে।

কিভাবে চিকিত্সা করবেন: আপনি আপনার শিশুর অবস্থানটি এমনভাবে পরিবর্তন করতে পারেন যাতে একটি ভাল ল্যাচ দেওয়ার জন্য তাদের মুখটি অ্যারিওলা থেকে কিছুটা নীচে থাকে। বুকের দুধ খাওয়ানোর ল্যাচের সমস্যাগুলির মোকাবেলায় শিশুকে সমর্থন করার জন্য বালিশ ব্যবহার করতে পারেন।

কিভাবে প্রতিরোধ করবেন: একটি ভাল ল্যাচ সন্ধানের মূল বিষয় হল প্রশিক্ষণ এবং অনুশীলন। আপনার শিশুটি নার্সিংয়ের সঠিক অবস্থানে রয়েছে তা নিশ্চিত করুন, আপনার স্তনবৃন্তটি দুটি আঙুল দিয়ে টিপুন এবং আপনার শিশুকে আপনার স্তনের দিকে প্রসারিত করুন।

৭. অবরুদ্ধ দুগ্ধনালী

দুগ্ধনালীগুলিতে বাধা আটকে থাকতে বা স্তন ফুলে যেতে পারে। যদি আপনি উচ্চ হারে দুধ উত্পাদন করে থাকেন, তবে এটি ঘটে যা স্তনের টিস্যুতে প্রদাহ সৃষ্টি করে। এটি পরিবর্তে দুগ্ধনালীর উপর চাপ সৃষ্টি করে এবং একটি বাধা সৃষ্টি করে।

কিভাবে চিকিত্সা করবেন: অবরুদ্ধ দুগ্ধনালীর কারণে ফোলা ও ব্যথা ম্যাসাজ এবং গরম সেঁক দেওয়ার মাধ্যমে উপশম হতে পারে। আপনার শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ান যাতে বাচ্চা স্তন্যপান করানোর জোরের মাধ্যমে বাধাটি অপসারণ করা যায়।

কিভাবে প্রতিরোধ করবেন: পর্যাপ্ত পরিমাণে খাবার এবং ঘুম পাওয়ার পাশাপাশি আপনার স্তনের অভ্যন্তরে কোন গঠন তৈরি এড়াতে আপনি প্রায়শই বুকের দুধ খাওয়ানো নিশ্চিত করুন।

৮. স্তনবৃন্তে ব্যথা

বুকের দুধ খাওয়ানোর একটি প্রত্যাশিত ফলাফল হল আপনার স্তনবৃন্তগুলিতে প্রচণ্ড ব্যথা হয়। অস্বস্তিকর ল্যাচিংয়ের ফলে অস্বস্তি আরও খারাপ হতে পারে। স্তনবৃন্তগুলিতে শুষ্কতা, ফাটল বা রক্তপাত হতে পারে।

কিভাবে চিকিত্সা করবেন: আপনার স্তনবৃন্তগুলিতে কঠোর সাবান ও ক্রিম ব্যবহার করা এড়িয়ে চলুন এবং সংবেদনশীল ত্বকের জন্য ল্যানলিন-ভিত্তিক মলমগুলি দিয়ে এগুলি প্রতিস্থাপন করুন। স্তনবৃন্তগুলিতে স্তনের দুধকে শুকিয়ে যাওয়ার অনুমতি দিয়ে অস্বস্তি প্রশমিত করে, কারণ এটিতে প্রদাহবিরোধক বৈশিষ্ট্য রয়েছে।

কিভাবে প্রতিরোধ করবেন: নিশ্চিত করুন যে আপনার শিশু ভালভাবে ল্যাচ করে। আপনার উভয় স্তন থেকে শিশুকে দুধ খাওয়ান, যাতে কোন একটিকে সবটা এবং শিশুর চোষার সবটা সহ্য করতে না হয়। ঢিলেঢালা পোশাক পরিধান করুন যা আপনার স্তনের বোঁটার বিরুদ্ধে ঘষা লাগায় না।

৯. ছত্রাক সংক্রমণ

আপনার শিশুর মুখ বিভিন্ন ধরণের রোগজনিত জীবাণু নিয়ে সজ্জিত থাকে। সর্বাধিক সাধারণ হল থ্রুশ নামে পরিচিত একটি ছত্রাক সংক্রমণ, যার কারণে ত্বক ওঠা, চুলকানি, লালভাব, স্তন্যপানের সময় ব্যথা, র‍্যাস ইত্যাদির মতো লক্ষণগুলির হতে পারে।

কিভাবে চিকিত্সা করবেন: আপনার স্তন সংক্রামিত হলেও, আপনার সন্তানকে দুধ পান করানো বন্ধ করার দরকার নেই। তবে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আপনার ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন, যাতে তিনি সংক্রমণের যত্ন নেওয়ার জন্য আপনাকে অ্যান্টিফাঙ্গাল ওষুধ লিখে দিতে পারে। কাউন্টার থেকে কেনা ওষুধগুলি খাবেন না বা লাগাবেন না, কারণ এটি রক্ত ​​প্রবাহের মাধ্যমে বুকের দুধে প্রবেশ করতে পারে এবং শিশুর দ্বারা সেবন হতে পারে।

কিভাবে প্রতিরোধ করবেন: নিয়মিত নিজেকে এবং আপনার শিশুকে পরিচ্ছন্ন রাখুন। কেবল পরিষ্কার কাপড় ও তোয়ালে ব্যবহার করুন এবং শিশুর ডায়পার পুনরায় ব্যবহার করবেন না। আপনার শিশু মুখে দেয় এমন সমস্ত জিনিস যেমন বোতল, খেলনা এবং প্যাসিফায়ারগুলিকে দিনে প্রায় পনের মিনিটের জন্য ফুটন্ত জলে রাখুন।

ছত্রাক সংক্রমণ

১০. বুকের দুধ খাওয়ানো বন্ধ হওয়া

কখনও কখনও আপনার শিশু, যে কয়েক মাস ধরে আপনার বুকের দুধ খুশিতে খেয়েছে, সে হঠাত স্তন্যপান বন্ধ করে দিতে পারে। এর অর্থ এই নয় যে আপনার শিশু স্তন্যপান বন্ধ করতে চায়, বরং এটি নির্দেশ করে যে অন্য কোন সমস্যা হতে পারে। কিছু সাধারণ কারণগুলি হল সংক্রমণ বা খাওয়ানোর অবস্থান, ব্যাঘাত ঘটা, বন্ধ নাক, উদ্বেগ, অবসন্নতা ইত্যাদির মতো সমস্যা।

কিভাবে চিকিত্সা করবেন: আপনার শিশু যদি সহজভাবে বুকের দুধ খাওয়া অস্বীকার করে তবে আপনার বুকের দুধের পাম্প করে বোতল বা চামচ ব্যবহার করে খাওয়ানোর চেষ্টা করুন। আপনার স্তন থেকে নিয়মিতভাবে খাওয়ানোর চেষ্টা করুন, সে স্তন অস্বীকার করা চালিয়ে গেলেও।

কিভাবে প্রতিরোধ করবেন: আপনার শিশুকে আদর করে, জড়িয়ে ধরে বা তার সাথে খেলে তাকে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করান। শিশুর উপর যাতে চাপ না পড়ে সেজন্য শব্দ দূষণ এবং মনোযোগ বিচ্ছিনকারী জিনিস কম থাকা নিশ্চিত করুন।

বুকের দুধ খাওয়ানোর ক্ষেত্রে অনেকগুলি সমস্যা রয়েছে যার কারণে আপনার অবিলম্বে শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ানো ছাড়াতে ইচ্ছা করতে পারে। তবে পর্যাপ্ত দিকনির্দেশনা এবং ধৈর্য সহ, আপনি এগুলিকে নিয়ন্ত্রনে রাখতে এবং বুকের দুধ খাওয়ানোর প্রস্তাবিত ছয় মাস পূর্ণ করতে সক্ষম হতে পারবেন।