4 থেকে 6 মাস বয়সী শিশুর ঘুম

4 থেকে 6 মাস বয়সী শিশুর ঘুম

পর্যাপ্ত ঘুম পাওয়া শিশুর জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ কারণ তাদের সকল গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ এবং শারীরিক ক্রিয়াকলাপগুলি বিকাশের জন্য যথেষ্ট পরিমাণে বিশ্রামের প্রয়োজন হয় পিতামাতা হিসাবে, আপনার শিশুর ঘুমের ধরনকে পর্যবেক্ষণ করা এবং নিয়মিত ঘুমের রুটিন অনুসরণ করা গুরুত্বপূর্ণ, যাতে আপনার সন্তানের ঘুমের পরিমাণ পর্যাপ্ত হয় তা নিশ্চিত করা যায়

aniview

এমন উপায় রয়েছে যা দিয়ে একজন পিতামাতা শিশুর ঘুমের ভাল অভ্যাস তৈরি করতে পারেন এবং আপনার সন্তানের এই প্যাটার্ন শনাক্ত করতে আপনার কিছু প্রচেষ্টার প্রয়োজন

আমার শিশুর ঘুমের প্যাটার্ন কি?

প্রতিটি শিশু আলাদা এবং আপনার শিশুর প্রয়োজনীয়তা এবং প্যাটার্নের প্রতি আপনাকে সংবেদনশীল হতে হবে যাতে আপনারা উভয়ই আপনার প্রাপ্য বিশ্রাম পান ভালো ব্যাপার হল, আপনি আপনার সন্তানকে সঠিক ঘুমের প্যাটার্নটি কীভাবে অর্জন করতে হবে তা শেখাতে পারেন, যা সেই দিনের জন্য আপনার শিশুর সম্পূর্ণ ঘুমের প্রয়োজনীয়তাগুলি মেটাবে এবং আপনাকে প্রয়োজনীয় বিশ্রাম দেবে

একটি 4 মাস বয়সী শিশুর ঘুমের প্যাটার্নটি অপেক্ষাকৃত একটু বড় বাচ্চার থেকে আলাদা হতে পারে, যেমন ধরুন 10-11-মাসবয়সী বাচ্চার থেকে, তাই এটির জন্য নজর রাখুন 

আমার শিশুর ঘুমের প্যাটার্ন কি?

প্রায় 4-6 মাস বয়সে, আপনার শিশু একটি নিয়মিত ঘুমের প্যাটার্নে অভ্যস্ত হয়ে যাবে এমন কিছু উদাহরণ রয়েছে যেখানে কিছু বাচ্চাদের রাতে বুকের দুধ খাওয়ানোর প্রয়োজন হয়েছে, কিন্তু এই ঘটনার ফ্রিকোয়েন্সি হ্রাস পেতে থাকে

আমার শিশুর কতটা ঘুম প্রয়োজন? (4-6 মাস)

এই পর্যায়ে এবং বয়সে বাচ্চারা প্রায়শই বারো থেকে ষোল ঘন্টা ঘুমায় এর মধ্যে রাত্রের দীর্ঘ ঘুমের সাথে দিনে দুটি ছোট ঘুম রয়েছে

দিনের মধ্যে:

গড়ে, দিনে ঘুমের সময় প্রায় তিন থেকে চার ঘন্টা, যা সারা দিন জুড়ে ছড়িয়ে থাকে আপনার শিশুর বৃদ্ধির সাথে সাথে এবং রাতের ঘুম নিয়মিত হয়ে যাওয়ার সাথে সাথে, দিনের বেলা ঘুমের প্রয়োজন হ্রাস পেতে পারে

রাতে:

রাতে শিশু সাধারণত 10 ঘণ্টা ঘুমায় শিশুরা 6 মাস বয়সী হলে, তাদের বেশিরভাগই রাত্রে 9 ঘন্টা, অথবা আরও বেশি সময় ধরে ঘুমিয়ে থাকে

কিভাবে শিশুর ভালো ঘুমের অভ্যাস তৈরি করতে হবে

আপনার শিশুর ঘুমানোর কাজে ভালো সাহায্য করে এমন কোনো শয়নকালের রুটিন শুরু করতে পারেন শান্ত করার কিছু কার্যক্রম এবং ক্রিয়া যেটি তন্দ্রা এনে দেয় সবসময় ভাল কাজ দেয় আপনি আপনার বাচ্চাকে একটি সুন্দর গরম স্নান দিতে পারেন যার পরে কিছু গান বা গল্প দিনের শেষের সংকেত দিতে পারে আপনার সন্তান বড় হয়ে উঠলেও, অনেক দিন ধরে এই ক্রিয়াকলাপগুলি শয়নকালের রীতি হিসাবে ব্যবহার করা যেতে পারে

কিভাবে শিশুর ভালো ঘুমের অভ্যাস তৈরি করতে হবে

সময়ের সাথে সাথে, হয়তো আপনি আপনার শিশুর নিজের ঘুমিয়ে পড়া পছন্দ করবেন বাচ্চাটি যখন তন্দ্রাচ্ছন্ন হয় তখন তাকে ক্রিবের ভিতরে রেখে দেওয়ার আগে আপনার যে কোনো রাতের সময়কার রুটিন পূরণ করতে হবে যদি তারা কান্নাকাটি করে, তবে কয়েক মিনিটের জন্য দূরে সরে যেতে হবে এবং তাদের নিজে থেকে শান্ত হয়ে ঘুমিয়ে পড়তে দিতে হবে তাদেরকে আদর করার আকাঙ্ক্ষাকে প্রতিরোধ করুন, বিশেষত যদি আপনি তাদের নিজেদের ঘুমিয়ে পড়া শেখাতে চান যদি সে কান্নাকাটি করতেই থাকে তবে আপনি তাকে একটু বেশি সময় ধরে, ধরে রাখতে পারেন

এই বয়সে কোনো ঘুমের সমস্যা হয়?:

কিছু 4 থেকে 6 মাস বয়সী শিশুর ক্ষেত্রে, ঘুমের সমস্যাগুলি যদি পুনরাবৃত্তি হয় তবে সেগুলি সমাধান করা দরকার, তবে সময় অনুশীলনের সাথে সাথে, আপনার সন্তান নিজে নিজে ঘুমিয়ে পড়তে শুরু করবে

কিছু 4 থেকে 6 মাস বয়সী শিশুর ক্ষেত্রে, ঘুমের সমস্যাগুলি যদি পুনরাবৃত্তি হয় তবে সেগুলি সমাধান করা দরকার, তবে সময় অনুশীলনের সাথে সাথে, আপনার সন্তান নিজে নিজে ঘুমিয়ে পড়তে শুরু করবে বাচ্চারা বিচ্ছেদ উদ্বেগ থেকেও ভুগতে পারে, তাই আপনি এর লক্ষণগুলি পর্যবেক্ষণ করুন

শিশুর ঘুম এবং বিকাশ:

পর্যাপ্ত ঘুম শিশুর জন্য খুব দরকার, না হলে তারা সবসময় অস্থির থাকে, ঘুম তাদের স্বাস্থ্যকর রাখে এবং অসুস্থতা থেকে মুক্ত রাখে যেহেতু তাদের দেহ এখনও বিকাশশীল, পর্যাপ্ত ঘুম হলে বাচ্চাদের পর্যাপ্ত বিশ্রাম হয়, যাতে শরীরের সমস্ত কাজ সর্বোত্তম মাত্রায় সম্পাদিত হয় ইমিউন সিস্টেমের বিকাশ, মস্তিষ্কের বিকাশের সাথে, একটি বিশেষ বিকাশমূলক মাইলফলক, যাতে অনেক শক্তির প্রয়োজন হয় এই দুটির জন্যই শিশুর ভাল খাওয়া এবং ভালবিশ্রা প্রয়োজন

4 থেকে 6 মাস বয়সী শিশুর ভালো ঘুমের জন্য কৌশল:

প্রকৃতপক্ষে ঘুম শিশুর বিকাশের একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক এটি এমন একটি জিনিস যা পরিচালনা করা অপেক্ষাকৃত সহজ, অসুস্থতা বা পুষ্টি সমস্যাগুলির সাথে মোকাবিলা করার তুলনায়

নিম্নলিখিত কিছু সহজ কৌশল অনুসরণ করা যেতে পারে যা আপনার শিশুর ভাল ঘুম নিশ্চিত করতে পারে :

  • যদি আপনার 4 মাস বয়সী চিত হয়ে শুয়ে অল্পক্ষণ ঘুমায়, এই অভ্যাস পরিবর্তন করুন তারা যেন পাশ ফিরে বা উপুর হয়ে শুয়ে ঘুমায় তা দেখুন
  • শক্ত একটি পৃষ্ঠতলের উপর গদিটি রাখুন এবং গদির উপর ভালো একটি চাদর পেতে দিন
  • অন্যান্য উপাদান যেমন বালিশ, নরমখেলনা, ইত্যাদি ব্যাসিনেট বা শিশুর বিছানাতে ভিতরে রাখবেন না প্রয়োজন হলে, একটি শিশুর মনিটর রাখুন এটি শিশুদের জন্য কার্যকর ঘুমের সমাধান হিসাবে ব্যবহার করা যেতে পারে, কারণ আপনি একই ঘরে না থাকাকালীন মাঝরাতে আপনার বাচ্চাদের জেগে ওঠার আওয়াজ শুনতে পারেন
  • ঘর এবং আপনার শিশুকে অত্যধিক উষ্ণ করে রাখবেন না শিশু যেন সবসময় স্নিগ্ধ অনুভব করে (কিন্তু শীতল নয়), এবং চারপাশ ঘেরা পরিবেশে ঘুমায় বেশী বাঁধাবাঁধি করবেন না
  • ঘুমানোর সময় তাদের একটি চুষি দিন তবে যদি শিশু এটি নিতে না চায়, তবে ওটি তাদের জোর করে দেওয়ার চেষ্টা করবেন না

দড়ি, তারের বা বন্ধনের মত কোনও বিপজ্জনক কিছু আছে কিনা দেখুন কারণ এগুলি বাচ্চার ক্ষতি করতে পারে তাদের ঘুমানোর পরিবেশ নিরাপদ এবং নিখুঁত কিনা তা নিশ্চিত করুন

বাচ্চা যদি রাতে জেগে ওঠে তাহলে? চিন্তা করবেন না. এই কারণ হতে পারে যে তাদের মন বিক্ষিপ্ত হয়েছে বা ঘুমের আগে চুষির প্রয়োজন হতে পারে আপনি তাদের বিছানাতে ফিরিয়ে দেওয়ার সময় তারা যেন সম্পূর্ণ ঘুমিয়ে থাকে তা নিশ্চিত করুন

একটি ঘুমন্ত শিশুর লক্ষণ

আপনার বাচ্চার আগমনের কয়েক মাস পরে, আপনি তার ঘুমের ধরন এবং উদ্ভূত লক্ষণগুলি লক্ষ্য করবেন একটি 5 মাস বয়সী শিশুর অনেক ঘুমানো ভালো লক্ষণ, কারণ তার অনেক বিশ্রামের দরকার পিতামাতা হিসাবে, আপনাকে শুধু নিশ্চিত করতে হবে যে তারা স্বাভাবিক পরিমাণের বেশি ঘুমাচ্ছে না

একটি ঘুমন্ত শিশুর লক্ষণ

প্রায়ই নতুন মায়েদের ঘুম পাওয়ার লক্ষণ চিহ্নিত করতে অসুবিধা হতে পারে এখানে একটি ঘুমন্ত শিশুর কয়েকটি লক্ষণ দেওয়া হল:

  • তাদের মুখের ভঙ্গি প্রশান্ত অবস্থা থেকে বিকৃত অবস্থায় যেতে পারে
  • তাদের দৃষ্টি আপনার থেকে দূরের কোনো দিকে যেতে পারে এবং শূন্যস্থানের দিকে তাকিয়ে থাকতে পারে
  • তারা তাদের চোখ এবং কান ঘষতে পারে
  • বড় বড় হাই তুলতে পারে
  • তাদের মুষ্টি খেলা বন্ধ করতে পারে
  • কিছু বাচ্চাদের ঘুমানোর সময় তাদের নিজস্ব মেজাজ দেখায়, তাই যত দ্রুত আপনি তাদের শনাক্ত করতে পারেন, ততই ভাল

সবসময় আপনার বাচ্চার ভাল ঘুম হওয়া এবং একটি শান্তিপূর্ণ শৈশব থাকা নিশ্চিত করুন কারণ প্রথম কয়েক বছরের মধ্যে পাওয়া পুষ্টি এবং বিশ্রাম, পরে তাদের বিকাশে একটি প্রধান ভূমিকা পালন করে