গর্ভাবস্থায় সবুজ মল-এটি কি স্বাভাবিক?

গর্ভাবস্থায় সবুজ মল-এটি কি স্বাভাবিক?

গর্ভাবস্থার সহিত শরীরের মধ্যে আসা পরিবর্তনগুলির মধ্যে কয়েকটি সম্পর্কে আপনি সচেতন থাকেন আর কয়েকটি আবার আপনাকে বিস্মিত করে তোলে।আপনার মল সাধারণত হালকা বাদামী বর্ণের হয়ে থাকে,এবং আগের দিন আপনি কি খেয়েছিলেন তার উপর নির্ভর করে এটি কয়েকটি রঙে পৃথক হতে পারে।কিছু মহিলার আবার সবুজ মলের অভিজ্ঞতা হতে পারে বিশেষত,তাদের প্রথম গর্ভাবস্থায়।কীভাবে এটি ঘটে এবং এর অর্থই বা কি সেগুলি সম্পর্কে আরও জানতে আরও বেশি পড়ুন।

aniview

স্বাস্থ্যকর গর্ভাবস্থার পটি কিরূপ দেখতে হয়?

সাধারণত আপনার গর্ভাবস্থাকালীন মলগুলি আপনার গর্ভাবস্থার পূর্ববর্তী সময়ের থেকে দেখতে কিছু আলাদা হয় না।আপনার লক্ষ্য করা পরিবর্তনগুলি গর্ভাবস্থায় আপনার হরমোনের উত্থান-পতন এবং খাদ্যগত পরিবর্তনগুলির সাথে আসে।সাধারণ মলগুলির মধ্যে লিভার দ্বারা উৎপন্ন ‘পিত্ত’ নামক পাচক রস থাকার কারণে সেগুলি বাদামী বর্ণের হয়ে থাকে।পিত্ত রস সবুজে-হলুদাভ বর্ণের হয়ে থাকে এবং খাদ্য মধ্যস্থ ফ্যাটগুলি ভেঙ্গে ফেলতে সহায়তা করে।এটি আপনার অন্ত্রের মধ্য দিয়ে চলাচল করার কারণে উৎসেচক এবং ব্যাকটেরিয়াগুলি এর সহিত প্রতিক্রিয়া করে এবং পরিশেষে এর বর্ণ বাদামীতে পরিবর্তন করে।

মলের রঙ হালকা হলুদ থেকে শুরু করে গাঢ় বাদামী অথবা কালো বিভিন্ন রঙের একটা পরিসরের মধ্যে থাকলে তা স্বাভাবিক বলে বিবেচিত হয়।গর্ভাবস্থায় গাঢ় সবুজ মলের সহিত অন্যান্য উপসর্গগুলি সংযুক্ত না হওয়া অবধি সেটি স্বাভাবিক বলে বিবেচিত হয়ে থাকে।স্বাস্থ্যকর মল মূল্যায়ণের একটি ভাল উপায় হল সেটি যথেষ্ট নরম হওয়া উচিত যাতে আপনি বাথরুমে গিয়ে মল অপসারণের সময় বেগ প্রয়োগের ফলে কোনও ক্ষত সৃষ্টি না হয়,এবং আপনি আহত না হন।

গর্ভাবস্থায় সবুজ মল হওয়াটা কি স্বাভাবিক?

আপনার মল অপাচিত খাদ্য যেমন ফাইবার,ফ্যাট এবং কোলেস্টেরল,প্রোটিন,মৃত ব্যাকটেরিয়া এবং অন্ত্রের শ্লেষ্মার মত একাধিক জিনিসের সমন্বয়ে গঠিত।গর্ভাবস্থা আপনার পাচন প্রক্রিয়া এবং আপনার মলের রঙ পরবর্তন করতে পারে।অতএব গর্ভবতী মহিলাদের সবুজ মল হওয়াটা বেশ স্বাভাবিক।আদতে,এটি গর্ভবতী মহিলাদের মধ্যে তুলনামূলকভাবে একটি সাধারণ অভিযোগ হয়ে থাকে।এমনকি হরমোনের পরিবর্তনগুলির সহিত যুক্ত হওয়ার কারণে সবুজ মলগুলিকে গর্ভাবস্থার প্রাথমিক লক্ষণ হিসেবে কিছুজন বিবেচনা করে থাকেন,যদিও এটি তর্কসাপেক্ষ।

গর্ভাবস্থায় সবুজ মলের কারণ

সাধারণত মলের বাদামী বর্ণ পিত্ত রসে ব্যাকটেরিয়ার ক্রিয়ার ফলে হয়।সাধারণ অন্ত্রের গতিবিধি মাইক্রোবস বা জীবাণুগুলিকে উজ্জ্বল হলদেটে সবুজাভ পিত্ত রসকে গাঢ় বাদামীতে রুপান্তরিত করতে যথেষ্ট সময় দেয়।আপনার মল সবুজ হয়ে ওঠার একটি কারণ হল অন্ত্রনালীর মধ্যে পিত্ত যথাযথভাবে ভেঙ্গে যাওয়ার পূর্বেই অন্ত্র নালীর মধ্য দিয়ে মলগুলি দ্রুত গতিতে পাস করে।এছাড়াও এটি হওয়ার পিছনে আরও বিভিন্ন কারণ আছে।

স্বাস্থ্য সমস্যা বা ব্যাধি যা সবুজ মলের কারণ

এগুলি হল সেই সকল রোগ যা সবুজ মলের কারণঃ

1. সেল্যাক রোগ

এটি একটি অটোইমিউন ব্যাধি যা জীনগত কারণে ঘটে থাকে,যেখানে বার্লি,গম এবং রাইয়ের মত দানাশস্যে উপস্থিত গ্লুটেন নামক প্রোটিন গ্রহণ করার ফলে প্রতিরোধমূলক প্রতিক্রিয়া হতে পারে।এর ফলে ক্ষুদ্রান্ত্রের আস্তরণে প্রদাহ সৃষ্টি হয়,যা নির্দিষ্ট কিছু পুষ্টিকর উপাদান শোষণে বাধা দান করে এবং নানা জটিলতার সৃষ্টি করে।

2. জিয়ার্ডিয়া

এটি অন্ত্রের একটি পরজীবী সংক্রমণ যা দূষিত খাবার বা জল খাওয়ার দ্বারা সংকুচিত হতে পারে।বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এটি নিজে থেকেই পরিষ্কার হয়ে যায়,তবে গুরতর ক্ষেত্রে অ্যান্টিবায়োটিকগুলির দ্বারা চিকিৎসা করা প্রয়োজন।

3. সিওডুমেমব্রেনাস কোলাইটিস

এটি আপনার মলাশয়ে কিছু নির্দিষ্ট ধরনের ব্যাকটিরিয়া অতিরিক্ত মাত্রায় বেড়ে ওঠার কারণে হয়ে থাকা একটি প্রদাহমূলক ব্যাধি, এটি প্রায়শই অ্যান্টিবায়োটিকের ফলে মলাশয়ের মধ্যে স্বাস্থ্যকর ব্যাকটিরিয়াগুলি ধ্বংসপ্রাপ্ত হওয়ার কারণে হয়ে থাকে।এর ফলে ব্যকটেরিয়া c পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে প্রচুর পরিমাণে উৎপন্ন হয়ে ভারসাম্য ব্যাহত করে।

4. ইরিটেবল বাওয়েল সিনড্রোম

এটি বৃহদন্ত্রের ক্ষতি করে,যেখানে পেশীগুলি খাদ্যকে বৃহদন্ত্রের মধ্য দিয়ে চলাচল করতে সহায়তা করে, যা স্বাভাবিকের তুলনায় শক্তিশালী হয় এবং সেই সংকোচন অনিয়মিত হওয়ার ফলে পেট ফাঁপা,গ্যাস এবং ডায়েরিয়া দেখা যায়।

ইরিটেবল বাওয়েল সিনড্রোম5. আলসারজনিত কোলাইটিস

অন্ত্রের এই রোগটি মলাশয় এবং মলদ্বারের ভিতরের দিকের আস্তরণের ক্ষতি করে।এর ফলে পাচন নালীতে ঘা এবং প্রদাহ হয় যার জন্য তলপেটে খিঁচুনি এবং বদহজম দেখা দেয়।যে সকল মানুষ এই অসুখটিতে ভোগেন তাদের কোলন ক্যান্সার হওয়ার সম্ভবনা বেশী দেখা যায়।

6. অন্ত্রের ক্যান্সার

অন্ত্রের ক্যান্সারজনিত বৃদ্ধি তার প্রবাহকে বাধা বা সীমাবদ্ধ করে অন্ত্রের গতিবেগকে প্রভাবিত করে যা প্রচন্ডভাবে পরিপাক প্রক্রিয়ার উপর বিরূপ প্রভাব ফেলে।

7. ক্রণস ডিজিজ

ক্রণস ডিজিজ রোগটি মলাশয় এবং অন্ত্রের ক্ষতি করে, কখনো কখনো এটা জীবনহানিকর হয়ে ওঠে।এটা নিরাময় করা যায় না,বিভিন্ন ঔষধ গ্রহণ করলে রোগটির বৃদ্ধির হার শ্লথ হয়ে যায়।

8.খাদ্যে সালমোনেল্লার বিষক্রিয়া

সংক্রামিত খাবারের মধ্য দিয়ে শরীরে সালমোনেল্লা ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ ঘটে থাকে।এটা মূলত ভাল করে রান্না না করা সংক্রামিত পোলট্রির মাংসের মধ্য দিয়ে ছড়ায়।

9. ই.কোলাই

ই.কোলাই হল হল একটি খুব সাধারণ বাক্টেরিয়া যা বেশির ভাগ খাদ্য বিষক্রিয়ার কারণ যেটি সংক্রামিত খাদ্য এবং জল আহার হিসাবে গ্রহণের মাধ্যমে ঘটে থাকে।ঠিক মত রান্না না করা মাংস ই. কোলাই ছড়ানোর জন্য বহুল পরিমানে দায়ী।

10. ভাইরাল গ্যস্ট্রোএন্ট্রাইটিস

ভাইরাল গ্যস্ট্রোএন্ট্রাইটিস যা সাধারণভাবে পাকস্থলীর ফ্লু হিসাবে পরিচিত, মূলত ছড়ায় সংক্রামনিত খাদ্য, জল অথবা আক্রান্ত ব্যাক্তির ব্যবহৃত বাসনপত্র বা তোয়ালে প্রভৃতি যৌথ ভাবে ব্যবহার করা থেকে।

গর্ভাবস্থায় সবুজ মলের অন্যান্য কারণগুলি

হরমোনের পরিবর্তনগুলি এবং রোগ-ব্যাধিগুলি বাদ দিয়েও সবুজ বর্ণের মল হওয়ার আরও কয়েকটি কারণ আছেঃ

1. ডায়েট

আপনি যা খান তা আপনার মলের বর্ণকে প্রভাবিত করতে পারে।বীটরূট খাওয়ার এক দিন পর আপনি হয়ত এটি লক্ষ্য করতে পারেন।বহু গর্ভবতী মহিলাই তাদের প্রয়োজনীয় সকল অপরিহার্য পুষ্টিকর উপাদানগুলি পাওয়ার জন্য ব্রকোলি,সবুজ শাক-সবজি এবং পালং শাক রূপে প্রচুর পরিমাণে সবজিগুলি খেয়ে থাকেন।ক্লোরোফিল (পাতার রঞ্জকগুলি যা সেগুলিকে সবুজ করে) অতিরিক্ত গ্রহণ করার ফলে তা আপনার মলের রঙ সবুজে রূপান্তরিত করতে পারে।অতএব,সবুজ শাক সবজিতে সীমাবদ্ধতা আনলে তা সমস্যাগুলিকে স্থিতিশীল রাখতে সহায়তা করতে পারে।

2. অনিয়মিত মলত্যাগ

এটি বোঝায় যে আপনার ভক্ষণ করা খাবারগুলি আপনার দেহ থেকে মলাকারে অপসারিত হওয়ার পূর্বে কত সময় ধরে আপনার বৃহদন্ত্রের মধ্যে অবস্থান করে।পরিবহনকালীন স্বল্প সময় সবুজ মলের দিকে পরিচালিত করে কারণ অপাচিত খাদ্যের সহিত সবুজ পিত্ত কোলনের মধ্য দিয়ে দ্রুত চলাচল করে।

3. জন্ম পূর্ববর্তীকালীন ভিটামিনগুলি

কখনও কখনও আবার একটি স্বাস্থ্যকর ডায়েটের মধ্যে থাকা সত্ত্বেও তা আপনার দেহের জন্য প্রয়োজনীয় সকল পুষ্টিকর উপাদানগুলি পর্যাপ্ত পরিমাণে সরবরাহ করতে পারে না,এই রকম পরিস্থিতিতে আপনার ডাক্তারবাবু আপনার জন্য একটি অতিরিক্ত সহায়ক হিসেবে জন্ম পূর্ববর্তীকালীন ভিটামিনগুলি সুপারিশ করে থাকেন।আর এই সকল ভিটামিনগুলির মধ্যে উপস্থিত কিছু খনিজ যেমন আয়রণ মলের বর্ণ সবুজে রূপান্তরিত করে থাকে।

4. ওষুধ

কিছু নির্দিষ্ট ধরনের ওষুধ যেমন কোনও সংক্রমণের সময় আপনাকে যে সকল অ্যান্টিবায়োটিকগুলি দেওয়া হয়ে থাকে,তা মাঝেমধ্যে আপনার মলকে সবুজ বর্ণে পরিণত করে তুলতে পারে।যে বিষয়টি আপনাকে মনে রাখতে হবে তা হল এই পরিবর্তনটি সাময়িক এবং অ্যান্টিবায়োটিকের কোর্সটি বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর শেষ অবধি মলের রঙটি পুনরায় স্বাভাবিকে ফিরে আসবে।

5. রেচক ঔষধ

আপনি যদি রেচক ঔষধগুলি সেবন করে থাকেন,তবে সেগুলি আপনার অন্ত্রের খাদ্যের চলাচলকে ত্বরান্বিত করে, যার ফলে সবুজ মল দেখা দিতে পারে।আর অন্ত্রের মধ্যে খাদ্য চলাচলের দ্রুততার এই স্বল্প সময়ের মধ্যে পিত্ত রস সম্পূর্ন রূপে ভেঙ্গে যেতে পারে না,যা আপনার মলকে সবুজে রুপান্তরিত করে।

কীভাবে এর সাথে মোকাবিলা করা যায়?

সাধারণত গর্ভাবস্থায় সবুজ মল হওয়া বিষয়ে চিন্তার কোনও প্রয়োজন নেই।সর্বত্র সহস্রাধিক মহিলার এটির অভিজ্ঞতা হয়ে থাকে।আপনি যদি প্রথমবার মা হয়ে থাকেন তবে সেক্ষেত্রে এটি কিছুটা উদ্বেগের হয়ে উঠতে পারে,অতএব আপনার ডাক্তারের সাথে কথা বলে এর পিছনে কোনও গুরুতর কারণ আছে কিনা তা খুঁজে বের করাই হল এই সন্দেহ অবসানের প্রথম পদক্ষেপ।সবুজ মল যদি এখনও আপনাকে বিব্রত করে তোলে এবং আপনি যদি নিশ্চিত হয়ে থাকেন যে এটি আপনার ডায়েটের পরিণতি, তবে সেক্ষেত্রে সবুজ অথবা বেগুন রঞ্জকপূর্ণ খাদ্যগুলি আপনার ডায়েটের তালিকা থেকে অপসারিত করে খাদ্য তালিকায় পরিবর্তন আনুন।প্রসব পূর্ববর্তী বড়ি যেগুলিতে কম মাত্রায় হলেও আয়রণ আছে সেবনের কারণে যদি আপনার মলের বর্ণ সবুজ হয়ে থাকে,সেক্ষেত্রে আপনার ডাক্তারের সাথে আলোচনার পর সেগুলির পরিবর্তন করুন।আপনি যদি কোনও সংক্রমণের ওষুধের আওতায় থাকেন তবে সেটি আপনার ডাক্তারবাবুর নজরে নিয়ে আসুন যাতে তিনি সেগুলির ডোজের পরিমাণ কমিয়ে দেন অথবা পরিবর্তন করে দিতে পারেন।

কীভাবে এর সাথে মোকাবিলা করা যায়?

যতদূর স্বাস্থ্যের সমস্যার কথা আসে,সংক্রমণ হওয়াকে এড়ানো কেবল আপনার মলের বর্ণের জন্যই ভাল নয়,এটি আপনার স্বাভাবিক স্বাস্থ্যের পক্ষেও ভাল।সমস্ত ধরনের খাদ্যগুলি বিশেষ করে মাংস খুব ভালভাবে ধুয়ে সম্পূর্ণরূপে রান্না করুন।আপনার হাত বার বার ধোবেন এবং যখন আপনি বাইরে যাবেন প্রচুর পরিমাণে স্যানিটাইজার ব্যবহার করুন।আপনার পাচন তন্ত্রের কার্য ভালভাবে সম্পন্ন করার জন্য সময় মত এবং স্বাস্থ্যকর খাদ্য খাওয়া অনুসরণ করুন।

কখন একজন ডাক্তার দেখাবেন?

কখনও কখনও আপনি হয়ত আপনার মলের বর্ণের পরিবর্তনগুলিকে অবজ্ঞা করতে পারেন যদি সেগুলির সাথে অন্য কোনও সতর্কতামূলক লক্ষণগুলি যুক্ত না থাকে।তবে আপনি যদি প্রায়শই সবুজ মলের সম্মুখীন হয়ে থাকেন,সেক্ষেত্রে আপনার ডাক্তারের সাথে সাক্ষাৎকারের একটি সময়সূচী নির্ধারণ করুন।আপনি গর্ভবতী হওয়ার পর আপনার ডায়েট এবং জীবন যাত্রায় যে ধরনের পরিবর্তনগুলি এসেছে সেগুলি সম্পর্কে আপনার ডাক্তারবাবুকে বলবেন।এই তথ্যগুলি আপনার মলের বর্ণ পরিবর্তনের অন্তর্নিহিত কারণগুলিকে উদ্ঘাটন করতে সহায়তা করবে।যদি সবুজ বর্ণের মল নিম্নলিখিত কোনও গুরুতর স্বাস্থ্য সমস্যার ইঙ্গিত দিয়ে থাকে তবে তা হল বিরল ঘটনা,আর সেটি যদি আপনি আপনার মধ্যে লক্ষ্য করে থাকেন তবে অনতিবিলম্বে আপনার ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করা উচিত।

  • মলে রক্ত অথবা সবুজ শ্লেষ্মার উপস্থিতি
  • পেট ব্যথা এবং পেটে টান লাগার সহিত যদি কয়েকদিন ধরে ডায়রিয়া এবং জলের মত তরল মল হতে থাকে
  • মলদ্বারে যন্ত্রণা,জ্বর,এবং ক্ষুধামান্দ্যের মত শারীরিক উপসর্গগুলির পাশাপাশি সবুজ মল যদি দেখা যায়
  • কোষ্ঠকাঠিণ্যের ন্যায় অবিরাম বাধাগুলি যদি আসে

গর্ভাবস্থায় সবুজ মল সংক্রান্ত প্রায়শই জিঞ্জাসিত প্রশ্নাবলী

1. সবুজ মল কি গর্ভাবস্থারই ইঙ্গিত দেয়?

গর্ভাবস্থার কারণে হরমোনগুলির ওঠানামা স্রাবের কারণ হয়ে উঠতে পারে,যা সবুজ-হলুদ বর্ণের হয় এবং প্রায়শই যাকে সবুজ জলীয় মল ভেবে ভুল করা হয়।যদি সেটি আপনার মধ্যে হয়ে থাকে তবে আপনার ডাক্তারের সাথে দেখা করা নিশ্চিত করুন কারণ এটি হয়ত ইঙ্গিত দিতে পারে আপনার গর্ভবতী হওয়ার অথবা আপনার গর্ভাবস্থার প্রাথমিক পর্যায়ে হয়ে থাকা কেবল কোনও সংক্রমণ কিনা তা সণাক্তকরণে সহায়তা করতে পারে।

2.সবুজ মল সম্পর্কে কি চিন্তা করা উচিত?

আপনি যদি নিশ্চিত হয়ে থাকেন যে আপনার সবুজ মলের কারণটি কেবল কিছু নির্দিষ্ট খাদ্য অথবা সম্পূরকগুলি ছাড়া আর বিশেষ কিছুই নয়,সেক্ষেত্রে সে বিষয়ে সেরকম চিন্তা করার কোনও প্রয়োজনই নেই।তবে আপনি যদি খিঁচুনি,রক্তপাত,কোনও সংক্রমণের লক্ষণগুলি যেমন জ্বর,কম্পন ইত্যাদির মত অন্যান্য উপসর্গগুলি লক্ষ্য করে থাকেন,আপনার ডাক্তারবাবুর সাথে আলোচনা করুন।

3.গর্ভাবস্থায় আমার মলগুলি আদর্শগতভাবে কিরকম দেখতে হওয়া উচিত?

গর্ভাবস্থায় আপনার মল আদর্শগতভাবে আপনি গর্ভবতী না থাকাকালীন অবস্থার মতই হওয়া উচিত।যাইহোক,তবে আপনাকে সর্বদা এ ব্যাপারে সজাগ থাকতে এবং সুরক্ষা সীমার বাইরে থাকা লক্ষণগুলি যেমন: অব্যক্ত সবুজ মল, তলপেটে ব্যথা ইত্যাদি দেখা দিলে সেগুলি লক্ষ্য করার পরামর্শই দেওয়া হয়।

গর্ভাবস্থায় সবুজ মল সাধারণ ব্যাপার এবং বেশিরভাগ সময়েই এ ব্যাপারে উদ্বেগ করার কোনও কারণ নেই,সুতরাং একটি দীর্ঘ প্রশ্বাস নিন এবং যেকোনও গুরতর সমস্যাগুলি সণাক্তকরণের অথবা দূরীকরণের জন্য আপনার ডাক্তারবাবুর সাথে আলোচনা করুন।