গর্ভাবস্থায় HCG ইঞ্জেকশন

গর্ভাবস্থায় HCG ইঞ্জেকশন

হিউম্যান কোরিওনিক গোনাডোট্রপিন(HCG) ইঞ্জেকশনগুলি হবু মায়েদের দ্বারা ব্যবহৃত হয়ে থাকে তাদের গর্ভাবস্থাকে সুরক্ষা প্রদানের জন্য।কিন্তু গর্ভপাতের মত ঘটনা এড়াতে HCG ইঞ্জেকশনগুলি ব্যবহার করা কি নিরাপদ?এর কি কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে?বেশ,এই নিবন্ধটির দ্বারা আপনাকে জানানো হবে HCG ইঞ্জেকশন সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য যা কিছু আপনার জানা প্রয়োজন।

aniview

HCG আসলে কি?

এটি হল ডিম্বাশয়ের মধ্যে শুক্রাণুগুলি প্রতিস্থাপিত হওয়ার পর প্ল্যাসেন্টা বা অমরার দ্বারা উৎপাদিত হরমোন যা হিউম্যান কোরিওনিক গোনাডোট্রপিন(HCG) হিসেবে পরিচিত।

HCG দুই ভাবে কাজ করে।প্রথমত,এটি ডিম্বাশয়ের মধ্যে ডিম্বাণুর স্বাভাবিক বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।দ্বিতীয়ত,এটি ওভ্যুলেশন বা ডিম্বস্ফোটনের সময় ডিম্বাণুগুলিকে মুক্ত হতে প্রবৃত্ত করে।

HCG কে বেশ কার্যকর গর্ভাবস্থাকালীন হরমোন হিসেবেও অভিহিত করা হয় এবং গর্ভধারণের কয়েক দিন পরেই একটি গর্ভবতী মহিলার রক্তে এবং প্রস্রাবে এটিকে চিহ্নিত করা যেতে পারে।ঠিক এই কারণের জন্যই কোনও মহিলা গর্ভবতী কিনা তা নিরূপণ করতে তার প্রস্রাব এবং রক্ত পরীক্ষা করানো হয়।

HCG ইঞ্জেকশনগুলি কি গর্ভপাত প্রতিরোধে সহায়তা করে?

গর্ভপাত হল একজন প্রত্যাশী মায়ের জীবনের সবচেয়ে বড় দুঃস্বপ্ন।যদি এক্ষেত্রে অতীতে একাধিক গর্ভপাতের ইতিহাস থেকে থাকে,তবে এটি অনস্বীকার্য যে আপনি যখন পুনরায় গর্ভধারণের প্রয়াস করে থাকেন তখন সেক্ষেত্রে আপনার গর্ভপাত প্রতিহত করার জন্য প্রয়োজনীয় সকল সাবধানতাগুলি অবশ্যই অবলম্বন করতে চান।

HCG ইঞ্জেকশনগুলি কি গর্ভপাত প্রতিরোধে সহায়তা করে?

এই সকল দৃশ্যবিবরণীতে,ডাক্তারবাবু হয়ত ডিম্বাশয়ের মধ্যে ডিম্বাণুর উন্মুক্তকরণকে উদ্দীপ্ত করার জন্য HCG এর শটগুলি দেওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকতে পারেন।গবেষণায় বলা হয় যে,কিছু অন্যান্য হরমোনাল শটের পাশাপাশি HCG ইঞ্জেকশনটি মহিলাদের গর্ভধারণ করার ক্ষেত্রে সহায়তা করতে পারে তবে এটির আবার নিজস্ব কিছু সুবিধা অসুবিধাও আছে।

গর্ভাবস্থায় হিউম্যান কোরিওনিক গোনাডোট্রপিন(HCG) ইঞ্জেকশনগুলি কীভাবে কাজ করে?

গর্ভাবস্থায় HCG হরমোন সেই সকল কোষগুলির দ্বারা নিঃসৃত হয় যেগুলি অমরা বা প্ল্যাসেন্টার বৃদ্ধির জন্য দায়ী।গর্ভাবস্থায় জরায়ুর প্রাচীরে সংলগ্ন হওয়ার পর নিষিক্ত ডিম্বাণুকে লালন পালন করা এবং বেড়ে উঠতে সহায়তা করা হল HCG হরমোনের কাজ।অমরা বা প্ল্যাসেন্টাটি একবার সফলভাবে গঠিত হলে,অমরার কোষগুলি HCG হরমোন ক্ষরিত করে।ভ্রূণটি বেড়ে ওঠার কারণে প্ল্যাসেন্টার দ্বারা HCG হরমোনের ক্ষরণ উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পায়।সুতরাং এটি জাহির করা হয় যে,গর্ভাবস্থায় ভ্রূণের স্বাভাবিক এবং স্বাস্থ্যকর বিকাশের জন্য HCG এর পর্যাপ্ত সরবরাহ প্রয়োজন।

গর্ভাবস্থায় HCG এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াগুলি

প্রাথমিক গর্ভাবস্থায় HCG ইঞ্জেকশনের ব্যবহারে অসংখ্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে যেগুলি কোনওভাবেই অবহেলা করা উচিত নয়।এটির আবার বমি করা,যন্ত্রণা,স্তনের সংবেদনশীলতা ইত্যাদির মত গর্ভাবস্থার কিছু উপসর্গগুলিকে বাড়িয়ে তোলার প্রবণতাও থাকে।এখানে HCG ইঞ্জেকশনের কিছু গুরুতর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সম্পর্কে আলোচনা করা হল যেগুলি অবশ্যই বিবেচনা করতে হবে এবং HCG এর শট নেওয়ার পূর্বে আপনার স্ত্রীরোগবিশেষজ্ঞের সহিত এই সংক্রান্ত সমস্ত বিষয় নিয়ে ভালভাবে আলোচনা করে নিতে হবে।

  • গর্ভাবস্থায় HCG শটগুলি ডিম্বাশয়ের হাইপারস্টিমুলেশনের কারণ হতে পারে যা ওভারিয়ান হাইপারস্টিমুলেশন সিনড্রোম (OHSS) নামে পরিচিত।গবেষকরা নিশ্চিত করেন যে,25% মহিলারা যারা গর্ভবতী হওয়ার জন্য এই শটটি নেন তারা এই সিন্ড্রোমের সহিত যুক্ত হালকা থেকে গুরতর সমস্যায় ভুগে থাকেন।যদি OHSS এর উপসর্গগুলি হালকা মানের হয়ে থাকে,তবে সেটি এক সপ্তাহের মধ্যেই সেরে যায়।আর HCG শট দেওয়ার পর মহিলাদের মধ্যে OHSS এর গুরুতর লক্ষণগুলি খুব বিরল ক্ষেত্রেই দেখেতে পাওয়া যায়।OHSS এর লক্ষণগুলির মধ্যে রয়েছে শ্বাস-প্রশ্বাসজনিত সমস্যা,বিবর্ণ প্রস্রাব এবং পেট ব্যথা।উল্লিখিত কোনও একটি লক্ষণও যদি গুরুতর হয়ে ওঠে দেরী না করে মুহূর্তে আপনার স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞের সহিত এ ব্যাপারে আলোচনা করুন।
  • HCG শট শরীরকে তরল ধরে রাখতে সাহায্য করে,যার পরিণামস্বরূপ আপনার ওজন বাড়তে পারে। অনেক ক্ষেত্রে আবার এডিমা বা প্রদাহ দেখা যায়।অল্প কিছুটা ওজন বাড়া স্বাভাবিক এবং এতে উদ্বেগের কিছু নেই। তবে যদি আকস্মিকভাবে অনেকটা ওজন বেড়ে যায় তবে সেক্ষেত্রে আপনার ডাক্তারবাবুর সাথে পরামর্শ করারই পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।
  • HCG শট দেওয়ার পর শরীরে হয়ে থাকা অপর আরেকটি উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন হল স্তন বেদনা এবং ফুলে ওঠা।কিছু মহিলার মধ্যে,তাদের স্তন খুবই যন্ত্রণাদায়ক হয়ে ওঠে এবং কিছুটা নমনীয়তা অনুভূত হতে শুরু করে।দেখা গেছে যে,দেহ HCG শটগুলির সহিত একবার মানিয়ে নেওয়া শুরু করলেই এই লক্ষণগুলি ম্লান হতে থাকে।তবে যদি সমস্যাটি অব্যহত থাকে তবে সেক্ষেত্রে আপনি অবশ্যই আপনার ডাক্তারবাবুর সহিত আলোচনা করুন।
  • HCG শটের অপর আরেকটি পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হল বিষণ্ণতাবোধ।এটি সর্বদা আপনার মধ্যে বিরক্তবোধ,হতাশা সৃষ্টি করতে এবং ক্রুদ্ধ করে তুলতে পারে।এর কারণ হল শরীরে যেকোনও হরমোনের পরিবর্তনের ফলেই অবসাদ এবং মেজাজের দোলাচল হয়ে থাকে।যদিও এটি সাধারণত খুব দীর্ঘ দিন বজায় থাকে না কিন্তু যদি সেটি হয়ে থাকে তবে আপনার ডাক্তারবাবুকে দেখানোর প্রয়োজন হতে পারে।
  • HCG শটের ফল হিসেবে আবার অবসাদ,মাথা ধরা,পেট ব্যথা এবং ইঞ্জেকশন দেওয়া স্থানে ব্যথা অনুভূত হতে পারে।

HCG ইঞ্জেকশনটি অবশ্যই আপনার স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়ার পরেই কেবল দেওয়া যেতে পারে।গর্ভাবস্থার HCG এর সম্ভাব্য সকল উপসর্গগুলি এবং কঠোরতাগুলি সম্পর্কে অবশ্যই ভালভাবে আলোচনা করে নেওয়া উচিত।এর কোনও একটি লক্ষণও যদি আপনার মধ্যে রয়ে যাওয়ার প্রবণতা থাকে তবে অনতিবিলম্বে আপনার স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞের সহিত আলোচনা করুন।