শিশুদের জন্য তরমুজ-স্বাস্থ্যকর উপকারিতা এবং রেসিপি সমূহ

শিশুদের জন্য তরমুজ-স্বাস্থ্যকর উপকারিতা এবং রেসিপি সমূহ

শৈশবের প্রথম দিনগুলিতে ভবিষ্যতের উপর একটা গুরুতর প্রভাব রয়েছে,সুতরাং যথাযথ বৃদ্ধি সুনিশ্চিত করতে প্রতিটি বাবামায়েরই তাদের সন্তানের জন্য সর্বোত্তম সরবরাহ করতে, অবশ্যই তাদের যত্ন নিতে হবে।শিশুর বৃদ্ধি মূলত নির্ভর করে তার খাবারের উপরে এবং শিশু শৈশবস্থায় কি খাচ্ছে তার উপরে।অতএব,শিশুদের খাদ্যে বাবামায়েদের অবশ্যই সর্বাধিক গুরুত্ব দিতে হবে এবং কেবলমাত্র সবচেয়ে ভাল খাদ্য উপাদানগুলিকেই শিশুকে খাওয়াতে হবে।

aniview

আপনার সন্তানকে কি খাওয়াবেন সেটা নির্বাচন করা কিছুটা বিভ্রান্তিকর হতে পারে,কারণ এক্ষেত্রে এমন অনেক উৎস আছে যেগুলি দ্বন্দ্বযুক্ত খাদ্য উপাদান এবং রেসিপির সুপারিশ করে বলে মনে হতে পারে।যাইহোক এখানে এমন একটা ফল/সবজির নাম বলা হল যেটি শিশুদের জন্য আদর্শ, তা হলতরমুজ।তরমুজকে যেকোনও শিশুর জন্য উচ্চ মাত্রায় সুপারিশ করা হয় যেহেতু এর মধ্যে বহু গুণাবলী থাকে যা এটিকে ভীষণভাবে আকর্ষণীয় করে তোলে।এটির মধ্যে একটা তাজা মিষ্টি স্বাদ এবং একটা সবজির সঠিক পুষ্টির পরিমাণ উভয় গুণই যৌথভাবে সমন্নিত থাকে।

কখন আপনার সন্তান তরমুজ খেতে পারে?

আপনার সন্তান সঠিকভাবে তরমুজ খেতে পারে তার শৈশবের প্রাথমিক পর্যায় থেকে, বিশেষজ্ঞরা শিশুদের জন্য এটি খাওয়া নিরাপদ বলে গণ্য করেন তাদের ছয় মাস বয়সে।এই ফলটিতে প্রায় 95% জল আছে,সুতরাং,আপনার বাচ্চাকে সর্বদা হাইড্রেট রাখতে এটি খাওয়ানো একটা দারুণ কাজ।বিশেষ করে তপ্ত গ্রীষ্ম কালের সময়,তরমুজ শিশুদের খুব ছোট বয়স যথা তাদের ছয় থেকে আট মাস বয়স থেকে খাওয়ানো যেতে পারে।

তরমুজের পুষ্টি মান

তরমুজ সম্পর্কে সব থেকে আকর্ষণীয় অংশটি হল এই ফলটি প্রায় 93% ই জল দিয়ে তৈরী,যা শিশুদের মধ্যে ডিহাইড্রেশন প্রতিরোধ করার জন্য একটা দূর্দান্ত বিকল্প গড়ে তোলে।তরমুজের পুষ্টি মানের তালিকা নিম্নে দেওয়া হল

 

পুষ্টিকর উপাদান প্রতি 100 g –এ মান
জল 91.45g
প্রোটিন 0.61g
কার্বোহাইড্রেট 7.55g
শর্করা 6.2g
এনার্জি বা শক্তি 30kcal
মোট লিপিড 0.15g
ফাইবার বা তন্তু 0.4g
থিয়ামিন 0.033mg
ভিটামিন B-6 0.045mg
ভিটামিন A 0.17mg
ভিটামিন K 0.1ug
ভিটামিন C 8.1mg
নিয়াসিন 0.178mg
ফোলেট 3ug
ভিটামিন E 0.05mg
আয়রণ 0.24mg
ফসফরাস 112mg
জিঙ্ক 0.1mg
ক্যালসিয়াম 7mg
ম্যাগনেসিয়াম 11mg
সোডিয়াম 1mg

শিশুর জন্য তরমুজের আশ্চর্যজনক স্বাস্থ্যকর উপকারিতা

প্রাপ্তবয়স্ক এবং শিশু উভয়ের জন্যই তরমুজে অনেক স্বাস্থ্যকর উপকারিতা আছে।তার কিছু এখানে দেওয়া হল

1.হাইড্রেশন বা জলয়োজনবিশেষ করে গ্রীষ্মের মাসগুলিতে,আপনার সন্তানের শরীরে পর্যাপ্ত জল থাকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।তরমুজ হল এর জন্য সম্পূর্ণ আদর্শ একটা খাদ্য,যেহেতু এটি 93% জল দ্বারা গঠিত।

2.ভিটামিন C দ্বারা সমৃদ্ধশিশুর বৃদ্ধির জন্য ভিটামিন C গুরুত্বপূর্ণ এবং শিশুর গঠণমূলক বছরগুলিতে তার বিকাশের ক্ষেত্রে এটি একটা বিশাল ভূমিকা পালন করে।তরমুজে উচ্চ মাত্রায় ভিটামিন C থাকে,যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে আরও শক্তিশালী করে তুলতে এবং দেহে আয়রণ শোষণে সাহায্য করে।

3.ভিটামিন A পরিপূর্ণভিটামিন A দৃষ্টিশক্তি,দাঁতের স্বাস্থ্য এবং ত্বকের উন্নতি ঘটায় এবং এছাড়াও এটি কোমল কলা এবং মিউকাস মেমব্রেনস বা শ্লৈষ্মিক ঝিল্লির বিকাশ ঘটায়।এছাড়াও তরমুজে ভিটামিন A সমৃদ্ধ থাকে।

4.হাড়ের শক্তি তরমুজে ভাল পরিমাণে ক্যালসিয়াম এবং ম্যাগনেসিয়াম আছে যা শিশুদের হাড়ের গঠন এবং হাড়ের শক্তির বিকাশে এক বিশাল ভূমিকা পালন করে।এছাড়াও ক্যালসিয়াম শিশুদের সঠিক হরমোন ক্ষরণের জন্যও গুরুত্বপূর্ণ।

5.ভিটামিন বি কমপ্লেক্স ভিটামিন বি কমপ্লেক্সের মধ্যে এক ঝাঁক ভিটামিন রয়েছে যেগুলির সবগুলিই ছোট শিশুর দেহের বিভিন্ন পদ্ধতির বিকাশে এবং বৃদ্ধিতে উচ্চ প্রভাবশালী ভূমিকা পালন করে।এগুলির মধ্যে রয়েছে লোহিত কণিকার গঠন,স্নায়ু তন্ত্রের বিকাশ,রোগ প্রতিরোধক ব্যবস্থাপনাকে শক্তিশালী করা এবং শিশুর মধ্যে বিপাক ক্রিয়া বৃদ্ধি করা।

6.হৃদপিণ্ডের জন্য ভালতরমুজ পাকার সাথে এই ফলের মধ্যে লাইকোপেনের পরিমাণ বৃদ্ধি পায়।এটি একটি অ্যান্টিঅক্সিডেণ্ট যা হৃদপিণ্ডের জন্য দারুণ এবং শিশুদের মধ্যে কার্ডিওভাসকুলার স্বাস্থ্য নিয়ন্ত্রণে একটি বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

7.হজমে সহায়তা করে এই ফলটি আবার খাদ্য তন্তুতেও সমৃদ্ধ,যা শিশুদের কোষ্ঠকাঠিণ্য প্রতিরোধ করতে এবং পরিপাকে সাহায্য করে।

শিশুর জন্য তরমুজের আশ্চর্যজনক স্বাস্থ্যকর উপকারিতা

শিশুকে কীভাবে তরমুজ খাওয়াবেন?

আপনার বাচ্চাকে তরমুজ খাওয়ানোর সময় মনে রাখার কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় এখানে উল্লিখিত হল

  • তরমুজকে ছোট ছোট টুকরো করে কাটবেন
  • বিষম খাওয়া রোধ করার জন্য সমস্ত বীজগুলিকে ছাড়িয়ে নিন।
  • আপনার বাচ্চাকে সোজা হয়ে বসান।
  • তরমুজকে পিষে নিয়ে নরম করে নিন এবং আপনার সন্তানকে সেটি চামচ দিয়ে খাওয়ান।
  • যদি আপনার শিশু বেশ কিছুটা বড় হয়ে গিয়ে থাকে,তবে তাকে আপনি তরমুজকে ঘনকাকারে কাটে ফিঙ্গার ফুড বা আঙ্গুলে তুলে নিয়ে খেতে পারার খাবার হিসেবে খেতে দিতে পারেন।

শিশুদের তরমুজ দেওয়ার কোনও ঝুঁকি আছে কি?

শিশুদের মধ্যে তরমুজে এলার্জি খুবই দুর্লভ,কিন্তু এই ফলের অম্লীয় প্রকৃতির কারণে কিছু শিশুর মধ্যে শেষ পর্যন্ত র‍্যাশ দেখা দিতে পারে।শরীরে র‍্যাশ বেরোনো, ডায়রিয়া,নাক থেকে জল গড়ানো এবং বমি এই উপসর্গগুলি এই ধরনের এলার্জির অন্তর্গত।অন্য প্রধান ঝুঁকি হল বিষম খাওয়া, যা এর মধ্যস্থ বীজগুলির কারণে হয়ে থাকে,যা ফলটির মাংসল অংশটির উপর ছড়িয়া থাকে।

ছোট শিশুর জন্য কীভাবে একটা ভাল মানের তরমুজ নির্বাচন করবেন?

আপনার ছোট্ট সোনার জন্য তরমুজ চয়নের সময় এই বিষয়গুলি মাথায় রাখবেন।

  • তরমুজটি ভারী হওয়া উচিত,মসৃণ দেখতে হওয়া দরকার এবং উপরের অংশটা সামান্য চ্যাপ্টা হতে হবে।
  • যদি আপনি একটি পাকা তরমুজে চাটি মেরে দেখেন তবে সেটিতে একটা ফাঁপা আওয়াজ হওয়া উচিত।
  • যদি ফলটি পচে বা বেশী পেকে যায়,তবে সেটি বেশি নরম হয়ে যাবে এবং ফলটির পৃষ্ঠের উপর কালচে কাটা দাগ থাকবে।
  • সম্পূর্ণ রূপে পেকে যাওয়া তরমুজের ক্ষেত্রে মাঠের মাটির দাগগুলি ক্রমশ ক্রীম অথবা হলুদ রঙে রূপান্তরিত হবে।
  • কেটে রাখা,ক্যানজাত অথবা ঠাণ্ডায় মজুত রাখা তরমুজ আপনার শিশুকে দেওয়া এড়িয়ে চলুন যেহেতু এগুলি দূষিত হয়ে যাওয়ার একটা উচ্চ ঝুঁকি থাকে।

আপনি কীভাবে বাড়িতে তরমুজে মজুত রাখবেন?

বাড়িতে তরমুজ মজুত করার পদ্ধতিগুলি অনুসরণ করুন।

  • জলের ধারায় ভালোভাবে তরমুজটিকে ধুয়ে নিন এবং সেটিকে একটি পরিষ্কার শুকনো জায়গায় মজুত রাখুন যদি সেটি কাটা না হয়ে থাকে।
  • আর যদি সেটি কাটা হয় তবে সেক্ষেত্রে সেটিকে একটি বায়ুনিরুদ্ধ পাত্রের মধ্যে রেখে অথবা খাদ্যমানের উপযোগী প্লাস্টিকের দ্বারা ঐ কাটা অংশের উপরে ভাল করে মুড়ে নিয়ে সেটিকে ফ্রীজের মধ্যে মজুত রাখুন।
  • এটি কেটে ফেলার পর একদিনের বেশি ফ্রীজের মধ্যে মজুত রাখবেন না ।
  • আপনার সন্তানের ঠাণ্ডা লেগে যাওয়া থেকে তাকে রক্ষা করতে ফ্রীজ থেকে বের করে আনা তরমুজকে ঘরের তাপমাত্রায় নিয়ে আসুন আপনার সোনাকে সেটি পরিবেশন করার আগে।

শিশুদের জন্য তরমুজের রেসিপিগুলি

এখানে তরমুজের কিছু রেসিপি দেওয়া হল যেগুলি আপনার সন্তান উপভোগ করতে পারে।

1.তরমুজ পিউরিশিশুদের জন্য তরমুজ পিউরি বানানোর জন্য প্রয়োজন কাটা এবং পরিষ্কার করে বীজ ছাড়ানো তরমুজের টুকরো,যেগুলি এরপরে একটি ব্লেন্ডারের সাহায্যে ব্লেন্ড করে নিয়ে তমুজের পিউরিটি বানিয়ে নিতে হবে।আপনি যদি মিশ্রণটিকে ঘন করতে চান তবে আপনি এর সাথে আবার অন্য যেকোনও খাবার অথবা দানা শস্য যোগ করতে পারেন।তরমুজের স্বাদটিকে পূর্ণ করে তুলতে সবচেয়ে ভাল ফলগুলি হল অ্যাভোকাডো,কলা অথবা আম।

2.তরমুজ জুসআপনি আপনার সন্তানের জন্য খুব সহজেই তরমুজের জুস বানাতে পারেন এক কাপ মিষ্টি তরমুজের টুকরো দিয়ে যেগুলি কেটে রাখা এবং ভালোভাবে বীজ ছাড়ানো।এবার কাটা টুকরোগুলিকে একটি ব্লেন্ডারের সাহাজ্যে পিউরি বানিয়ে নিন এবং জুসের জন্য মিশ্রণটিকে ছেঁকে নিন আর তারপর তার মাংসল অংশটিকে চিপে নিংড়ে নিন।এই নির্যাসটি জুস হিসেবে আপনার সোনা মাণিককে সরাসরি খাওয়াতে পারেন এর দারুণ প্রভাব পাওয়ার জন্য।

3.ফিঙ্গার ফুড হিসেবে তরমুজতরমুজ কি শিশুদের জন্য ভাল?অবশ্যই,আর এর সাথে তরমুজের সুস্বাদু পদ সহজেই প্রস্তুত করা যায়।একটা সাধারণ ফিঙ্গার ফুড রেসিপি হিসেবে আপনার যা কিছু প্রয়োজন হবে সেগুলি হলঘনকাকারে কাটা এক কাপ তরমুজের টুকরো যেগুলি অবশ্যই বীজ ছাড়ানো হতে হবে।ঘনকাকারে কাটা টুকরোগুলি পাতলা পাতলা টুকরো করে কাটা হতে হবে যেগুলিকে ফল পিউরি বা দইয়ের মত পুষ্টিকর খাবারের সাথে ডুবিয়ে খাওয়ার জন্য পরিবেশন করা যায়।

অনেক স্বাস্থ্য সংস্থাই তরমুজের মধ্যে খুব সামান্যই ক্ষতিকারক পদার্থ পেয়েছে,যা শিশুদের জন্য খাদ্য চয়নের ক্ষেত্রে এটিকে সেরা করে তুলেছে।এছাড়াও এই ফলটিতে আছে উচ্চ পুষ্টি মান এবং এটিকে খাওয়ার জন্য দশ মিনিটের কম সময়ের মধ্যেই প্রস্তুত করা যেতে পারে।