শিশুর চুল বৃদ্ধির জন্য ১০টি টিপস

10 Tips for Baby Hair Growth

শিশু এবং বাচ্চারা আমাদের কাছে নিঃসন্দেহে ছোট্ট দেবদূতের মতো হয়, যাদের আমাদের কাছে উপহার দেওয়া হয় । তারা কিভাবে উপস্থিত হয় সেটা গুরুত্বপূর্ণ না, তারা নিশ্চিতভাবে আরাধ্য মিষ্টি চেহারার হয় । কিন্তু একজন বাবা-মা হিসাবে, আপনি আপনার সন্তানের মাথার অল্প চুলই একমাত্র জিনিস, যা আপনার আরাধ্য শিশুর সম্পূর্ণ ছবির মধ্যে অভাববোধ অনুভব করায় ।

aniview

এই কারণে এই নিবন্ধে, আমরা আপনার সন্তানেকে সুন্দর চুল পেতে সাহায্য করার জন্য কিছু টিপস বর্ণনা করেছি । তবে, এই টিপস ৬ মাস বা তার বেশি বয়সের শিশুদের জন্য ভালো, বলে পরামর্শ দেওয়া হয় । আপনার সন্তান যদি ছোট হয়, তবে সম্ভবত এই টিপস ব্যবহার করা আপনার পক্ষে সঠিক সময় নয় ।

কিভাবে আপনার শিশুর চুল দ্রুত বৃদ্ধি পাবে?

আপনার সন্তানের কম চুলের সমস্যার দিকে অগ্রসর হওয়ার বিভিন্ন উপায় রয়েছে, এর মধ্যে কয়েকটি নিচে দেওয়া হল ।

১) ভিটামিন ডি

গবেষণায় দেখানো হয়েছে যে, ভিটামিন ডি ভাল চুলের বৃদ্ধিতে সহায়তা করে এবং এটিকে চুলের যত্নের অনেক পণ্যে ব্যবহার করা হয় ।

২) একটি ক্রাডেল ক্যাপ ব্যবহার করুন

বেশিরভাগ সময় বাবা-মা যখন তাদের শিশুর মাথার পিছনে একটি টাকের প্যাচ দেখেন, তখন তারা চিন্তিত হন । কখনও কখনও, এটি একটি ভিন্ন রং-এরও হতে পারে, যাতে এটিকে একটি সংক্রমণ বলে আপনার মনে হতে পারে । কিন্তু এটির একটি সাধারণ কারণ আছে । যখন আপনি আপনার সন্তানকে তার ক্রাডেলে শুইয়ে দেন, তখন তার মাথার পিছনের অংশটি বিছানায় ঘষা খেতে পারে এবং এর ফলে চুল পড়ে যায় । কিন্তু আপনি শিশুকে নিচে রাখার আগে আপনার শিশুর মাথার উপরে একটি টুপি ব্যবহার করে এটি সহজেই এড়াতে পারেন ।

৩) আমন্ড বাদাম

আমন্ড বাদাম প্রোটিন এবং অপরিহার্য অ্যামিনো অ্যাসিডের একটি মহান উৎস । চুলের বৃদ্ধি বাড়ানোর জন্য প্রতিদিন আপনার বাচ্চা ২-৩টি আমন্ড বাদাম দেওয়ার চেষ্টা করুন ।

৪) লোহা বা আয়রন

আয়রন আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টি, যা চুলের বৃদ্ধিকে বাড়াতে সহায়তা করে । এটির সাহায্যে অসঙ্গতির কারণে চুল ভঙ্গুর হয়ে ভেঙে যাওয়া এড়ানো যায় । আপনার সন্তানের খাবারে লোহার সমৃদ্ধ উপাদানগুলি যেমন সবুজ শাক সবজি, মটরশুটি, কুমড়ো এবং আরও অনেক কিছু অন্তর্ভুক্ত করুন ।

৫) চিরুনি দিয়ে আঁচড়ানো

আপনার সন্তানের স্কাল্পের উপর আস্তে আস্তে একটি চিরুনি চালান, এতে চুল বৃদ্ধির উন্নতি করতে সাহায্য করতে পারেন । এটি স্কাল্পে রক্ত সঞ্চালন উন্নতও করতে পারে । আপনি চুল কাটে সেটাকে ঘন দেখাতে পারেন । যাইহোক, চুল কাটা বা ন্যাড়া করা চুলের বৃদ্ধির প্রতিশ্রুতি দেয় না । চুল কাটার শুধুমাত্র চুলকে ঘন দেখতে করে এবং সুদৃশ্য চেহারা দিতে সাহায্য করতে পারে ।

৬) চুল পরিষ্কার রাখুন

ময়লা জমা কমানোর জন্য এবং পরিষ্কার রাখার জন্য প্রতি ২-৩ দিনের অন্তর একবার শ্যাম্পু দিয়ে আপনার সন্তানের চুল ধোয়া ভালো । আপনার সন্তানের অস্বস্তি বোধ না হওয়ার জন্য, সর্বদা হালকা উষ্ণ জল ব্যবহার করুন, খুব গরম বা খুব ঠান্ডা যেন না হয় ।

৭) চুলে তেল দেওয়া

চুলে তেল দেওয়া এবং মালিশ করা রক্ত সঞ্চালন সক্রিয় রাখে এবং চুলের সুস্থ বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজনীয় আর্দ্রতা সরবরাহ করতে পারে । আপনি ভালো ফলের জন্য বিশুদ্ধ এবং জৈব নারকেল তেল ব্যবহার করতে পারেন । বাদাম খাওয়ানোর পাশাপাশি, আপনি পুষ্টি সরবরাহ করতে এবং রক্ত সঞ্চালনের উন্নতির জন্য আপনার সন্তানের স্কাল্পের উপর বাদাম তেল মালিশ করতে পারেন ।

৮) কন্ডিশনার ব্যবহার করুন

আপনার সন্তানের চুল খুব কোঁকড়ানো এবং আগোছাল হলে আপনি একটি কন্ডিশনার ব্যবহার করতে পারেন । একটি শিশু-বান্ধব কন্ডিশনার কেবল চুলকে সহজে পরিচালনা করতে সহায়তা করে না, তবে স্কাল্পের জন্য প্রয়োজনীয় পুষ্টি সরবরাহ করতে পারে । এটা জট অপসারণ করতে সাহায্য করে । ডিম, হিবস্কাস এবং দইয়ের মত কিছু প্রাকৃতিক কন্ডিশনার চেষ্টা করাও ভালো । এগুলিতে কোন ক্ষতিকারক রাসায়নিক নেই, যা শিশুর ক্ষতি করতে পারে ।

৯) ঘৃতকুমারী বা অ্যালোভেরা

সবাই জানে যে, অ্যালোভেরা ত্বকের জন্য বিস্ময়কর কাজ করে, কিন্তু চুলের বৃদ্ধির ক্ষেত্রে এটি ব্যাপকভাবে সাহায্য করতে পারে । আপনি আপনার সন্তানের স্কাল্পে সরাসরি অ্যালোভেরা জুস প্রয়োগ করতে পারেন অথবা এর ফল পেতে শ্যাম্পু বা কন্ডিশনারের সাথে মেশাতে পারেন ।

১০) বিভিন্ন পণ্য ব্যবহারের চেষ্টা করুন

চুল বিভিন্ন আকার এবং প্রকারের হয় । একটি শ্যাম্পু এবং কন্ডিশনার কোঁকড়ানো চুলের জন্য উপযুক্ত হলেও, এটি সোজা চুলের জন্য উপযুক্ত নাও হতে পারে । বিনা দ্বিধায় পরীক্ষা করে দেখুন এবং এমন একটি পণ্য খুঁজে বের করুন যা আপনার শিশুর চুলের জন্য পুরোপুরি উপযুক্ত । বিভিন্ন শ্যাম্পু এবং কন্ডিশনারের অল্প পরিমাণ নিয় চেষ্টা করুন এবং সপ্তাহে একবার চেষ্টা করুন । আপনি অবশেষে আপনার সন্তানের জ্য সবচেয়ে ভালটি জানতে পারবেন ।

বিবিধ টিপস

কিছু অন্যান্য অতিরিক্ত টিপস নিচে রইল:

  • আপনি যদি আপনার সন্তানের চুল বাঁধার সিদ্ধান্ত নেন, তবে নিশ্চিত করুন যে আপনি তাদের আলগাভাবে বাঁধুন । আঁটসাঁট পনি এবং বিনুনি চুলের গোঁড়ার ক্ষতি করে এবং চুল পড়তে পারে ।
  • আপনার সন্তান হাইড্রেটেড থাকা নিশ্চিত করতে যথেষ্ট জল পান করান । আপনি দিন একবার ফলের রস অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন ।
  • আপনার সন্তানের চুল যত্ন নিতে অন্যান্য ঘরোয়া প্রতিকারের জন্য সন্ধান করুন ।

প্রতিটি শিশু অনন্য এবং ভিন্ন । একইভাবে, তাদের চুলে আপনি যে কৌশলটি ব্যবহার করেন তার প্রতিক্রিয়া করার বিভিন্ন চাহিদা এবং বিভিন্ন উপায় রয়েছে । তাই যদি আপনি ভালো ফলাফল না পান, সেটি আর ব্যবহার করবেন না এবং আপনার সন্তানের খাবারের মধ্যে পরিবর্তন করুন । ধৈর্য ধরুন এবং ধীড়ে ধীরে চেষ্টা করুন, আপনি অবশেষে ফলাফল পেতে সক্ষম হবেন ।