শিশুর মল: কী স্বাভাবিক এবং কী স্বাভাবিক না

শিশুর মল: কী স্বাভাবিক এবং কী স্বাভাবিক না

আপনি যদি একজন নতুন পিতা-মাতা হন, তবে আপনি একমত হবেন যে নতুন পিতামাতা হওয়ার সবথেকে কম উত্তেজনাদায়ক অংশগুলির মধ্যে একটি হলো শিশুর মল ! তবুও, একটি শিশু থাকলে এটি একটি অপরিহার্য অংশ।

aniview

সব নতুন পিতামাতার ক্ষেত্রেই যেমন স্বাভাবিক যে যখন আপনি শিশুর প্রথমবার মলত্যাগ দেখেন, তখন আপনি কী স্বাভাবিক এবং কী স্বাভাবিক না তা নিয়ে হয়তো ভাবেন। আপনার সন্তানের মলদ্বার দিয়ে যা বের হয় সেই সম্পর্কে আপনার কখন উদ্বিগ্ন হওয়া উচিত তা বিশ্লেষণ করার জন্য চলুন আমরা এই বিষয়টিকে আরও বিশদভাবে অনুসন্ধান করি।

কত ঘন ঘন মলত্যাগ করা শিশুর জন্য স্বাভাবিক?

শিশুর বয়স ন্যুনতম কতবার মলত্যাগ করে শিশুর মলের গঠন এবং রঙ
1 দিন বয়সী 1 কালো এবং পিচের মতো
2 দিন বয়সী 0-1 কালো এবং পিচের মতো
3 দিন বয়সী 1 সবুজ রঙের, স্থানান্তরিত করা যায়
4 দিন বয়সী 4 হলুদ বা সবুজ রঙের
5 দিন বয়সী 3-4 আলগা প্রকৃতির, হলুদ রঙের
6 দিন বয়সী 3-5 আলগা প্রকৃতির, হলুদ রঙের
ছয় সপ্তাহের বেশী বয়সী প্রতি 7-10 দিনে 1 বার থেকে প্রতিদিন 3-5 বার বা এমনকি তার বেশী পর্যন্ত আলগা প্রকৃতির, হলুদ রঙের

শিশুদের মলত্যাগের ফ্রিকোয়েন্সিকে প্রভাবিত করে এমন অনেক কারণ রয়েছে, যেমন শিশুর বয়স এবং তার ডায়েট। যেসব শিশুদের শুধু বুকের দুধ খাওয়ানো হয় তাদের বোতলে দুধ খাওয়ানো শিশুদের চেয়ে বেশি ঘন ঘন মলত্যাগ হয়। এটি শিশুর সিস্টেমে কি চলছে তার সাথে সামঞ্জস্য রেখে এবং তার উপর নির্ভর করে ঘটে।

খুব অল্প বয়স্ক শিশুরা প্রতিবার খাওয়ানোর পর মলত্যাগ করে। সুতরাং, এর মানে হল শিশুরা এক দিনে ছয় থেকে দশ বার মলত্যাগ করে। যাইহোক, শিশুটি এক মাস বয়সী হওয়ার পরে, ফ্রিকোয়েন্সি সাধারণত হ্রাস পায়। আপনার শিশু দিনে চারবার পর্যন্ত মলত্যাগ  করতে পারে, আবার পরপর বেশ কয়েক দিন ধরে একবারও মলত্যাগ না করতে পারে। এটি বোতলে খাওয়া এবং বুকের দুধ খাওয়া উভয় শিশুদের জন্য প্রযোজ্য।

শিশুর মল কেমন হবে?

যেমনটি আগে উল্লেখ করা হয়েছিল, শিশুর মলের রঙ থেকে তার ঘনত্ব এবং মলত্যাগের ফ্রিকোয়েন্সি – এই সবকিছু শিশুর খাদ্য, বয়স এবং অন্যান্য বিষয়গুলির ওপর নির্ভর করবে। এত রকমের ঘনত্ব এবং রঙ থাকতে পারে বলে, আপনার শিশুর মলত্যাগের অভ্যাস সবকিছু ঠিক আছে কিনা সে বিষয়ে নতুন বাবা-মায়ের চিন্তা করা স্বাভাবিক। যতদিন এটি নিম্নোক্ত অবস্থাগুলি থেকে বিচ্যুত না হয়, ততক্ষণ আপনি এটিকে স্বাভাবিক হিসাবে বিবেচনা করতে পারেন।

মলের ঘনত্ব

একটি শিশুর ত্যাগ করা প্রথম মল সবুজ, পিচের মতো এবং চটচটে হবে। এইটিকে মেকোনিয়াম বলা হয়। একবার শিশু বুকের দুধ বা ফর্মুলা হজম করতে শুরু করলে, আপনি লক্ষ্য করবেন এই চটচটে তরল থেকে হালকা রঙের কম চটচটে ঘনত্বে রূপান্তরিত হয়েছে। একবার আপনার শিশু নবজাতকের পর্যায় অতিক্রম করলে মলের নরম বা ক্রিমের মতো ঘনত্ব স্বাভাবিক বলে মনে করা হয়। যদি মল সামান্য তরল হয়, সেটি স্বাভাবিক, বিশেষ করে যদি তাকে বুকের দুধ খাওয়ানো হয়। মায়ের খাবারের উপর নির্ভর করেও, রঙ পরিবর্তিত হতে পারে। আপনার শিশু কঠিন খাবার খেতে শুরু করলে, তার খাবার অনুযায়ী মলের পরিবর্তন হওয়া স্বাভাবিক। এতে হজম না হওয়া খাদ্যের দানাও থাকতে পারে এবং এটি একেবারে স্বাভাবিক।

মলের গন্ধ

বুকের দুধ খাওয়া শিশুদের মলের গন্ধ মা কী খাচ্ছেন তার উপর নির্ভর করবে। যখন আপনি তীব্র গন্ধ যুক্ত সঙ্গে খাবার খান, আপনার শিশুর মলে একই রকম গন্ধ হবে।

মলত্যাগের সময়

প্রাথমিক দিনগুলিতে, আপনার শিশুটি কখন মলত্যাগ করবে আপনি তার কোনো প্যাটার্ন নির্ধারণ করতে পারবেন না। এটি একটি চলমান ফ্যাক্টর হবে। যাইহোক, শিশুর পৌষ্টিক তন্ত্রের বিকাশ হলে, তার শরীর একটি প্যাটার্ন সেট করে। মলত্যাগের ধারাবাহিকতা এবং ফ্রিকোয়েন্সি আগে থেকে আরো বেশী করে বোঝা যাবে। কিছু শিশু খাওয়ার পরেই মলত্যাগ করে, অন্যরা দিনের নির্দিষ্ট সময়ে মলত্যাগ করে। সময়ের সাথে সাথে, আপনি এই ফ্রিকোয়েন্সিটি ট্র্যাক করতে এবং আশানুরূপ সময় মতো প্রস্তুত হতে পারেন।

আপনি যদি আপনার শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ান তাহলে আপনার শিশুর মল কেমন হবে?

বুকের দুধ খাওয়া শিশুরা সাধারণত নরম মলত্যাগ করে যা সাধারণত সবুজ এবং হলুদ রঙের মধ্যে পরিবর্তিত হয়। রঙ আপনার খাদ্যের অভ্যাসের উপর নির্ভর করে, এবং এর উপর ভিত্তি করে একেক দিন একেক রকম হতে পারে। এটি সাধারণত অতীব তরল মল হয় যা ডায়রিয়ার অনুরূপ, যেহেতু বুকের দুধে প্রচুর পরিমাণে তরল থাকে।

আপনি কখনও কখনও হয়তো ফেনাময় মল লক্ষ্য করবেন, যখন আপনার শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ানো হয়। এর মানে হল যে আপনার শিশু যথেষ্ট পরিমাণে মেদযুক্ত পিছনের-দুধ পাচ্ছে না এবং কেবলমাত্র প্রথম সম্মুখ-দুধ দিয়ে পেট ভরাচ্ছে। এই ক্ষেত্রে আপনার খাওয়ানোর প্যাটার্নটি পুনর্বিবেচনা করুন, এবং আপনার সন্তানের প্রয়োজনীয় পুষ্টি পাওয়ার জন্য প্রতিটি স্তনে যথেষ্ট সময় পায় তা নিশ্চিত করুন।

আপনি যদি ফর্মুলা খাওয়ান তাহলে আপনার শিশুর মল কেমন হবে?

বুকের দুধ খাওয়ানো শিশুদের তুলনায় ফর্মুলা-খাওয়ানো শিশুদের মল কঠিন ঘনত্বের হয়। তাদের মল বেশি চটচটে এবং সবুজ বা হলুদ রঙের তুলনায় বেশি বাদামী এবং কালো হয়, এর পাশাপাশি এটির সাধারণত একটি শক্তিশালী তীব্র গন্ধ থাকে।

বুকের দুধ থেকে বোতলে চলে যাওয়ার সময় মলে পরিবর্তন

আপনি যদি আপনার শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ানোর থেকে বোতলে খাওয়ানোতে নিয়ে যান, তার মলত্যাগের অভ্যাসের পাশাপাশি গন্ধ, রঙ এবং তার ত্যাগ করা মলের ঘনত্বে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন আশা করুন। রঙটি গাঢ় এবং আরও তীব্র হয়ে উঠবে, যখন এটি আরও তীব্রতর গন্ধ যুক্ত হয়ে যাবে।

ফর্মুলা খাওয়ানো শিশুদের ঘন ও চটচটে ধরনের মল হয় এবং পাশাপাশি মল ত্যাগ করতে যাওয়ার ফ্রিকোয়েন্সিও হ্রাস পায়।

কঠিন খাবার খাওয়ানো শুরু করার পর শিশুর মল

একবার আপনার শিশু কঠিন খাবার খাওয়া শুরু করলে, তার মলত্যাগের অভ্যাসে চূড়ান্ত পরিবর্তন হবে। যত ধরনের খাদ্যের সাথে তাদের পরিচিতি ঘটবে, তাদের মলেও তত পরিবর্তন হবে।

কঠিন খাবার খাওয়া শিশুদের মল, সাধারণত বুকের দুধ খাওয়া বা ফর্মুলা খাওয়া শিশুদের তুলনায় পুরু এবং গাঢ় রঙের হয়। ঘনত্ব চিনাবাদামের মাখনের অনুরূপ। রঙটি যা খাওয়া হচ্ছে উপর নির্ভর করে পরিবর্তিত হতে পারে। তাই, আপনার শিশুকে বিট খাওয়ালে লালচে মল বা পালং খাওয়ালে  শিশুর মল সবুজ দেখে চমকে উঠবেন না।

যেহেতু আপনার শিশুর পৌষ্টিক তন্ত্র এখনও বিকাশশীল, তাই আপনার শিশুর মলে হজম না হওয়া খাবারের টুকরো থাকা সম্ভব। আপনার শিশুর মলে মাঝেমধ্যে আংশিকভাবে হজম হওয়া খাবার উপস্থিত থাকা স্বাভাবিক। যাইহোক, যদি এই ঘটনাটি নিয়মিত ঘটে এবং তার ত্যাগ করা মলে যদি হজম না হওয়া খাবারের পরিমাণ অতিমাত্রায় থাকে তবে আপনার ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করা উচিত।

শিশুর কোন ধরণের মল স্বাভাবিক নয়?

স্বল্প সময়কালের মধ্যে নতুন খাবার খাওয়া শুরু করা এবং শিশুর উল্লেখযোগ্য বৃদ্ধির কারণে, শিশুদের মল স্বাভাবিক বা উদ্বেগের কারণ আছে কিনা তা পিতামাতার বুঝতে অসুবিধা হয়। সুসংবাদটি হ’ল যে, প্রায়ই শিশুর মল স্বাভাবিকের তুলনায় আলাদা হলেও উদ্বেগের কোন কারণ থাকে না। ব্যতিক্রম হল যখন আপনি অস্বাভাবিক কিছু দেখতে পান যেমন মিউকাস বা রক্ত যুক্ত শিশুর মল, তা ছাড়া অন্যান্য বেশিরভাগ ক্ষেত্রই স্বাভাবিক বা নিজের থেকেই সমাধান হয়ে যায়। আসুন যে সম্ভাব্য পরিবর্তনগুলি ঘটতে পারে এবং এগুলির জন্য আপনি কী করতে পারেন তা আমরা দেখে নিই।

কোষ্ঠকাঠিন্য

শিশুদের শক্ত মল অস্বাভাবিক নয়। আপনার শিশুর মল কঠিন পাথরের অনুরূপ হতে পারে এবং এটি ত্যাগ করার সময় শিশুদের পক্ষে খুব অস্বস্তিকর বা বেদনাদায়ক হতে পারে। এরকম ক্ষেত্রে, আপনার শিশুর সম্ভবত কোষ্ঠকাঠিন্য হয়েছে। কোষ্ঠকাঠিন্য যদি এক আধ বার হয়, তবে সেটি স্বাভাবিক। তবে, যদি ক্রমাগত উদ্বেগ সৃষ্টি করে এবং আপনার শিশুর যদি ক্রমাগত কোষ্ঠকাঠিন্য হয়, এটির বিষয়ে আরও অনুসন্ধান করা উচিত। এটি শিশুর খাদ্যের কিছু অংশের প্রতি সংবেদনশীলতার কারণে হতে পারে এবং চিকিৎসার প্রয়োজন হতে পারে। আপনার শিশু যদি এখনও কঠিন খাবার খাওয়া শুরু না করে থাকে, তবে প্রথমে আপনার ডাক্তারের সাথে পরামর্শ না করে শিশুকে জল দেবেন না।

ডায়রিয়া

বুকের দুধ খাওয়া শিশুদের মল পাতলা হয় এবং এটি উদ্বেগের নয়। তবে, যদি মলটি এতই পাতলা হয় যে এটি ডায়পারে আটকে থাকতে পারে না, তবে আপনার সন্তানের সংক্রমণ বা এলার্জি থাকতে পারে। এই ধরনের ডায়রিয়াটি বিপজ্জনক, কারণ এতে আপনার শিশু ডিহাইড্রেটেট হয়ে যেতে পারে এবং মূল্যবান পুষ্টির ক্ষয় হতে পারে। যদি আলগা মল একদিনে বেশ কয়েকবার হয় এবং এক দিনের বেশি চলতে থাকে তবে ডাক্তারের কাছে যান। আপনার শিশু ডায়রিয়ায় আক্রান্ত থাকাকালীন মলের সাথে রক্ত থাকলে আপনাকে বিলম্ব না করে চিকিৎসা করাতে হবে।

সবুজ মল

সবুজ মল সাধারণত আপনার ডায়েটের কোন কিছুর জন্য হয়ে থাকে, যদি আপনার শিশু বুকের দুধ খায়, বা তার নিজের ডায়েটের জন্য হতে পারে যদি সে কঠিন খাবার খায়। যাইহোক, যদি আপনি উজ্জ্বল সবুজ মল দেখতে পান তবে এর মানে হল আপনার শিশু বুকের দুধ থেকে যথেষ্ট পিছনের দুধ পাচ্ছে না। আপনার বুকের দুধ খাওয়ানোর রুটিন ঠিক করুন এবং এই সমস্যাটি দূর হয়ে যাবে।

কালো মল

আপনার শিশু যদি কোনো লৌহ সম্পূরক খায় তাহলে তার কালো মল হওয়া স্বাভাবিক। আপনি যদি আপনার শিশুকে এরকম কোনো সম্পূরক না দেন, তাহলে সেটা ভাবনার বিষয়। কালো মল হজম হয়ে যাওয়া রক্তের কারণে দেখা যায়। এটা আপনার ফেটে যাওয়া স্তনবৃন্তের রক্ত শিশুর গিলে ফেলার মতো সাধারণ কিছুর জন্য হতে পারে বা উপরের অন্ত্র নালীর সংক্রমণের মত গুরুতর কিছুর জন্য হতে পারে।

মলে রক্ত

শিশুর রক্ত যুক্ত মল খুব ভীতিকর। এটি একবারের জন্য ঘটতে পারে বা এমনকি পৌষ্টিক নালীতে সংক্রমণের কারণেও ঘটতে পারে। রক্তাক্ত মল ছোট শিশুদের দুধে অ্যালার্জির কারণে সৃষ্ট হতে পারে। বিট বা টমেটো রসের মতো কিছু আপনার শিশু খেয়ে ফেললেও, এই বিবর্ণতা হতে পারে। রক্তযুক্ত মলে কালচে বা উজ্জ্বল রঙের রক্ত থাকতে পারে এবং এই রঙই সমস্যার ধরন নির্দেশ করে। সুতরাং, যখনই আপনি আপনার শিশুর মলে রক্ত দেখতে পাবেন, তখনই দ্রুত পরীক্ষা করাবেন।

খুব ফ্যাকাশে মল

ফ্যাকাশে মল লিভারের অনুপযুক্ত কার্যকলাপের লক্ষণ, কারণ মলের রঙ পিত্তের রঙ থেকে আসে। যদি আপনার বাচ্চার মলের রঙ ক্রমাগত খুব ফ্যাকাশে থাকে, তবে ডাক্তারের মতামত নেওয়াই বুদ্ধিমানের কাজ।

সাদা মল

চকের মত সাদা মলকে অস্বাভাবিক বলে মনে করা হয় এবং তার জন্য অবিলম্বে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া প্রয়োজন। এটি সাধারণত লিভার বা গল ব্লাডারের সমস্যার সাথে যুক্ত এবং সংকটজনক অবস্থা তৈরি হওয়া এড়াতে হলে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে। যদি আপনি এটি দেখেন, তবে ডাক্তারের সাথে দেখা করতে দেরী করবেন না।