সাধারণ নবজাতক শিশুর যত্ন সম্পর্কিত১৫ টি শ্রুতিকথা আলোচনা

সমস্ত পিতামাতা সবচেয়ে ভাল উপায়ে তাদের শিশুর যত্ন নিতে চান। আপনার শিশুর যত্ন নেওয়ার ক্ষেত্রে আপনি আপনার পরিবারের গুরুজনদের বা আপনার বন্ধুদের দেওয়া সব পরামর্শ শোনেন। ফল স্বরূপ, আপনি গুরুজনদের পরামর্শ দেওয়া বহু-পুরাতন শ্রুতিকথাগুলিও বিশ্বাস করতে শুরু করেন, এবং ভাবেন যে এগুলি আমাদের সন্তানের ভালো করে। কিন্তু আমাদের সমাজে অনুসৃত সমস্ত বহু-পুরাতন শ্রুতিকথা এবং অনুশীলনগুলির পিছনে সত্যটি অবশ্যই আপনার জানা উচিত। আপনি যদি কিছু বিশ্বাসের পিছনে কারণ জানতে চান, তাহলে এই নিবন্ধটি পড়ুন। এই নিবন্ধটি আপনাকে সাধারণ নবজাতক শিশুর যত্ন সম্বন্ধে শ্রুতিকথাগুলি এবং যত্ন সম্পর্কিত প্রকৃত তথ্য সরবরাহ করবে।

aniview

নবজাতকের যত্ন সম্পর্কিত শ্রুতিকথা এবং বাস্তব ঘটনা

আপনার গর্ভাবস্থার যাত্রা শুরু হওয়ার সাথে সাথেই আপনার চারপাশের সবাই স্বাস্থ্যকর এবং ঝামেলামুক্ত গর্ভাবস্থার জন্য আপনাকে পরামর্শ দিতে শুরু করে। বাচ্চার জন্ম হলেই, তাঁদের লক্ষ্য আপনার থেকে সরে গিয়ে বাচ্চার উপর চলে যায়। যাই হোক, এর থেকে আপনার প্রশ্ন জাগতে পারে যে হৃদয় না মন কাকে অনুসরণ করা উচিৎ। নিজের চিন্তাকে অশ্রদ্ধা করার কিছু নেই কারণ নিম্নোক্ত বিভাগে আমরা নবজাতকের যত্ন সম্পর্কিত কিছু বিখ্যাত শ্রুতিকথার সম্বন্ধে অনুসন্ধান করব:

1. শ্রুতিকথা

তেল ম্যাসেজ পুরানো স্কুল বা পুরাতন ফ্যাশনের।

বাস্তব ঘটনা: তেল ম্যাসেজ খুব দীর্ঘ সময়ের থেকে ভারতীয় সংস্কৃতিতে রয়েছে, কিন্তু এর মানে এই নয় যে এই বহু পুরানো অভ্যাসটি বদলে ফেলা উচিত বা এটা ছাড়াই চলতে পারে। তেল দিয়ে একটি শিশুকে ম্যাসেজ করার সুপারিশ করা হয় কারণ এটি আপনার শিশুর শরীরে রক্ত আরও ভালোভাবে সঞ্চালন করতে সহায়তা করে এবং এটি ঘুম আনতেও সহায়তা করে।

2. শ্রুতিকথা

বাচ্চাদের দাঁত বেরোলে জ্বর হতে পারে।

বাস্তব ঘটনা: শিশুদের দাঁত বেরোনোর প্রক্রিয়া মোটামুটি 6 মাস বয়স থেকে শুরু হয় এবং 24 মাস বয়স পর্যন্ত চলতে থাকে। ছোট বাচ্চাদের রোগপ্রতিরোধক ব্যবস্থা দুর্বল এবং তাই তারা সহজে সংক্রমণ বা অন্যান্য অসুস্থতার শিকার হয়। আপনার শিশুর যদি জ্বর থাকে এবং একই সময়ে তার দাঁত বেরোনো শুরু হয়, তাহলে তার অর্থ এই নয় যে দাঁত বেরোনোর জন্য জ্বর হয়েছে। আপনার বাচ্চার দাঁত বেরোলে তার শরীরের তাপমাত্রা সামান্য বাড়তে পারে, কিন্তু সেটাকে গ্বর বলা যায় না। তবে, যদি আপনার শিশুর জ্বর থাকে, তবে এটি দাঁত বেরোনোর জন্য বলে মনে করবেন না, তাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যান, তিনি আপনাকে সর্বোত্তম পরামর্শ দেবেন।

3. শ্রুতিকথা

দীর্ঘ সময়ের জন্য বাচ্চা বহন করলে বা ধরে থাকলে বাচ্চার ক্ষতি করতে পারে।

বাস্তব ঘটনা: একটি শিশুর একমাত্র যোগাযোগের উপায় তার কান্না। কান্না একটি বাচ্চার পিতামাতার মনোযোগ পাওয়ার উপায় এবং সেটি তার চাহিদাগুলি পূরণ করে। এছাড়াও, প্রাথমিক মাসগুলিতে, একটি শিশুর আরও চামড়া-থেকে-চামড়ার যোগাযোগ প্রয়োজন এবং অবিরত সান্ত্বনার প্রয়োজন। সুতরাং, আপনি যদি আপনার বাচ্চাকে আপনার কোলে নিয়ে যান তবে এতে কোনও ভুল নেই এবং আপনি তাকে নষ্ট করছেন না। যাই হোক, আপনাকে সবসময় কোলে রাখতে হবে না।

4. শ্রুতিকথা

বুকের দুধ খাওয়ানো মায়েদের সহজপাচ্য খাবার খাওয়া উচিত।

বাস্তব ঘটনা: বুকের দুধ খাওয়ানো মা হিসাবে আপনাকে কিছু খাবার এড়াতে বলা যেতে পারে যা থেকে এলার্জি হতে পারে, যেমন বাদাম, দুগ্ধ, সোয়া, চীনাবাদাম, শেলফিশ, মাছ প্রভৃতি। তবে এছাড়া, আপনি যেকোনো খাবার খেতে পারেন, কারণ এটি বুকের দুধের মাধ্যমে আপনার শিশুর বিভিন্ন খাবারের স্বাদ বিকাশে সহায়তা করে। তবে, আপনাকে অ্যালকোহল, অতিরিক্ত পরিমাণে ক্যাফিনযুক্ত পানীয়, এবং অন্যান্য ক্ষতিকারক খাবারগুলি কঠোরভাবে এড়াতে হবে। কয়েকদিনের জন্য মশলাযুক্ত খাবার এড়াতে হবে কিন্তু আপনাকে সহজপাচ্য খাবারে আটকে থাকতে হবে না।

5. শ্রুতিকথা

যে সব মা-রা তাদের সন্তানদের সাথে প্রসবের পরই একত্রিত হন, তারা বাচ্চাদের সাথে বেশি ভালো বন্ধনযুক্ত হন।

বাস্তব ঘটনা: একটি শিশুর জন্মের পর পরই মায়ের উষ্ণতা এবং স্পর্শ অনুভব করা গুরুত্বপূর্ণ, তবে এটি একটি অকালিক প্রসব বা একটি সি-সেকশনের ক্ষেত্রে সম্ভবপর নাও হতে পারে। কিন্তু আপনার কিছুদিনের বা ঘন্টার বিচ্ছেদ আপনার জীবনের দীর্ঘবন্ধনে প্রভাব ফেলবে না এবং আপনার শিশুর সাথে আপনার বন্ধনকে শক্তিশালী করার জন্য যথেষ্ট সময় পাবেন।

6. শ্রুতিকথা

বোতলে-খাওয়ানো শিশুরা বেশি স্বাস্থ্যবান।

বাস্তব ঘটনা: শিশুর জীবনের প্রথম ছয় মাসের জন্য একজন মায়ের দুধ তার পুষ্টির একমাত্র উৎস হতে হবে। যাই হোক, কিছু কারণে যদি আপনি আপনার শিশুকে বুকের দুধ না খাওয়াতে পারেন, আপনাকে আপনার শিশুকে ফরমূলা দুধ দিতে বলা হবে। এটি স্বাস্থ্যকর হতে পারে তবে এটি মায়ের দুধের চেয়ে স্বাস্থ্যকর নয়। বুকের দুধ পুষ্টিতে ভর্তি এবং এতে অ্যান্টিবডিগুলি অনেক পরিমানে থাকায় শক্তিদায়ক হয় যার সাথে ফরমূলা দুধ পেরে ওঠে না।

7. শ্রুতিকথা

কাজল লাগালে শিশুর চোখ স্বাস্থ্যকর এবং আরো সুন্দর হবে।

বাস্তব ঘটনা: শিশুর চোখে কখনো কাজল বা কোনো প্রসাধনী প্রয়োগ করা উচিত নয়। বাচ্চাদের চোখ কাজল প্রয়োগ করলে তার চোখ স্বাস্থ্যকর বা সুন্দর হয় না। একটি শিশুর চোখ এবং ত্বক সংবেদনশীল, তাই একটি শিশুর জন্য কোনো প্রসাধনী ব্যবহার না করা ভাল। এমনকি গৃহজাত কাজল এড়িয়ে যাওয়া উচিত, কারণ এটি থেকে শিশুর এলার্জি প্রতিক্রিয়া বা সংক্রমণ হতে পারে।

8. শ্রুতিকথা

গ্রাইপ ওয়াটার বা জনমঘুট্টি বাচ্চাদের হজমের জন্য এবং পেটে ব্যাথার জন্য ভাল।

বাস্তব ঘটনা: নবজাতক শিশুদের পাচনতন্ত্র দুর্বল, এবং তাদের সংবেদনশীল পেটের জন্য একমাত্র ভাল জিনিস তাদের মায়ের দুধ। অনেকে মনে করেন যে এক মাস পর তাদের গ্রাইপ ওয়াটার দেওয়া যেতে পারে, তবে আসলে ছয় মাস বয়স পর্যন্ত বাচ্চাদের গ্রাইপ ওয়াটারের মতো বাইরের কোনও জিনিস না দেওয়া ভাল।

9. শ্রুতিকথা

একটি নবজাতক শিশুকে বাড়িতে ভিতরে রাখা উচিত।

বাস্তব ঘটনা: একটি নবজাতক শিশু সংবেধনশীল এবং তাই তার অতিরিক্ত যত্ন এবং মনোযোগ প্রয়োজন, তাই তাকে বাইরে না নিয়ে যেতে পরামর্শ দেওয়া হয়। কিন্তু আবহাওয়ার অবস্থা অত্যন্ত কঠোর না হলে আপনার বাচ্চার বাইরে যাওয়া এবং তাকে তাজা বাতাসে শ্বাস নিতে দেওয়াতে কোনো ক্ষতি নেই। আপনার বাচ্চাকে বাইরে নিয়ে যাওয়া তার রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরির অন্যতম দুর্দান্ত উপায়।

10. শ্রুতিকথা

দীর্ঘ অবিচ্ছিন্ন ঘুমের জন্য ঘুমোনোর সময়ের বোতলের খাবারে চাল শস্যদানা যোগ করা আবশ্যক।

বাস্তব ঘটনা: একটি শিশুকে শুধু বুকের দুধ দেওয়া উচিত এবং বোতলে করে তাকে খাওয়ানো এড়িয়ে যাওয়া উচিত, যদি না বা যতক্ষণ না আপনার সেটি ছাড়া উপায় থাকে না। কিন্তু আপনি যদি ফর্মুলা দুধ দেন, তবে আপনার বাচ্চার খাদ্যে যে কোন ধরনের শস্যদানা যোগ করার আগে আপনাকে কমপক্ষে 4 থেকে 5 মাস অপেক্ষা করতে হবে না হলে এটি শিশুদের স্থূলতা এবং অন্যান্য মেডিকেল সমস্যার মতো চিকিৎসা সংক্রান্ত জটিলতার দিকে পরিচালিত করতে পারে।

11. শ্রুতিকথা

বাচ্চাদের জলও খাওয়ানো উচিত।

বাস্তব ঘটনা: না, ছয় মাস বয়সের আগে বাচ্চাদের জল দেওয়া উচিত নয় কারণ শিশুর তৃষ্ণা ও ক্ষুধা রোধের জন্য বুকের দুধ যথেষ্ট পরিমাণে জল সরবরাহ করে।

12. শ্রুতিকথা

বেসন এবং হলুদ গুঁড়া একটি শিশুর সংবেদনশীল চামড়ার জন্য সাবানের থেকে ভাল।

বাস্তব ঘটনা: প্রাকৃতিক উপাদান যে বেশি ভালো তাতে কোন সন্দেহ নেই, তবে এই প্রাকৃতিক উপাদানগুলিও শিশুদের মধ্যে এলার্জি প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করতে পারে। একটি শিশুর জন্য সবচেয়ে নিরাপদ বিকল্প হল ডাক্তারের দ্বারা প্রস্তাবিত পণ্য। আপনাকে অবশ্যই হাইপো অ্যালার্জেনিক পণ্যগুলি বেছে নিতে হবে, যেগুলি ব্যবহার করে দেখা হয়েছে এবং পরীক্ষিত হয়েছে এবং একটি শিশুর নরম ত্বকের জন্য উপযুক্ত।

13. শ্রুতিকথা

শিশুদের ঘুম ভালো হয় যদি তাদেরকে পেটের উপর ভর করিয়ে শোয়ানো হয়।

বাস্তব ঘটনা: বাচ্চাদের সবসময় তাদের পিঠের উপর ভর করে ঘুমাতে হবে এবং কখনো পেটের উপর ভর করে নয়। পেটের উপর ভর করে শিশুদেরকে ঘুমাতে দিলে তার SIDS বা আকস্মিক শিশু মৃত্যুর সিন্ড্রোম এর ঝুঁকি থাকে । সুতরাং, সব সময় তাকে তার পিঠের উপর ভর করে ঘুমাতে দিন।

14. শ্রুতিকথা

আপনি অবিলম্বে আপনার শিশুকে ভালোবেসে ফেলবেন।

বাস্তব ঘটনা: আপনি আপনার শিশুকে দেখামাত্রই তার জন্য ভালোবাসার কোন দৃঢ় অনুভূতি না পেলে আপনার অপরাধবোধ হতে পারে। কিন্তু সত্য হল, এই ভাবে অনুভব করা খুবই স্বাভাবিক। কিছু মা থাকতে পারেন যারা মুহূর্তে তাদের বাচ্চাদের সঙ্গে তাত্ক্ষণিক সংযোগ অনুভব করতে পারেন, কিন্তু আপনি যদি তা না করেন সেটা ঠিক আছে, কারণ সময়ের সাথে সাথে ভালোবাসা এবং সংযোগ গরে উঠবে।

15. শ্রুতিকথা

নবজাতক শিশুরা দেখতে পারে না।

বাস্তব ঘটনা: এটি একটি অদ্ভুত শ্রুতি কথা কারণ শিশু তার জন্মের ঠিক পরেই দেখতে পারে। তার দৃষ্টি আবঝা বা অস্পষ্ট হতে পারে, কিন্তু সে নিশ্চিত করে দেখতে পারে। এবং তার দৃষ্টি বড় হওয়ার সাথে বাড়ে। সুতরাং, এই শ্রুতিকথায় বিশ্বাস করবেন না।

এগুলি নবজাতক শিশুদের যত্ন সম্পর্কিত কিছু সাধারণ শ্রুতিকথা ছিল। আশা করি, আমরা সেগুলিতে সন্তোষজনকভাবে আলোকপাত করতে পেরেছি। এখন আপনি জানেন যে সব কিছুর একটি কারণ আছে, তাই একটি কারণ ছাড়া কিছুই বিশ্বাস করবেন না।