সিজারিয়ান পদ্ধতিতে প্রসবের পর স্নান- সাবধানতা এবং উপকারিতাগুলি

সিজারিয়ান পদ্ধতিতে প্রসবের পর স্নান- সাবধানতা এবং উপকারিতাগুলি

সাধারণ ও স্বাভাবিক প্রসবের তুলনায় সিজারিয়ান পদ্ধতি একটি প্রসবের ক্ষেত্রে আরোগ্যলাভ করতে স্বভাবতই কিছুটা বেশি সময় লাগে।হাসপাতাল থেকে বাড়িতে ফেরার পর আপনি হয়ত একটি উষ্ণ স্নান সেরে ফেলতে চাইতে পারেন।এখানে দেওয়া হল সেক্ষেত্রে আপনার যা যা মনে রাখা প্রয়োজন।

aniview

সিজারিয়ান পদ্ধতিতে বা অস্ত্রপচারের মাধ্যমে প্রসবের পর আপনি কি স্নান করতে চান?

সিজারিয়ান পদ্ধতিতে প্রসব করার পর আপনি একটি হালকা স্নান সেরে নিতে পারেন।তবে মাথায় রাখবেন যে, চেঁড়া জায়গাটিকে ঘিরে তার আশেপাশের অঞ্চলে যেন কোনওভাবেই আঁচড়ে বা চুলকে অথবা ঘষে ফেলবেন না।সেই জায়গাটির উপর দিয়ে কেবল স্নানের জলটা গড়িয়ে যাওয়ার কাজটিই চলতে পারে।আর আপনার ক্ষতটির উপর যদি ব্যান্ডেজ করা থাকে, তবে সেক্ষেত্রে আপনার স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ হয়ত আপনাকে স্নান করার আগে আরও কয়েকটা দিন অপেক্ষা করার কথা বলতে পারেন।

সিজারিয়ান পদ্ধতিতে প্রসবের পর কখন আপনি প্রথম স্নান করতে পারেন?

সিজারিয়ান পদ্ধতিতে অস্ত্রপচারের মাধ্যমে প্রসব ক্রিয়াটি সম্পন্ন হওয়ার পরে পরেই স্নান করাএকেবারেই না।কাটা জায়গাটি নিরাময় হতে মোটামুটি প্রায় এক সপ্তাহ মত সময় নেবে।সেলাইটা যদি ভিজে যায়, সেক্ষেত্রে ক্ষতটি সংক্রামিত হতে পারে এবং তা আরও গুরুতর জটিল সমস্যার দিকে পরিচালিত করতে পারে।ক্ষত জায়গাটিকে ধুয়ে পরিষ্কার করার আগে সেই ক্ষতটি ঢাকা দেওয়া নির্বীজন স্ট্রিপসগুলি নিজে থেকেই উঠে যাওয়া বা খুলে পড়ে যাওয়া প্রয়োজন, তবে কোনওরকম টানাটানি বা জোরপূর্বক কোনও কিছু করে নয়।সবচেয়ে ভাল এ ব্যাপারে আপনার ডাক্তারবাবুর পরামর্শ নিন।

সিজারিয়ান পদ্ধতির পর স্নান করার জন্য আপনার অবলম্বন করা উচিত যে সাবধানতাগুলি

অস্ত্রপচারের মাধ্যমে প্রসবের পর স্নান করার আগে নিম্নোলিখিত বিষয়গুলি মাথায় রাখুনঃ

  1. আপনি চেঁড়া ক্ষত অঞ্চলটির উপর দিয়ে এমনি হালকা করে জল গড়িয়ে যেতে দিতে পারেনতবে সেই অঞ্চলে কোনও হ্যান্ড সাওয়ার ব্যবহার করা এড়িয়ে চলুন অথবা সেই ক্ষতটির উপর সরাসরি জল ঢালা থেকে বিরত থাকুন।
  2. ক্ষত অঞ্চলটিকে জীবাণু থেকে মুক্ত রাখতে একটি অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল সাবানকে বেছে নিতে পারেন।হালকা নাড়াচাড়া করে সাবানের থেকে তার ফেনাটিকে নিয়ে ব্যবহার করুন।তবে ক্ষত জায়গাটির উপর সাবানটিকে সরাসরি একেবারেই ঘষবেন না।
  3. স্নান করার সময় হালকা উষ্ণ গরম জল ব্যবহার করুন।প্রচণ্ড ঠাণ্ডা কিম্বা গরম জল সমস্যার সৃষ্টি করতে পারে।
  4. কোনওরকম সুগন্ধি পারফিউম বা স্নানের তেল ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন।

সিজারিয়ান পদ্ধতির পর স্নান করার উপকারিতাগুলি

  • একটা সুন্দর এবং উষ্ণ স্নান মানসিক এবং শারীরিক শিথিলকরণ নিয়ে আসেআপনার সারা দেহের ত্বকের উপর ঈষদুষ্ণ জল এবং হালকা সাবানের স্পর্শটি অস্ত্রপচারের মাধ্যমে সিজারিয়ান প্রসবের সাথে আপনার মধ্যে আসা অস্বস্তি এবং অবসাদকে দূর করে আপনার মনে ও শরীরে এক অভাবনীয় অনুভূতি নিয়ে আসতে পারে।
  • উষ্ণ জল পেলভিক পেশীগুলিকে শিথিল করতে সহায়তা করে।আর এই সময়ের একটি স্নান আবার আপনার নিরাময় প্রক্রিয়াটিতেও গতি আনে।
  • কিছু মহিলা আবার এই সময় হেমারয়েডস বা অর্শে ভুগে থাকেন যা প্রসবের পর আরও প্রদাহযুক্ত, অস্বস্তিকারক হয়ে ওঠে এবং ফুলেও যায়।একটা উষ্ণ স্নান এই ফুলে যাওয়াকে হ্রাস করতে এবং জ্বলনকে লাঘব করতে সহায়তা করতে পারে।

অস্ত্রপচারের মাধ্যমে সিজারিয়ান প্রসবটি সর্বদা আপনার প্রথম পছন্দ নাও হতে পারে কিন্তু কিছু বিশেষ পরিস্থিতির জন্য তা আপনার ক্ষেত্রে আবশ্যক হয়ে উঠতে পারে।তা সত্ত্বেও, আপনার সাহস বজায় রাখা, উচ্চ মাত্রায় প্রফুল্লতার সাথে থাকা এবং আপনার নজর শিশুর স্বাস্থ্যকর বৃদ্ধির দিকে অব্যাহত রাখা ও তার সঠিক বিকাশ সুনশ্চিত করাই হল সঠিক অর্থে মাতৃত্ব সূচনার মূল চাবিকাঠি।