শিশুদের ডায়রিয়া

শিশুদের ডায়রিয়া

ডায়রিয়া হ’ল যখন একটি শিশু প্রায়শই খুব পাতলা, মিউকাস-ভরা মল ত্যাগ করে। এটি সাধারণত একটি ব্যাকটেরিয়া বা ভাইরাল সংক্রমণ বা নির্দিষ্ট খাবারের প্রতি সংবেদনশীলতার কারণে হয়। কোনো নবজাতক ডিহাইড্রেটেড হলে তার ডায়রিয়া খুব গুরুতর হতে পারে। যদি ডিহাইড্রেশন শুরু হয়, আপনার সন্তানকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার প্রয়োজন হতে পারে। বলা হয় যে, আপনি কিছু সতর্কতা অবলম্বন করে ডায়রিয়া এবং ডিহাইড্রেশন এড়াতে পারেন।

aniview

কারণসমূহ

বাচ্চাদের ডায়রিয়া হওয়ার অনেক কারণ রয়েছে, এবং এদের মধ্যে বেশিরভাগই হল জীবাণুর সংক্রমণ। শিশুদের পাতলা মলের প্রধান কারণগুলি হল:

1. ব্যাকটেরিয়াসংক্রমণ

সালমোনেলা, স্ট্যাফাইলোকক্কাস, শিজেলা, ক্যাম্পাইলোব্যাক্টরএবংই. কোলাই-রমতোকিছুসংক্রামকব্যাকটেরিয়াথেকেডায়রিয়াহতেপারে।যদিসংক্রমণটিব্যাকটেরিয়াঘটিতহয়, তবেউপসর্গগুলিরমধ্যেথাকবেপেটেরব্যথা, জ্বরএবংরক্তযুক্তমলসহগুরুতরডায়রিয়া।

2. ভাইরাসঘটিতসংক্রমণ

ভাইরাসশিশুদেরডায়রিয়াঘটাতেপারেযারউপসর্গহয়বমিভাব, জ্বর, ঠাণ্ডারঅনুভূতি, পেটব্যথাএবংযন্ত্রণা।এইভাইরাসগুলিরমধ্যেকয়েকটিহলরোটাভাইরাস, ক্যালিসিভাইরাস, এডিনোভাইরাস, অ্যাস্ট্রোভাইরাসএবংইনফ্লুয়েঞ্জা।

3. প্যারাসাইটবাপরজীবি

পরজীবি জাতীয় প্রাণীরাও ডায়রিয়া ঘটাতে পারে। উদাহরণস্বরূপ, গিয়ার্ডিয়াসিস একটি মাইক্রোস্কোপিক পরজীবী দ্বারা সৃষ্ট। সাধারণত লক্ষণগুলি হল গ্যাস, ডায়রিয়া, পেট ফাঁপা এবং আঠালো মল। যেখানে অনেক শিশুকে একসাথে পরিচর্যা করা হয় সেখানে পরজীবি সংক্রমণগুলি সহজেই ছড়িয়ে পড়ে।

4. খাবারেএ্যালার্জি

একটি খাদ্য এলার্জি হল যেখানে শিশুটির ইমিউন সিস্টেম সাধারণত একটি অ-ক্ষতিকারক খাদ্য প্রোটিনের প্রতি প্রতিক্রিয়া জানায় যার ফলে গ্যাস, পেটে ব্যথা, ডায়রিয়া এবং মলে রক্তের মতো লক্ষণগুলি দেখা দেয়। সবচেয়ে সাধারণ খাদ্য অ্যালার্জি সৃষ্টিকারী পদার্থগুলির মধ্যে একটি হল দুগ্ধজাত প্রোটিন যা দুগ্ধজাত দ্রব্য এবং দুগ্ধজাত দ্রব্য যুক্ত শিশু ফরমূলায় পাওয়া যায়।

5. খাদ্যঅসহিষ্ণুতা

এলার্জি থেকে ভিন্ন, খাদ্য অসহিষ্ণুতা হল সেই ধরনের প্রতিক্রিয়া যা ইমিউন সিস্টেমের সাথে জড়িত না। সবচেয়ে সুপরিচিত হল ল্যাকটোজ অসহিষ্ণুতা। যদিও শিশুদের মধ্যে অস্বাভাবিক, ল্যাকটোজ অসহিষ্ণুতা এনজাইম ল্যাকটেজের কম উৎপাদন দ্বারা সৃষ্ট হয়। গরুর দুধ ও দুগ্ধজাত পণ্যগুলিতে বিদ্যমান চিনির ল্যাকটোজ হজম করার জন্য ল্যাকটেজ প্রয়োজন। লক্ষণগুলি হল ডায়রিয়া, পেট ফাঁপা, পেটে খিঁচুনি এবং গ্যাস।

6.অ্যান্টিবায়োটিক

যখন শিশুদের অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়ার পর ডায়রিয়া হয়, তখন এর কারণ হ’ল ওষুধগুলি ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়ার সাথে অন্ত্রের ভালো ব্যাকটেরিয়াগুলিকেও মেরে ফেলে।

7. অত্যধিককৃত্রিমরস

শিশুদেরকে প্রচুর পরিমাণে মিষ্টি পানীয় দিলে যার মধ্যে ফ্রুকোজ এবং কৃত্রিম মিষ্টি যেমন সরবিটল থাকে,যা থেকে পেট খারাপ করে এবং ডায়রিয়া হতে পারে।

শিশুর ডায়রিয়ার লক্ষণ এবং উপসর্গ

নতুন জন্মানো বাচ্চারা ঘন ঘন মলত্যাগ করে এবং বুকের দুধ খাওয়ানো হলে মল সাধারণত নরম হয়। শিশুকে যদি ফর্মুলা-খাওয়ানো হয়, তবে মল শক্ত হতে পারে।

ডায়রিয়ার উপসর্গগুলির মধ্যে রয়েছে:

শিশুর ডায়রিয়ার লক্ষণ এবং উপসর্গ

  • শিশু স্বাভাবিকের তুলনায় বেশী ঘন ঘন মল ত্যাগ করে
  • মলগুলি পাতলা, গন্ধযুক্ত এবং মিউকাসে ভরা হতে থাকে
  • শিশুর জ্বর থাকে এবং ওজন কমছে বলে মনে হয়
  • শিশু কান্নাকাটি করে এবং খিদে হারায়
  • ডিহাইড্রেশনের লক্ষণ, যেমন চোখ বসে যাওয়া, শুকনো মুখগহ্বর, গাঢ় হলুদ প্রস্রাব এবং কাঁদার সময় চোখের জল না আসা
  • জ্বর এবং বমি

চিকিৎসা

শিশুটির পেট স্থিতিশীল হতে এবং ডায়রিয়ার পর্ব শেষ হতে কয়েক দিন সময় লাগে। সঠিক হাইড্রেশন এবং পুষ্টি এই প্রক্রিয়াকে ত্বরান্বিত করতে পারে। শিশুদের ডায়রিয়ার জন্য কয়েকটি ঘরোয়া প্রতিকার এখানে দেওয়া হল:

1. প্রচুরপরিমাণেপানীয়দিন

ডিহাইড্রেশন হ’ল ডায়রিয়ার সবচেয়ে বিপদজনক দিক এবং সময়মত চিকিৎসা না করলে শিশুকে হাসপাতালে পর্যন্ত পাঠাতে হতে পারে। শরীর থেকে বেরিয়ে যাওয়া তরল প্রতিস্থাপন করা হল ডায়রিয়া চিকিৎসার প্রথম পদক্ষেপ। শিশুটি দুধ বা ফরমূলা পান করে বমি না করলে, এটি প্রায়ই খাওয়াতে থাকুন। একটু বড় বাচ্চাদের জল, ইলেক্ট্রোলাইট দ্রবণ, অথবা একটি ওরাল রিহাইড্রেশন সলিউশন (ওআরএস) অল্প অল্প করে দেওয়া যেতে পারে। নরম নারকেলের জলও ইলেক্ট্রোলাইটের সমৃদ্ধ উৎস। আপনার শিশুকে নরম নারকেলের জল কিছুক্ষণ অন্তর অন্তর খাওয়ান।

2. চিনিযুক্তপানীয়এড়িয়েচলুন

শিশুকে কোনো মিষ্টিযুক্ত পানীয় বা পাতলা না করা ফলের রস দেবেন না। এগুলির মধ্যেকার চিনি অন্ত্রের মধ্যে আরও বেশী জল টেনে নেয় ফলে শিশুটির ডায়রিয়া আরো খারাও অবস্থায় পৌঁছায়।

 চিনিযুক্তপানীয়এড়িয়েচলুন

3. শিশুদেরঅতিসুষমআহারদিন

যে বাচ্চারা ইতিমধ্যেই হাতে করে বা টেবিলে খাওয়া শুরু করেছে, তাদের ডায়রিয়ার সময়ও কঠিন খাবার দেওয়া যেতে পারে। একটি ভালো, স্বাস্থ্যকর খাদ্য শিশুর প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদানগুলি ফিরিয়ে এনে এবং সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করে ডায়রিয়ার পর্বকে সংক্ষিপ্ত করে তুলতে পারে। রুটি, সিরিল, চাল, দই, ফল এবং সবজির মতো খাবার প্রতিদিন ঘন ঘন কম পরিমাণে দেওয়া যেতে পারে।

4. দইখাওয়ান

দইখাওয়ান

দই অন্ত্রের জন্য একটি অপরিহার্য ব্যাকটেরিয়া ল্যাকটোব্যাসিলাস-এ সমৃদ্ধ। দই খাওয়ালে ডায়রিয়ার সময় হারানো এই ব্যাকটেরিয়ার ফ্লোরা পুনস্থাপিত হয় এবং এইভাবে অন্ত্র স্থিতিশীল হয়। শিশুকে সুগন্ধযুক্ত নয়, ও মিষ্টিযুক্ত নয় এমন সম্পূর্ণ দুধের দই খাওয়ান।

5. নিজেনিজেওষুধঠিককরবেননা

শিশু বিশেষজ্ঞের সাথে পরামর্শ না করে বাচ্চাকে কোনো ভেষজ বা অপরীক্ষিত ওষুধ দিতে যাবেন না। এছাড়াও, আপনার ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া 12 মাসের কম বয়সী শিশুদের ডায়রিয়া-বিরোধী ওষুধ দেবেন না।

কিভাবে ওআরএস দ্রবণ দিয়ে আপনার সন্তানকে রিহাইড্রেট করবেন?

ওরাল রিহাইড্রেশন সলিউশন শিশুর হারানো জল এবং ইলেক্ট্রোলাইটগুলি পুনরুদ্ধারের সবচেয়ে সহজ উপায় এবং সমস্ত ওষুধের দোকানে এবং ডাক্তারের কাছে পাওয়া যায়। 8 চা চামচ চিনি এবং এক চা চামচ লবণ উষ্ণ-ঠান্ডা জলে দ্রবীভূত করে বাড়ীতেও এটি প্রস্তুত করা যেতে পারে।

  • শিশুকে রিহাইড্রেট করার জন্য, চার ঘণ্টা সময় ধরে অল্প করে ওআরএস বার বার খাওয়ানো দরকার
  • শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ানো হলে, তাদের খাওয়ানোর মধ্যবর্তী সময়ে মাঝে মাঝে ওআরএস দিতে হবে এবং অন্য কোন পানীয় ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া দেওয়া যাবে না
  • শিশুকে ওআরএস দেওয়া অবস্থায় অন্য কোনও খাবার খাওয়াবেন না

প্রতিরোধ

শিশুদের সব ধরণের সংক্রমণ প্রতিরোধ করার জন্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা হল মূল কথা। শিশুদের পরিচর্যায় স্বাস্থ্যবিধি সম্মত পদ্ধতি অনুসরণ করে তাদের ডায়রিয়ার ঝুঁকি অনেকটা হ্রাস করা যেতে পারে।

  • সংক্রমণ সৃষ্টিকারী জীবাণুগুলি সহজেই হাত থেকে মুখে চলে যায়। অতএব, শিশুদের ধরার আগে জীবাণুমুক্তকারী সাবান দিয়ে পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে হাত ধুয়ে নিন
  • রান্নাঘরের সরঞ্জাম পরিষ্কার রাখা প্রয়োজন, এবং খাদ্য স্বাস্থ্যকরভাবে প্রস্তুত করা আবশ্যক
  • ডায়রিয়ার একটি পর্ব চলাকালীন এবং এটি সমাপ্ত হওয়ার 48 ঘন্টা পর পর্যন্ত শিশুকে কোনো খেলার মাঠ বা নার্সারিতে নিয়ে যাবেন না
  • আপনারশিশুরহাতগুলিপ্রায়শইঅ-অ্যালকোহলিকটিস্যুদিয়েপরিষ্কারকরুন, বিশেষকরেযখনতারাহামাগুড়িদিয়েবেড়ায়
  • মাংস ভাল করে রান্না করা উচিত এবং ফল এবং সবজি খাওয়ানোর আগে পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে ধুয়ে ফেলা আবশ্যক
  • বাথরুমের পৃষ্ঠতল ব্যাকটেরিয়া বৃদ্ধি এড়াতে পরিষ্কার রাখা আবশ্যক

বুকের দুধ খাওয়া বাচ্চাদের কি পাতলা মল হওয়ার ঝুঁকি কম থাকে?

হ্যাঁ, জল পান করা থেকে এবং বোতলে খাওয়ানো থেকে হওয়া সংক্রমণের সম্ভাবনা বুকের দুধ খাওয়ানো বাচ্চাদের কম থাকে। এছাড়াও, বুকের দুধ খাওয়া শিশুর ডায়রিয়া কম সময় ধরে চলে কারণ বুকের দুধে কিছু উপাদান রয়েছে যা জীবাণুদের বৃদ্ধি এবং কাজকে বাধা দেয় এবং শিশুর অনাক্রম্যতাকে বাড়িয়ে তোলে।

আপনার শিশুকে কি প্রাপ্তবয়স্কদের ডায়রিয়া-বিরোধী ওষুধ দেওয়া নিরাপদ?

12 মাসের কম বয়সী শিশুদের, ডায়রিয়া-বিরোধী ওষুধগুলি দেওয়া নিরাপদ নয়, বিশেষ করে যেগুলি প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য বানানো । এগুলির গুরুতর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হতে পারে।

শিশুকে কি কঠিন খাবার দেওয়া ঠিক আছে?

হ্যাঁ। যদি আপনার শিশু কঠিন খাদ্য খাওয়ার মতো যথেষ্ট বড় হয়, তাহলে এটি চালিয়ে যাওয়া ঠিক আছে যদি না বার বার বমি হয়। যদি না হয়, তাহলে কলা, আপেল পিউরী, চাল এবং শুকনো টোস্টের মতো কঠিন খাবার 6 মাসের বেশি বয়সী বাচ্চাদের দেওয়া যেতে পারে। টলমল পায়ে হাঁটা বাচ্চাদেরকে, অল্প পরিমাণে শর্করা যুক্ত খাবার যেমন স্যুপ, আলু মাখা, পাস্তা, সিদ্ধ ভাত এবং মুগ ডাল দেওয়া যেতে পারে। শিশুটির ডায়রিয়ার পর্ব চলাকালীন ক্ষুধা কম থাকলেও, এটি দেওয়া যেতে পারে, যতক্ষণ শিশুটি ডিহাইড্রেশন এড়াতে পর্যাপ্ত তরল পান করছে।

আপনার শিশুর কখন চিকিৎসার সাহায্য প্রয়োজন?

আপনার শিশু 3 মাসের কম বয়সী হলে এবং ডায়রিয়া থাকলে আপনার ডাক্তারকে কল করুন। যদি শিশুর বয়স 3 মাসের বেশি হয় এবং 24 ঘণ্টার পরেও অবস্থার উন্নতি হচ্ছে না বলে মনে হয়, তবে ডাক্তারকে ডাকা উচিত। ডায়রিয়ার সাথে নিম্নলিখিত উপসর্গগুলি থাকলে চিকিৎসার সহায়তা প্রয়োজন:

  • ঘন ঘন বমি
  • কয়েক ঘন্টার মধ্যে 3-4 বার জলীয় মল
  • ডিহাইড্রেশনেরলক্ষণযেমনশুকনোমুখগহ্বর, অশ্রুছাড়াইকাঁদতেথাকা, চোখবসেযাওয়া, পুরো6 ঘন্টায়একটাওন্যাপিনাভেজা, মাথারসামনেরদিকেরঅংশ(মাথারনরমজায়গা) বসেযাওয়া
  • হাত এবং পা বিবর্ণ হয়ে যাওয়া
  • 24 ঘন্টার বেশী সময় ধরে জ্বর
  • দুধ, জল বা অন্য কোনো তরল পান করতে না চাওয়া
  • মলে রক্ত থাকা
  • পেট ফুলে যাওয়া

শিশুদের মধ্যে ডায়রিয়া খুবই ঘটে। আপনার শিশুর ডায়রিয়া হলে, শিশুটি যেন ডিহাইড্রেটেড না হয় তা নিশ্চিত করতে হবে। কিছু সহজ ঘরোয়া প্রতিকার ডায়রিয়া প্রতিরোধ এবং চিকিৎসা করতে সাহায্য করতে পারে।