আপনার 6 সপ্তাহ বয়সের শিশু — বিকাশ, মাইলস্টোন এবং পরিচর্যা

আপনার 6 সপ্তাহ বয়সের শিশু — বিকাশ, মাইলস্টোন এবং পরিচর্যা

প্রতিটা মা একই রকম অনুভব করেন শুধুমাত্র যখন মনে হয় বাচ্চা সহজাত সকল উপাদানগুলি সহজ ভাবে গ্রহণ করবেএবং এটা হল সেই একটা ধাপ যখন সেটা হতে পারেএই 6 সপ্তাহ জুড়ে আপনার শিশু আপনার সাথে একটা ভালো পরিমাণ সময় কাটায় এবং আপনার সাথে অভ্যস্থ হয়ে ওঠেআভ্যন্তরীণ ভাবে ঘটে গেছে এরকম আরো অনেক কিছুই থাকে কিন্তু এই সময় থেকে তাদের বৃদ্ধি আগের থেকেও আরও অনেক বেশী হতে থাকে

aniview

আপনার 6 সপ্তাহের শিশুর বিকাশ

সপ্তাহ পার করার সাথে সাথে আপনার 6 সপ্তাহের শিশুর বৃদ্ধির দৌড় এখন আরো বেশী স্পষ্ট হবেসে এখন থেকে, অন্যদের থেকে আপনাকে পার্থক্য করতে শিখবে এবং আপনার মুখ দেখতে পাওয়া বা আপনার শব্দ শুনতে পাওয়ার মাধ্যমে একটা বিশ্বাসের বন্ধন তৈরী হবেএটা হল আবার সেই সময় যখন আপনাকে প্রকৃতপক্ষে চিনতে পারার ও আপনাকে দেখার পর হাসতে শেখার সম্ভাবনা প্রবল থাকেএমনকি এই সময় যদি সেটা নাও ঘটে,এটি তার কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই ঘটবেআপনার শিশু আপনার সাথে আরো বেশী সময় কাটাতে পছন্দ করবে এবং মুখ দিয়ে নানান ধরণের মিহি শব্দ ও আওয়াজ সৃষ্টি করে আপনি তার কাছাকাছি আছেন কিনা সেটি বুঝতে চেষ্টা করার জন্য

6 সপ্তাহের শিশুর মাইলস্টোন গুলি

বয়সের এই ধাপ থেকেই ডাক্তারবাবুর কাছে নিয়ে গিয়ে আপনার শিশুর সমস্ত রকম পরীক্ষা নিরীক্ষা করার সময় সূচি তৈরি করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণযেহেতু পূর্ববর্তী বৃদ্ধি এই সময়কাল থেকে অসাধারণ হয়ে উঠতে থাকে,তাই কিছু ক্ষেত্রে 6 সপ্তাহের শিশুর ওজন শেষবার পরীক্ষা করা থেকে প্রায় ½ – 1 কিলোগ্রাম মত বেড়ে যেতে পারেআপনার ডাক্তারবাবু সেটি পুনঃনিরীক্ষণ করবেন এবং ওজন বৃদ্ধি যে স্বাস্থ্যকর ও সেটি যে নির্দিষ্ট ট্র‍্যাকের মধ্যেই রয়েছে এই ব্যাপারটি নিশ্চিত করবেনশরীরের সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ জয়েন গুলো যেমন পা, উরুসন্ধি, এবং এমনকি মেরুদণ্ডও ভালোভাবে পরীক্ষা করাতে হবে এবং হৃদস্পন্দনও পর্যবেক্ষণ করাতে হবেআপনার ডাক্তারবাবু হয়ত আপনাকে দৈনন্দিন সময়সূচির উপর কিছু প্রশ্ন করবেন এবং কীভাবে সেই সমস্যা সামলিয়ে চলার চেষ্টা করছেন তাও জানতে চাইতে পারেনএই একই রেখায়,এটিও প্রয়োজনীয় যে,একজন মা হিসাবে আপনি নিজেরও চেকআপ করিয়ে নেবেন

এখন থেকে জীবনের এই ধাপটি হল খুবই গুরুত্বপূর্ণআপনার শিশুর শ্রবণ ক্ষমতার বিকাশ সম্পূর্ণ ভাবে হয়ে যায়সে পূর্বের তুলনায় বিভিন্ন শব্দগুলিকে আরো অনেক বেশী ভালো করে বুঝতে পারবে এবং বিভিন্ন কণ্ঠস্বরের মধ্যে ভালোভাবে পার্থক্য করতে শিখবেআপনি আপনার সন্তানের জন্য এমন কিছু হালকা সঙ্গীত বাজাতে পারেন যেগুলি তাকে শান্ত করবেও আনন্দ দেবে,চরম বা অস্বাভাবিক জোরে কিছুই চালাবেন নাএরপরে,সেই গানের উৎসটিকে আপনার শিশুর কাছে নিয়ে যেতে পারেন এবং লক্ষ্য করতে পারবেন তাকে খুবই মনযোগ দিয়ে সেটি শুনতে অথবা প্রশংসা করার মতই তাকে দেখতে পারেন মুখে কু আওয়াজ করতে

এই সময় থেকেই তাদের মুখের অভিব্যক্তি এবং যোগাযোগ করার ক্ষমতা একটি নতুন উচ্চতায় পৌঁছাতে শুরু করে যেহেতু এই সময় থেকেই তারা হাসতে শেখা শুরু করে এবং মুখের মাংসপেশীগুলো ব্যবহার করে অন্যান্য অভিব্যক্তি বোঝানোর জন্য এই সময় পর্ব থেকেই আপনার শিশুর ভক্তিভাজন মুখটি হয়ে ওঠে হাসিখুসিতে ঝলমলেসে তার ওষ্ঠদ্বয়কে স্পন্দিত করতে পারে, আপনার দিকে অবাক দৃষ্টিতে তাকিয়ে অভিব্যক্তি প্রকাশ করতে পারে, অথবা এক সময়ে সে তার প্রতিক্রিয়াশীল একটা ভ্রূ প্রসারণের মাধ্যমে কিছু কাব্যিক মুহূর্ত সৃষ্টি করতে পারে

খাওয়ানো

বয়সের এই ধাপে ছয় মাসের শিশুর খাওয়ার সামান্য পরিবর্তন ঘটেতাদের খাবারের চাহিদা আর আগের মত অত বারে বারে থাকে না এবং সেক্ষেত্রে সারা দিনের মধ্যে তার খাবার সময়কে ছড়িয়ে ভাগ করে দেওয়ার একটি ন্যায্য সুযোগ থাকেসেক্ষেত্রে একটি সময়সূচি নির্ধারণ করা অনুরূপ হতে পারেআপনার শিশু এটিও বুঝতে শিখতে পারে যে আপনার একটার বেশী স্তন রয়েছে, এবং তাই সে তখন অন্য স্তন থেকে খাওয়ার জন্য চেষ্টা করেএটি এমনকি খাওয়ানোর মধ্যবর্তী সময়েও ঘটতে পারে,যখন সে হঠাৎ করে অন্য স্তন থেকে খাওয়া শুরু করে তার খাওয়ার প্রক্রিয়াটা বজায় রাখতে চায়যদি তার ক্ষুধা বৃদ্ধি পায়, স্বাভাবিকের তুলনায় সে বেশী দুধ খেতে চায় এবং এই কারণের জন্যই সে অন্য স্তনের প্রতি আগ্রহী হয়ে ওঠে

খাওয়ানো

বোতলে খাওয়া শিশুদের ক্ষেত্রে,আপনি লক্ষ্য করতে পারবেন যে,তাদের শরীরে খাদ্যের চাহিদা বেড়ে যাওয়া থেকেই তাদের মধ্যে ফরমূলা দুধ খাওয়ার প্রবণতা বেড়ে যায় এবং তা স্বাভাবিকের তুলনায় অনেকটা তাড়াতাড়ি হয়এই সময়ে, ফরমূলা দুধের প্যাকে উল্লেখিত পরিমাণের তুলনায় সামান্য কিছু বেশী পরিমাণেই আপনার বাচ্চা খেতে পারে অথবা কিছুটা কমও খেতে পারেএটি সম্পূর্ণরূপে ঠিক আছে এই ট্র‍্যাকে যত বেশী দিন তাদের ওজন বৃদ্ধি পেতে থাকে

ঘুমানো

অন্য একটা বিষয় যেটাতে ভোগার সম্ভাবনা থাকে তা হল ঘুমের পরিমাণ একটি ছয় সপ্তাহের শিশুর ঘুমের মধ্যে পূর্বের তুলনায় ব্যাপক পরিবর্তন দেখা যায়প্রথমের দিকে যখন আপনার শিশু ঘুমাতো সে তখন কোনও রকম বিরক্ত না করেই টানা দীর্ঘ সময় ঘুমাতো,সে উঠে পড়তে পারে ½ ঘন্টার মধ্যে বা তার কিছু বেশী সময় পরে,হয় খাওয়ার জন্য অথবা এই সময়ে খেলার জন্যযদিও এটি স্বাভাবিক হতে পারে,তবুও আপনার শিশুকে পুনরায় ঘুমের মধ্যে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ,যেহেতু প্রতিদিন তাদের নির্দিষ্ট কয়েক ঘন্টা ঘুমানো প্রয়োজন

তাদের পরিচর্যা করার অথবা নাড়িয়ে দেওয়ার পূর্বে তাদের ঘুমকে একটা অভ্যাসে পরিণত করুন এবং খাওয়ার পরেই অবিলম্বে ঘুমাতে না দেওয়া স্থির করুনতাদের মধ্যে ঘুমের অভ্যাসটা অনুমান করতে চেষ্টা করুন খুব সহজভাবে তাদের দোলনার মধ্যে শুইয়ে দেওয়ার মাধ্যমে

ব্যবহার

যেহেতু আপনার বাচ্চা এতগুলো সপ্তাহের মধ্যে আয়তনে বহুলাংশে বৃদ্ধি পায়, তাই আপনার বাচ্চার জন্য বেশ কিছু নতুন জামা কাপড়ের প্রয়োজন হতে পারে যেহেতু তারা শীঘ্রই বেড়ে উঠবেকিছু বাচ্চার আবার অন্যদের তুলনায় ওজন বৃদ্ধি বা হ্রাসের প্রবণতা থাকেসুতরাং এটিকে তুলনামূলক অনুশীলন করবেন নাযত দীর্ঘ সময় জুড়ে ওজন বৃধি স্বাস্থ্যকর সীমারেখার মধ্যে থাকে আপনার বাচ্চা ভালো আছে

আপনার বাচ্চা যদি এখন থেকে আপনাকে দেখতে পায় তবে আপনাকে দেখে চিনতে পারার ও আপনাকে দেখে তার হাসতে শুরু করার ভালো একটি সম্ভাবনা থাকেএমনকি একটা সাধারণ হাসিও আপনাদের দুজনের মধ্যে একটা শক্তিশালী দৃঢ় বন্ধন গড়ে তুলতে সাহায্য করে

কান্না

এই ধাপে বাচ্চাদের ঘুম থেকে জেগে যাওয়ার পরিমাণ বেড়ে যাওয়া মনে হতে পারে এই সময়েই তাদের কান্নার উদ্রেক হতে পারে যদি তারা উদাস হয় অথবা তাদের পর্যাপ্ত ঘুম না হয়ে থাকেএকটি ছয় সপ্তাহের শিশুর ঘুমের সময়সূচিতে যদি ব্যাঘাত ঘটে তারা পুনরায় ঘুমিয়ে পড়তে সমস্যায় পড়ে,যা তাদের মধ্যে বিরক্তি সৃষ্টি করে এবং উদাস করে তোলে

এই সময় বাইরের লোকেদের তাদের খেলনা গুলির প্রতি উদ্দীপনা তাদের মধ্যে বিরক্তির সৃষ্টি করেঅথবা দীর্ঘ সময় ধরে সেগুলির সাথে সংযুক্ত থাকার কারণে তাদের মধ্যে নিজেরদের দ্বারাই বিরক্তির উদ্রেক হয় যার ফল স্বরূপ তারা তারস্বরে কেঁদে ওঠেএইরকম পরিস্থিতিতে তাদেরকে খাওয়ানোর চেষ্টা করে বা তাদের সাথে খেলা করেও তাদের শান্ত করা নাও যেতে পারে এবং তারা অনবরত কাঁদতে থাকবেআপনার বাচ্চাকে আপনার কোলে তুলে নিয়ে তাকে নিয়ে হাঁটাচলা করুন, তার সাথে অন্যরকম কথপোকথনের মাধ্যমে তাকে ভুলিয়ে শান্ত করার চেষ্টা করুন,এবং তাকে আলতো করে জড়িয়ে ধরলে,তাকে খুব দ্রুত শান্ত করা যেতে পারে এবং তাকে ঘুম পাড়িয়ে দিতে পারেন অথবা এভাবেই তার কান্না থামাতে পারেন

কান্না

আবার এই সময় প্রচন্ড খিদে অথবা যন্ত্রণাও তাদের বিপর্যস্ত হওয়ার ও অসম্ভব কান্নাকাটি করার কারণ হয়ে উঠতে পারেআপনার শিশুর এই কান্নাকাটি করার পিছনে কারণটিকে খুঁজে বের করাটা আপনার একটা বিশেষ কাজ হয়ে উঠতে পারেশুধুমাত্র একাধিক ক্রিয়াকলাপের মাধ্যমে আপনি এই পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে পারেন এবং বাচ্চাকে আরো ভালো একটি অনুভূতি প্রদান করতে পারেন

6 সপ্তাহের শিশুর পরিচর্যার পরামর্শ

  • আপনার বাচ্চাটিকে সঠিক ভাবে খাওয়ান যদি আপনার বাচ্চা বুকের দুধ খায় তাহলে তা কমান আবার যদি সে বোতলের দুধ খায় তা বাড়ান।
  • এটা নিশ্চিত করুন যে আপনার শিশু যেন যথেষ্ট পরিমাণ ঘুমায় যখন সে সবিরাম ঘুম চক্রের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে।যদি সে জেগে ওঠে তাহলেও তাকে আবার ঘুম পাড়িয়ে দিন।
  • যদি আপনার বাচ্চাটি খুব জোড়ে একটানা চিৎকার করে অনেক্ষণ ধরে না কাঁদে তবে আপনার চিন্তার কোনো কারণ নেই। সামান্য কাঁদলে তাকে জড়িয়ে ধরে একটু আদর করে শান্ত করুন।
  • সব সময় সঠিক স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন
  • আপনার শিশুর শ্রবণ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য তার কানের কাছে খুব আস্তে দিনের কোনো নির্দিষ্ট সময়ে গান বাজান এবং তাকে সেটা উপভোগ করতে দিন।

পরীক্ষা নিরীক্ষা এবং টিকাকরণ

6 সপ্তাহ বয়স দুটি বড় টিকা দেবার সময়।

প্রথমটা হল একটা ট্রিপিল ভ্যাক্সিন DPT, অথবা ডিপ্থেরিয়া, পারটুসিস এবং টিটেনাস ভ্যাক্সিন।এই ভ্যাক্সিনটি হুপিং কাশি সহ শ্বাসকার্যের বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধ করে।এই সময়েই প্রথম টিটেনাস শট দেওয়া হয়।

দ্বিতীয় টিকাটি হল IPV পোলিও ভ্যাক্সিন।এই দুটো ভ্যাক্সিন প্রয়োগের জন্য আপনার বাচ্চার সামান্য জ্বর হতে পারে,অথবা যে জায়গায় ভ্যাক্সিন দেওয়া হয়েছে সেখানটা ফুলে যেতে পারে অথবা সামান্য ব্যাথা হতে পারে।

খেলাধূলা এবং অন্যান্য ক্রিয়াকলাপ

নিজে থেকে কথা বলার ব্যাপারে আপনার বাচ্চাটি কিন্তু অনেক ছোট।যাইহোক তার দৃষ্টিশক্তি অনেকটা বেড়েছে এবং সে বিভিন্ন বস্তু মনে রাখতে পারে এবং একই ধরনের শব্দ করতে পারে।এই ব্যাপারে খবরের কাগজের প্যমফ্লেট ,পুরানো খাদ্যশস্যের বাক্স বা ফর্মুলা দুধ এই ব্যাপারে কাজে লাগতে পারে।এই সময়ে পুরানো কমিকস যাতে বড় ছবি আছে তার সাথে পরিচয় ঘটান।আপনার সোনাটিকে বিভিন্ন রঙ দেখান আর তাদের নাম গুলো পরিষ্কার করে জোরে জোরে বলুন।সহজ শব্দ যেমন নীল বা হলুদ বলুন আর লক্ষ্য করুন আপনার বাচ্চাটি সেই শব্দ গুলোকে আওড়াচ্ছে কিনা।আপনি ওর দোলনার উপরে জন্তু জনোয়ারের ছোট্ট প্রতিকৃতি টাঙিয়ে দিতে পারেন।

সে এই সময় তার পেটের ওপর ভড় দিয়ে একটু বেশী সময় ধরে থাকতে পারে। আপনি তাকে ছোটো বেডশীটের অপর শুইয়ে দিন।যখন সে তার মাথা বা হাত দুটোকে ব্যবহার করতে থাকে তখন আপনি বেড শীটটা ধীরে ধীরে আপনার দিকে টানুন। এটা তাকে সচলতার একটা ধারণা দেবে এবং এই ধরণের ক্রিয়াকলাপ তার নাড়াচড়ায় সাহায্য করবে।

খেলাধূলা এবং অন্যান্য ক্রিয়াকলাপ

প্রয়োজনে ডাক্তারের সাথে আলোচনা করুন

যদি 6 সপ্তাহ বয়সী শিশুরা মনমরা থাকে তাহলে বুঝতে হবে তার শরীর খারাপ হয়েছে।

তার দেহের তাপমাত্রা যদি 100.5 ডিগ্রি বা তার বেশী হয়ে যায় তাহলে সেটা অবশ্যই ডাক্তারবাবুকে জানান।তাকে আপনি নিজে থেকে কোনো ওষুধ খাওয়াতে যাবেন না সেটা খুব ঝুঁকির হয়ে যাবে।একই সঙ্গে আপনার শিশুর খাওয়ার ইচ্ছা যদি বহুল বেশী পরিমাণে কমে যায় তাহলে সে খেতে চাইবে না,তার অলসতা দেখা যাবে,সে অসুখী থাকবে এই অবস্থায় আপনি ডাক্তারবাবুর কাছে নিয়ে গিয়ে পরীক্ষা করান তার কোনো কঠিন সমস্যা হয়েছে কিনা।

প্রায় দেড় মাস আপনার শিশুর সাথে কাটাবার পর আপনার সাথে তার বন্ধন প্রতি দিন বাড়তে থাকবে।আপনার সাথে তার যোগাযোগ বাড়ার সাথে সাথে আপনার কাজের সময় তালিকাতেও সে স্থান করে নেবে।আপনাকে নিজের জন্যে কিছুটা সময় বের করে নেবার সাথে সাথে আপনার সন্তানের জন্যে তার চারপাশে একটা সুন্দর পরিবেশ গড়ে তুলতে হবে।